কলামিস্টদের নাম
মাহমুদুর রহমান মান্না এর কলামগুলো

টিআইয়ের প্রতিবেদন, দুর্নীতি ও অন্যান্য
কলাম
কালের কণ্ঠ
১০ ডিসেম্বর ২০১২
গত কিছু দিনের পত্রপত্রিকার খবর পড়ে নিশ্চিত করে বলা যায় যে পদ্মা সেতু আবার আটকে গেছে। পদ্মা সেতু এ দেশের সাধারণ মানুষের কাছে একটি স্বপ্নের সেতু হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। আর দেশের ভূখণ্ডকে উত্তর-দক্ষিণ দুই ভাগে ভাগ করেছে যে নদী, এর তীরবর্তী বা দুই পারের জনগোষ্ঠীর কাছে সেতুটি স্বপ্নের চেয়ে অধিক কিছু। জীবনের ক্ষেত্রে নতুন এক পরিবর্তন নিয়ে আসার আভাস ছিল পদ্মা সেতুর মধ্যে। দেশের অর্থনীতিতে আমূল পরিবর্তন সাধিত হতে পারত পদ্মা সেতুর বদৌলতে। অনেক মানুষের জীবন-জীবিকার উৎস সৃষ্টি হতো। ...
সাভার ট্র্যাজেডি ও ড. ইউনূসের নিবন্ধ
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১৫ মে, ২০১৩
পোশাক শিল্প সম্পর্কে প্রশ্ন জেগেছে। বাংলাদেশে পোশাক তৈরি করতে বিপাকে পড়তে হচ্ছে বলে একটি বিশাল বিদেশি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান এ দেশ থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে। এর পর আরও অনেকে তার দৃষ্টান্ত অনুকরণ করে এ দেশ থেকে চলে যেতে পারে। এটা যদি হয়, এটা আমাদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎকে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করবে। কথাগুলো বলেছেন নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস। ৯ মে বৃহস্পতিবার 'সাভার ট্র্যাজেডি, পোশাক শিল্প ও বাংলাদেশ' শিরোনামে দেশের বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে তার একটি লেখা প্রকাশিত হয়েছে। তাতে তিনি ...
বল্গাহীন উক্তি জাতিকে নেতিবাচক সংস্কৃতির দীক্ষা দিচ্ছে
কলাম
কালের কণ্ঠ
৭ জানুয়ারি ২০১৩
গড়াতে গড়াতে দিন ২০১৩ সালকে ছুঁয়েছে। এটা এমন এক সময়, যখন সালতামামি হয়, আর তারই আলোকে দৃষ্টি মেলে দিতে হয় সামনের দিকে। আজকাল প্রায়ই শোনা যায়, বাংলাদেশ এক অপার সম্ভাবনার দেশ। গার্ডিয়ান লিখেছে, ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ অর্থনীতিতে ইউরোপকে ছাড়িয়ে যাবে। আর ইউরোপে দীর্ঘকাল বসবাসকারী এক বাঙালি অর্থনীতিবিদ রসিকতা করে আমাকে বললেন, ওই দেশে একটা কথা খুব চালু আছে, তা হলো- ৫০ বছর ধরে এই দেশ এখনো একটা অপার সম্ভাবনার দেশ রূপেই আছে। আমি অর্থনীতির ওপর লিখতে বসিনি। হঠাৎ ...
শিক্ষকদের রাজনীতি
কলাম
কালের কণ্ঠ
২৪ ডিসেম্বর ২০১২
১৯৯০ সালে এরশাদের পতন হয়। ১৯৯১ সালে নির্বাচনে ক্ষমতায় আসে বিএনপি এবং প্রধানমন্ত্রী হন খালেদা জিয়া। বিএনপি ক্ষমতায় আসার অল্প কয়েক মাসের মধ্যে ছাত্রদল নেতারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বস্তরে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে সচেষ্ট হন। এ সময় ছাত্রদলের একটা বাড়তি সুবিধা ছিল। আর সেটা হচ্ছে, এর আগের বছর অর্থাৎ ১৯৯০-এর ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদল পুরো প্যানেল জেতে, আমান-খোকন-নাজিমউদ্দিন আলম পরিষদ। আবার অসুবিধাও একটা ছিল। সেটা হচ্ছে, তখনকার উপাচার্য অধ্যাপক আবদুল মান্নান। ছাত্রদলের এই একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারের বাধা দিলেন তিনি। এমন অবস্থায় ভিসির ...
'এ মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ নয়'
কলাম
কালের কণ্ঠ
২৮ নভেম্বর ২০১২
আজ কিছু লিখতে বসে বারবার মনে পড়ছে শামসুর রাহমানের কবিতার সেই লাইনটি- 'এ মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ নয়।' আজকের শোকের কোনো ভাষা নেই। বলা যায়, বাকরুদ্ধ। তবু আমরা যারা বেঁচে আছি, আমাদের বলতে হবে। বাঁচতে হবে। আরো লাখ লাখ শ্রমিক বাঁচার জন্য হাজার হাজার গার্মেন্টে কাজ করছে, তাদের জীবনের নিরাপত্তার কথা ভাবতে হবে। এই শতাধিক লাশের বিনিময়ে অন্তত জীবিতরা আর যাতে পুড়ে না মরে সে নিশ্চয়তাটুকু প্রতিষ্ঠিত হোক। তাহলেও এদের আত্মা শান্তি পাবে, বেঁচে থাকা আরো অনেক শ্রমিক ভাই-বোন ...
সীমান্ত হত্যা, পানি আগ্রাসন এবং বিরোধী নেত্রীর দিল্লি সফর
কলাম
বিডি টুডে
১৭ অক্টোবর ২০১২
ঢাকায় প্রতিবেশী দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি এবং বিএসএফের মহাপরিচালক পর্যায়ে যৌথ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়া থেকে আজ পর্যন্ত তিন সপ্তাহ অতিক্রম করেনি। সেই বৈঠক শেষে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর প্রধান ইউ কে বানসাল সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন। তার বাহিনী কর্তৃক সীমান্তে নির্বিচারে অসহায় বাংলাদেশীদের হত্যা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন উঠলে তিনি হত্যার সংখ্যা নাটকীয়ভাবে কমার দাবি করেছিলেন। বিএসএফ প্রধান সেদিন আরও বলেছিলেন যে, তার বাহিনী নাকি অনন্যোপায় হয়ে কেবল দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্যই বাংলাদেশীদের মেরে থাকে। অসহায় কিশোরী ...
