কলামিস্টদের নাম
এ বি এম মুসা এর কলামগুলো

ও আলোর পথযাত্রী, ...এখানে থেমো না
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
গত বুধবার ভোরবেলা প্রথম যেসব পত্রিকা পেলাম, সেগুলোর সব কটির লিড নিউজ তথা প্রধান শিরোনাম ছিল: ‘কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন’। অতিসাধারণ চার কলামের শিরোনাম, যেকোনো হত্যা মামলার রায়ের খবরের সঙ্গে কোনো ফারাক খুঁজে পেলাম না। খুনি-ধর্ষকের যাবজ্জীবন একটু লঘু শাস্তি মনে হলো, এটুকুই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া। পরদিনের প্রতিটি পত্রিকায় কাদের মোল্লার গুরুপাপে লঘুদণ্ডের প্রতিক্রিয়া পেলাম। তারুণ্যের প্রতিবাদের আকাশবিদারী প্রতিধ্বনি আমাকে নতুন করে ভাবনায় ফেলেছে। তাৎক্ষণিকভাবে হূদয় উদ্বেলিত হলো একটি মহাজাগরণের আগমনের প্রত্যাশায়। শাহবাগ চত্বরে সেই জাগরণের সূর্যোদয় দেখে মৃদুস্বরে আবৃত্তি করলাম ...
ফাঁসি কেন হলো না, জানতে চাই
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধ প্রকৃত অর্থে ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ, লুটতরাজ, গণহত্যা—এমনই অসংখ্য অপরাধের দায়ে জামায়াতের কাদের মোল্লার জেল হয়েছে। অতি সাধারণ একটি খুনের শাস্তির সংবাদ, যদি না এর সঙ্গে জড়িত থাকত ৩০ লাখ হত্যা, ১০ লাখ ধর্ষণ এবং আরও অবর্ণিত অমানুষিক অপরাধ। সাধারণ একটি হত্যাকাণ্ডের জন্য যেখানে একজন নাগরিকের ফাঁসি হয়, যদি না ‘রাজনৈতিক বিবেচনায়’ রাষ্ট্রপতির ক্ষমা লাভ করেন, সেখানে অসংখ্য নির্মম হত্যার জন্য শুধু জেল হলো—কয় বছর, সেটি অবান্তর। একাত্তরে যাঁরা স্বজন হারিয়েছেন, যাঁদের মা-বোনের ইজ্জত লুণ্ঠিত হয়েছে, তাঁদের স্বজন ...
পুলিশ যখন জামায়াতের পিটুনি হজম করে
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১৬ নভেম্বর, ২০১২
খালেদা জিয়া ভারত সফর করে এসেছেন। সরকার-সমর্থক ও বিরোধী উভয় মহলেই সফরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে। ভারতীয় রাষ্ট্রীয় নীতিনির্ধারক ও সরকারের উচ্চমহল কেন তাঁকে প্রায় রাষ্ট্রপ্রধান বা সরকারপ্রধানের মর্যাদা দিয়েছে, ভাবনায় এই বিষয়টিই প্রাধান্য পেয়েছে উভয় মহলেই। আমাদের ক্ষমতাসীন সরকারের কারও কারও এ নিয়ে দুর্ভাবনারও আভাস পাওয়া গেছে। তাঁদের একধরনের ‘গা-জ্বালা’ ভাবও পরিলক্ষিত হয়েছে। এ নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে, সফরটি নিয়ে এখন নতুন করে বলার কিছু নেই। তবে সফরের অব্যবহিত পরে সংঘটিত তাৎক্ষণিক একটি ব্যতিক্রমী ঘটনা আমার মনে কৌতূহলের জন্ম ...
দায়িত্বজ্ঞানহীন, সিঁদেল চোর ও খালু
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১৯ অক্টবর, ২০১২
অধুনা বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত জগন্নাথ কলেজের অধ্যাপক সাইদুর রহমান একজন নিছক পাঠ দানকারী শিক্ষক ছিলেন না। ছিলেন একাধারে ছাত্রদের অভিভাবক। মধুর ও অভিভাবকসূচক সম্পর্ক পরবর্তী সময়ে প্রাক্তন ছাত্রদের সঙ্গেও বজায় থাকত। বদমেজাজি ও জেদি, মুখফোঁড় ও ঠোঁটকাটা বলেও পরিচিতি ছিল। আবার ছিল অন্তরে ফল্গুধারার মতো বহমান অসীম ভালোবাসা। এ কারণে ছাত্র, শিক্ষক, অভিভাবক—সবাই তাঁকে নিয়ে যেমন শঙ্কিত থাকতেন, তেমনি অপরিসীম ভক্তি ও শ্রদ্ধা করতেন। দর্শনের অধ্যাপক সাইদুর রহমানের সঙ্গে ব্যক্তিগত পরিচয় হয়েছিল তাঁর পুত্র আমার বন্ধু সাংবাদিক শফিক রেহমানের মাধ্যমে। ...
