কলামিস্টদের নাম
আলী ইমাম মজুমদার এর কলামগুলো

সংসদ অভিমুখী বিরোধী দল
রাজনীতি
প্রথম আলো
২ জুন, ২০১৩
সাংসদ সংসদে যাবেন, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আমাদের দেশে তা ঘটছে না। বিরোধী দলের সাংসদেরা সাধারণত সংসদে যোগ দেন না। তবে জানা যায়, সংসদের বাজেট অধিবেশনে বিরোধী দল যোগ দিতে পারে। এর পেছনে মূলত রয়েছে বিরোধী দলের সাংসদদের সদস্যপদ বহাল রাখার চেষ্টা—এটা বললে অত্যুক্তি হবে না। কেননা একনাগাড়ে ৯০ কর্মদিবস সংসদ অধিবেশনে যোগ না দিলে সদস্যপদ চলে যায়। তাঁদের সে সময়সীমা নিকটবর্তী। আর অতীত ঐতিহ্য একই ধরনের। এ দোষটা শুধু তাঁদের দিলেই চলবে না, এখন যাঁরা সরকারে আছেন তাঁরাও বিরোধী ...
সভা-সমাবেশ বন্ধ করা যায়, কিন্তু হরতাল?
রাজনৈতিক কর্মসূচি
প্রথম আলো
২৯ মে, ২০১৩
যে তিমিরে ছিলাম, সেখানেই রইলাম। আবার হরতাল ডাকা হলো। একটু পেছনে তাকালে স্মরণে আসবে এর প্রেক্ষাপট। অতিসম্প্রতি প্রধান বিরোধী দল তাদের অফিসের সামনে একটি সমাবেশ করার জন্য দু-দুটি দিন ধার্য করেও ঢাকা মহানগর পুলিশের অনুমতি পায়নি। প্রতিবাদে তারা একটি হরতাল ডেকেছিল। তখন উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছিল ঘূর্ণিঝড় মহাসেন। হরতাল আহ্বানকারীরা তখনকার মতো তা প্রত্যাহার করলেন। বন্যার কিছু উপকারিতা সম্পর্কে জানা যায়। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ের কোনো উপকারিতার কথা এত দিন জানা ছিল না। এযাত্রায় অন্তত দেখা গেল, মহাসেনের হুংকারে জাতি অন্তত ...
সজাগ হওয়ার এখনই সময়
জনপ্রশাসন
প্রথম আলো
২৬ এপ্রিল, ২০১৩
২৪ এপ্রিল সাভারে একটি বহুতল ভবন ভেঙে পড়ে। মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে গেছে। আহত এক হাজারের অধিক। এঁরা সব পোশাকশিল্পের শ্রমিক এবং প্রায় সবাই নারী। ঘটনাটি পোশাকশিল্প খাতে এযাবৎকালের সবচেয়ে মর্মান্তিক প্রাণঘাতী বিয়োগাত্মক ঘটনা। এখনো কিছু লোক আটকে আছেন। তাই হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। সরকারের পক্ষ থেকে উদ্ধার অভিযান চলছে। মূল দায়িত্বে সামরিক বাহিনী। অন্যান্য সংস্থাও সহায়তা দিচ্ছে। এগিয়ে এসেছে সমাজের সব স্তরের মানুষ। বরাবরের মতো পালিয়ে গেছেন ভবনের মালিক। পরের দিনটি সরকার জাতীয় শোক দিবস হিসেবে ঘোষণা ...
‘রাবিশ ও বোগাস’ বললেই সব সমাধান হয় না
অর্থনীতি
প্রথম আলো
১২ এপ্রিল, ২০১৩
স্কুলে ছোটখাটো বিষয়ের ওপর বিতর্ক প্রতিযোগিতা হয়। এ ধরনের প্রতিযোগিতার একটি বিষয় ‘অর্থই সকল অনর্থের মূল’। হয়তো বা এখনো স্কুলে এ বিষয়ের ওপর বিতর্ক প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে। অর্থই সব অনর্থের মূল কি না, বিষয়টি বিতর্কিতই থাকবে। আর তা হলেও অর্থমন্ত্রীরা কিন্তু অনর্থের কারণ হতে পারেন না। এটা ঠিক, খুব কম ক্ষেত্রেই অর্থমন্ত্রীরা সরকারের ভেতরে ও বাইরে জনপ্রিয় থাকেন। তাঁরা কোনো দেশেই সবার চাহিদামতো টাকার জোগান দিতে পারেন না। পারেন না সবার আবদারমাফিক কর হ্রাস করে সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনা করতে। ...
