কলামিস্টদের নাম
এমাজউদ্দীন আহমেদ এর কলামগুলো

মুসলমানিত্ব ও বাঙালিত্ব
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
৬ এপ্রিল, ২০১৩
কোনো কোনো শিক্ষাবিদ একুশের চেতনার স্বরূপ নির্ধারণ করতে গিয়ে বলেছেন, বাঙালিত্ব ও মুসলমানিত্বের মধ্যে রয়েছে সহাবস্থানগত দ্বন্দ্ব। কেউ বলেছেন, মুসলমানিত্বের সৃষ্ট প্রতিবন্ধকতাকে অতিক্রম করে বাঙালিত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে একুশের ভাষা আন্দোলন। কারও মতে, মুসলমানিত্বের মধ্যে রয়েছে সাম্প্রদায়িকতা, একুশের চেতনা অসাম্প্রদায়িক। তাদের বক্তব্য শোনার সুযোগ হয়নি। পত্রপত্রিকায় যেটুকু প্রকাশিত হয়েছে তারই ভিত্তিতে এ সম্পর্কে কটি কথা বলতে চাই। বাঙালিত্ব ও মুসলমানিত্বের মধ্যে সহাবস্থানগত দ্বন্দ্বের কথা এসব পণ্ডিত বলছেন এখন। অনেক আগে এ কথা বলেছেন খ্যাতনামা ঔপন্যাসিক শরৎচন্দ্র। তার বহু পঠিত শ্রীকান্তের ...
আত্মসমালোচনা সবচেয়ে জরুরি
খোলা কলাম
কালের কণ্ঠ
২২ নভেম্বর, ২০১২
টিআইবির রিপোর্টে বাংলাদেশ একাধিকবার বিশ্বের সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। তখন মৃদু প্রতিবাদ শোনা গেলেও জোর কণ্ঠে কেউ কিছুই বলেনি। কয়েক মাস আগে বাংলাদেশের পুলিশ ও বিচার বিভাগকে দেশের সবচেয়ে দুর্নীতিপরায়ণ ক্ষেত্র বলেছে টিআইবি। একটি প্রতিষ্ঠান যখন কোনো দেশ বা রাষ্ট্রের বিশেষ কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলে, তা কোনোভাবেই ভিত্তিহীন হওয়ার উপায় নেই। কারণ যারা দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপন করছে, তাদের মধ্যে যদি দুরভিসন্ধি বা দুর্নীতি থাকত, তা হলে কোনো রাষ্ট্রের বা সংসদ সদস্যদের দুর্নীতি নিয়ে কথা বলার ...
সংসদীয় ব্যবস্থার রূপরেখা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৮ আগস্ট, ২০১২
নিরপেক্ষ, অবাধ, সুষ্ঠু গ্রহণযোগ্য নির্বাচনে অংশগ্রহণে ব্যাপকতার পরিপ্রেক্ষিতে রবার্ট ডাল ১৯৬৯ সালে ১২৪টি রাষ্ট্রের মাত্র ৩৫টিকে বহুমাত্রিক গণতন্ত্র (Polyarchy) বলে চিহ্নিত করেন। (dahl. 1971 : 231-249)। ১৯৮১ সালে ডেভিড বাটলার ও অন্যান্য রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অবাধ নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে ২৮টি রাষ্ট্রকে চিহ্নিত করেন গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে (david butler, et al, 1981 : 2-5)। ১৯৫৮-৭৬ সালের মধ্যে অন্ততপক্ষে পাঁচ বছরব্যাপী গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা কার্যকর ছিল এমন রাষ্ট্রকে গণতান্ত্রিক আখ্যা দিয়ে বিংহাম পাওয়েল (Bingham Powell.jr.) ১৯৮২ সালে তাদের সংখ্যা নির্ধারণ করেন ২৯টি। তিনি অবশ্য দীর্ঘকালীন ...
মূল্যবোধের সংরক্ষণ না মূল্যবধের মচ্ছব
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৬ জুলাই, ২০১২
সমাজ জীবনের যেদিকে তাকান, দেখবেন শুধু দুর্নীতি, স্বার্থপরতা, হিংসা, বিদ্বেষ, প্রতিহিংসা আর সংঘাত। ন্যায়বোধ আজ সমাজ থেকে নির্বাসিত। সুনীতি এক কেতাবি বচন। সুরুচি সেই অতীতের সনাতন গুণপনা। যুক্তি আজ অসহায়। বিবেক-বিচার অপাঙ্ক্তেয়। সমবেদনা নিশ্চিহ্নপ্রায়। প্রীতির অনুভূতি ভীতির রাজ্যের বাসিন্দা। সৎচিন্তা মৃতপ্রায়। এমনি পরিবেশে সমাজ জীবন আজ ক্লিষ্ট, পীড়িত, ক্লান্ত। অন্য কোনো দিকে না তাকানো হোক না তা রাজপথের ইতালি হোটেল অথবা নামিদামি এয়ারকন্ডিশনড ডিপার্টমেন্টাল সেন্টার- তাহলেই বুঝবেন, সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কোনস্তরে আমরা পেঁৗছে গেছি। পচা-বাসি খাদ্য, অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি, অধিকাংশ ক্ষেত্রে অখাদ্য সব উপাদান সহযোগে, সবই মানুষের জন্য এবং অসৎ উপায়ে মুনাফার উচ্চমাত্রা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কলা, কমলা, আঙ্গুর, তরমুজ, বেদানা- আনারের মতো সুস্বাদু ফলের ভেতর ও বাইরে এমনসব বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশানো হয়, যা মানুষের জীবন ধীশক্তি ক্ষয় করে মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। পাশ্চাত্যের উন্নত সমাজে মানুষের খাদ্য তো দূরের কথা, পশুপক্ষীর জন্য যে খাদ্য তৈরি হয় তাও শুধু যে ব্যালান্সড তাই নয়, তা সব ধরনের বিষমুক্ত। ...
আমাদের জাতীয় সংকট
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০০৩
আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ যেন এক ফৌতি মাল। সবাই এদিকে তাকিয়ে আছে। সবাই চায় তাকে গিলে ফেলতে। হজম করতে না পারলেও চায় গলাধঃকরণ করতে। তাই তাদের অবিরাম ছোটাছুটি চার পাশে। চক্রান্ত আর ষড়যন্ত্রের জাল তৈরি করে বাংলাদেশকে নিয়ন্ত্রণে আনয়নের অবিরাম ধান্ধা। জাতি-রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের মৌল কাঠামোগুলোর দিকে যেমন শকুনির দৃষ্টি, তেমনি হায়েনার ধূর্ততা গণমনকে বিষাক্ত করার ক্ষেত্রে। সারাক্ষণ তাদের একটাই কাজ, বাংলাদেশকে কিভাবে দুর্বল থেকে দুর্বলতর করা। বাংলাদেশের যে প্রতিষ্ঠানটি হাজারও ঝড়-ঝাপটার মধ্যে সুশৃঙ্খল, অক্ষত, ঐক্যবদ্ধ থেকে জাতীয় চেতনা ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