কয়েকটি চ্যানেল টাকা পেল কোথায়?
প্রতিক্রিয়া
প্রথম আলো
১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২
আমি একটুখানি আত্মপ্রসাদ লাভ করেছি। মনে মনে গর্ববোধও করছি। কারণটি হলো, ভালো হোক মন্দ হোক, দেশের প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং আমার মতো একজন সাধারণ নাগরিক সম্পর্কে কয়েকটি মন্তব্য করেছেন। শনিবার আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে দেওয়া মন্তব্যটি ছিল আমার একটি প্রাইভেট টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য আবেদন-সম্পর্কীয়। বিনীতভাবে তাঁর স্মরণার্থে ও সাধারণভাবে যেসব গণমাধ্যম সেটি প্রচার করেছে, তাদের জ্ঞাতার্থে কিছু তথ্য পেশ করছি: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করেছেন, আমি একটি টেলিভিশন চ্যানেল চালু করার এত টাকা কোথায় পাব? আমি কি এ জন্য চুরি করেছি ...
অভ্যুত্থান অপচেষ্টা অথবা অশান্তি সৃষ্টির অপপ্রয়াস
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
২৭ জানুয়ারি, ২০১২
শারীরিক ও ব্যক্তিগত নানা ঝামেলার কারণে লেখালেখি কয়েক সপ্তাহ বন্ধ ছিল। তার পরও মনের কাহনে নানা ধরনের ভাবনা থেমে থাকেনি। সেই ভাবনায় ছিল কেমন গেল গত বছরটি আর কেমন যাবে নতুন বছর। বছর বলতে আমরা অতীতে ইংরেজি তথা গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসরণ করতাম। এরই মাঝে আবার ১/১১ বছরপূর্তিও একটুখানি উঁকি মেরেছে। বর্তমান সরকারের বিগত বছরের কার্যাবলির আমলনামা আর নতুন বছরের সূচনাপর্বের একটি ঘটনা সব হিসাব-নিকাশ ওলটপালট করে দিয়েছে। আজ শুধু সেটিই আলোচনা করব। সামরিক বাহিনীতে একটি ঘটনা সংঘটিত হয়নি, কিন্তু ...
এই বছরটি কেমন যাবে?
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১২ জানুয়ারি, ২০১৩
অলস মস্তিষ্ক শয়তানের কর্মশালা; আসল প্রবচনটি ইংরেজিতে ‘আইডল ব্রেইন ইজ ডেভিলস ওয়ার্কশপ’। গত দুই মাস আমার বেলায় প্রবচনটি অকার্যকর ও নিরর্থক মনে হয়েছে। শরীর ছিল দুর্বল, তাই আমার নিয়মিত কলাম ‘সময়ের প্রতিবিম্ব’ সময়ানুসরণে পাঠক সমীপে উপস্থাপনা সম্ভব হয়নি। অথচ হাসপাতালে ও বাসায় শুয়ে-বসে সময় কাটানোর সময় সচল মস্তিষ্কে বিচিত্র ধরনের চিন্তাভাবনার উদ্ভব ঘটেছে। পত্রিকায় প্রকাশিত ঘটনাবলি পোকার মতো মস্তিষ্কে কিলবিল করছিল। এখন শারীরিক স্থবিরতা কিছুটা কাটিয়ে উঠে মস্তিষ্কে কিলবিল করা পোকাগুলো একটু একটু বের করছি। শুধু ‘বুড়ি ছুঁয়ে যাচ্ছি’ ...
ষড়যন্ত্রতত্ত্ব দিয়ে দায় এড়ানো যাবে না
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
৩০ নভেম্বর, ২০১২
গত শতাব্দীর সত্তরের দশকের মাঝামাঝি কোনো এক সময়ে সিঙ্গাপুরে নুরুল কাদের খানের সঙ্গে দেখা হলো। ঝিলু নামে সহকর্মী ও বন্ধুবান্ধবের কাছে অধিকতর পরিচিত নুরুল কাদের খান পাকিস্তান আমলে ছিলেন তরুণ আমলা, যাঁদের আমরা সিএসপি অফিসার বলতাম। দু-একটি ব্যতিক্রম ব্যতীত বাঙালি জাতীয়তাবাদে দৃঢ় বিশ্বাসী ছিলেন তখনকার দিনের সব বাঙালি প্রবীণ ও তরুণ আমলা। বঙ্গবন্ধুর ছয় দফা, একাত্তরের মার্চের অসহযোগ আন্দোলনের সময় তাঁদের মাঝে যাঁরা পশ্চিম পাকিস্তানে কর্মরত ছিলেন, তাঁরা কেন্দ্রের বৈষম্যের নানা তথ্য সরবরাহ করতেন বঙ্গবন্ধুকে। আবার অনেকে পূর্ব পাকিস্তানের ...