শিবিরের তাণ্ডবের মুখে অসহায় পুলিশ!
রাজনীতি
প্রথম আলো
৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
গত ২৮ জানুয়ারির কথা। ছাত্রশিবিরের কয়েকটি ঝটিকা মিছিল রাজধানীতে। হাতে তাদের লাঠি। মিছিলগুলো সহসা মারমুখী হয়ে পড়ে। ভাঙতে শুরু করে গাড়ি। করে অগ্নিসংযোগ। বাদ যায়নি পুলিশের গাড়িও। অর্থমন্ত্রীর প্রটোকলের গাড়িও শিকার হয় সে ভাঙচুরে। পুলিশের প্রতিরোধ-প্রচেষ্টা দ্রুত ভেঙে পড়ে। তারা আত্মরক্ষামূলক অবস্থান নেয়। এটিএম বুথের পেছনে আশ্রয় নেওয়া পুলিশকেও লাঠি দিয়ে পিটিয়েছে শিবিরের কর্মীরা। অথচ পুলিশের কাছে ঢাল, লাঠি, বন্দুক সবই ছিল। সেদিন একযোগে শিবির এ কাজ চালায় ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, ফরিদপুর, বগুড়া, সুনামগঞ্জসহ দেশের বেশ কিছু স্থানে। হামলার ...
তৈরি পোশাকশিল্প
গণতন্ত্র মানলে ট্রেড ইউনিয়ন মানতে হবে
উপ-সম্পাদকীয়
প্রথম আলো
১৩ জুন, ২০১৩
পত্রিকান্তরের খবরে জানা যায়, পোশাকশিল্পে ট্রেড ইউনিয়নের বিষয়টি এখনো অনিশ্চিত রয়ে গেছে। সে খবর অনুসারে ৯৯ শতাংশ কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন নেই। অবশ্য একই খবরে বিজিএমইএর সভাপতির বক্তব্য অনুসারে প্রায় ১০ শতাংশ কারখানায় এখন ট্রেড ইউনিয়ন রয়েছে। তা হলেও ৯০ শতাংশেই নেই। সেন্টার ফর ওয়ার্কার্স সলিডারিটির মতে, মালিকেরা কখনো চাননি পোশাকশিল্প কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন গড়ে উঠুক। এ ক্ষেত্রে সরকারের তরফ থেকে আশানুরূপ সহযোগিতা না পাওয়ার অভিযোগও তারা করেছে। আরও জানা যায়, ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের উদ্যোগ নিলেই সে শ্রমিক চাকরিচ্যুত বা ...
বিধ্বস্ত রানা প্লাজার জমিতে বিপণিবিতান!
উপ-সম্পাদকীয়
প্রথম আলো
১৬ মে, ২০১৩
বিধ্বস্ত রানা প্লাজার বর্তমান পরিত্যক্ত জমিতে একটি নতুন বহুতল বিপণিবিতান নির্মাণ করে সেখানে নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে দোকান বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব এসেছে। প্রস্তাবটি দিয়েছে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। খবরটি ঢাকার একটি বাংলা দৈনিকের। খবরে প্রকাশ, বিজিএমইএর নতুন পরিচালনা পরিষদ রেওয়াজ অনুসারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে দেখা করতে গিয়ে এ প্রস্তাব দিয়েছে। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী ভবনধসে নিহত শ্রমিকদের পরিবারগুলোকে মাসে ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা আয়ের ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন। এসব পরিবারের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর এই সহমর্মিতা সর্বতোভাবে সমর্থনযোগ্য। তবে কিছু প্রশ্ন থেকে যায় বিজিএমইএর আলোচিত প্রস্তাব এবং এ-জাতীয় ঘটনায় তাদের ভূমিকা নিয়ে। কেননা, তারা রানা প্লাজার জমির কিংবা এখানে যে পোশাক কারখানাগুলো ছিল, সেগুলোর মালিক নন। এই ভবনমালিকের জমির পুরো মালিকানাও প্রশ্নবিদ্ধ বলে অভিযোগ রয়েছে। কিছু বেআইনি দখলকৃত জমিও এর মধ্যে রয়েছে বলে পত্রপত্রিকা থেকে জানা যায়। তবে সেটা হলেও অন্য কেউ সেই অংশের মালিক হবেন আইনি প্রক্রিয়ায়। আর তা সরকার এভাবে ব্যবহার করতে চাইলে ...