বৌদ্ধদের ওপর হামলা : চাই গণতদন্ত কমিশন
কলাম
বিডি টুডে
১৭ অক্টোবর ২০১২
রামু, উখিয়া ও পটিয়ায় বৌদ্ধ মন্দিরে হামলার পর ২ অক্টোবর ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের নেতৃত্বে বিএনপির পক্ষ থেকে ৮ সদস্যের একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়। এ তদন্ত দল ৫ ও ৬ অক্টোবর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে বৃহস্পতিবার রাতে ৬৭ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার হাতে অর্পণ করেন। ৬৭ পৃষ্ঠার এ তদন্ত প্রতিবেদন আমার হস্তগত হয়নি, বিস্তারিত পড়ার সুযোগও হয়নি। পত্র-পত্রিকায় যা পড়েছি তা থেকে দেখেছি তদন্ত দলের প্রধান মওদুদ আহমদ দাবি করেছেন যদিও তদন্ত দল ...
প্রতিক্রিয়া
‘বাস্তবতা ও নাগরিক ঐক্য’
খোলা কলাম
প্রথম আলো
৩০/০৭/২০১২
গত ২২ মে ‘নাগরিক ঐক্য’ কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকের পর থেকে একটা আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। ওই দিন কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ছিল মধ্যাহ্নভোজের বিরতির পর, আর সকালে ছিল আলোচনা সভা। সেখানে অতিথি বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাফিজউদ্দিন খান, আসিফ নজরুল প্রমুখ। পাঠক, উল্লেখ করা প্রয়োজন মনে করছি যে এই দুজন নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য না হলেও ঐক্যের সঙ্গে তাঁদের চিন্তার অনেক মিল আছে। নাগরিক ঐক্য সিভিল সোসাইটি বা নাগরিক আন্দোলনের নেতা-কর্মীদের সহযোগী মনে করে। আলোচনা করতে গিয়ে আসিফ নজরুল আমাকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনি বরং একটা পার্টি করেন, ৩০০ আসনে প্রার্থী দিন। মানুষ আওয়ামী লীগ, বিএনপির কোনোটাকেই পছন্দ করে না।... এরপর আলোচনা এই লাইনেই অগ্রসর হয়। প্রধান অতিথির ভাষণে হাফিজউদ্দিন খান একই রকম কথার প্রতিধ্বনি করেন। সেই দিনই টিভিতে এবং পরদিন পত্রপত্রিকায় ফলাও করে প্রকাশিত হয় যে নাগরিক ঐক্য তৃতীয় (বিকল্প) শক্তি গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছে এবং আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে বলেছে। ...
তৃতীয় শক্তি কাকে বলব
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১১/০৭/২০১২
বন্ধু, গুরুজন অথবা মুরবি্বদের কেউ কেউ উপদেশ দেওয়ার চেষ্টা করছেন। তারা বলার চেষ্টা করছেন আওয়ামী লীগকে শোধরাতে হলে দলের ভেতরে বসেই কঠোর প্রতিজ্ঞা নিয়ে দক্ষিণপন্থি সুবিধাবাদী কায়েমী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। গত সংখ্যার লেখায় সমাপনী টেনে বলেছিলাম এটি একটি সুন্দর প্রস্তাব। কিন্তু কিভাবে চিহ্নিত করা যাবে কারা সেই দক্ষিণপন্থি কিংবা দলের ভেতর সুবিধাবাদীই বা কারা। সুবিধাবাদী নন তারাই বা কারা? আওয়ামী লীগকে যদি আজ ভেতর এবং বাইরে থেকে দেখা যায়, তাহলে কি দেখা যাবে? যারা দেশের বাইরে সাত ...
আবার গণতন্ত্র ও নাগরিক আন্দোলন নিয়ে কথা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১৩/০৬/২০১২
নাগরিক আন্দোলন বা সিভিল সোসাইটির আন্দোলনের কথা বলা হচ্ছে কেন? আমি একটি উদাহরণ দেই। আমার ছেলে এ বছর এ-লেভেল পরীক্ষা দিয়েছে। সবাই জানেন হরতালের কারণে এ-লেভেলের ছাত্রছাত্রীদের ছুটির দিন রাত ১২টার সময় পরীক্ষা দিতে হয়েছে। আমি কয়েকজনকে প্রশ্ন করেছি_ কেন এমন হবে? এক নদী রক্ত সাঁতরিয়ে আমরা যে দেশ স্বাধীন করেছি সে দেশে গভীর রাতে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের মতো কাজ হবে কেন? আমরা তো কোনো অপকর্ম করিনি? আমাকে পাল্টা প্রশ্ন করেছেন শ্রোতারা। বলেছেন, এ জন্য তো আপনারাই দায়ী। যেহেতু আমি ...
সংলাপ হচ্ছে, সংলাপ হচ্ছে না!
খোলা কলাম
দেশে বিদেশে
০৭/০৬/২০১২
দিন দশেক আগে এক ব্যবসায়ী নেতার বাড়িতে আওয়ামী লীগের এক প্রেসিডিয়াম সদস্যের সঙ্গে দেখা হয়েছিল। কথায় কথায় তিনি বললেন, এই কয়েক দিন আগেও যে মনে হচ্ছিল বিএনপি আসুক আর নাই আসুক আওয়ামী লীগ নির্বাচন করবেই, তার পরিবর্তন হয়েছে। আওয়ামী লীগ এখন বিএনপিকেও নির্বাচনে আনতে চায়। আমি খানিকটা বিস্মিত হয়েছিলাম। এবার ক্ষমতা নেওয়ার পর থেকেই বিএনপির ব্যাপারে আওয়ামী লীগ কঠোর মনোভাব দেখিয়ে যাচ্ছিল। বিএনপির নেতা বেগম খালেদা জিয়াকে ক্যান্টনমেন্ট থেকে উচ্ছেদ থেকে শুরু করে ৩৩ জন নেতার গ্রেপ্তার পর্যন্ত সেই দৃষ্টিভঙ্গিই প্রকাশ পাচ্ছিল। ইতিমধ্যে বেগম জিয়ার দুই পুত্রসন্তানের ব্যাপারেও কঠোর মনোভাব দেখিয়েছে সরকার। আমি কিছু বলতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু তার আগে সেখানে উপস্থিত আরেকজন ব্যবসায়ী বললেন, এটা যদি হয় তাহলে ধরে নিতে হবে আগামী নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় যাচ্ছে এবং সেটা মেনে নিতে প্রস্তুত আছেন শেখ হাসিনা। ...
