কলামিস্টদের নাম
বদরুদ্দিন উমর এর কলামগুলো

বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি কেন ও কীভাবে সৃষ্টি করা হচ্ছে?
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২১ মার্চ, ২০১৩
বাংলাদেশে এখন সাম্প্রদায়িকতার জিকির তুলে চারদিকে মাতামাতি শুরু হয়েছে। সত্যি অর্থে যদি বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা থাকে তাহলে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র ছাড়া আর কী অর্জিত হলো? দেশে ধুমধাড়াক্কা উন্নতি অনেক হয়েছে এই স্বাধীন রাষ্ট্রে; কিন্তু এখানে ক্ষুধার্ত, রুটির অভাবে বিপন্ন, স্বাস্থ্যসম্মত ঘরবাড়ি, এমনকি মাথা গোঁজার ঠাঁইহীন, চিকিৎসাহীন, শিক্ষাহীন, নিরাপত্তাহীন মানুষের সংখ্যা বাংলাদেশে কোটি কোটি। এরপর দেশে সাম্প্রদায়িকতা পর্যন্ত যদি থাকে, তাহলে নব্য বাঙালি শোষক-শাসকগোষ্ঠীর জন্য একটি স্বতন্ত্র রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের অবদান বলে আর কী থাকল? ১৯৪৭ ...
দেশজুড়ে ফ্যাসিস্ট জামায়াতের সহিংসতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
৫ মার্চ, ২০১৩
প্রতিক্রিয়াশীল ও ফ্যাসিস্ট রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে জামায়াতে ইসলামী এখন আবার নতুন করে সক্রিয় হয়েছে। এভাবে সক্রিয় হয়ে তারা যে শুধু দেশের রাজনৈতিক আবহাওয়াকে বিষাক্ত করছে তাই নয়, দেশজুড়ে সহিংসতা ও নৃশংসতার ব্যাপক বিস্তার ঘটাচ্ছে। এটা ঠিক যে, বাংলাদেশে ধর্মবিযুক্ততার (ঝবপঁষধৎরংস) দাবিদার রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ, বাকশাল ইত্যাদি তাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সহিংসতা ও নৃশংসতার যথেষ্ট ব্যবহার করে এসেছে এবং এখনও করছে। ধর্মের রাজনৈতিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে 'ধরি মাছ না ছুঁই পানি'র অবস্থানে দাঁড়িয়ে বিএনপিও তাই করেছে। কিন্তু ধর্মের ধুয়া তুলে জামায়াতে ...
শাহবাগ আন্দোলনের গতিপ্রকৃতি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
বাংলাদেশে শাসকশ্রেণীর দ্বন্দ্ব এখন তুঙ্গে উঠেছে। এই দ্বন্দ্বের প্রতিফলনই আমরা দেখছি তাদের মধ্যকার রাজনৈতিক সংঘর্ষের মধ্যে। আপাতদৃষ্টিতে ধর্মকে কেন্দ্র করেই এই দ্বন্দ্ব-সংঘর্ষ জারি থাকলেও, বাস্তবত ধর্মকে অবলম্বন করে বাংলাদেশে রাজনীতির সামাজিক ভিত্তিভূমি ১৯৭১ সালেই বিনষ্ট এবং অপসারিত হয়েছে। ভারতের সঙ্গে সম্পর্ককে ভিত্তি করে সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গি জিইয়ে রাখার একটা চেষ্টা থাকলেও ব্রিটিশ আমলে বিশেষভাবে এবং স্বাধীনতা-পরবর্তী পাকিস্তান আমলেও কিয়দংশে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি যতখানি ছিল বাংলাদেশে সেটা আর থাকেনি। এ জন্য মুসলিম লীগের মতো কোনো সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল আর গড়ে ওঠেনি। ...
জনগণ আগামী নির্বাচনের জন্য অপেক্ষা করছেন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৯ জানুয়ারি ২০১৩
বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর দুই প্রধান রাজনৈতিক দলের দৈনন্দিন বাগ্যুদ্ধ এখন দাঁড়িয়েছে আগামী সাধারণ নির্বাচন কীভাবে হবে তাকে কেন্দ্র করে। এই বাগ্যুদ্ধ এমন ভাষা ও এমন ভঙ্গিতে চলছে যাতে এটা বিশ্বাস করা অসম্ভব যে আমরা একটা সভ্য দেশে বসবাস করছি। কারণ এই ভাষা হলো, খিস্তিখেউরের ভাষা। দুই পক্ষই তাদের বাগ্যুদ্ধে খিস্তিখেউরের ভাষা ব্যবহার করছে, যদিও এই ভাষা ব্যবহারে দুই পক্ষের পারদর্শিতা সমান নয়। এ ক্ষেত্রে ভাষার মধ্যে যেমন খিস্তিখেউর আছে, তেমনি সভা-সমিতিতে ও সংবাদ সম্মেলনে এই খিস্তিখেউর যে ভঙ্গিতে চলে তার ...
আওয়ামী লীগের কাউন্সিল সভায় গণতন্ত্রের সংকট
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১ জানুয়ারি ২০১৩
অনেক ঢাকঢোল পিটিয়ে আওয়ামী লীগের কাউন্সিল মিটিং শেষ হলো। যেসব শব্দ এখন শাসকশ্রেণীর খাতায় তোলা হয়েছে সেই অনুযায়ী এই কাউন্সিলের কয়েকদিন আগে থেকেই তাদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিল যে, এবারকার কাউন্সিল মিটিংয়ে অনেক 'চমক' সৃষ্টি হবে! কিন্তু বাস্তবত কোনো 'চমক' দেখা গেল না। উপরন্তু যা দেখা গেল সেটা শুধু দেশের শাসন ব্যবস্থার ক্ষেত্রেই নয়, আওয়ামী লীগের নিজস্ব দলীয় স্বার্থের ক্ষেত্রেও বিপজ্জনক। বাংলাদেশের শাসন ব্যবস্থায় কোথাও যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বলে কিছু নেই এটা কাউকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেওয়ার কিছু ...
আওয়ামী লীগের আত্মঘাতী লাইন
কলাম
আমার দেশ
২৭ ডিসেম্বর ২০১২
আওয়ামী লীগ ১৯৭১-এর যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চায় এটা তাদের কথাবার্তা ও কার্যকলাপ থেকে ঠিক মনে হয় না। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হলে তো সব শেষ। কিন্তু আওয়ামী লীগ এর শেষ চাওয়ার পরিবর্তে এই ইস্যুটিকে ঝুলিয়ে রেখে তার রাজনৈতিক চালবাজি চালিয়ে নিতে চায়, এমনটাই এখন দেখে-শুনে মনে হচ্ছে। এদিক দিয়ে যত গর্জে তত বর্ষে না—এটাই আওয়ামী লীগের অবস্থা। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তির বিষয়ে সরকারি লোকজন যেসব কথাবার্তা বলছেন তাতে মনে হয় এদের ধারণা শাস্তির সব ব্যবস্থা হয়ে গেছে, বিচারকদের সঙ্গে বন্দোবস্ত করে এখন ...
বাংলাদেশ এখন অনিশ্চয়তা ও গুজবের দেশ
কোটা ব্যবস্থা
সমকাল
২০ ডিসেম্বর ২০১২
একটা দেশে যখন নানা রকম গুজব ছড়াতে থাকে তখন বুঝতে হবে যে, সে দেশের অবস্থা ভালো নয়। বাংলাদেশের অবস্থা যে ভালো নয় এটা বোঝার জন্য গুজবের কোনো প্রয়োজন নেই। তবু গুজব যখন ছড়াচ্ছে তখন এর তাৎপর্য অগ্রাহ্য করা যায় না। যখনই কোনো গুজব ছড়ায় তখন অবস্থা খারাপ হওয়ার কারণেই সেটা দেখা যায়। দ্বিতীয়ত, গুজবের অন্য একটি দিক হলো, অবস্থা সম্পর্কে প্রকৃত তথ্য বা সত্য জানার উপায় না থাকা। এ কারণে গুজব ছড়ানো বন্ধ করার সব থেকে কার্যকর উপায় হচ্ছে ...
বিশ্বজিতের চিহ্নিত হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক চরম দণ্ড দিতে হবে
কলাম
আমার দেশ
১৩ ডিসেম্বর ২০১২
ডিসেম্বরের ৯ তারিখে বিশ্বজিত্ দাস নামে একটি ছেলেকে লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে বহু লোকের উপস্থিতিতে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে সেটা যে দেশে ঘটতে পারে সে দেশের সমাজ অধঃপতনের কোন পর্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে এ চিন্তা এক আতঙ্কজনক ব্যাপার। শুধু এই হত্যার ব্যাপারটিই যে আতঙ্কজনক তাই নয়, তার থেকেও বেশি আতঙ্কজনক ব্যাপার হলো, কাছেই দাঁড়িয়ে থাকা লোকজনের হত্যাকারীদের বাধা না দিয়ে হত্যার দৃশ্য অবলোকন করা। এই ঘটনার মধ্যে শুধু সন্ত্রাসের বিস্তার, শাসকশ্রেণীর রাজনীতির বিপজ্জনক অপরাধীকিকরণই দেখা যায় না, দেশের ...
মিয়ানমার ও বাংলাদেশে বৌদ্ধ-মুসলমান সাম্প্রদায়িক সংঘাত সৃষ্টির চক্রান্ত
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৬ নভেম্বর ২০১২
মিয়ানমারে ক্ষমতার দোরগোড়ায় দাঁড়ানো বিরোধীদলীয় নেত্রী অং সাং সু চি কয়েকদিন আগে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তার দেশের পশ্চিম অঞ্চলে রাখাইন রাজ্যে বৌদ্ধ ও রোহিঙ্গা মুসলমানদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ প্রসঙ্গে বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার গোড়ায় কী রয়েছে সেটা দেখার আগে রোহিঙ্গাদের অধিকারকে সমর্থন জানিয়ে তিনি তার নৈতিক নেতৃত্বের অপব্যবহার করতে চান না! তিনি আরও বলেন, এই সংঘর্ষে বৌদ্ধ এবং রোহিঙ্গা মুসলমান দুই পক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কাজেই তিনি এই বিতর্কে কোনো পক্ষ নিতে চান না! এ রকম একজন জননেত্রীকে শান্তি পুরস্কার ...
মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর সাম্প্রতিক হামলা প্রসঙ্গে
কলাম
আমার দেশ
১ নভেম্বর ২০১২
মিয়ানমারের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে রাখাইন রাজ্যে নতুন করে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটেছে। ২১ অক্টোবর থেকে শুরু হয়ে কয়েকদিনের এই ঘটনায় শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত হয়েছেন এবং বহুসংখ্যক বাড়িতে আগুন দেয়ার ফলে হাজার হাজার লোক ভিটেবাড়ি থেকে উচ্ছেদ হয়ে সর্বস্ব হারিয়েছেন। এই ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হিসেবে আখ্যায়িত করা যায় না। কারণ এতে বৌদ্ধ ও মুসলমানদের মধ্যে কোনো দ্বিপাক্ষিক সংঘর্ষ হয়নি। এটা হলো কিছু সংখ্যক বৌদ্ধ কর্তৃক রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর হামলা। এই বৌদ্ধ হামলা সাধারণ সাম্প্রদায়িক আক্রমণের মতো নয়। কারণ এটা হলো সাধারণ ...
সড়ক দুর্ঘটনা সম্পর্কে যোগাযোগমন্ত্রীর বক্তব্য ও করণীয় প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৩০ অক্টোবর ২০১২
ঈদের ছুটির মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনায় অনেক লোকের মৃত্যু হয়েছে। এ জন্য যোগাযোগমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং একই সঙ্গে বলেছেন, এসব দুর্ঘটনার জন্য ড্রাইভাররাই দায়ী। কিন্তু শুধু ঈদের ছুটির মধ্যেই নয়, সড়ক দুর্ঘটনা ও দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ঘটনা বাংলাদেশে এখন প্রতিদিনের ব্যাপার। প্রতিদিনই এখানে সড়ক দুর্ঘটনায় দশ-বিশজনের মৃত্যু হচ্ছে। হিসাব করলে দেখা যায়, এভাবে দুর্ঘটনায় এ দেশে বছরে অন্তত চার-পাঁচ হাজার লোকের মৃত্যু হচ্ছে! এই সংখ্যা নগণ্য নয়। এত বেশি মৃত্যু যেখানে হয় সেখানে বিষয়টিকে যে কত গুরুতর ও জরুরিভাবে বিবেচনা ...
ইসলামপন্থিদের বিক্ষোভ সমাবেশে আক্রমণের ফলাফল
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ইসলামবিরোধী ফিল্মের প্রতিবাদে ২২ সেপ্টেম্বর কয়েকটি ইসলামী সংগঠন এক বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। এর ফলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কার কথা বলে সরকার সমাবেশটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করে পল্টন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে। সমাবেশের ঘোষণা দানকারী দলগুলো এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রেস ক্লাবের সামনে তাদের বিক্ষোভ সমাবেশের জন্য সমবেত হয়। সেই অবস্থায় পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয় এবং সমাবেশ আয়োজকদের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিসহ অন্য কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। এর প্রতিবাদে উপরোক্ত সংগঠনগুলো ২৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা শহরে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয়। তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে ওই দিন ঢাকায় এক ঢিলেঢালা হরতাল হলেও হরতাল ব্যর্থ এটা বলা যাবে না। হরতাল হয়েছিল। ইসলামপন্থি মৌলভী-মোল্লারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নির্মিত ও প্রচারিত ইসলামবিরোধী ফিল্মটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভের জন্য যে সমাবেশ আহ্বান করেছিলেন সেটা নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ১৪৪ ধারা জারির কোনো সঙ্গত কারণ ছিল না। ফিল্মটির বিরুদ্ধে উত্তর আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়, এমনকি চীনেও বিক্ষোভ হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে। কাজেই ...