সুড়ঙ্গের অপর প্রান্তেও অন্ধকার
উপ-সম্পাদকীয়
প্রথম আলো
রাষ্ট্র ও রাজনীতি
সুড়ঙ্গের অপর প্রান্তে আলোর ক্ষীণ রশ্মি দেখা দিয়েছিল। দেশে বিরাজমান রাজনৈতিক সংকট সমাধানে প্রধান দুটি দলের সংলাপের উদ্যোগে জনগণ আশ্বস্ত হয়। তবে এতেও আগাম অবস্থান নির্ধারণ কিংবা শর্ত আরোপের ফলে সাফল্য সম্পর্কে সংশয়বাদী অনেকেই। কিন্তু জনগণ চায় একটি শান্তিপূর্ণ সমাধান। আমাদের অতীত অভিজ্ঞতা তিক্ততায় পরিপূর্ণ। শান্তিপূর্ণ সমাধানে রাজনীতিকেরা সাম্প্রতিক কালে কোনো সাফল্যের ছাপ রাখেননি। তাই সংশয়বাদীদেরও দোষ দেওয়া যাবে না। সত্যি সত্যি দেখা গেল, সে ক্ষীণ রশ্মি আবার বিলীন হয়ে গেছে গভীর তমসায়। প্রধান বিরোধী দল একটি সময়সূচি দিয়ে ...
সংকট উত্তরণে চাই সংযম ও দূরদর্শিতা
প্রশাসন
প্রথম আলো
১৭ এপ্রিল, ২০১৩
গত বছরের নভেম্বর থেকে দেশের আইনশৃঙ্খলা-ব্যবস্থার ওপর একটি বড় ধরনের চাপ সৃষ্টি হয়েছে। অব্যাহত চাপের মুখে আছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। বর্তমান সংকট বহুমাত্রিক এবং এর সমাধানও সহজসাধ্য বলে মনে হয় না। প্রথমত, রয়েছে দেশে ১৯৭১ সালে মানবতাবিরোধী কাজের সঙ্গে যারা সংশ্লিষ্ট, তাদের বিচার প্রসঙ্গ। জামায়াতে ইসলামী ও তাদের সমর্থক ছাত্রসংগঠন বিভিন্ন যুক্তিতে এ বিচার কার্যক্রম বাতিল করার দাবি জানিয়ে আন্দোলন করছে। আন্দোলন অনেক ক্ষেত্রেই সহিংস। অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল এ বিচার-প্রক্রিয়া পক্ষপাতদুষ্ট ও আন্তর্জাতিক মানসম্মত নয় অভিযোগ ...
যমুনায় পদ্মা সেতুর টাকা
বিশ্বব্যাংক
প্রথম আলো
১৫ মার্চ, ২০১৩
বিষয়টি এক দিক হয়ে গিয়েছিল। পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন-সংক্রান্ত বাংলাদেশ সরকারের প্রস্তাবিত অর্থছাড়ে অস্বাভাবিক বিলম্বের কারণে ঋণের প্রস্তাবটি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছিল। বিকল্প অর্থায়নের উৎস খোঁজা হচ্ছে। এদিক-সেদিক থেকে কিছু প্রস্তাবও আসছে। সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মিত হবে। বিষয়টি নতুন মাত্রায় নজরে এল অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের একটি বিবৃতি থেকে। তিনি বলেছেন, পদ্মা সেতুর জন্য বিশ্বব্যাংক প্রতিশ্রুত ১২০ কোটি ডলারের ঋণ যমুনার ওপর একটি রেল সেতু নির্মাণের জন্য চাওয়া হবে। এর জন্য তিনি ওয়াশিংটনে গিয়ে বিশ্বব্যাংক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। পদ্মা সেতুর জন্য বরাদ্দ করা অর্থ অন্য কোনো প্রকল্পে ব্যবহার করা যায় কীভাবে, তা পর্যালোচনা করতে বিশ্বব্যাংক একটি দল পাঠাতে রাজি হয়েছে। বর্তমান কারিগরি নকশা ও প্রাক্কলন অনুসারে, পদ্মা সেতু ও প্রাসঙ্গিক নির্মাণ-ব্যয়ের প্রাক্কলিত অঙ্ক ২৯০ কোটি ডলার। এতে বিশ্বব্যাংকের প্রতিশ্রুত ঋণের পরিমাণ ছিল ১২০ কোটি ডলার। খুবই সহজ শর্তের এই ঋণ। অর্থের পরিমাণ হিসাবে এরপর আসে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক, জাইকা ও ইসলামি ...