সংসদে চোর পুলিশ খেলা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
০৫ জুন, ২০১৩
নবম জাতীয় সংসদের ১৮তম অধিবেশন শুরু হয়েছে সোমবার। অধিবেশনের সংখ্যা দেখলে মনে হয় সংসদীয় গণতন্ত্রের পথে বেশ এগুচ্ছি আমরা। কিন্তু দেশের সবাই জানে বাস্তব চিত্র তার উল্টোটা। রবিবার অর্থাৎ ১৮তম অধিবেশন শুরুর আগের দিন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত 'পার্লামেন্ট ওয়াচ : নবম জাতীয় সংসদের অষ্টম-পঞ্চদশ অধিবেশন' শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এর বাস্তব চিত্র তুলে ধরেন। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১১-১২ বছরে ৮ অধিবেশনের ১৬৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রধান বিরোধী দল ১৫৩ দিন সংসদ ...
জাতীয় নিরাপত্তা ও বিবিধ প্রশ্ন
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১৮ এপ্রিল, ২০১৩
১৫ এপ্রিল প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সংরক্ষিত সংসদীয় কমিটির ২৩তম বৈঠকটি ছিল গুরুত্বপূর্ণ। ওই বৈঠকে দেশের সার্বিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা হয়েছে। সেখানে আলোচনার জন্য তিন বাহিনীর প্রধানকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের রেশন-ভাতা বাড়ানোর বিষয় ছাড়া নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে কেবল একটি বিষয়ের ওপর আলোচনা হয় এবং তা হচ্ছে সেনাবাহিনী কর্তৃক কোনো ধরনের অসাংবিধানিক পদক্ষেপ গ্রহণ সংক্রান্ত। বলাই বাহুল্য, রেশন-ভাতা বাড়ানোর আলোচনায় তিন বাহিনীর প্রধানকে ডাকার কোনো প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। দেশের সার্বিক নিরাপত্তা ...
শাহবাগের আন্দোলন ও নাস্তিকতা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২১শে মার্চ, ২০১৩
গত ১৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ প্রতিদিনে লিখেছিলাম, '৫ ফেব্রুয়ারি বিকালবেলা যখন ব্লগার এবং তাদের বন্ধুরা মিলে শাহবাগ চত্বরে গিয়ে বসল তখন ওরা সব মিলে হয়তো ১৫০ থেকে ২০০ জন হবে। অন্যতম ব্লগার মাহবুব রশিদ ৯ তারিখ দিনগত রাত ১২টার সময় অর্থাৎ ১০ তারিখের প্রথম প্রহরে আমার টকশো 'মধ্যরাতে মুক্তবাকে' এসেছিলেন। তিনি অনেক বছর ধরে ব্লগে কাজ করছেন। তিনি বললেন, ৫ তারিখ দুপুরে রায় জানার পর আমি আমার ব্লগে একটি পোস্টিং দিলাম, 'এই রায় আমরা মানি না'। এর প্রতিবাদে বিকালে শাহবাগ ...
মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্তির চেতনা
উপ-সম্পাদকীয়
কালের কণ্ঠ
২ মার্চ, ২০১৩
মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কথাটি আমাদের দেশে বহুল ব্যবহৃত। প্রজন্ম চত্বরে যাঁরা আন্দোলন করছেন, তাঁদের কেউ কেউ বলেছেন তাঁরা মুক্তিযুদ্ধ করেননি, মুক্তিযুদ্ধ দেখেননি। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের প্রতি তাঁরা গভীর শ্রদ্ধাশীল। তাঁরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সম্মান করেন এবং সেই চেতনার ভিত্তিতে দেশকে পরিচালিত হতে দেখতে চান। কাদের মোল্লার ফাঁসি না হয়ে যাবজ্জীবন হওয়ায় তাঁরা সেই চেতনায় প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছেন। আহত সেই চেতনা নিয়ে তাঁরা ছুটে এসেছেন শাহবাগ চত্বরে। কিন্তু কী এই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা? তা কি কেবল রাজাকারদের ফাঁসির দাবি করে? যখন মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়েছিল ...
রাজনীতির ভাষা
উপ-সম্পাদকীয়
কালের কণ্ঠ
৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
রাজনীতির কি আলাদা কোনো ভাষা হতে পারে? অনেকেই হয়তো অবাক হবেন; আমরা তো বাংলায় (অথবা জাতিগতভাবে আলাদা ভাষায়) কথা বলছি। ভাষা তো একটাই। তাহলে রাজনীতির আবার আলাদা ভাষা কেমন? কথাটা ঠিক। কিন্তু তার পরও যে ভাষায় গ্রামের কৃষক কথা বলে, সে ভাষায় শহরের একজন শিক্ষিত মধ্যবিত্ত কথা বলে না। যেভাবে একজন আইনজীবী কথা বলেন, সেভাবে একজন চিকিৎসক বলেন না। ভাষার একটি মানসম্পন্ন ও ভাবগত অর্থ রয়েছে। ভাষা অনেক কিছু নিয়ন্ত্রণ করে। ভাষার ভেতরে মানুষের সদিচ্ছা, সততা বা এর বিপরীত ...
কথা ও বাস্তবতার মধ্যে কোনো মিল নেই
কলাম
কালের কণ্ঠ
২৩ জানুয়ারি ২০১৩
৬ জানুয়ারি বর্তমান সরকারের চার বছর পূর্ণ হয়েছে। এ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ১১ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন। হিসাবমতো নির্বাচনের বাকি আর এক বছর। সেই বিবেচনা প্রধানমন্ত্রীর ২৯ মিনিটের বক্তৃতায় সব ক্ষেত্রেই পরিলক্ষিত হয়েছে। শুরুতেই তিনি ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করায় জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, 'চার বছর পর আজ আমরা গর্বভরে বলতে পারছি, নির্বাচনের প্রাক্কালে যেসব অঙ্গীকার আপনাদের কাছে দিয়েছিলাম, নানামুখী প্রতিবন্ধকতা ও সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও আমরা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে লক্ষ্য ...