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইসলামবিরোধী ফিল্ম ও তার প্রতিক্রিয়া
উপ-সম্পাদকীয়
আমার দেশ
২০/০৯/২০১২
মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখন মার্কিনবিরোধী বিক্ষোভ আবার নতুন করে বড়মাত্রায় শুরু হয়েছে। এই বিক্ষোভের আপাত কারণ হলো, আমেরিকায় নির্মিত একটি ইসলামবিরোধী ফিল্ম। এতে ইসলামবিরোধী এমন সব ব্যাপার আছে যা মুসলমানদের ধর্ম চেতনায় আঘাত করে। মুসলমানরা ইসলামবিরোধী যে কোনো বিষয়েই খুব স্পর্শকাতর। তারা এর বিরুদ্ধে যেভাবে তাদের ক্রুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন, এটা অন্য ধর্মের ক্ষেত্রে সচরাচর দেখা যায় না। একথা মাথার মধ্যে রেখেই যে উপরোক্ত ফিল্মটির প্রযোজক ও পরিচালক এটি নির্মাণ করেছেন এতে সন্দেহ নেই। এর অভিনেতা অভিনেত্রীদের মধ্যে ...
দেশে দেশে মার্কিন ঔদ্ধত্য
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৮/০৯/২০১২
আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে বিশেষ মার্কিন দূত মার্ক গ্রসম্যানের সঙ্গে ১৬ সেপ্টেম্বর কথাবার্তার পর পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জারদারি জানান, পাকিস্তানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক ড্রোন বা চালকবিহীন বিমান হামলা বন্ধের জন্য তিনি তাদের কাছে দাবি জানিয়েছেন (ডেইলি স্টার, ১৭.৯.২০১২)। এই দাবি পাকিস্তান অনেক দিন থেকেই জানিয়ে আসছে কিন্তু তার দ্বারা কোনো কাজ হয়নি। পাকিস্তান সরকারের কোনো অনুমতি ছাড়া অর্থাৎ পাকিস্তানের ভূখণ্ড এবং আকাশে চড়াও হয়ে তারা এই বিমান হামলা নিয়মিতভাবেই পাকিস্তানের অভ্যন্তরে চালিয়ে যাচ্ছে। গণতন্ত্রের মুখোশধারী ও ইচ্ছামতো পরদেশ আক্রমণকারী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ...
বিশেষ সাক্ষাৎকার : বদরুদ্দীন উমর
দুর্নীতিতে ভরে গেছে সব জায়গা
উপ-সম্পাদকীয়
কালের কন্ঠ
০৬/০৯/২০১২
কালের কণ্ঠ : সরকারি দল ও বিরোধী দল এখন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ইস্যু নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচনকালীন কোন পদ্ধতির সরকার প্রয়োজন বলে আপনি মনে করেন? বদরুদ্দীন উমর : এ বিষয়ে আমি একটি পত্রিকায় লিখেছি। বাংলাদেশে ১৯৯১ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হলো। তার আগে এমন পদ্ধতির সরকার আর কোথাও হয়নি। সব দেশেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় নির্বাচিত সরকারের অধীনেই। তবে সাংবিধানিকভাবে নির্বাচন কমিশন সেই নির্বাচন পরিচালনা করে থাকে। সাধারণ কথা হচ্ছে, নির্বাচন কমিশন সেখানে নির্দলীয় সংস্থা হিসেবে তাদের দায়িত্ব ...
জনগণ আতঙ্কজনক পরিস্থিতির মধ্যে বসবাস করছেন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৭/০৮/২০১২
শুধু দুর্নীতি নয়, সন্ত্রাস এখন বাংলাদেশে এত বেশি বিস্তার লাভ করেছে যে রাহাজানি, ছিনতাই, ক্রসফায়ার, গুম-খুন, বেডরুমে হত্যা পর্যন্ত এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে এক নিয়মিত ব্যাপার। লক্ষ্য করার বিষয় যে, এসব অপরাধ প্রায় প্রতিদিনই ঘটতে থাকা সত্ত্বেও দেশের গোয়েন্দা ও পুলিশ বাহিনী এসব অপরাধের কোনো হদিস পায় না। আসল ক্রিমিনালরা ধরা পড়ে না। অর্থাৎ অপরাধীরা অপরাধ করলেও তাদের শাস্তি হয় না। এই পরিস্থিতিই এখন বাংলাদেশে নানা ধরনের অপরাধ বিস্তারের সর্বপ্রধান কারণ নানা রঙের কথাবার্তা বলা এবং নিয়মিত বলার জন্য বাংলাদেশের ...
ইসরায়েল ইরান আক্রমণ করলে তার নিজের ধ্বংসের পথই প্রশস্ত হবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৩১/০৭/২০১২
আসলে ইরাকে 'গণবিধ্বংসী' অস্ত্র এবং পারমাণবিক বোমার কথা বলে যেভাবে সে দেশ আক্রমণ করার একটা অজুহাত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র খাড়া করেছিল, ঠিক সেভাবেই এখন তারা ইরান পারমাণবিক বোমা তৈরি করছে এই অজুহাতে ইরান আক্রমণ করার ক্ষেত্র তৈরি করছে। এটা তারা করছে ইরান বারবার পারমাণবিক বোমা তৈরির কথা অস্বীকার করে পারমাণবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারের কথা বলা সত্ত্বেও। ইরান সেভাবেই পারমাণবিক বোমা তৈরির কথা অস্বীকার করছে যেভাবে ইরাকে সাদ্দাম হোসেন নিজেদের কাছে গণবিধ্বংসী অস্ত্র থাকার কথা অস্বীকার করেছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আগামী নভেম্বর ...
নির্বাচিত সরকারের অধীনে গণতন্ত্র কোথায়?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৭/০৭/২০১২
দেশে আজ যতই অরাজক পরিস্থিতি বিরাজ করুক প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেকে নিয়ে সরকারি মুখপাত্রদের পক্ষ থেকে এটা বোঝার কোনোই উপায় নেই। কারণ, তারা যে জনগণের জীবন বিপন্ন করে রেখেছেন তাদের সামনে দাঁড়িয়েই এ কথা বলতে অসুবিধা বোধ করেন না যে, বাংলাদেশের জনগণ এখন সর্বোচ্চ নিরাপত্তা এবং গণতান্ত্রিক অধিকার ভোগ করছেন! নিয়মিতভাবে পুলিশ ও র‌্যাবের ক্রসফায়ারে মানুষের মৃত্যু হলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এ কথা বলতে কোনো অসুবিধা হয় না যে, তাদের এই সরকারের আমলে কোনো ক্রসফায়ারে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি! কোনো দেশে সাবালকের ভোটে ...
১৭০ আসনে আওয়ামী লীগের অবস্থা ভালো!
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১৩/০৬/২০১২
সর্বনাশ যখন দোরগোড়ায় এসে কড়া নাড়ে তখন হুঁশ বলে আর কিছু থাকে না। আওয়ামী লীগের এখন হয়েছে সেই অবস্থা। কাজেই ১১ জুন ঢাকায় বিএনপির সমাবেশ ঠেকাবার জন্য যখন তারা ঢাকায় পুলিশ দিয়ে পরিবহন চলাচল জোর করে বন্ধ করে এবং বাইরে থেকে ঢাকায় আসা শত শত বাসের ঢাকা প্রবেশ পুলিশ দিয়ে আটকে রেখে ব্যাপকভাবে জনগণের গালাগালি খাচ্ছে, তখন তারা নিজেদের সংসদীয় দলের সভায় ঘোষণার মতো করে বলছে যে, আগামী ২০১৩ সালের নির্বাচনে তারা ১৭৫টি আসনে জয়লাভ করবে! একটি সংবাদপত্র রিপোর্টে বলা হয়, ‘প্রধানমন্ত্রী সোমবার সংসদ ভবনে আওয়ামী লীগ সংসদীয় দলের পঞ্চদশ বৈঠকে নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য সংসদ সদস্যদের নির্দেশ দিয়ে বলেন, নির্বাচিত হওয়ার মতো কাজ করুন। গণমুখী না হলে আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পাবেন না। আমার কাছে সবার খবর আছে। জরিপ রিপোর্টও রয়েছে। ...
সংসদীয় ব্যবস্থায় ‘পরাজিত শত্রু’ বলে কিছু নেই
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০১/০৬/২০১২
থানীয় প্রশাসন পর্যায়ে এখন যত নির্বাচন হচ্ছে তাতে সরকারি দল আওয়ামী লীগ অথবা আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার একটা প্রবণতা বেশ ভালোভাবেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এটা চট্টগ্রামে হয়েছে, নারায়ণগঞ্জে হয়েছে এবং সদ্যসমাপ্ত কুমিল্লায় এখন দেখা গেল। ঢাকায় এই পরাজয়ের ঘটনা এড়িয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বর্তমান সরকার ঢাকা শহরকে দুই ভাগে বিভক্ত করে, বিদ্যমান মেয়রকে অপসারণ করে তার জায়গায় দু’জন প্রশাসক নিযুক্ত করেছে। এসব থেকে স্পষ্ট বোঝা যায় যে, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন যদি সময়মতো বছর দুই পর অনুষ্ঠিত হয়, তা হলে তাতে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ পরাজিত হবে। তাদের এই পরাজয় শোচনীয়ও হতে পারে। এটা অবশ্য আওয়ামী লীগের কোনো বিশেষত্ব নয়। ১৯৯১ সালে সংসদীয় নির্বাচনের পর থেকে নির্বাচনের ধারাবাহিক রেকর্ডের দিকে তাকালে দেখা যাবে যে, নির্বাচিত কোনো সরকারই পর পর দু’বার নির্বাচিত হয়নি। ...
সিরিয়ায় ন্যাটো সাম্রাজ্যবাদীদের চক্রান্ত এগিয়
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৯/০৫/২০১২
সিরিয়ায় লিবিয়ার মতো তেল নেই। কিন্তু স্ট্র্যাটেজিক দিক দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে সিরিয়ার গুরুত্ব অনেক। ইসরায়েল সিরিয়ার ঘোরতর শত্রু। কাজেই সিরিয়ার বর্তমান সরকার উচ্ছেদ ইসরায়েলের হাত শক্ত করার জন্য প্রয়োজন। দ্বিতীয়ত, লেবাননের সঙ্গে সিরিয়ার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। সিরিয়ার বর্তমান সরকার ফেলে দিতে পারলে এরপর তারা সহজেই লেবাননের ওপর সামরিকভাবে চড়াও হতে পারে। তা ছাড়া ইরান তো অবশ্যই আছে। সিরিয়ার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক খুব ঘনিষ্ঠ ও বন্ধুত্বপূর্ণ। সিরিয়ার সরকার উৎখাত হলে ইরান খুব ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্বল হবে। এসব দিক দিয়ে সিরিয়ার বাশার আল ...
ধানের মূল্য ও শ্রমজীবীর মজুরির একই অবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২২/০৫/২০১২
এই মৌসুমে বোরো ধানের মূল্য না পেয়ে কৃষকরা কী পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছেন সে কথা বলতে গিয়ে এসব কথা বলার প্রয়োজন হলো। কারণ এসবই প্রাসঙ্গিক কথা। বাংলাদেশে গরিবের শ্রমের যদি কোনো মর্যাদা থাকত তাহলে কৃষকরা যেমন ফসলের ন্যায্যমূল্য পেতেন, তেমনি কারখানা শ্রমিকরা পেতেন মনুষ্যোচিত মজুরি এবং বিদেশে কার্যরত শ্রমিকদের শ্রমের মর্যাদা ও মূল্য তারা লাভ করতেন। কাজেই এসব ক্ষেত্রে যা হচ্ছে তাকে বিচ্ছিন্নভাবে দেখার উপায় নেই। এই অখণ্ড অর্থনীতিতে কোনো ধরনের শ্রমজীবীদেরই স্বার্থ দেখা ও সংরক্ষণের কোনো ব্যবস্থা আজ নেই' ...
সাম্রাজ্যবাদের অস্ত্র-বাণিজ্য ও বিশ্বের জনগণের দারিদ্র্য
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৫/০৫/২০১২
বাংলাদেশে যে পরিমাণ সম্পদ সৃষ্টি হয় তার একটা বিশাল অংশ চুরি, ঘুষ, দুর্নীতির মাধ্যমে নানা শ্রেণীর বিভিন্ন অংশ লুটপাট করে। দ্বিতীয়ত, সামরিক খাতে যে বিশাল ব্যয় হয় সেটাও চুরি-দুর্নীতির মতোই। দেশের জনগণের জন্য বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এ দুইয়ের ভূমিকা একই প্রকার। এ দুই যদি না থাকত তাহলে বাংলাদেশ গত ৪০ বছরে দারিদ্র্যকে পেছনে ফেলে অনেক দূর এগিয়ে যেত। কিন্তু দেশীয় শোষক, শাসকশ্রেণী ও তাদের আন্তর্জাতিক মুরবি্ব ও মালিক সাম্রাজ্যবাদীদের যৌথ লুটপাটের জন্য বাংলাদেশের অর্থনীতি ও ধন-সম্পদ বণ্টনের ক্ষেত্রে বর্তমান নীতি ...