আইনের শাসনের বিকল্প নেই
সুশাসন
প্রথম আলো
১ মার্চ, ২০১৩
গণতান্ত্রিক সমাজের একটি মৌলিক উপাদান আইনের শাসন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে প্রধানত আছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা। তাদের পক্ষপাতহীনভাবে কোনো রূপ অনুরাগ-বিরাগ ব্যতিরেকেই এ দায়িত্ব সম্পন্ন করতে হয়। এতে শৈথিল্য কিংবা পক্ষপাতসুলভ আচরণ তাদের ভূমিকাকে করে প্রশ্নবিদ্ধ। শিথিল হয় তাদের প্রতি জনগণের আস্থা। তখন ক্ষেত্রবিশেষে জনগণের একটি অংশ কোনো কোনো ক্ষেত্রে আইন হাতে তুলে নেয়। এমনকি জঘন্য অপরাধীরা যখন বিভিন্ন ফাঁকফোকরে আইনের আওতার বাইরে থাকে, তখন তাদের বিচারবহির্ভূত হত্যায়ও সমাজের একটি অংশ পুলকিত হয়। আর সেই বিচারবহির্ভূত হত্যা ক্ষেত্রবিশেষে ঘটায় ডাকাত ...
পদ্মা সেতু ও দুর্নীতি দমন কমিশন
জবাবদিহি
প্রথম আলো
১৯ ডিসেম্বর, ২০১২
অবশেষে অনেক ঘাট পেরিয়ে দুদক পদ্মা সেতুর পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতির ষড়যন্ত্র হয়েছিল মর্মে একটি মামলা করেছে। এ মামলার আশু ও চূড়ান্ত ফলাফল এখনো অজ্ঞাত। আশু ফলাফল হয়তো শিগগির জানা যাবে। তা হচ্ছে প্রকল্পটিতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন। আর চূড়ান্তটি অবশ্যই দায়ী ব্যক্তিদের আইনানুগ সাজা। এখানে উল্লেখ করা যায়, বিশ্বব্যাংকের ঢাকার কান্ট্রি ডিরেক্টর অ্যালেন গোল্ডস্টেইন ৮ ডিসেম্বর এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘দুর্নীতির সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন পূর্ণাঙ্গ ও নিরপেক্ষ তদন্ত করলে বিশ্বব্যাংক অর্থায়নে অগ্রসর হবে। বিশ্বব্যাংক ইতিমধ্যে অনুসন্ধানের সহায়তার ...
ওবামার মিয়ানমার সফর ও আমাদের প্রত্যাশা
-
আরটিএন
১৯ নভেম্বর, ২০১২
এককেন্দ্রিক বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আজ ১৯ নভেম্বর মিয়ানমার সফরে আসছেন। এ ধরনের সফরে প্রায়ই বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানেরা গিয়ে থাকেন। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের সফর বলে একটু ভিন্ন কথা। এ সফর আমাদের নিকট প্রতিবেশী মিয়ানমারে হচ্ছে বিধায় এখানে আমাদের প্রত্যাশায় একটি নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে। সংবাদমাধ্যমে জানা যায়, হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা গত বৃহস্পতিবার বলেছেন, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর আসন্ন মিয়ানমার সফরে ওই দেশের পশ্চিমাঞ্চলে শান্তি ফিরিয়ে আনা ও জাতিগত সংঘাতে উসকানি ও মদদদাতাদের বিচারের আওতায় আনতে দেশটির নেতাদের প্রভাবিত করবেন। আরও জানা যায়, ওবামার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা টম ডনিলন বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম উদ্বেগের কারণ মিয়ানমারের সাম্প্রদায়িক সংঘাত।’ এদিকে বাংলাদেশ সফররত যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন আন্ডার সেক্রেটারি মারিও ওটেরোও গত শুক্রবার কক্সবাজারে বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট ওবামার মিয়ানমার সফরে অন্য ইস্যুগুলোর মধ্যে রোহিঙ্গা ইস্যু থাকবে।’ এসব বিবেচনায়ই এটা আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সফর। দীর্ঘদিনের বরফ গলে এখন পশ্চিমা বিশ্ব, বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের ...