দক্ষিণ দূরু হাইস্কুলের ছাত্রদের বাঁচান
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
০৫/০৯/২০১২
১ সেপ্টেম্বর গিয়েছিলাম নরসিংদীর বেলাবতে। সেখানে নাগরিক ঐক্যের একটি কর্মসূচি ছিল নাগরিকদের নিয়ে। মূলত প্রোগ্রামটি ছিল নাগরিকদের সঙ্গে মতবিনিময়। আমাদের পক্ষে আবদুল গনি সেখানে কাজ করেন। প্রধানত তার দাওয়াতেই আমরা ঢাকা থেকে জনাদশেক নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সেখানে গিয়েছিলাম। সেখানকার রাস্তাঘাটের অবস্থা ভালো। যার ফলে যেতে বেশি সময় লাগেনি। গনি সাহেবের বাড়ি হচ্ছে বেলাবর দক্ষিণ দূরু। তিনি আমাদের উপজেলা হাসপাতালের সামনে রিসিভ করলেন। তারপর একই গাড়িতে চড়ে আমরা তার বাড়িতে যাচ্ছি। যাওয়ার পথে তিনি বললেন, দক্ষিণ দূরু গ্রামে ...
এরশাদ কি কারও দূতিয়ালি করছেন
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৯/০৮/২০১২
বাংলাদেশের চলমান রাজনীতিতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মোড় নিচ্ছে। বিশেষ করে অতি সম্প্রতি সাবেক রাষ্ট্রপতি, সামরিক শাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ভারত সফর এ ধরনের চিন্তার জন্ম দিয়েছে। আমাদের দেশের রাজনীতিতে বিদেশি শক্তি_ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এরা বিভিন্নভাবে তাদের মতামত রাখে, মন্তব্য প্রকাশ করে, তাদের কূটনৈতিক দায়িত্বের বাইরে গিয়েও কথা বলে আমাদের দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে। সেটা আমাদের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বকে অনেকটা হলেও খাটো করে। প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে বহু দিনের সম্পর্ক আমাদের। আমরা একসময় একসঙ্গেই ছিলাম, একই দেশ ছিলাম। ঘটনা পরম্পরায় সে ...
দলের অভ্যন্তরে গণতন্ত্র চর্চা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
০৮/০৮/২০১২
আমাদের দেশের দলগুলোর মধ্যে কি গণতন্ত্র আছে? বড় দল দিয়ে শুরু করি। প্রথমে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের নয়, সারা উপমহাদেশের প্রাচীন একটি দল। এর জন্ম হয়েছিল একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় রোজ গার্ডেনে। যারা যারা দল করতে চান বা নেতৃত্ব দিতে চান সেসব নাগরিকের সমাবেশে। গণতান্ত্রিকভাবে সবার সঙ্গে আলোচনা করে কমিটি গঠন করা হয়েছিল। আওয়ামী লীগের ঘোষণাপত্রের মধ্যে সংসদীয় গণতন্ত্রের কথা উল্লেখ ছিল। আওয়ামী লীগের বয়স এখন ৬৩ পেরিয়ে ৬৪-তে পা দিয়েছে। এ সময়ের মধ্যে দলের অভ্যন্তরে অনেক পরিবর্তন হয়েছে। ...
বাংলাদেশ অমিত সম্ভাবনার দেশ
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৫/০৭/২০১২
২০ জুলাই শুক্রবার বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ মৈত্রী সোসাইটি ও যুক্তরাষ্ট্রের গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর হোমল্যান্ড সিকিউরিটিজের যৌথ উদ্যোগে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা ঘোষণার ২৩৬তম বার্ষিকী উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে আমি অংশগ্রহণ করেছিলাম। আমার আজকের লেখার প্রতিপাদ্য আমেরিকার স্বাধীনতা দিবস ও বাংলাদেশ। অনুজপ্রতিম সালাহউদ্দিন রাজ্জাক, যিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদকীয় বিভাগে সম্পাদকীয় সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন। লেখা শুরু করার আগে আলোচনা করছিলাম তার সঙ্গে কি নিয়ে লেখা যায়। কথা বলতে বলতে এ বিষয়ের ওপর আলোচনার অবতারণা হলো। বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের এ একটি ...
বাড়িভাড়া আন্দোলন ও রাজনীতি
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১৮/০৭/২০১২
এই লেখা শুরু করার আগে আমি জাতীয় ভাড়াটিয়া কল্যাণ সোসাইটি আয়োজিত 'বাড়িভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৯১ সংশোধনপূর্বক বাস্তবায়ন চাই' শীর্ষক সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছিলাম। বেশ কিছুদিন ধরেই ঢাকা শহরে ভাড়াটিয়াদের সঙ্গে বাড়িওয়ালাদের দ্বন্দ্ব এবং এর ফলে উদ্ভূত বিভিন্ন পরিস্থিতির খবর আমরা পাচ্ছি। ভাড়াটিয়াদের দাবি_ ১৯৯১-এর আইন কাগজে-কলমে জারি থাকলেও বাস্তবে এর কার্যকারিতা কোথাও নেই। ১৯৯১-এর আইনে মান অনুযায়ী ভাড়া নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে বলা হয়েছে_ রেন্ট কন্ট্রোলাররা ভাড়ার নিয়ন্ত্রক। মালিক ও ভাড়াটিয়ারা মিলে মানসম্মত বাড়ির ভাড়া নির্ধারণ করবে। সে জন্য কতগুলো মান ঠিক করে ...