ক্ষমতাসীন লোকদের দায়িত্বজ্ঞানের প্রয়োজন নেই
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৩/০৪/২০১২
ছ্যাবলা কথাবার্তা বলা কারও উচিত নয়। যারা গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত তাদের তো ছ্যাবলা কথা বলা, ছ্যাবলা আচরণ করা, এককথায় ছ্যাবলামি করা একেবারেই অনুচিত। কিন্তু অবস্থা দেখে মনে হয়, বাংলাদেশে উচিত-অনুচিতের সীমানা একেবারেই উঠে গেছে। শুধু তা-ই নয়, মনে হয় উচিত-অনুচিতের ধারণা ও নৈতিক বোধ পর্যন্ত আর অবশিষ্ট নেই। ২০ নভেম্বর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে এখন বিদ্যুত্ পরিস্থিতি সোনায় সোহাগা, এ দাবি করে বলেছেন, এ সত্ত্বেও যারা বলছে যে বিদ্যুত্ পরিস্থিতি ভালো নয়, তাদের বৈদ্যুতিক সংযোগ কেটে দেয়া হবে। তার মনে রাখা দরকার যে, নির্বাচনের মাধ্যমে তিনি পাঁচ বছরের মেয়াদে এদেশের প্রধানমন্ত্রীর গদিতে সমাসীন হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রিত্ব অথবা ক্ষমতার চিরস্থায়ী জায়গিরদারী কেউ তাকে দেয়নি। দেশে অথবা দেশের বাইরে এই জায়গিরদারী কাউকে দেয়ার মতো কোনো শক্তি নেই। ...
সামরিক খাতে ব্যয় ও জনগণের স্বার্থ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২০/০৪/২০১২
বাংলাদেশ সরকার রাশিয়া থেকে ৮৫০ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে (আমার দেশ, ১৩.২.২০১২)। বাংলাদেশ শুধু রাশিয়া থেকেই যে অস্ত্র কিনছে তাই নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, ব্রিটেন ইত্যাদি দেশ থেকেও বাংলাদেশ হাজার হাজার কোটি টাকার অস্ত্র এবং অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম কিনে থাকে। একটি দেশের সামরিক বাহিনীর জন্য অস্ত্র কেনা দরকার হয়। কাজেই বাংলাদেশ সামরিক বাহিনীর জন্য অস্ত্র কেনা হচ্ছে, শুধু এটাই কোনো অস্বাভাবিক বা অসাধারণ ব্যাপার নয়। এ নিয়ে সমালোচনারও কিছু নেই। কিন্তু যখন দেখা যায়, প্রয়োজনের থেকে অতিরিক্ত অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম সরকার ক্রয় করছে, তখন এ বিষয়ে জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণ এবং প্রতিবাদ না করে উপায় নেই। প্রথমত, এ বিষয়টির দিকে লক্ষ্য করা দরকার যে, বাংলাদেশ তার স্থলভাগের তিন দিকই ভারত দ্বারা বেষ্টিত এবং দক্ষিণে সমুদ্রসীমাও ভারতীয় সমুদ্রসীমার সংলগ্ন। ...
পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জির ফ্যাসিস্ট শাসন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১০/০৪/২০১২
কয়েকদিন আগে মমতা ব্যানার্জি এক হুকুম জারি করেছেন, পশ্চিমবঙ্গের সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত পাঠাগারগুলোতে কোনো সরকারবিরোধী সংবাদপত্র রাখা যাবে না। যারা সরকার-বিরোধিতা করবে, তাদের নাম পাঠাগারের সংবাদপত্র তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হবে। এ ধরনের অদ্ভুত হুকুম সিপিএম নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট সরকার তাদের ৩৪ বছরের শাসনামলে করেনি এবং এ ধরনের কোনো কথাও বলেনি। অথচ মমতা ব্যানার্জি এখন তা করলেন। এ কাজ যে ফ্যাসিবাদের কাজ এতে আর কারও সন্দেহ থাকতে পারে?  ২০১১ সালের নির্বাচনের পর থেকে এক বছরের মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে বেশ ...
সভা সমাবেশ মিছিলের পূর্ণ স্বাধীনতার জন্য জনগণকে লড়াই করতে হবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
৩১/০৩/২০১২
বাংলাদেশের বিদেশী বন্ধুদের সরকার থেকে এবার ২৬ মার্চ উপলক্ষে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। এটা ভালো কথা, যদিও এত দেরিতে এ কাজ করার মধ্যে বন্ধুদের প্রতি সম্মান দেখানো ছাড়াও অন্য ব্যাপার আছে। এটা আছে মনে করার কারণ, এ কাজ শেখ মুজিবুর রহমানের আওয়ামী-বাকশালী সরকার এবং শেখ হাসিনার প্রথম সরকারের আমলে করা হয়নি। শেখ হাসিনা এখন এ কাজ করলেন, কিন্তু তিনি তার ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদের সরকার আমলে কেন এটা করেননি, এর একটা ব্যাখ্যা অবশ্যই তার কাছে চাওয়া যেতে পারে। তখন এটা করলে আরও অনেককে পাওয়া যেত, যারা আজ আর জীবিত নেই। নিজের বাহাদুরি দেখানো এবং অন্যদের ছোট করার চেষ্টা শেখ হাসিনার এক স্বভাবজাত কাজ। তার এই স্বভাব নিয়ে কিছু বলার প্রয়োজন হতো না, যদি তিনি ঘটনাচক্রে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী না হতেন। ...
সিরিয়া দখলের জন্য মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের চক্রান্ত
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৩/০৩/২০১২
সিরিয়ায় লিবিয়ার মতো তেল না থাকলেও মধ্যপ্রাচ্যে Strategic অবস্থানের দিক দিয়ে সিরিয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ। ইরান সরকার ও লেবাননের হিজবুল্লাহদের সঙ্গে সিরিয়ার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। তারা ইরান আক্রমণের জন্য যে প্রস্তুতি চালাচ্ছে তাতে সিরিয়ার বর্তমান সরকারকে উচ্ছেদ করা তাদের জন্য খুব দরকার। এদিক দিয়ে দেখলে বর্তমানে ইরান ও সিরিয়ায় তারা যে চক্রান্ত করছে এবং নানা পদ্ধতিতে আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছে তার মধ্যে সম্পর্ক আছে। সিরিয়ায় আসাদ সরকার উচ্ছেদ করতে পারলে ইরানে সামরিক আগ্রাসন চালালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরায়েলের জন্য আমেরিকান এবং ...
সাংবাদিকদের আন্দোলনে গণতান্ত্রিক উপাদানের ঘা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৪/০৩/২০১২
সাংবাদিকরা যেভাবে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার এবং অপরাধীদের শাস্তির জন্য আন্দোলন করছেন তাতে তাদের আন্দোলন শক্তিশালী হতে দেখা যাচ্ছে না। সংক্ষিপ্ত অনশন, মানববন্ধন ইত্যাদি হচ্ছে তাদের আন্দোলনের পদ্ধতি; কিন্তু এসব পদ্ধতি কোনো গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে শক্তিশালী করতে পারে না। কারণ এর চরিত্র প্রতীকীর বেশি কিছু নয়। এর মধ্যে তেমন কোনো শক্তি নেই। বিস্ময়ের ব্যাপার যে, আন্দোলনের এই পদ্ধতি ও কৌশল সম্পূর্ণ অকার্যকর প্রমাণিত হওয়ার পরও বিভিন্ন ধরনের আন্দোলনকারীরা এ দেশে এখনও এটাই অনুসরণ করছেন। এর থেকে সন্দেহ হয় যে, যারা আন্দোলন ...
বালুচিস্তানের জনগণের জন্য আমেরিকানদের কুম্ভীরাশ্রু
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২২/০২/২০১২
এটা অবশ্যই বলা দরকার যে, একটি দেশের কোনো অংশে পৃথক স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র গঠনের জন্য অন্য একটি দেশের পার্লামেন্টে প্রস্তাব উত্থাপন আপাতদৃষ্টিতে যতই হাস্যকর মনে হোক, এর মধ্যে চরম ফ্যাসিবাদী ঔদ্ধত্যের প্রকাশ ছাড়া অন্য কিছু নেই। মনে রাখা দরকার, এই রিপাবলিকানরা বাংলাদেশে পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর ব্যাপক গণহত্যা ও চরম নির্যাতন সত্ত্বেও মার্কিন সরকার এ দেশের জনগণের স্বাধীনতা সংগ্রামকে নয়, পাকিস্তানের ফ্যাসিস্ট সরকারকেই সমর্থন করেছিল। তাদের অর্থ এবং অস্ত্র সাহায্য দিয়ে পূর্ব পাকিস্তানে যুদ্ধ চালিয়ে যেতে সাহায্য করেছিল বালুচিস্তানকে একটি ...
ছাত্রলীগের তাণ্ডব বিচ্ছিন্ন ব্যাপার নয়
উপ সম্পাদকীয়
আমার দেশ
০৫/০১/২০১২
চার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের তাণ্ডবের ওপর একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এবং এতে ৬০ জনের মতো সাধারণ শিক্ষার্থী আহত হয়। (আমার দেশ, ৩.১.২০১২) ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ছাত্রলীগ দেশের সব কটি বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন কলেজে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, গুণ্ডামিসহ নানা ধরনের অপরাধমূলক কাজ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে এমন পরিস্থিতি তৈরি করে রেখেছে যা কোনো সুস্থ শিক্ষাব্যবস্থার অনুকূল নয়। ছাত্রলীগের এই সন্ত্রাস এবং অপরাধমূলক কাজকর্ম কোনো নতুন ব্যাপার নয়। কাজেই এ নিয়ে নতুন করে লেখার বা বলার কিছু নেই। কিন্তু এইসব ঘটনার সূত্র ধরে শুধু ছাত্রলীগই নয়, সাধারণভাবে ছাত্র-রাজনীতি ও ছাত্রদের চিন্তাভাবনা বিষয়ে আলোচনার প্রয়োজন আছে। ...
বুদ্ধিজীবী দিবসকে সামনে রেখে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৪/১২/২০১১
আজ ১৪ ডিসেম্বর। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। লেখার শুরুতেই আর্দ্র হৃদয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই। মহান আল্লাহর দরবারে তাদেরসহ মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ৩০ লাখ বাঙালির আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার পরপরই বুদ্ধিজীবী হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। পরিকল্পনাকারী বেশিরভাগই ছিল ১৯৭১ সালে বর্বর ও নৃশংস পাকিস্তানি বাহিনীর দোসর জামায়াতে ইসলামী। মুসলিম লীগের কয়েকজন নেতাও তালিকা প্রণয়নের কাজে জড়িত ছিল। মেজর মালেকসহ তদানীন্তন পাকিস্তানি বাহিনীর কোনো কোনো সামরিক কর্মকর্তা বিষয়টি তাদের লেখা ১৯৭১ সাল সংক্রান্ত বইয়ে লিখে গেছেন। বুদ্ধিজীবী হত্যার তালিকাটি নিয়ে কয়েকজন জামায়াতি ও মুসলিম লীগের নেতা তদানীন্তর গভর্নর হাউসে (এখন বঙ্গভবন) অবস্থানরত জেনারেল ওমরাও খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিল। তালিকাটি খুব তাজিমের সঙ্গে তারা জেনারেলের হাতে তুলে দিয়েছিল। এই কুক্কুট-সন্তানদের মধ্যে ছিল 'নুরানী' চেহারার আড়ালে ভণ্ড, বাঙালি-বিদ্বেষী ও খুনি গোলাম আযম, মতিউর রহমান নিজামী, আলী আহসান মুজাহিদ, কামারুজ্জামান, কাদের মোল্লা প্রমুখ। অক্টোবর-নভেম্বরের মধ্যে পাকিস্তানি বাহিনীর পরাজয় স্পষ্ট হয়ে ওঠে। ২ ডিসেম্বর আকাশযুদ্ধে পূর্ব পাকিস্তানের সব ক'টা সেভার ...
পাক-মার্কিন সম্পর্কের বর্তমান অবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৩/১২/২০১১
পাকিস্তানের পররাষ্ট্র নীতিনির্ধারণ ক্ষেত্রে পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী তাদের সরকারের থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এ নিয়ে সামরিক বাহিনীর সঙ্গে সরকারের দ্বন্দ্বও কোনো কোনো সময় দেখা যায়। তবে সামরিক বাহিনীর কথার একেবারে বাইরে গিয়ে পাকিস্তান সরকার কিছু করতে পারে না। এদিক দিয়ে পাকিস্তান সেনাবাহিনী তার ক্ষমতার জানান মাঝে মধ্যেই দিয়ে থাকে। এ জন্য শুধু সরকারই নয়, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সঙ্গেও বিভিন্ন বিদেশি শক্তি, বিশেষত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্বতন্ত্রভাবে যোগাযোগ রক্ষা ও মতবিনিময় করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানী ১১ ডিসেম্বর বিবিসিকে ...