বিদেশিদের সম্মাননা প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতি সমীপে
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১২ অক্টোবর, ২০১২
বছরের আট মাসের ছয় মাস কাটিয়েছি ঢাকা, দিল্লি আর সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে। কেবিনের বিছানায় শুয়ে যতখানি শারীরিক যন্ত্রণা ভোগ করেছি, তার চেয়ে মানসিক দুশ্চিন্তার অস্থিরতা ছিল অনেক বেশি। দেশে সম্প্রতি উপর্যুপরি সংঘটিত ঘটনাবলি নিয়ে আমি প্রথম আলোতে ভাবনা সব উজাড় করে দিতে পারছি না। টেলিভিশন টক শোতে যাওয়া হয় না। অনেকখানি সুস্থ হয়ে বাসায় এসে ধাতস্থ হয়ে না-পড়া খবরগুলো পড়ছিলাম। পড়লাম হলমার্ক নিয়ে সরকারি মহলের নাটকীয়তার বিবরণ। পড়েছি ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শে জন্ম নেওয়া একটি রাষ্ট্রের বিশেষ অঞ্চলে তাণ্ডবতার নানা রূপে প্রকাশিত ...
আদালতের রায় ও জনগণের ভাবনা সাংঘর্ষিক
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১২
বিচারব্যবস্থা, বিচারক ও বিচারের রায় নিয়ে পাকিস্তান আমলে অথবা বাংলাদেশের জন্মের আদি বছরগুলোতে কোনো দিন আলোচনা হতো না। এমনকি উচ্চ বা নিম্ন আদালতে বিচারক কে অথবা কীভাবে তাঁদের নিয়োগ বা বরখাস্ত করা হয়, সে সম্পর্কেও সাধারণ মানুষের কোনো কৌতূহল বা জানার ইচ্ছা ছিল না। পাকিস্তানি জমানায় ঢাকা, লাহোর বা করাচির উচ্চ আদালতের রায় অথবা বিচারপদ্ধতি, কোন রায় কী ও কেন দেওয়া হলো, তা-ও তৎকালীন সংবাদপত্রে কদাচিৎ প্রকাশিত হতো। তবে দু-একটি ব্যতিক্রম যে ঘটেনি তা নয়। যেমন, পাকিস্তানি জমানার একেবারে ...
চোরদেরই বলবেন, ‘তুই চোর-তুই চোর’
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১২
আমি হুমায়ূন-ভক্ত নই, মানে তাঁর গল্প-উপন্যাস আমাকে তেমন আকৃষ্ট করেনি। তবে টেলিভিশনে তাঁর নাটক দেখার জন্য আমি পাগল ছিলাম। যেখানেই থাকতাম তাঁর নাটক সম্প্রচারের নির্ধারিত সময়ে বাড়িতে হাজির হতাম। হুমায়ূন আহমেদের কোনো একটি নাটকের সংলাপে তিনি যখন টিয়া পাখিকে ‘তুই রাজাকার-তুই রাজাকার’ বুলি শিখিয়ে মাঠে ছেড়ে দিতে বললেন, তখন তাঁর প্রতি আমার মনে অপরিসীম শ্রদ্ধাবোধ জাগে। এরই সূত্র ধরে গত সপ্তাহে বাংলাভিশনে স্নেহাস্পদ গোলাম মোর্তোজা সঞ্চালিত টক শোতে হলমার্ক কেলেঙ্কারি, শেয়ার মার্কেট আর ডেসটিনির অর্থ আত্মসাৎ এবং আরও অনেক ...
নির্বাচন অনুষ্ঠানে সংকট নিরসনে দুটি প্রস্তাব
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
৬ সেপ্টেম্বর, ২০১২
‘আপনি কিতা গুম ওইসলানি?’—সিলেটি ভাষায় আমার উদ্দেশে মুঠোফোনে ছুড়ে দেওয়া প্রশ্নটি শুনে প্রথমে অবাক হলাম, পরে মজা পেলাম। প্রায় ছয় মাস পত্রিকাটিতে আমার নিয়মিত কলাম ‘সময়ের প্রতিবিম্ব’ ছাপা হচ্ছে না বলেই তাঁর মনে স্বাভাবিকভাবে এই প্রশ্ন জেগেছিল। অবশেষে চ্যানেল আইতে মতিউর রহমান চৌধুরীর মধ্যরাতের জনপ্রিয় অনুষ্ঠানে আমাকে দেখেই নাকি প্রশ্নকারী নিশ্চিত হয়েছেন, আমি গুম হইনি। ক্রসফায়ারে খরচও হইনি, বুড়িগঙ্গা ও অন্যান্য স্থানে একের পর এক পাওয়া অজ্ঞাতপরিচয় লাশগুলোর কোনোটিই আমার নয়। তাঁর সিলেটি ভাষায় সবচেয়ে আমোদজনক মন্তব্যটি ছিল, ‘আপনি ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