তৃতীয় শক্তি প্রসঙ্গ
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
০৪/০৭/২০১২
২২ তারিখে প্রেস কনফারেন্স করার পর থেকে একটি আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। অনেক জবাব পাচ্ছি, মতামত, সমালোচনা, আত্দসমালোচনা ইত্যাদি। একটি উদ্ধৃতি বা একজনের একটি মন্তব্য দিয়ে শুরু করি। বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত লেখক মন্তব্য করেছেন মাহমুদুর রহমান মান্না যদি সত্যিই একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেন তাহলে বিএনপির হয়তো আখেরে লাভ হবে। তাদের জোটের সদস্য সংখ্যা বাড়বে। ১৮ দলের জোটের বদলে ১৯ দলীয় জোট তৈরি হবে। শূন্য+শূন্য+শূন্য = শূন্য। মান্নার দল এই শূন্যতার রাজনীতিতে যুক্ত হবে। হাসব নাকি কাঁদব তাই ভাবছি। অনেকে ...
গণতন্ত্র ও নাগরিক আন্দোলন
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
০৭/০৬/২০১২
সিভিল সোসাইটি মুভমেন্ট বা নাগরিক আন্দোলন- এ সময়ের একটি আলোচ্য বিষয়। ১ জুন নাগরিক ঐক্যের ব্যানারে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রথিতযশা আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, ড. শাহদীন মালিক, ড. আসিফ নজরুল, ড. পিয়াস করিম, ড. তুহিন মালিক ও আবদুল্লাহ সরকার। ব্যারিস্টার রফিক-উল হক তার বক্তব্যে বলেছেন, গ্রাম-গঞ্জের মানুষ আর দুই নেত্রীকে চায় না। মানুষ এখন দুই নেত্রীর ওপর, তাদের কর্মকাণ্ডের ওপর বিরক্ত। তারা এখন পরিবর্তন চায়। বাকি বক্তারাও একই রকম কথা ...
অন্ধকার সুড়ঙ্গে রাজনীতি_ আলো কোথায়?
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/০৪/২০১২
রাজনীতি যে একটি সংঘর্ষের সুড়ঙ্গের মধ্যে প্রবেশ করেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। পরিণতি কী হবে সেটাও দৃশ্যমান নয়। ধরেই নেওয়া যেতে পারে যে আমরা যা চাই না, ভাবি না, পছন্দ করি না_ সে রকম একটা কিছু ঘটে যাবে। এসব নিয়ে উদ্বেগ যথেষ্ট এবং তা সর্বমহলে। আরও উদ্বেগের বিষয় যে, এ সুড়ঙ্গ থেকে আলোর পথে উত্তরণের কোনো আন্তরিক চেষ্টা লক্ষণীয় নয়। পর্দার অন্তরালে অনেক কিছু ঘটে। সেটা ভালো হতে পারে, মন্দ হতে পারে। কিন্তু হঠাৎ করে সবাইকে চমকে দিয়ে ভালো ...
রাজনৈতিক সংস্কৃতি :কিছুই বদলায়নি
খোলা কলাম
দেশে বিদেশে
২৩/০৪/২০১২
বাংলাদেশ এখন চল্লিশ বছরের যুবক। এই ৪০ বছরে আমাদের রাজনীতির কী উন্নতি হয়েছে। খুব সহজে এর জবাব দেয়া মুশকিল, সমাজের ভিতরে, রাজনীতির অন্তঃশরীরে এতসব বিষয় ক্রিয়া করে যা সব সময় আমাদের খালি চোখে ধরাও পড়ে না। সমাজ সতত পরিবর্তনশীল। যে কোথাও স্থির দাঁড়িয়ে থাকে না। বিভিন্ন সূচকে দেখা যাচ্ছে আমাদের অর্থনীতি ও সমাজ বেশ খানিকটা এগিয়েছে। শিশুমৃত্যুর হার রোধ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রগতির জন্যে আমরা জাতিসংঘ কর্তৃক পুরস্কৃত হয়েছি। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি অসাধারণ এক জনগোষ্ঠী আমাদের এই ভূখন্ডে বাস করে। বিস্ময়কর, প্রায় সাড়ে ষোল কোটি এই মানুষ মাত্র ৫৪ হাজার বর্গমাইলের মধ্যে কেমন সংগ্রাম করে বেঁচে আছে। কিন্তু তার পরেও আমরা কি বলতে পারছি গুণগত কোন পরিবর্তন হয়েছে আমাদের অর্থনীতি বা রাজনীতিতে। প্রবাসীরা বলেন, বিশ্বের যেখানেই যাবেন বাঙালিরা ভাল করছেন। জাতিসংঘের শান্তি মিশনেও বাংলাদেশিরা ভাল করছে। খুব ভাল লাগে। ...
গণতন্ত্র ও বাঙালি চেতনার প্রতিফলন ভাষা আন্দোলন
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২১/০২/২০১১
আহমদ রফিক। বরাবরই একজন প্রতিবাদী মানুষ হিসেবে প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছেন। মৌলবাদ ও স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি একাধিকবার তার প্রাণনাশের চেষ্টা করেছে। তবে সমাজ প্রগতির সংগ্রামে কখনো থেমে থাকেননি। এ সংগ্রামী মানুষ বলেছেন তার চিন্তা ও চেতনার কথা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন রুহুল আমিন রাসেল। প্রশ্ন : কেমন ছিল ৫২'র ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপট? আহমদ রফিক : ৫২'র ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপট বলতে গেলে বলতে হয় যখন পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা নিশ্চিত হয়, তখন ১৯৪৭ সালের মে মাসে মুসলিম লীগের নেতা চৌধুরী খালেকুজ্জামান বললেন, পাকিস্তানের ...
সাংঘর্ষিক রাজনীতির জন্য দায়ী উভয়ই
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৯ মে, ২০১৩
আমার এ লেখা যখন ছাপার অক্ষরে পাঠকদের সামনে হাজির হবে তখন সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলছে। তারেক রহমানের সব মামলা প্রত্যাহার ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ১৮ দলীয় জোট এ হরতালের ডাক দিয়েছে। গতকাল তারেক রহমানের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে জয়পুরহাট, টাঙ্গাইল, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, কুমিল্লা, ফেনী ও লক্ষ্মীপুরে হরতাল ডেকেছিল বিএনপি। এসব ঘটনা ঘটছে এমন এক সময় যখন মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের রাজনীতিবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি ওয়েন্ডি আর শেরম্যান খুবই বিরক্ত হয়ে ঢাকা ছেড়ে চলে গেছেন। ২৬ মে তিনি বাংলাদেশে ...