বিরোধী দল বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে জাতীয় সংসদে যায় না কেন?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০৬/১২/২০১১
যে কোনো গণতান্ত্রিক সমাজে হরতাল, ধর্মঘট জনগণের ও শ্রমিকদের আন্দোলনের গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকর হাতিয়ার। কাজেই হরতাল, ধর্মঘট নিষিদ্ধ অথবা হরতাল, ধর্মঘট করলে হরতালি ও ধর্মঘটীদের বিরুদ্ধে পুলিশ লেলিয়ে দেওয়ার কাজ যারা করে তারা গণতান্ত্রিক রীতিনীতির কোনো ধার ধারে না। সাধারণ জনগণের ওপর পুলিশকে দিয়ে লাঠি হামলা, কাঁদানে গ্যাস আক্রমণ ও ক্ষেত্রবিশেষে গুলি চালানোর কাজ যারা করে তারা যে জনগণের বন্ধু নয়, এটা এ দেশের জনগণের ভালোভাবেই জানা আছে। অন্যদিকে হরতালের মতো গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক হাতিয়ার যারা ঘন ঘন ও সামান্য ...
আগামী নির্বাচনেও জনগণ বাংলাদেশের সংসদীয় রাজনীতির ঐতিহ্য রক্ষা করবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২২/১১/২০১১
গদির গরমে মাথাও গরম হয়। বর্তমান সরকারি দল, তাদের প্রধানমন্ত্রী থেকে নিয়ে মন্ত্রী, হাফ মন্ত্রী, উপদেষ্টা, সাংসদ, দলীয় নেতা থেকে নিয়ে সকলের অবস্থা একই প্রকার। এমনকি ২০০৭-০৮ সালে দলের যেসব নেতা বেনামি সামরিক সরকারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তাদের নেত্রীকে মাইনাস বা নেতি করার চক্রান্ত করে ব্যর্থ হওয়ার পর দলের মধ্যেই ধরাশায়ী অবস্থায় আছেন তাদের অবস্থাও এদিক দিয়ে অভিন্ন। এদের কেউই মাটির ওপর দাঁড়িয়ে কথা বলছেন বলে মনে হয় না। এদের চোখ-কানও খোলা আছে ভাবার কারণ নেই। এদের প্রত্যেকেরই অবস্থা এখন দাঁড়িয়েছে ইংরেজিতে যাকে বলে ঐড়ষষড় িসবহ-এর মতো। এদের শূন্যগর্ভ কথাবার্তা প্রতিদিন সংবাদপত্রে দেখে মনে হয় সারাদেশটাই এমন মাথার ওপর দাঁড়িয়ে আছে! দেশ আজ সামগ্রিকভাবে এক মহাসংকটের মধ্যে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। এই সংকটের মধ্যে অর্থনৈতিক ও আর্থিক সংকট এই মুহূর্তে খুব গুরুতর হয়েছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী থেকে নিয়ে তাদের মন্ত্রিসভার সদস্যদের প্রতিদিনের বক্তব্য এবং এলোপাতাড়ি ঘোষণা থেকে বোঝার উপায় নেই চারদিকে সংকটের দ্বারা ঘেরাও হয়ে থাকা জনগণ কী বিপজ্জনক অবস্থায় ও দুর্গতির ...
সিরিয়ায় সাম্রাজ্যবাদের নতুন চক্রান্ত
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৫/১১/২০১১
তিউনিসিয়া ও মিসরে আরব বসন্ত বা অৎধন ঝঢ়ৎরহম নামে যে অভ্যুত্থানকে আখ্যায়িত করা হয়েছে লিবিয়া ও সিরিয়ায় যা ঘটেছে ও ঘটছে সেটা সে ধরনের কোনো অভ্যুত্থান যে নয়, তা এই দুই দেশের সাম্প্রতিক ও চলমান ঘটনাবলি থেকেই দেখা যাচ্ছে। তিউনিসিয়া ও মিসরে জনগণ নিজেরাই স্বতঃস্ফূর্তভাবে অভ্যুত্থান ঘটিয়েছিল এবং সেই অভ্যুত্থানের শক্তির জোরে অল্প কিছুদিনের মধ্যে এ দুই দেশে দীর্ঘদিন স্থায়ী স্বৈরশাসনের অবসান হয়েছিল। এমনভাবে জনগণ এ দুই দেশেই অভ্যুত্থান ঘটিয়েছিল ও তাতে নিজেরাই নেতৃত্ব দিয়েছিল, যাতে আমেরিকা ও ইউরোপের সাম্রাজ্যবাদীরা এবং সৌদি আরব, কাতার ইত্যাদি মধ্যপ্রাচ্যে তাদের পদানত রাষ্ট্রগুলোর পক্ষে তাদের বিরুদ্ধে কোনো চক্রান্ত করা সম্ভব হয়নি। তাদের হস্তক্ষেপের কোনো সুযোগই সেখানে থাকেনি। প্রায় কাছাকাছি সময়ে বাহরাইন ও ইয়েমেনে বিদ্যমান স্বৈরতন্ত্রী শাসকদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু হলে সেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্যে ইসরায়েলের পরই তাদের দ্বিতীয় নির্ভরশীল দেশ ও খুঁটি সৌদি আরবের মাধ্যমে এ দুই দেশের শাসকদের রক্ষার জন্য পদক্ষেপ নিয়েছে। বাহরাইনে সৌদি আরব সব আন্তর্জাতিক রীতিনীতি ভঙ্গ করে সরাসরি নিজের ...
ঊর্ধ্বমুখী দ্রব্যমূল্য, নিম্নমুখী মজুরি
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০১/১১/২০১১
দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি এখন সারা পুঁজিবাদী দুনিয়ায় এক বড় সমস্যা। তবে এই সমস্যার তীব্রতা সব দেশে একই রকম নয়। তীব্রতার কমবেশি হয় তখনই যখন দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে আয় তাল রাখতে পারে না, দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধি হয় আয়ের বৃদ্ধি থেকে দ্রুততর এবং অধিক। এদিক দিয়ে বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্যকে শুধু তীব্র সমস্যা বললেই হয় না। এখানে দ্রব্যমূল্য এক চরম সংকট। এর কারণ দ্রব্যমূল্য এখানে দ্রুত বৃদ্ধি পেতে থাকলেও শারীরিক শ্রমজীবী থেকে নিয়ে মধ্যবিত্ত শ্রমজীবীদের আয়ের কোনো বৃদ্ধি নেই। এমন কোনো নীতি এখানে নেই যাতে ...
বিএনপির আন্দোলনের কোনো গণতান্ত্রিক উপাদান নে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৫/১০/২০১১
আওয়ামী লীগের বেপরোয়া অপশাসন জনগণের মধ্যে যে ক্ষোভের সৃষ্টি করছে তাকে পুঁজি করে বিএনপি এখন তার বিক্ষোভ আন্দোলন পরিচালনা করছে। ক্ষোভ যতই বাড়ছে বিএনপির আন্দোলন ততই জোরদার হচ্ছে। এই রাজনৈতিক প্রক্রিয়া এ দেশে কোনো নতুন ব্যাপার নয়। ইতিপূর্বেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয় দলই ক্ষমতাসীন প্রতিপক্ষের ক্ষোভকে পুঁজি করে আন্দোলন করে এসেছে এবং নির্বাচনে তার প্রতিফলন হয়েছে। এভাবে বাংলাদেশের রাজনীতিতে এ দুই দল এখনও পর্যন্ত ঠিক থেকে পালা করে এক দল অন্য দলকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে নিজেরা ক্ষমতাসীন হলেও ...
চরম পানি সংকটের মুখে বাংলাদেশ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৮/১০/২০১১
বাংলাদেশ এখন বহুমুখী বিপর্যয়ের মুখোমুখি। এসব বিপর্যয়ের মধ্যে সব থেকে মারাত্মক ও বিপজ্জনক হচ্ছে পরিবেশ বিপর্যয়। বিষয়টি যে এ দেশের লোকদের অজানা এমন নয়। কিন্তু তা হলেও এ জানার মধ্যে কোনো গভীরতা নেই। এ কারণে বিষয়টি সম্পর্কে অস্বচ্ছভাবে কিছু জানা থাকলেও এ নিয়ে কোনো আতঙ্ক তো দূরের কথা, উদ্বেগও সাধারণভাবে নেই। হাতেগোনা কয়েকজন পরিবেশ বিশেষজ্ঞ ছাড়া এ নিয়ে কোনো চিন্তাভাবনা বা নড়াচড়া কোনো মহলে নেই। এ ক্ষেত্রে যাদের করণীয় সব থেকে বেশি এবং যারা এ বিষয়টি হাতে না নিলে কিছুই হওয়ার নয়, সেই সরকার ও শাসকশ্রেণীর প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর এ নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই। তারা কী করে ক্ষমতায় টিকে থাকবে এবং ক্ষমতার বাইরে থাকলে কী করে ক্ষমতা আবার দখল করবে, এই চিন্তাই তাদের সমস্ত চেতনাকে আচ্ছন্ন ও গ্রাস করে রাখে। কাজেই এর বাইরে দেশের বহুবিধ গুরুতর সমস্যা নিয়ে চিন্তাভাবনা, কর্তব্য নির্ধারণ ও কর্তব্য পালন ক্ষেত্রে এরা বাস্তবত কিছুই করে না। খুব জোর তারা যা করে সেটা বাগাড়ম্বর সৃষ্টি ছাড়া ...
বাংলাদেশের সমাজভূমি ও গণতান্ত্রিক সংগ্রাম
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৯/০৭/২০১১
বর্তমানে প্রগতিশীল ও বিপ্লবী রাজনীতি ক্ষেত্রে যে অচলাবস্থা দেখা যাচ্ছে সে অচলাবস্থা দূর করার জন্য বিদ্যমান সমাজভূমির দিকে তাকাতে হবে। এই সমাজভূমি পরিবর্তনের জন্য লড়তে হবে। এ লড়াই কোনো সাংবিধানিক লড়াই নয়, একের পর এক 'নিরপেক্ষ' নির্বাচনের লড়াই নয়। এই লড়াই যতদিন পর্যন্ত না বাংলাদেশে রাজনীতির সব থেকে গ্রাহ্য ব্যাপারে পরিণত হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত কোনো প্রকৃত সামাজিক পরিবর্তন তো সম্ভব নয়ই, এমনকি জনগণের পক্ষে এ ক্ষেত্রে আশার আলো দেখারও কোনো সম্ভাবনা নেই বাংলাদেশে চুরি, দুর্নীতি, ঘুষখোরি, খুন-খারাবি থেকে নিয়ে ...
পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতার পালাবদল
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৭/০৫/২০১১
তৃণমূলের নির্বাচন জয় ও সরকার গঠনের পর পশ্চিমবঙ্গের জনগণ এবার কর্মসূচির সন্ধান করবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিপিএমের সমালোচনা করে ও বড় বড় প্রতিশ্রুতি দিয়ে জনগণের আকাঙ্ক্ষাকে যে স্তরে নিয়ে গেছেন সেটা চরিতার্থ করা কংগ্রেসীদের কর্ম নয়। কাজেই তার 'মা মাটি মানুষের' অবস্থা তার সরকারের আমলে কী দাঁড়াবে ভবিষ্যতে সেটিই দেখার কথা ৩৪ বছর একটানা ক্ষমতায় থাকার পর বামফ্রন্ট সরকার তৃণমূল-কংগ্রেস জোটের কাছে পরাজিত হয়েছে। তৃণমূল-কংগ্রেস পশ্চিমবঙ্গের বিরোধী দল হলেও সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে তারা সরকারি দল। এই সত্যটির দিকে তাকালে ২০১১ সালে ...
ধর্মীয় প্রতিক্রিয়াশীলদের শক্তি বৃদ্ধির বিপজ্জ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০৫/০৪/২০১১
বাংলাদেশে এখন এমন পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে যাতে দেশের অবস্থা যত অবনতির দিকে যাচ্ছে ততই রঙবেরঙের প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি মাথাচাড়া দিচ্ছে। অন্যভাবে বলা যায় যে, বিভিন্ন প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি এইভাবে মাথাচাড়া দেওয়া পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে থাকার এক গুরুত্বপূর্ণ দিক। বাংলাদেশে শাসক-শোষক শ্রেণীর শোষণ-নির্যাতন ক্রমাগত বেড়ে চলেছে। লক্ষ্য করার বিষয় যে, নির্যাতন শুধু সরকার ও তার অধীন বিভিন্ন বাহিনী দ্বারাই যে হচ্ছে তাই নয়, বেসরকারি নানা শক্তিও জনগণের ওপর নির্যাতন বেপরোয়াভাবেই করছে। এ প্রসঙ্গে বিশেষভাবে লক্ষ্য করার ব্যাপার এই যে, বাংলাদেশে এখন যে ধরনের প্রতিক্রিয়াশীল শক্তির উত্থান ঘটছে এবং জনগণের ওপর যে ধরনের বেসরকারি শক্তির নির্যাতন চলছে, সেটা ঐতিহাসিকভাবে পশ্চাৎপদ দেশেই দেখা যায়। ফরাসি ইউটোপিয়ান সোশালিস্ট ফুরিয়ার বলেছিলেন যে, কোনো সমাজে মানুষ আসলে যতখানি মুক্ত, তারা কতখানি স্বাধীন। তার মাপকাঠি হলো সেই সমাজে নারীর অধিকার কতখানি স্বীকৃত ও বাস্তবে কার্যকর। ...