প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে আছে আশা-নিরাশা দুটোই
-
প্রথম আলো
১০ এপ্রিল, ২০১৩
বিবিসি ওয়ার্ল্ড নিউজের কাছে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলমান রাজনীতি, আগামী নির্বাচন, বিরোধী দলের হরতাল, হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবি এবং যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন। তাঁর সাক্ষাৎকার বিশ্লেষণ করেছেন সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল। অনিশ্চয়তার সময়ে মানুষ যেমন ভরসা চায়, তেমনি চায় সঠিক দিকনির্দেশনা। বাংলাদেশে রাজনৈতিক পরিস্থিতি যে রকম সংঘাতের মধ্যে প্রবেশ করেছে—একদিকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকেন্দ্রিক আন্দোলন, অন্যদিকে হেফাজতে ইসলামের ধর্ম অবমাননার বিরুদ্ধে ১৩ দফা দাবি নিয়ে ...
আলো-ছায়ার মহানগর ঢাকা
নাগরিক সুবিধা
প্রথম আলো
২৭ মার্চ, ২০১৩
‘আলো ও ছায়া’ অমর কথাশিল্পী শরৎচন্দ্র রচিত অনবদ্য গল্পগুলোর একটি। গল্পটির সূচনা করে তিনি লেখেন, ‘প্রথমেই যদি তোমরা ধরিয়া ব’স, এমন কখ্খনও হয়না, তবে ত আমি নাচার। আর যদি বল হইতেও পারে—জগতে কত কি যে ঘটে, সবই কি জানি? তাহলে কাহিনী পড়িয়া ফেল; আমার বিশ্বাস, তাহাতে কোন মারাত্মক ক্ষতি হইবে না।’ নিবন্ধকারেরও ভয়, দেশের রাজধানী ঢাকা মহানগরের বিশেষ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সরকারি ব্যয়ের ক্ষেত্রে দেশের অপরাপর অংশ থেকে শোচনীয় রকমের বঞ্চনার শিকার, এ ধরনের একটি শিরোনাম দিয়ে লেখাটি ছাপা হলে পাঠক গাঁজাখুরি ভেবে এটা পাঠে বিরত থাকতে পারেন। তাই শরৎচন্দ্র থেকে টেনে আনা হলো, ‘জগতে কত কি যে ঘটে, সবই কি জানি?’ এবার হয়তো পাঠক কৌতূহলী হয়ে একটু ধৈর্য ধরে লেখাটির মূল বিষয়বস্তুতে যেতে পারেন। এটা আমরা সবাই জানি ও মানি যে দেশের সব নাগরিক সুবিধা রাজধানী ঢাকায় কেন্দ্রীভূত করা হয়েছে। আলো ঝলমল সুরম্য ইমারতের এ মহানগরের রাস্তায় দামি গাড়ির ভিড়। মূল্যবান দ্রব্যাদিতে ভরপুর বিপণিবিতানগুলো। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় আর ...
দলমত যার যার কিন্তু রাষ্ট্রটি সবার
রাজনীতি
প্রথম আলো
৭ মার্চ, ২০১৩
শাহবাগের জাগরণ মঞ্চ থেকে একটি স্লোগান দেওয়া হচ্ছে। তা হলো ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার। এর মর্মার্থ বিনা দ্বিধায় গ্রহণযোগ্য। এটাই বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনাও বটে। আর যেকোনো আধুনিক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের রাজনৈতিক দর্শনও তা-ই। পাশাপাশি বলা যায়, একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে নানা মত ও পথ থাকতে পারে। থাকতে পারে বিভিন্ন আদর্শের দল। এ ধরনের থাকাটাই স্বাভাবিক। আর অত্যন্ত বাস্তব সত্য হচ্ছে, রাষ্ট্রটি সবার। এ রাষ্ট্রের ভালো-মন্দের সঙ্গে জড়িত রয়েছে এর সব নাগরিকের ভাগ্য। রাজনৈতিক বিশ্বাস ভিন্ন হলে তাকে সমালোচনা করা চলে। ...