নিষেধাজ্ঞা ও নির্বাচনের রাজনীতি
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২২ মে, ২০১৩
একটি অবিস্মরণীয় ঘটনা ঘটেছে ১৯ মে। ওইদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর মিরসরাই উপজেলার বারইয়ারহাটের জোরারগঞ্জ থানা উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একজন সাংবাদিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন, 'গণতান্ত্রিক দেশে সভা-সমাবেশ করার অধিকার সবার আছে। বৃহত্তর রাজনৈতিক দল হিসেবে আরও বেশি আছে বিএনপির। কিন্তু তাদের দলীয় কার্যালয়ের সামনেও সমাবেশ করতে দিচ্ছেন না, এর কারণ কি?' জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'যারা সমাবেশের অনুমতি নিয়ে সমাবেশকে দুবৃত্তদের হাতে তুলে দেন, জনসাধারণের ওপর অত্যাচার করেন, নির্যাতন করেন, গাড়ি পোড়ান, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জিনিসপত্র নষ্ট করেন, দোকান লুট করেন, তাদের যুক্তিসঙ্গত বাধা-নিষেধ সাপেক্ষে আমরা সমাবেশ করার অধিকার স্বীকার করা সত্ত্বেও আগামী এক মাস পর্যন্ত কোনো সমাবেশ কোনো দলকেই করতে দেব না।' পত্রিকায় এভাবেই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছে, টেলিভিশনে স্ক্রলে দেখানো শুরু হয়েছে, যাতে বলা হয়েছে_ এক মাস কোনো রাজনৈতিক দলকে কোনো সভা-সমাবেশ করতে দেবে না সরকার। পর্যবেক্ষক মহল হতচকিত হয়ে পড়েছে। এটা তো প্রায় জরুরি অবস্থা জারির সমান। অথচ সরকার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেনি। সাদা চোখে দেখলে এটাকে কেবল ...
শাপলা চত্বর মুক্ত হয়েছে- দেশ?
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১০ মে, ২০১৩
৬ মে সকালে দেশের একজন প্রতিষ্ঠিত আইনজ্ঞ ও রাজনীতিবিদের সঙ্গে কথা হচ্ছিল। আমি তার কাছে আগের রাতে মতিঝিলের শাপলা চত্বর হেফাজতমুক্ত করার সরকারি অভিযানের বিষয়ে তার মত জানতে চাইলাম। তিনি বললেন, সরকার আপাতত বেঁচেছে। কিন্তু রাষ্ট্র বিপদে পড়েছে। আমার এক বন্ধু ওই দিন সকালে ফোন করেছিলেন। ছাত্রজীবনে ছাত্র ইউনিয়ন করলেও এখন তিনি সরকারকে পছন্দ করেন না। কিন্তু তিনি হেফাজতের এই আন্দোলনও সমর্থন করেন না। আগের রাতের সরকারি অভিযানে তিনি খুশি। বললেন, আমার মতো অনেকেই হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে। হেফাজতিরা যদি ...
নাগরিক উদ্যোগ জরুরি
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৪ এপ্রিল, ২০১৩
স্বাধীনতার চার দশক পরও দেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক গণতন্ত্র, যেমন অর্থনৈতিক সমতা, সামাজিক ন্যায়বিচার, অসাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মীয় সততার ভিত যে শক্ত হয়নি দেশের বর্তমান পরিস্থিতিই তার প্রমাণ। এ সময়কালের আর্থ-সামাজিক অর্জন প্রায় ঢাকা পড়ে গেছে সামাজিক বৈষম্য, অর্থনৈতিক বিশৃঙ্খলা, দুর্নীতি, দলীয়করণ, ক্ষমতাসীন ও ক্ষমতাহীনদের নোংরা প্রতিযোগিতায়। প্রতিটি সরকারের আমলেই পরিস্থিতি আগের চেয়ে খারাপ হয়েছে। সমাজে বৈষম্য বিশৃঙ্খলা দুর্নীতির পাশাপাশি ধর্মের অপব্যবহারও বেড়েছে। আড়াল করা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধকালে যারা স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল তাদের বিষয়টি। ফলে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার যথাসময়ে সম্পন্ন হয়নি। এ ...
জলিল ভাই ও দেশের সর্বশেষ পরিস্থিতি
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২১শে মার্চ, ২০১৩
৭ মার্চ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী সহিংসতা বন্ধে দেশের সব জেলা-উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটি গঠন করতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে আনুষ্ঠানিক নির্দেশ দিয়েছেন। জেলা প্রশাসকদের পরামর্শক্রমে এসব কমিটিতে মসজিদের ইমাম, আলেমসহ সব শ্রেণী-পেশার প্রতিনিধিকে রাখতে বলা হয়েছে। এর আগের দিন অর্থাৎ বুধবার প্রধানমন্ত্রী সংসদে বলেছিলেন, সহিংসতা প্রতিরোধে তৃণমূল পর্যায়ে সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটি গঠন করার জন্য। এর পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু সচিবালয়ে বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী সারা দেশে সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটি ...
এই পশুবৃত্তি নিরসনে সোচ্চার হতে হবে
কলাম
কালের কণ্ঠ
২০ জানুয়ারি ২০১৩
বাংলাদেশে নারী নির্যাতনের হার অন্যান্য দেশের তুলনায় এমনিতে অনেক বেশি। নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করা যাচ্ছে না। ইদানীং তা যেন লাগামহীন হয়ে পড়ছে। সরকারের প্রচার মাধ্যমে নানাবিধ খাতে উন্নয়নের সূচক যেভাবে দেখানো হচ্ছে, এমনকি নারীর ক্ষমতায়ন সম্পর্কেও পাঁচ মুখে বলা হচ্ছে। এসব সত্যি হলে নারী নির্যাতনের হার হ্রাস পাওয়ার কথা। অথচ হচ্ছে বিপরীত। নারীর প্রতি অমানবিক আচরণ, সহিংসতা, গণধর্ষণ ও ধর্ষিতাকে খুন- এসব বেড়েই চলেছে। এর কারণ খুঁজতে গেলে দেখা যায় নির্যাতিতার স্বজন ও জনগণের অভিযোগ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ...