বর্বর ফতোয়াবাজি বন্ধ হচ্ছে না কেন?
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৮/০২/২০১১
শরীয়তপুরের গ্রামে হেনা নামে ১৪ বছরের যে গরিব মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হলো, তার পক্ষে দাঁড়িয়ে গ্রামের কোনো লোক যে সাহসের সঙ্গে তাকে রক্ষা করতে দাঁড়াল না, এর তাৎপর্য সামান্য নয়। তথাকথিত সামাজিক বা ধর্মীয় বিচারের সময় দাঁড়িয়ে এটা দেশে, এমনকি নিরপরাধ নারীকে শাস্তি দেওয়ার সময়েও প্রতিবাদ করা থেকে বিরত থেকে তারা যে শুধু এই অপরাধের প্রতি পরোক্ষ সমর্থন দেয় তাই নয়, তাদের এই সমর্থনের বা প্রতিরোধ-বিমুখতার ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়েই অপরাধীরা তাদের বর্বর নির্যাতন চালাতে সক্ষম হয়। ধর্মের নামে ক্রিমিনাল কাজ বাংলাদেশে অনেকদিন থেকেই ব্যাপকভাবে দেখা যাচ্ছে। এই ক্রিমিনাল কাজের মধ্যে গ্রামাঞ্চলে কিছু ভণ্ড ধার্মিক কর্তৃক ফতোয়াবাজির মাধ্যমে নারী নির্যাতন হলো সর্বপ্রধান। এই গ্রাম্য বর্বরদের হাতে বাংলাদেশে যেভাবে এখন নারী নির্যাতন হচ্ছে, এটা আগে এভাবে দেখা যেত না। সাধারণভাবে দেশে অপরাধ ও অপরাধীর সংখ্যা বৃদ্ধির কারণেই এ রকম ঘটছে। শুধু অপরাধ ও অপরাধীর সংখ্যা বৃদ্ধিই নয়, অপরাধের বৈচিত্র্যও এখন বৃদ্ধি পেয়েছে। ...
পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০১/০২/২০১১
৩০ জানুয়ারি লাহোরে এক জনসভায় ৪০ হাজার লোক পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইন সংশোধন প্রস্তাবের বিরোধিতার জন্য একত্রিত হয়েছিল। এটাই এ ধরনের প্রথম সভা নয়। সরকার এই সংশোধনীর প্রাথমিক চেষ্টা শুরু করার সময় থেকেই তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়াশীল ধর্মীয় মহলে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে। ব্লাসফেমি আইন নামে মধ্যযুগীয় এ আইন পাকিস্তানে প্রবর্তিত ও বলবৎ থাকার জোরেই কিছুদিন আগে সেখানে এক খ্রিস্টান মহিলাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। পাকিস্তানে ধর্মীয় প্রতিক্রিয়াশীলদের শক্তি দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকা সত্ত্বেও সেখানে যে উদারনৈতিক চিন্তাধারার লোক একেবারে নেই তা নয়। সরকারের মধ্যেও এ ধরনের লোক আছে এবং সে কারণেই এ আইন সংশোধনের প্রস্তাব সরকারের পক্ষ থেকেই করা হয়েছিল। ভিন্ন ধর্মাবলম্বী এক মহিলাকে এ আইনের আওতায় মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পর সরকারের মধ্যেও এর সংশোধনের তাগিদ অনুভূত হয়। এ আইন সম্পূর্ণ বাতিলের মতো সাহস কোনো পাকিস্তানি সরকারেরই নেই। কিন্তু তবু এর উগ্রতা ও বর্বর প্রয়োগ নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশ্যে এর সংশোধনের পক্ষে জোরালো অবস্থান নিয়েছিলেন পাঞ্জাবের গভর্নর সালমান তাসির। ...
বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বিএসএফের নিয়মিত হত্যাক
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৮/০১/২০১১
এ দুই দেশের জনগণের মধ্যে কোনো শত্রুতা নেই, উপরন্তু পরস্পরের প্রতি বন্ধুত্বের আকর্ষণের নিদর্শনই নানাভাবে দেখা যায়। কিন্তু এ সত্ত্বেও এ দুই দেশের মধ্যে এমন এক সম্পর্ক এখন তৈরি হয়েছে, যাকে প্রকৃত বন্ধুত্বের সম্পর্ক বলে আখ্যায়িত করা সম্ভব নয়। বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ভারতের বিএসএফ এখন নিয়মিতভাবেই বাংলাদেশের লোকদের প্রায়ই গুলি করে হত্যা করছে। এই হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে এদেশে কিছু প্রতিবাদ হলেও, ভারতের সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে কোনো খবর থাকে না। ভারতীয় সরকার এ বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করে না। বাংলাদেশের সরকার ...
বাংলাদেশে সংস্কৃতির নতুন সংকট
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৪/০১/২০১১
বাংলাদেশে এখন নানা ধরনের সাংস্কৃতিক উৎসব-অনুষ্ঠান নিয়ে এত মাতামাতি হয় যে, দেশের সংস্কৃতি ও সাংস্কৃতিক সংকট বিষয়ে বিশেষ কোনো উল্লেখযোগ্য ভাবনা বা আলাপ-আলোচনা, লেখালেখি দেখাই যায় না। অথচ দেশের সংস্কৃতি এখন এত বিপন্ন, এত সংকটাপন্ন, এত নৈরাজ্যময়, যা আগে কোনো সময়েই ছিল না। এই সংকটের সব থেকে মারাত্মক ও বিপজ্জনক দিক হলো, যা কিছু নিকৃষ্ট ও প্রতিক্রিয়াশীল তা-ই সমাজের উপরিভাগে ভেসে ওঠা। চারদিকে তারই প্রভাব-প্রতিপত্তির জয়জয়কার হতে থাকা। সংস্কৃতি সমাজের ভিত্তিভূমি থেকে বিচ্ছিন্ন কোনো স্বাধীন পধঃবমড়ৎু বা বর্গ নয়। শুধু অর্থনীতি দিয়ে সংস্কৃতিকে বোঝা বা ব্যাখ্যা করা চলে না, তবে মানুষের অর্থনৈতিক জীবনের সঙ্গে সংস্কৃতির যোগ ওতপ্রোত। অর্থনৈতিক উৎপাদন ব্যবস্থা মানুষে মানুষে যে সম্পর্ক তৈরি করে, সংস্কৃতি মূলত তাকে অবলম্বন করেই গড়ে ওঠে। কাজেই সংস্কৃতিবিষয়ক চিন্তা ও আলোচনা আর্থ-সামাজিক ভিত্তিভূমির প্রতি উদাসীন থেকে আকাশচারী হলে সেটা অবাস্তবই হয়। পাকিস্তান আমলে এ অঞ্চলের বাঙালিদের সংস্কৃতির সংকটের যে চরিত্র ছিল, এখনকার সংকটের সঙ্গে তার বিস্তর পার্থক্য। ...
শাহরুখ খানদের ঢাকা প্রদর্শনী প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২১/১২/২০১০
শাহরুখ খান তার বোম্বে ফিল্মসের সঙ্গী-সাথীদের নিয়ে ঢাকা সফর করে ফেরত যাওয়ার পর কোনো এক সংবাদ সংস্থার প্রতিনিধি টেলিফোনে আমার কাছে জানতে চান, আর্মি স্টেডিয়ামে তারা বিপুলসংখ্যক দর্শকের সামনে যা দেখিয়ে গেলেন এটি বাংলাদেশের সংস্কৃতির ওপর ভারতীয় সংস্কৃতির আগ্রাসন কি-না। আমি এ প্রশ্নের নেতিবাচক জবাব দিয়েছিলাম। কারণ শাহরুখ খান দলবল নিয়ে এখানে যে প্রদর্শনী করলেন তার সঙ্গে ভারতীয় সংস্কৃতি বলতে যা বোঝায় তার কোনো সম্পর্ক নেই। যেসব তারা দেখালেন সেটি ভারতীয় নয়। তার সঙ্গে ভারতের কোনো চিরায়ত নৃত্যধারা, কোনো অঞ্চলের লোকনৃত্যের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই। উপরন্তু একে বলা চলে ভারতের নিজস্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য থেকে বিচ্ছিন্ন এক কিম্ভূত সংস্কৃতি। যে কোনো ভারতীয়ের কাছে মনে হতে পারে এটি হলিউডমার্কা আমেরিকান সংস্কৃতির আগ্রাসন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে আর্মি স্টেডিয়ামে শাহরুখ খানদের স্বল্প বস্ত্রাবৃত সহকর্মীদের নৃত্য প্রদর্শনী যেমন বাংলাদেশের সংস্কৃতির ওপর কোনো আগ্রাসন নয়, তেমনি শাহরুখ খান ও বোম্বে ফিল্মসে এ ধরনের যে শিল্পচর্চা দেখা যায় তাকেও ভারতীয় সংস্কৃতির ওপর আমেরিকান সংস্কৃতির আগ্রাসন বলা যায় ...
ফিরে দেখা
একাত্তরের বুদ্ধিজীবী হত্যা প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৪/১২/২০১০
দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তির ধারকবাহক নামে আত্মপ্রচারিত মহলে ষাটের দশকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে পাকিস্তানি শাসন-নির্যাতনের বিরুদ্ধে যে সাংস্কৃতিক আন্দোলন হয়েছিল তার কোনো স্বীকৃতি না থাকলেও এবং তারা পরবর্তী সময়েও এ বিষয়ে কোনো বিশ্লেষণ ও আলোচনার মধ্যে না গেলেও, সে আন্দোলনের গুরুত্ব যে পাকিস্তানি শাসকরা ভালোভাবেই উপলব্ধি করত এবং সেটাকে নিজেদের জন্য বিপজ্জনক মনে করত তারই প্রতিফলন প্রকৃতপক্ষে ঘটেছিল ১৯৭১ সালের ডিসেম্বরে কিছুসংখ্যক বুদ্ধিজীবী হত্যার মধ্যে। প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসে বুদ্ধিজীবী হত্যা দিবসে উপরোক্ত মহলের কোনো আলোচনায় যে এ বিষয়টি দেখাই যায় না, উপরন্তু সম্পূর্ণ উপেক্ষিত থাকে, এর তৎপর্য উপেক্ষার বিষয় নয়। এমনভাবে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে বলা হয় যাতে জনগণের, জনগণের প্রকৃত প্রতিনিধিদের, জনস্বার্থের সঙ্গে সম্পর্কিত আন্দোলনের কোনো কথা থাকে না। এভাবেই যে কল্পকাহিনী তৈরি করা হয়েছে, তা এখন বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস শাসন করছে। ...
রূপগঞ্জের হত্যাকাণ্ড ও তারপর
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৩/১১/২০১০
রূপগঞ্জের হত্যাকাণ্ডের পর এখন এক মাস গত হলো। যারা নিহত হয়েছিল, তাদের মধ্যে একমাত্র মোস্তফা জামানের লাশই উদ্ধার করা হয়েছে। বাকি তিনজনের লাশের কোনো সন্ধান নেই। এর ওপর এক দীর্ঘ রিপোর্ট গত ২২ নভেম্বর ডেইলি স্টার পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপা হয়েছে। 'ঞযবু ঔঁংঃ উরধংধঢ়ঢ়বধৎ', 'তারা শুধু উধাও হয়'_ এই শিরোনামে রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ এলাকায় সামরিক বাহিনীর লোকজন কিছুদিন থেকে অল্প দামে জমি ক্রয় করে জমির মালিকদের দ্বারা বাজারদর অনুযায়ী জমি বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি রাখার বিরুদ্ধে এক প্রতিরোধ-সংঘর্ষের সময় সরকারের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর গুলিতে বেশ কয়েকজন হতাহত হয়। ঘটনার সময় প্রকাশিত রিপোর্ট থেকে দেখা যায়, সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব ইত্যাদি সরকারি বাহিনী স্থানীয় জনগণের বিক্ষোভ দমন কাজে অংশগ্রহণ করে। সংঘর্ষ ও সরকারি বাহিনীর গুলি চালনার ফলে চারজন নিহত হয়। তার মধ্যে একমাত্র মহম্মদ রফিকের ছেলে মোস্তফা জামানের লাশই কোনোমতে উদ্ধার করা হয়। শমসের মোল্লা, আবদুল আলিম মাসুদ ও সাইদুল ইসলাম নামে অন্য তিনজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর তাদের আর কোনো ...