নীতিশ কুমার পারলে আমরা পারি না কেন
সুশাসন
প্রথম আলো
৩ নভেম্বর, ২০১২
পাকিস্তানের শাসনযন্ত্রে আমাদের অংশীদারি আর সে যন্ত্রটি থেকে সুবিচার পাইনি বলেই বহু ত্যাগ-তিতিক্ষায় রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছি। আমাদের স্বপ্ন ছিল, দেশটির শাসনব্যবস্থা হবে গণতান্ত্রিক আর সুশাসন হবে এর মৌলিক চেতনা। এ প্রত্যাশাগুলো আমাদের সংবিধানে যথাযথভাবে চয়ন করা হয়েছে। জননিরাপত্তা অবদান রাখবে আমাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নে, এ প্রত্যাশা ছিল। সুশাসনের প্রধান বৈশিষ্ট্য দুর্জনকে শাস্তি প্রদান আর দুর্বলকে রক্ষার কার্যকর প্রক্রিয়া। এসবের জন্য পর্যাপ্ত আইনি বিধান এবং তা বাস্তবায়নের জন্য যথাযথ প্রতিষ্ঠান আমাদের রাষ্ট্রে রয়েছে। কিন্তু সুশাসন প্রতিষ্ঠার ...
জনপ্রশাসনে পদোন্নতি: গোদের ওপর বিষফোড়া
সুশাসন
প্রথম আলো
১৮ জুলাই, ২০১২
গোদ পদস্ফীতিজনিত একটি রোগ। এটা হলে রোগাক্রান্ত ব্যক্তির চলাফেরা করা যন্ত্রণাদায়ক। একইভাবে তার কাজের গতি মন্থর হয়ে পড়ে। আর বিষফোড়ার সঙ্গে পাঠককে নতুনভাবে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার আবশ্যকতা নেই। অনেককেই সেই ফোড়ার যন্ত্রণাও হয়তো বা সহ্য করতে হয়েছে কখনো কখনো। সেটি যদি গোদ রোগাক্রান্ত ব্যক্তির গোদের ওপর হয়, তাহলে সেই যন্ত্রণা আরও বেড়ে যাবে, এটা বলার অপেক্ষা রাখে না। অভিধানে তাই গোদের ওপর বিষফোড়ার অর্থও করা হয়েছে যন্ত্রণার ওপর অধিকতর যন্ত্রণা। প্রসঙ্গটি টেনে আনা হলো জনপ্রশাসনে পদোন্নতির ভাবনার কথা বিভিন্ন ...
কোটার নিষ্পেষণে মেধাবীরা কোণঠাসা
জনপ্রশাসন
প্রথম আলো
১৮ জুলাই, ২০১২
বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকেই সরকারি চাকরিতে মেধাবীদের আকর্ষণ ক্রমান্বয়ে কমে আসছে। এর কারণ বহুবিধ এবং এটি বড় ধরনের গবেষণার বিষয়বস্তু হতে পারে। তবে সহজভাবে দেখা যায়, বিদেশে চাকরির ভালো সুযোগ, দেশে অধিকতরও সুযোগ-সুবিধায় বেসরকারি চাকরি, সরকারি চাকরিতে তুলনামূলকভাবে বেতন-ভাতাদির শোচনীয় অপ্রতুলতা এবং সরকারি চাকরির যুগবাহিত মর্যাদার হ্রাস এর মূল কারণ। তা সত্ত্বেও যেসব মেধাবী তরুণ-তরুণী সরকারি চাকরিতে আসতে চাইছেন বা এসেছেন, তাঁরাও সম্মুখীন হয়েছেন বা হচ্ছেন বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার। দীর্ঘকাল এ অবস্থাটি সরকারি চাকরিতে তুলনামূলকভাবে মেধাহীনদের সমাবেশ ঘটিয়েছে। তাই আজ ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