দুর্নীতি এবং মানবতা
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
১২/০৯/২০১২
এক. গত বুধবার বাংলাদেশ প্রতিদিনে আমার লেখা প্রকাশিত হওয়ার পর দক্ষিণ দূরু থেকে আমাকে অনেকেই ফোন করেছিলেন। দক্ষিণ দূরুতে বাড়ি অথচ ঢাকায় থাকেন এমন অনেকে ফোন করেছিলেন। সবার আগে ফোন করেছিলেন ওসমান গনি। মূল কথা হচ্ছে, 'দক্ষিণ দূরু হাইস্কুলের ছাত্রদের বাঁচান' শিরোনামে লেখা প্রকাশিত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে জানতে চাওয়া হয়েছে, সত্যি সত্যি স্কুলটার অবস্থা খারাপ কিনা। যদি সেরকম হয়ে থাকে তাহলে যেন অতিসত্ব্বর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। দক্ষিণ দূরুর লোকজন বিশেষ করে দক্ষিণ দূরু হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক ...
এক্সিট রুট কি মিলবে?
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৮/০৮/২০১২
আমার মনে হয়েছে যে, শেখ হাসিনা একটা এক্সিট রুট খুঁজছেন। এটা তো মানতেই হবে যে, এ প্রস্তাব দেওয়ার পর সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী আর টেকে না। বাজারে কথা আছে, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয় জোট থেকে ৫ জন করে সদস্য নিয়ে একটা ছোট সরকার গঠন করা হবে। বিএনপি নিশ্চয়ই ব্যাপারটা জানে। খোদ চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে কোনো নির্বাচন হবে না। তবে কি স্পিকারকে মেনে নেওয়া হবে? সে কথাও বাজারে চালু আছে। শেষ পর্যন্ত মিলবে কি? এখনই বলা যাবে না। বিএনপি ইতিমধ্যে ২০০ আসনে মনোনয়ন পাকা করেছে বলে সংবাদপত্রে খবর প্রকাশিত হয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মাঝে মধ্যে বোঝা মুশকিল। তিনি হাসেন। উচ্ছ্বসিত হন। প্রগলভ হন। সেটা বোঝা যায়। তিনি রাগ করেন। গম্ভীর হয়ে যান। কাঁদেন। যদিও আমি তাকে কখনও কাঁদতে দেখিনি। তবে কাঁদেন যে সেটাও বোঝা যায়। মাঝে মধ্যে তাকে বুঝি না আমি। এটা হতে পারে যে, বড় বড় মানুষকে কখনও কখনও বুঝতে পারা একটু দুষ্কর ...
বিএনপির আন্দোলন
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২০/০৬/২০১২
বেগম জিয়া এবং বিএনপি বেশ ধীরগতিতে এগুচ্ছে এ কথা তাদের ১১ জুনের গণসমাবেশ দেখে বোঝা যায়। কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে প্রথমত আমি বলব, এ লেখা আমি যেদিন লিখছি সে সময়ের ভেতরে গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে অনেক নেতা মুক্তি পেয়েছেন। যদিও এটা সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে কোনো সমঝোতার ইঙ্গিত দেয় বলে মনে করি না। যারা মুক্তি পেয়েছেন তাদের অন্যতম বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের বলেছেন, বিএনপিকে ভাঙা ...
সংসদের অবমাননা আসলে কে করেছেন?
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৭/০৬/২০১২
ডেপুটি স্পিকার কর্নেল (অব.) শওকত আলী অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদকে নিয়ে সংসদে আলোচনা ঠিক হয়নি বলে অভিমত দিয়েছেন। তবে সেটা বলা হয়েছে সংসদের বাইরে। সংসদে ৩ জুন যারা আলোচনা করেছেন তারা এ ধরনের মন্তব্য করার আগে একটু কি খতিয়ে দেখতে পারতেন না যে তিনি কী বলেছেন? এ কাজ কি যোগাযোগের আধুুনিক তথ্যপ্রযুক্তি যাদের হাতে তাদের জন্য কঠিন কিছু ছিল? উগ্র আবেগের বশে কিংবা ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে তারা যা বলেছেন তাতেই তো সংসদকে খাটো করা হয়েছে ক্ষমতাসীনদের আচরণ ও উচ্চারণে ...
সামনে সংকট : সমাধান কোন পথে?
খোলা কলাম
বাংলাদেশ প্রতিদিন
২৬/০৫/২০১২
হরতাল নিয়ে দেশে এখন খুব কথাবার্তা হচ্ছে। অবশ্য এ নিয়ে কথাবার্তা যে এখনই শুরু হয়েছে তেমনটি বলা যাবে না। হরতাল নিয়ে কথা হচ্ছে অনেক দিন থেকেই। পাকিস্তান আমল যখন ছিল তখন আমরা হরতাল ডেকেছি। স্বাধীনতার পরও কখনো কখনো হরতাল ডাকা হয়েছে। হরতাল বা ধর্মঘটকে তখনো আন্দোলন-সংগ্রামের একটি বড় কর্মসূচি ভাবা হতো। হরতাল জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে ফেলছে_ এমন প্রচার সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়নি। সাধারণ মানুষের পক্ষ থেকেও তা বলা হয়নি। কিন্তু বর্তমানে হরতাল নিয়ে প্রচুর কথাবার্তা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ...
প্লিজ বলুন, সেই পথ কী
রাজনীতি
সমকাল
২০/০৫/২০১২
বিদেশ থেকে গুরুত্বপূর্ণ নেতারা এসে বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নানা দেশের কূটনীতিকরা বলেছেন_ এভাবে দেশ চলতে থাকলে আবার কোনো অশুভ শক্তি গ্রাস করবে আমাদের। আর সেই সময়ে প্রধানমন্ত্রী বলছেন, যারা জনজীবনে দুর্ভোগ সৃষ্টি করবে তাদের সঠিক পথে আনার উপায় তার জানা আছে। এর চেয়ে আশ্বস্ত হওয়ার কথা আর কী হতে পারে? প্রধানমন্ত্রী প্লিজ বলুন, সেই পথ কী। আমরাও সেই পথে হাঁটতে চাই, যাতে দেশে শান্তি ফিরে আসে হঠাৎ করেই যেন বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনের দৃশ্যপট বদলাতে শুরু করেছে। প্রায় একই সময়ে ...