বাড়ি থেকে খালেদা জিয়ার উচ্ছেদ ও প্রসঙ্গ কথা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৬/১১/২০১০
বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর অতি নিম্ন সংস্কৃতি ও নিকৃষ্ট চরিত্রের পরিচয় নতুন করে পাওয়া গেল খালেদা জিয়া কর্তৃক ক্যান্টনমেন্টের বাড়ি আঁকড়ে ধরে থাকা এবং সেখান থেকে তাকে জোরপূর্বক উচ্ছেদের ঘটনার মধ্য দিয়ে। এসব যে কোনো সভ্য দেশে সম্ভব, এটা যুক্তিসঙ্গতভাবে মনে করার কারণ নেই। যে অসভ্যতা বাংলাদেশের সমগ্র শাসকশ্রেণীর আচরণের মধ্যে অহরহ পাওয়া যায়, সেই অসভ্যতার মহড়াই উভয় পক্ষ তাদের আচরণের মাধ্যমে দিয়েছেন। জনগণের ভূমিকা এ ক্ষেত্রে অবলোকনকারী ছাড়া অন্য কিছুই নয়। জিয়াউর রহমান নিহত হওয়ার পর তার পরিবারকে আশ্রয়হীন হতে না দিয়ে তারা যে বাড়িতে ছিলেন, সে বাড়িটিই তৎকালীন সরকার খালেদা জিয়াকে ৯৯ বছরের জন্য লিজ দিয়েছিল। এটা সরকার দিতেই পারে। এর মধ্যে কোনো অবৈধতা ছিল না, বৈধতা-অবৈধতার প্রশ্নও ছিল না। দুই নাবালক সন্তান নিয়ে সাধারণ গৃহস্থ জীবনযাপন করার জন্যই এ বাড়ি তাকে বরাদ্দ করা হয়েছিল। সে সময় তাদের আর্থিক অবস্থা এমন ছিল, যাতে তাদের জন্য কোনো বাড়ি সরকার বরাদ্দ না করলে তাদের পথে বসতে হতো। ...
বিশ্বব্যবস্থা
সংকটে আমেরিকার সাম্রাজ্যবাদী বিশ্বব্যবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৯/১০/২০১০
বিশ্বের সব থেকে বড় অর্থনৈতিক ও সামরিক শক্তিধর রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের পর থেকে আজ পর্যন্ত সারা দুনিয়ায় নিজের আধিপত্য বিস্তার করে রেখেছে। অন্যদিকে এটাও সত্য যে, এ বিশাল সাম্রাজ্যবাদী শক্তির এই আধিপত্য কিছুদিন থেকেই শিথিল হতে শুরু করেছে। সব ক্ষেত্রেই নিয়ন্ত্রণের একটা সীমা থাকে, কোনো সাম্রাজ্যবাদী রাষ্রদ্ব যতই শক্তিশালী হোক, অন্যান্য দেশ ও রাষ্ট্রের ওপর যে আধিপত্য এবং নিয়ন্ত্রণ সে কায়েম রাখে সেটাও এই নিয়মের বাইরে নয়। নিয়ন্ত্রণ কায়েম রাখার জন্য যেমন প্রয়োজন নিয়ন্ত্রণকারীর নিজস্ব শক্তি, তেমনি এর জন্য যে শর্ত গুরুত্বপূর্ণ তা হলো, যেসব দেশের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা ও কায়েম রাখা হয় সেগুলোর নিজস্ব দুর্বলতা। শক্তিশালী দেশই দুর্বল দেশের ওপর নিজের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে ও কায়েম রাখতে পারে। এ জন্য কোন দেশ কতখানি শক্তিশালী এবং কোন দেশ কতখানি দুর্বল তার মাত্রার ওপরই নির্ভর করে যে কোনো নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা কতখানি কার্যকর হবে ও কতকাল স্থায়ী হবে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত সব থেকে শক্তিশালী রাষ্ট্র ছিল ব্রিটেন। তার নিয়ন্ত্রণ ...
নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১২/১০/২০১০
এ বছর নোবেল শান্তি পুরস্কার দেওয়া হয়েছে লিউ জিয়াওবো নামে এক চীনা ভিন্নমতাবলম্বীকে, যিনি এখন সেখানকার সরকারি কারাগারে আটক আছেন। স্বাভাবিকভাবেই চীনা সরকার এ ধরনের এক ব্যক্তিকে নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রদানের বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ত্রুক্রদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। তাদের মতে, লিউ জিয়াওবোকে নোবেল প্রাইজ দেওয়ায় নোবেল শান্তি পুরস্কারকে অপবিত্র করা হয়েছে। নোবেল শান্তি পুরস্কারকে অপবিত্র করার ব্যাপার নতুন নয়। এ বছর লিউ জিয়াওবোকে নোবেল পুরস্কার দিয়েই যে পুরস্কারটিকে প্রথম অপবিত্র করা হয়েছে এমন নয়। উপরন্তু দেখা যায় যে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রদান করে তাকে অপবিত্রই করা হয়ে থাকে। শুধু অপবিত্র করাই নয়, এমন দৃষ্টান্তও আছে যেখানে নোবেল পুরস্কার দিয়ে পুরস্কারটিকে দুর্গন্ধময় নর্দমাতে নিক্ষেপ করা হয়েছে। কোনো ধরনের শান্তি প্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পর্কিত নয়, এমন সুদখোর ব্যবসায়ী ও নানা আন্তর্জাতিক-বহুজাতিক করপোরেশনের দালালকে যখন নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত করা হয়, তখন নোবেল পুরস্কারের অবস্থা এ রকমই দাঁড়ায়। আলফ্রেড নোবেল যখন তার সমস্ত সম্পত্তি দান করে নোবেল পুরস্কারের প্রচলন করেছিলেন, ...
শিক্ষা
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সংকটজনক পরিবেশ পরিস্
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৭/০৮/২০১০
খুন-খারাবি, দুর্নীতি, ভূমিদস্যুতা ইত্যাদির মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির ওপর প্রতিদিনই সংবাদপত্রে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। এর থেকেই বোঝা যায় সারাদেশের সাধারণ পরিস্থিতি কতখানি দুর্যোগপূর্ণ। শুধু তা-ই নয়, এখন এ বহুমুখী বিশৃঙ্খলার দিকে তাকিয়ে যদি এসবকে কেউ বাংলাদেশিদের জাতীয় চরিত্রের প্রতিফলন মনে করেন, তাহলে তাকে দোষ দেওয়ার উপায় নেই। বাংলাদেশের জনগণ এখন বিশ্বের অন্য কোনো দেশ থেকে নৈতিক ও মানবিক গুণাবলি এবং সাংস্কৃতিক মানের দিক দিয়ে শ্রেষ্ঠতর_ এটি বলা মুশকিল। সামগ্রিকভাবে দেখলে এসব গুরুতর সামাজিক ব্যাধিমুক্ত মানুষের উপস্থিতি বাংলাদেশে থাকলেও সাধারণভাবে বাংলাদেশের বাস্তব অবস্থা বর্ণনা করতে গেলে অন্য কোনোভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখন চরম বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছে। এ বিশৃঙ্খলাকে দেশের সাধারণ বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি থেকে আলাদা করে দেখা যায় না এ কারণে যে, সমাজের কোনো অংশই অন্য অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যা ঘটছে, তার সঙ্গে দেশের অন্যান্য ক্ষেত্রে ঘটতে থাকা ঘটনার যে মিল দেখা যায়, তার থেকে এ বিষয়টি বোঝা খুব সহজ ব্যাপার। ...
আদালতের রায় ও সরকারি সংস্থার নিয়মিত কাজের অবস্থ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৭/০৭/২০১০
প্রশাসনিক কাজের ব্যাপারে হাইকোর্টকে এখন প্রায়ই নির্দেশ দিতে দেখা যায়। নদী-তীরবর্তী জায়গা থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, গাছপালা অবৈধভাবে কাটা, বন্যপ্রাণী নিধন বন্ধ, শহরাঞ্চলে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ভবন ভাঙা, ক্রসফায়ার বন্ধ, আটক অবস্থায় লোকজনের ওপর নির্যাতন বন্ধ, ছাত্র সংগঠনের সন্ত্রাস বন্ধ, এমনকি পুলিশ ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঠিকভাবে নিজেদের কাজকর্ম পরিচালনা ইত্যাদি বিষয়ে হাইকোর্ট প্রায়ই নির্দেশ দিয়ে থাকেন। হাইকোর্ট কর্তৃক এভাবে এ ধরনের নির্দেশ প্রদান একটি দেশের শাসনব্যবস্থায় কোনো স্বাভাবিক ব্যাপার নয়। কিন্তু বাংলাদেশে এই অস্বাভাবিক ব্যাপার এখন পরিণত হয়েছে স্বাভাবিক ও নিয়মিত ব্যাপারে। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে হাইকোর্টকে অনেকটা বাধ্য হয়েই এ কাজ করতে হচ্ছে। বাংলাদেশ আমলে হাইকোর্টকে এ ধরনের নির্দেশ অহরহ জারি করতে হলেও আগে কোনোদিন হাইকোর্টকে এভাবে এ কাজ করতে হয়নি। এর কারণ খোঁজার জন্য বেশি কাঠখড় পোড়াতে হবে না। এর জন্য কেন এই নির্দেশের দরকার হচ্ছে, সেদিকে তাকালেই যথেষ্ট। ...
নদী দখল ও দুর্নীতির সার্বভৌমত্ব
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২০/০৭/২০১০
হেন করেছেন, তেন করেছেন বলার পর বিশেষ কিছু না করা বা কোনো কিছু না করার এক দৃষ্টান্ত হলো, বাংলাদেশের নদীগুলো ভূমিদস্যুদের হাত থেকে উদ্ধার করে সেগুলোকে পরিষ্কার, সচল ও যাতায়াতযোগ্য করার জন্য সরকারের বারবার লম্বা-চওড়া ঘোষণা। এ ধরনের ঘোষণা বিগত বিএনপি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দেওয়া হলেও এখন অনেক বেশি হাঁকডাক করে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এসব সত্ত্বেও পরিস্থিতির কোনো উল্লেখযোগ্য উন্নতি হচ্ছে না। ঢাকা, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জসহ বিভিন্ন শহর এবং দেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে ভূমিদস্যুরা বেশ নির্ভয়ে রাজত্ব ও নদী দখল করছে। নদী দখল এদের তৎপরতার মাধ্যমে এখন এক নিয়মিত ও নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। চট্টগ্রামে কর্ণফুলী নদীর ওপর তৃতীয় সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে এবং কয়েক দিনের মধ্যেই সেটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। একদিকে কোটি কোটি টাকা খরচ করে এ সেতুগুলো তৈরি করা হচ্ছে, অন্যদিকে নদী দখলকারী ভূমিদস্যুদের তৎপরতার কারণে নদীর মরণঘণ্টা বাজানো হচ্ছে। এ বিষয়ে ১৯ জুলাই সংবাদপত্রে একটি নতুন রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে (ডেইলি স্টার, ১৯.৭.১০)। এই সঙ্গে হাইকোর্ট কর্তৃক কর্ণফুলী নদী ...
নগর ভাবনা
নিমতলীর অগি্নকাণ্ড এবং তারপর
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৮/০৬/২০১০
পুরান ঢাকার নিমতলীতে অগি্নকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে নির্মমভাবে নিহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ, আহত হয়েছেন অসংখ্য। এর মধ্যে শিশুর সংখ্যা অনেক। এত বড় আকারে এই অগি্নকাণ্ড হয়েছে, যা শুধু ঢাকাতেই নয়, সারাদেশে কোথাও ইতিপূর্বে ঘটেনি, যদিও ঢাকাকে আখ্যায়িত করা চলে বিশ্বের সব থেকে অধিকসংখ্যক অগি্নকাণ্ডের শহর হিসেবে। ঢাকার এই আখ্যা অর্জন বাংলাদেশে গার্মেন্ট শিল্প প্রতিষ্ঠার পরবর্তী ব্যাপার। কারণ ১৯৯০-এর দশক থেকে ঢাকায় যেসব অগি্নকাণ্ড হয়েছে তার বিপুল অধিকাংশই ঘটেছে গার্মেন্ট কারখানাগুলোতে। বাকি সব অগি্নকাণ্ড ঘটেছে ঢাকার গরিবদের আবাসস্থল বস্তিগুলোতে। এসব অগি্নকাণ্ডে শত শত শ্রমিক ও গরিবের মৃত্যু হয়েছে। এ ধরনের প্রত্যেক অগি্নকাণ্ডই একেক ধরনের ক্রিমিনাল কাজের সঙ্গে সম্পর্কিত। সব রকম সূত্রের রিপোর্ট থেকেই দেখা যায়, নিমতলীতে যে বাড়িতে আগুন শুরু হয় সেই বহুতল ভবনটির নিচের তলায় একটি কেমিক্যাল কারখানার কাঁচামাল ছিল। ওইদিন এই নিচের তলাতেই চলছিল এক বিয়ের রান্নাবান্না। ...