অন্ধকার সুড়ঙ্গে রাজনীতি_ আলো কোথায়?
খোলা কলাম
দেশে বিদেশে
২৮/০৪/২০১২
দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক। কিছুদিন ধরেই_ আমি নিকট অতীতের কথা বলছি, রাজনীতি সংঘাতের মুখোমুখি। চ্যালেঞ্জ-পাল্টা চ্যালেঞ্জ ধ্বনিত হচ্ছিল সভা-সমাবেশের ভাষণে। সংবাদপত্র ও টেলিভিশন সংবাদের সূত্রে দেশবাসী সব খবরই জানতে পারছে এবং এ উদ্বেগ তাদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ছে। প্রধান দুটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পরস্পরের চরম প্রতিপক্ষে পরিণত হয়েছে। কেউ কাউকে ছাড় দিতে চাইছে না। বিএনপি নব্বইয়ের দশকের শুরুতে ক্ষমতায় থাকাকালে নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিরুদ্ধে ছিল। কিন্তু আন্দোলনের চাপে তারা এটা মেনে নেয়। বর্তমান মহাজোট সরকার সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের সূত্র ধরে জাতীয় সংসদের মাধ্যমে এ পদ্ধতি বাতিল করে দিলে বিএনপি বিষয়টিকে মেনে নেয়নি। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার দাবিতে তারা জনসমাবেশ ও রোডমার্চের কর্মসূচি গ্রহণ করে। ঢাকা থেকে তারা কয়েকটি এলাকায় গিয়ে সমাবেশ করে এবং এতে কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উৎসাহের সৃষ্টি হয়। ...
ভুল স্বীকার না করলে সংশোধন হবে কী করে?
খোলা কলাম
দেশে বিদেশে
২০/০৪/২০১২
তিন বছর পার হয়ে গেল বর্তমান সরকারের। দেখতে দেখতে কেমন পেরিয়ে গেল সময়টা। তিন বছর আগে ৬ জানুয়ারি যখন এ সরকার ক্ষমতায় এল, তখনকার কথা মনে পড়ে। মানুষের কী উচ্ছ্বাস ছিল, বিশ্বাস ছিল, আশা ছিল। দিনবদলের অঙ্গীকার করেছিল আওয়ামী লীগ। মানুষ আশায় বুক বেঁধেছিল। সেই প্রতিশ্রুতিতে আওয়ামী লীগের মন্ত্রিসভা শপথ গ্রহণ করেছিল। ঠিক তিন বছর আগে। তিন বছরে মানুষের এ প্রত্যাশা কতখানি পূরণ হয়েছে, এ প্রশ্ন এখন সবার মনে। প্রকৃতপক্ষে দুই-আড়াই বছর ধরে এ প্রশ্ন মানুষের মনে ছিল। কারণ, যত বড় বড় প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল নির্বাচনী ম্যানিফেস্টোতে, শুরু থেকেই তার সঙ্গে যেতে পারছিল না আওয়ামী লীগ। যেমন মন্ত্রিসভার কথা ধরি। আওয়ামী লীগ তার ম্যানিফেস্টোতে ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা বলেছিল। ...
ঢাকাকে বদলে দেওয়া সম্ভব
নগর পরিকল্পনা
সমকাল
০৮/০৩/২০১২
আমাদের সমস্যা নেতৃত্বের। আমি বলব মূলত রাজনৈতিক নেতৃত্বের। সংসদীয় ব্যবস্থা চালু রয়েছে দুই যুগ ধরে। নির্বাচনের ফলে বলা যায়, জনগণ দ্বিদলীয় ব্যবস্থার পক্ষে ভোট দিচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে চলছে দ্বিদলীয় লড়াই। ঠেকাও ও ঠকানোর লড়াই। ক্ষমতাসীনরা ক্ষমতা কুক্ষিগত, কেন্দ্রীভূত করে রাখতে চায়। বিকেন্দ্রীকরণে তাদের প্রচণ্ড অনীহা। সিটি করপোরেশনের যেভাবে কাজ করা উচিত, এ মনোভাবের কারণে সেটা সম্ভব হয়ে ওঠে না রাজধানী ঢাকার জনসংখ্যা কত_ ১ কোটি, নাকি আরও বেশি? অন্তত দেড় কোটি? কিছুদিন আগেও একটি সিটি করপোরেশনের অধীনে ছিল রাজধানী ...
সড়ক দুর্ঘটনা রোধের কোনো উপায় নেই
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৬/০৮/২০১১
বাংলাদেশে জনগণের আতঙ্কের বিষয়ের অভাব নেই। উপরন্তু যেদিকেই তাকানো যায় আতঙ্ক এক এক রূপ নিয়ে মানুষের দিকে তাকিয়ে থাকে। এমনই এক আতঙ্ক বা বলা চলে মহাতঙ্কের ব্যাপার হলো সড়ক দুর্ঘটনা। এমন দিন নেই যে, বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিরীহ লোকেরা হতাহত হচ্ছে না। শুধু তাই নয়, এই পরিস্থিতির অবনতি প্রতিদিন হচ্ছে এবং এর ফলে উত্তরোত্তরভাবে অধিকসংখ্যক লোক দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে মারা যাচ্ছে। আগে যেখানে সংবাদপত্রে মৃতের সংখ্যা পাঁচ- সাত হতো, এখন সেখানে এ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দশ-পনেরো। বাংলাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতির এমনই চরিত্র যে, এখানে অবনতি ঠেকানোর কোনো লক্ষণই দেখা যায় না। দেশে হাজার রকম সমস্যা আছে, যার মধ্যে কিছু সংখ্যক গুরুতর। অন্য সমস্যা বাদ দিয়ে গুরুতর সমস্যাগুলোর ক্ষেত্রে দেখা যায়, এগুলো সমাধানের জন্য বা এগুলো মোকাবেলার জন্য সরকার থেকে রুটিন ব্যাপার হিসেবে অনেক প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়, অনেক পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে দেখা যায়, এসব ক্ষেত্রে কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হলেও তার কোনো সুফল হয় না। ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