নগর ভাবনা
সড়ক দুর্ঘটনা ও সম্পর্কিত প্রশ্ন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০১/০৬/২০১০
বাংলাদেশে এখন সড়ক দুর্ঘটনা হলো নিয়মিত খবর। সংবাদপত্র রিপোর্ট অনুযায়ী ১০-১৫ জন সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন নিহত হন। এ হিসাবে এই মৃত্যুর সংখ্যা বছরে দাঁড়ায় চার-পাঁচ হাজার। অন্য রিপোর্ট থেকে জানা যায়, প্রকৃতপক্ষে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা আরও অনেক বেশি সকালে উঠে খবরের কাগজ পড়া এখন স্বাস্থ্যের জন্য এক বড় রকম হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশে এখন ভালো খবর বলতে কিছু নেই বললেই চলে। এটা বললে কমই বলা হয়। কারণ এত রকম খারাপ খবর সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়, যা একটি সমাজ ও দেশের জন্য অভিশাপের মতো। এ অবস্থার দিকে তাকিয়ে কেউ অভিশাপে বিশ্বাস না করলেও এর শোচনীয় দিকটিকে বোঝানোর জন্যই অভিশাপের কথা বলতে হয়। এ অভিশাপ কোনো অতিলৌকিক ব্যাপার নয়। এটা হলো এ দেশে নানা ধরনের পুঞ্জীভূত ঘটনা ও প্রক্রিয়ার, বিশেষ করে সমাজের ক্রিমিনালাইজেশন বা অপরাধীকীকরণের পরিণতি। ১৯৭২ সাল থেকে স্বাধীন বাংলাদেশ নামে এ রাষ্ট্রে কোন পরিবর্তনটি সব থেকে লক্ষণীয় এবং উল্লেখযোগ্য, এ প্রশ্নের জবাবে নিদ্বর্িধায় বলা চলে এটা হলো, সমাজের উত্তরোত্তর ...
বাংলাদেশে নির্বাচনী রাজনীতি গণতন্ত্রকে সমাধি
রাজনীতি
সমকাল
২৭/০৪/২০১০
কোনো সমাজে দুর্নীতি প্রবল প্রতাপে সমাজের সবকিছু যখন শাসন করে তখন কোনো কিছুই তার শাসনের বাইরে থাকে না। বাংলাদেশে যে কোনো সমস্যা বিচার করলে এরই প্রমাণ মেলে। প্রত্যেক সমস্যাই এখানে দুর্নীতির থেকে মূল অথবা দুর্নীতির কারণে তার সমাধান সম্ভব নয়। জনগণের বিভিন্ন কর্মক্ষেত্র, কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য, যাতায়াত ব্যবস্থা, চিকিৎসা, শিক্ষা, সংস্কৃতি, রাজনীতি_ সর্বত্র এখন দুর্নীতির শাসন। আর এর সবকিছুর ওপর আছে সরকার ও প্রশাসনের দুর্নীতি, তাদের সঙ্গে সম্পর্কিত অথবা সরাসরি তাদের অধীন সব ধরনের সংস্থার দুর্নীতি। বস্তুতপক্ষে এই দ্বিতীয়োক্ত ক্ষেত্রের দুর্নীতিই তার প্রভাব অন্য ক্ষেত্রে বিস্তার করে দুর্নীতিকে সমাজে এক সার্বভৌম শক্তিতে পরিণত করেছে। বাংলাদেশের জনগণ এখন হাজারো সমস্যায় জর্জরিত। এসব সমস্যার কোনোটিই সমাধানের অযোগ্য নয়। জনগণ যেসব সমস্যার ভারে নুইয়ে আছে সেগুলোর বিপুল অধিকাংশের সমাধান সহজ ও অল্প সময়সাপেক্ষ। অন্য সমস্যাগুলোর সমাধানও যুক্তিসম্মত সময়সীমার মধ্যে সম্ভব। কিন্তু বাংলাদেশে কোনো সমস্যার সমাধানই হচ্ছে না, যেখানে সমাধান সহজ সেখানেও তা থাকছে নাগালের বাইরে। ...
মধ্যপ্রাচ্যে সাম্রাজ্যবাদীদের বেকায়দা অবস্থা
আন্তর্জাতিক
সমকাল
৩০/০৩/২০১০
মধ্যপ্রাচ্যে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে আবহাওয়া এখন নতুন করে উত্তপ্ত হচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ দুই পক্ষের মধ্যে পরোক্ষ আলোচনার যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল, সেটা আপাতত ভেঙে পড়েছে। আলোচনার বিষয়ে ফিলিস্তিনিরা দ্বিধান্বিতভাবে সম্মত হলেও এখন আর তারা এতে সম্মত নয়। কারণ আলোচনার পরিবেশ তৈরির জন্য মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যেদিন ইসরায়েলে উপস্থিত হন, ঠিক সেই দিনই ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ঘোষণা করেন, আরব অধ্যুষিত পূর্ব জেরুজালেমে তারা ১৬০০টি নতুন ইহুদি বসতি স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। এই ঘোষণা ফিলিস্তিনিদের জন্য সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য হলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্যও এটা ছিল এক অপমানজনক ব্যাপার। কারণ দুই পক্ষের মধ্যে আলাপ-আলোচনা পরিস্থিতি তৈরির জন্য সে দেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসরায়েল পেঁৗছানো মাত্র এই ঘোষণা ইসরায়েলিদের দিক থেকে ছিল এক ধরনের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ। এর দ্বারা নেতানিয়াহু সম্ভবত বোঝাতে চেয়েছিলেন যে, তারা জোরপূর্বক নিজেদের কর্মসূচি কার্যকর করে যাবেন এবং এক্ষেত্রে কারও বাধাই তাদের ঠেকাতে পারবে না। ...
নারীমুক্তি সংগ্রাম মূলত রাজনৈতিক সংগ্রাম
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৯/০৩/২০১০
অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও এখন নারী-পুরুষ বৈষম্য ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে শততম আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হচ্ছে। অন্যান্য দিবস পালনের ক্ষেত্রে যেমন, এই নারী দিবস পালনের ক্ষেত্রেও তেমনি, অল্প কিছু গুরুত্বপূর্ণ এবং সিরিয়াস বা গম্ভীর আলোচনা থাকলেও এসবের মধ্যে থাকে উচ্ছ্বাস, মায়াকান্না ও ন্যাকামিরই প্রাধান্য। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। এক্ষেত্রে প্রথমেই বলা দরকার, নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সামাজিক সম্পর্ক ও কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষ বৈষম্যের বিরুদ্ধে আন্দোলনকে, নারীর গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকে, সাধারণভাবে দেশে ও সমাজে বিরাজমান শোষণ-নির্যাতন এবং অধিকারহীনতার বিরুদ্ধে আন্দোলন থেকে বিচ্ছিন্নভাবে চিন্তা করা এক বড় রকম বিভ্রান্তি। এ কথার অর্থ অবশ্য এই নয় যে, শুধু শ্রেণী নির্যাতনসহ বিদ্যমান বহু প্রকার নির্যাতনের বিরুদ্ধে সাধারণ সংগ্রামের মাধ্যমেই সব ধরনের নারী নির্যাতনের অবসান হবে, তার মাধ্যমে নারী-পুরুষ বৈষম্য দূর হবে। এ কথার মর্মার্থ হচ্ছে এই যে, নারী-পুরুষ বৈষম্য ও নারী নির্যাতনের প্রশ্নকে প্রত্যেক সমাজের বিশেষ ও সুনির্দিষ্ট পরিপ্রেক্ষিতে দেখতে হবে। ...
আমেরিকার সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধ ও তাদের গোয়েন্দ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১২/০১/২০১০
বিগত ২০০৯ সালের ২৫ ডিসেম্বর, খ্রিস্টমাসের দিন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডেট্রয়েট বিমানবন্দরে প্রায় ৩০০ যাত্রীবাহী এক আমেরিকান উড়োজাহাজ বোমা বিস্ফোরণে উড়িয়ে দিতে যাওয়ার মুহূর্তে যাত্রীদের সরাসরি হস্তক্ষেপে দুর্ঘটনা থেকে সবাই রক্ষা পায়। উমর ফারুক আবদুল মোত্তালেব নামে ২৩ বছরের এক নাইজেরীয় যুবককে বিস্ফোরকসহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনার পর সন্ত্রাস মোকাবেলার ক্ষেত্রে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ভূমিকা নিয়ে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয়, সারাবিশ্বের অনেক দেশের পত্র-পত্রিকা ও টেলিভিশনে তোলপাড় হচ্ছে। ওবামা প্রশাসন এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মহাবেকায়দা অবস্থায় পড়েছে। কারণ এ বিমান আক্রমণের সম্ভাব্যতা বিষয়ে খোদ মার্কিন এবং ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর হাতে যেসব তথ্য ছিল তার পর আবদুল মোত্তালেব কীভাবে আমস্টারডাম বিমানবন্দর থেকে আমেরিকান নর্থওয়েস্ট এয়ারলাইন্সের ২৫৩ নম্বর ফ্লাইটে যাত্রী হিসেবে আরোহণ করে আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়ে ডেট্রয়েটে পেঁৗছতে সক্ষম হলো, এটি এক বিরাট প্রশ্ন হিসেবে এখন দেখা দিয়েছে। ...
আমার বন্ধু ডক্টর মোশাররফ হোসেনের স্মৃতি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১২ মার্চ, ২০১৩
গত ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ রাতে আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু ডক্টর মোশাররফ হোসেনের জীবনাবসান হয়েছে। অনেক দিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। শারীরিক অসুস্থতার সঙ্গে ছিল দেশের দুরবস্থা সৃষ্ট মানসিক চাপ। এই অবস্থার যন্ত্রণাদায়ক গুরুভার যেভাবে তাকে দিনের পর দিন বহন করতে হচ্ছিল আমরা, তার বন্ধুবান্ধবরা, সেটা দেখে নিজেরাও কষ্ট পেতাম। একজন জীবন্ত মানুষের জীবন যখন নিস্তরঙ্গ হয়, তখন তার ট্র্যাজিক প্রভাব তার আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, শুভানুধ্যায়ী সকলকেই স্পর্শ করে। আমার সঙ্গে তার পরিচয় হয়েছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকার সময়। আমি যখন সেখানকার চাকরিতে ...
ঢাকায় আন্তর্জাতিক বইমেলা দরকার
উপ-সম্পাদকীয়
সমকাল
১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
১৯৫৫ সালের ডিসেম্বরে আবু হোসেন সরকার পূর্ব বাংলার প্রধানমন্ত্রী (১৯৫৬ সালের সংবিধানের আগে প্রাদেশিক সরকারপ্রধানদেরও প্রধানমন্ত্রী বলা হতো) থাকার সময় বাংলা একাডেমীর প্রতিষ্ঠা হয়। ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের ২১ দফা কর্মসূচির মধ্যে বাংলা একাডেমীর প্রতিষ্ঠা ছিল অন্যতম। ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বাংলা একাডেমী অনেক ধরনের কাজ করলেও তার উদ্যোগে কোনো বইমেলার ব্যবস্থা হয়নি। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর প্রকাশনী সংস্থা মুক্তধারার স্বত্বাধিকারী চিত্ররঞ্জন সাহা ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে নিজেদের প্রকাশিত কিছু বইপত্র নিয়ে বাংলা একাডেমী চত্বরে বই বিক্রি শুরু করেন। ...
জামায়াতে ইসলামী এবং আওয়ামী লীগ জোট সরকার এখন কোন পথে?
সময়চিত্র
আমার দেশ
৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
ভয়মুক্ত অপরাধের সংস্কৃতি এখন বাংলাদেশে রাজত্ব করছে। এটাই হলো এখানে অপরাধের বিশাল বিস্তার, বৈচিত্র্য ও ভয়াবহতার প্রধান কারণ। এই সংস্কৃতির ঝাণ্ডা হাতে নিয়েই এই মুহূর্তে জামায়াতে ইসলামী ও তাদের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবির ১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে প্রলয়কাণ্ড করছে। হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ইত্যাদি বড় মাপের অপরাধেরও কোনো বিচার করা যাবে না। এ দাবি যে কোনো সভ্য মানব সমাজে করা যায় এটা চিন্তার বাইরে। জামায়াতে ইসলামী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ ও ট্রাইব্যুনাল ভেঙে দেয়ার দাবি জানিয়ে রাস্তায় ...
ওয়াশিংটন টাইমসে খালেদা জিয়ার প্রবন্ধ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
৩০ জানুয়ারি ২০১৩, খালেদা জিয়া ওয়াশিংটন টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রবন্ধে যা বলেছেন, সেটা এমনিতে তো বটেই, এমনকি তাদের নিজেদের দিক থেকেও এক মস্ত রাজনৈতিক কেলেঙ্কারি। এ কাজ তিনি নিজেই উদ্যোগী হয়ে করেছেন অথবা কারও দ্বারা প্ররোচিত হয়ে করেছেন তাতে কিছু যায় আসে না। কারণ এর দায়িত্ব অবশ্যই তার নিজের, বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রিত্বের পদ দু'বার অলঙ্কৃত করেছেন এমন এক ব্যক্তির। প্রবন্ধটি পড়ে প্রথমেই আমার মনে হয়েছে, এক গভীর হতাশা থেকেই এটি লেখা হয়েছে। বিএনপি আগামী নির্বাচনে জয়লাভের জন্য আন্দোলন করছে ...
বাংলাদেশ রাশিয়া থেকে কী কারণে আট হাজার কোটি টাকার অস্ত্র কিনছে?
কলাম
আমার দেশ
১৭ জানুয়ারি ২০১৩
প্রধানমন্ত্রী তার রাশিয়া সফরে গিয়ে ১৫ জানুয়ারি তাদের সঙ্গে এক বিলিয়ন ডলার বা আট হাজার কোটি টাকার এক অস্ত্র ক্রয়চুক্তি করেছেন। এই চুক্তি অনুযায়ী সরকার সামরিক বাহিনীর জন্য নানা ধরনের অস্ত্র আমদানি করবে। এর জন্য রাশিয়া বাংলাদেশকে এক বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে। এই ঋণের সুদসহ অন্য শর্ত সম্পর্কে কোনো রিপোর্ট আজকের (১৬.১.১৩) সংবাদপত্রে না থাকলেও আগের কিছু সূত্র থেকে জানা যায় যে, সুদের হার বেশ উঁচুই রাখা হয়েছে। মোট কথা, ঋণ নিয়ে আট হাজার কোটি ডলার মূল্যের অস্ত্র বাংলাদেশ ...
প্রাণেশ সমাদ্দার স্মরণে
কলাম
আমার দেশ
৩ জানুয়ারি ২০১৩
২০১২ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় অনেক কৃতী ও গুণী মানুষের মৃত্যু হলো। এ ধরনের সব থেকে বেশি লোকের মৃত্যু বিগত বছরে হয়েছে বাংলাদেশে। মৃত্যু স্বাভাবিক ব্যাপার। মৃত্যুর যদিও কোনো বয়স নেই, তবু বয়স্ক মানুষের মৃত্যু আরও স্বাভাবিক ব্যাপার। যাদের মৃত্যুর কথা ওপরে উল্লেখ করেছি, তারা সবাই ছিলেন বয়স্ক ও বৃদ্ধ। এদিক দিয়ে আক্ষেপের কিছু নেই। তবু প্রত্যেক বিদায়ের মধ্যেই একটা বেদনা থাকে। অনেক বিদায়ের মধ্যে ক্ষতি থাকে, ব্যক্তিগত ক্ষতি, সামাজিক ক্ষতি। যেসব বয়োবৃদ্ধ পরিচিত মানুষের মৃত্যু গত এক বছরে হয়েছে ...
দুর্নীতি ও সন্ত্রাস বন্ধের উপায় নেই
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৫ ডিসেম্বর ২০১২
আওয়ামী লীগ জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী বলছেন যে, তাদের আমলে কোনো দুর্নীতি হয়নি! তাদের অর্থমন্ত্রী বলছেন, সরকারের শীর্ষদেশে কিছু দুর্নীতিবাজ আছে! একই দলের, একই মন্ত্রিসভার দু'জনের মুখে এই পরস্পরবিরোধী বক্তব্য যে বিষয়টি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় তা হলো, দল ও মন্ত্রিসভার মধ্যে চিন্তার ঐক্য বলতে যা বোঝায় সেটা আওয়ামী লীগওয়ালাদের মধ্যে নেই। এটা তাদের নিজেদের জন্য কোনো সুখকর অবস্থান নয়। কিন্তু এর থেকে বড় কথা, এটা জনগণের জন্যও রীতিমতো বিপজ্জনক। কারণ, এর থেকে বোঝার উপায় নেই কে কোন ক্ষেত্রে ...
সরকারের বেনামি হরতাল সফল হয়েছে
কলাম
আমার দেশ
২০ ডিসেম্বর ২০১২
বাংলাদেশের জনগণ বর্তমান আওয়ামী জোট সরকারের হাতে কতখানি নিরাপদ এবং এদের হাতে বাংলাদেশের ভবিষ্যত্ কতখানি উজ্জ্বল তার প্রমাণ প্রতিদিনই প্রধানমন্ত্রীর জবানীতে পাওয়া যায়। তিনি নিয়মিতভাবে প্রতিদিনই বাণী বিস্তারে অভ্যস্ত এবং এইসব বাণী যতই আবোলতাবোল ও বাস্তবের সঙ্গে সম্পর্কহীন হোক, সরকারি শাস্তির ভয়ে প্রচার মাধ্যমগুলো তা বাধ্যতামূলকভাবে প্রচার করে থাকে। এই ধরনের বাণী বিস্তার করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ১৭ ডিসেম্বর বিজয় দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বলেন, ‘রামুর বৌদ্ধ বিহারে হামলা, তাজরীন গার্মেন্টে অগ্নিকাণ্ড অথবা হিন্দু সম্প্রদায়ের ছেলে বিশ্বজিেক কুপিয়ে কুপিয়ে ...
শাসকশ্রেণীর রাজনৈতিক দলগুলো দেশকে অনতিক্রম্য সংকটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১১ ডিসেম্বর ২০১২
বিএনপি-জামায়াতের হরতাল, অবরোধ কর্মসূচি এবং আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট সরকার কর্তৃক তার বিরোধিতা থেকে যে সংঘর্ষ এখন ঢাকা এবং অন্যান্য শহরের পথে পথে দেখা যাচ্ছে এটা বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর নিকৃষ্ট ও চরম প্রতিক্রিয়াশীল চরিত্রেরই পরিচায়ক। এরা যে রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও সাধারণভাবে সংস্কৃতির কত নিম্ন পর্যায়ে এর পরিচয়ও এদের আচরণের মধ্যে আছে। এদের দুই পক্ষই গণতন্ত্রের নামে অহরহ লম্বা-চওড়া কথা বলে অপর পক্ষকে গালাগালি করলেও এরা উভয়েই ফ্যাসিস্ট চরিত্রসম্পন্ন। এদের এই চরিত্র সরকারে বা বিরোধী দলে যেখানেই এরা থাকুক, সেখানে দেখা ...
গার্মেন্ট শ্রমিকদের বিরুদ্ধে সরকার ও গার্মেন্ট মালিকদের চক্রান্ত
কলাম
আমার দেশ
৬ ডিসেম্বর ২০১২
তাজরীন ফ্যাশন গার্মেন্টের ৪৩ জন নিহত শ্রমিকের পরিবারকে মাথাপিছু ৬ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য নিজের কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে যারা গার্মেন্ট কারখানায় আগুন দেয়ার জন্য শ্রমিকদের প্ররোচিত করছে তাদের খুঁজে বের করার আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা লক্ষ্য করেছেন যে, গার্মেন্ট কারখানায় আগুন দেয়ার জন্য প্রায়ই শ্রমিকদের প্ররোচিত করা হয়। শ্রমিকদের টাকাপয়সা দিয়ে যারা কারখানায় আগুন দেয়ার জন্য প্ররোচিত করছে তাদের চিহ্নিত করা দরকার।’ (Daily Star, 5.12.2012) ২৪ নভেম্বর তাজরীন গার্মেন্ট ...
ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় মর্যাদা লাভ ও মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন নীতি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৪ ডিসেম্বর ২০১২
৩০ নভেম্বর ২০১২ তারিখে ফিলিস্তিন জাতিসংঘে একটি অসদস্য রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। অসদস্য রাষ্ট্রের অর্থ ভোট দেওয়ার অধিকারহীন রাষ্ট্র, ভ্যাটিকানের মতো। ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জাতিসংঘের সাধারণ সভায় রাষ্ট্র হিসেবে ফিলিস্তিনের স্বীকৃতির জন্য যে প্রস্তাব করেছিলেন তার পক্ষে ১৯৩ সদস্যের মধ্যে ১৩৮টি ভোট প্রদান করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলসহ ৯টি রাষ্ট্র বিরুদ্ধে ভোট দেয়। ৪১টি ভোটদানে বিরত থাকে এবং ৫টির কোনো ধরনের অংশগ্রহণ থাকেনি। অর্থাৎ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরায়েলের প্রবল বিরোধিতা সত্ত্বেও বিপুল ভোটাধিক্যে ফিলিস্তিন একটি রাষ্ট্র হিসেবে ...
ছাত্রশিবির ও ছাত্রলীগের সন্ত্রাস প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৭ নভেম্বর ২০১২
ছাত্রলীগের গত চার বছরের একটানা সন্ত্রাসের সঙ্গে এখন যুক্ত হয়েছে ছাত্রশিবিরের সন্ত্রাস। সন্ত্রাসী হিসেবে ছাত্রশিবির নতুন নয়। আশির দশকের প্রথম দিকে মাদ্রাসা ছাত্রদের জন্য সাধারণ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের দরজা খুলে যাওয়ার পরই ছাত্র হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ে তারাই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রথম শুরু করে। বিরোধী ছাত্রদের পায়ের রগ কেটে তাদের পঙ্গু করা ছিল তাদের একটা নিয়মিত কাজ। এভাবে পঙ্গু করাই নয়, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র হত্যা পর্যন্ত তারা করেছে। এভাবে তারা ছাত্র মহলে সন্ত্রাসী তৎপরতা শুরু করার পর ছাত্রলীগ, ছাত্রদল ইত্যাদি সংগঠনও একইভাবে সন্ত্রাসের পথে পা ...
টিআইবি রিপোর্টের বিরুদ্ধে জাতীয় সংসদের প্রতিক্রিয়া
কলাম
আমার দেশ
২২ নভেম্বর ২০১২
ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সদস্যদের আর্থিক এবং অর্থনৈতিক আচরণের ওপর এক তদন্ত রিপোর্টে বলেছে যে, তাদের শতকরা ৯৭ ভাগই নেতিবাচক কাজ ও দুর্নীতির সঙ্গে সম্পর্কিত। অর্থাত্ তারা দুর্নীতিবাজ। তাদেরকে ধোয়া তুলসীপাতা না বলে এই রিপোর্টে দুর্নীতিবাজ বলায় জাতীয় সংসদ সদস্যরা ও সেই সঙ্গে সংসদের স্পিকার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তাদের প্রতিক্রিয়া দেখে মনে হতে পারে যে, তারা নিজেরাও নিজেদের দুর্নীতিমুক্ত সাধু-সন্ত মনে করেন! এ কারণে তারা টিআইবির এই রিপোর্টের বিরুদ্ধে শুধু ক্রুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত ...
প্রধানমন্ত্রীর পাকিস্তান সফর বাতিল প্রসঙ্গে
কলাম
আমার দেশ
১৫ নভেম্বর ২০১২
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য পাকিস্তান যাচ্ছেন না। আগামী ২২ নভেম্বর ইসলামাবাদে এই সম্মেলন অনুষ্ঠানের কথা। ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, তুরস্ক, ইরান ইত্যাদি দেশ নিয়ে ডি-৮ এর সদস্য সংখ্যা আট। এই সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর যোগ না দেয়ার সিদ্ধান্ত হঠাত্ করেই হয়েছে। হঠাত্, কারণ এর আগে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিনা রাব্বানী খার ঢাকায় এসে এই আমন্ত্রণপত্র প্রধানমন্ত্রীর হাতে দেয়ার সময় তিনি সম্মেলনে যোগদানের সিদ্ধান্তের কথা তাকে জানিয়েছিলেন। এ বিষয়ে কোনো স্পষ্ট সরকারি বিবৃতি এখন পর্যন্ত পাওয়া না গেলেও সরকারি ...
শিক্ষাক্ষেত্রে দুর্নীতি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৩ নভেম্বর ২০১২
শিক্ষাক্ষেত্রে দুর্নীতির অনেক দিক আছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি নিয়ে দুর্নীতি। স্কুলের কথাই প্রথমে বলা দরকার। বাংলাদেশে চুরি-দুর্নীতি যেমন দ্রুত ও ব্যাপকভাবে বিস্তার লাভ করেছে, তেমনি তার উল্টোদিকে শিক্ষার বিস্তারও হয়েছে দ্রুত ও ব্যাপকভাবে। বিস্তার হওয়ার অর্থ হলো আজকের দিনে মানুষ শিক্ষার গুরুত্ব বিষয়ে এত সচেতন হয়েছে যে, শুধু উচ্চ বা মধ্যবিত্ত নয়, সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের মধ্যেও নিজের সন্তানকে সাধ্যমতো শিক্ষা দেওয়ার একটা চেষ্টা এখন সাধারণভাবে দেখা যায়। এ জন্য অনেক শ্রমজীবী পরিবার নিজেদের ...
দস্যুদের নদী দখল প্রসঙ্গে
কলাম
আমার দেশ
৮ নভেম্বর ২০১২
বাংলাদেশের লুণ্ঠনজীবীরা দীর্ঘদিন ধরে নদী লুণ্ঠন করছে। এই লুণ্ঠনের অর্থ হলো, নদী দখল করা। এর বিরুদ্ধে সংবাদপত্রে রিপোর্টিং এবং লেখালেখি যে কত হয়েছে তার হিসেব নেই। সেই সঙ্গে হাইকোর্টও যে সরকারি কর্তৃপক্ষের ওপর কতবার আদেশ জারি করেছেন এই লুণ্ঠনকারীদের হাত থেকে নদীর জায়গা উদ্ধার করতে তারও কোনো হিসেবে নেই। কিন্তু বছরের পর বছর এই কাহিনী চলতে থাকলেও পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন নেই। সারা বাংলাদেশজুড়ে এখন নদী, খাল ও সরকারি মালিকানাধীন জলাশয় অবাধে দুর্বৃত্তদের দ্বারা লুণ্ঠিত হচ্ছে। হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী বিশেষ ...
সাম্রাজ্যবাদ ও তালেবানদের বর্বর হামলার মুখে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের জনগণ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৬ অক্টোবর ২০১২
মালালা ইউসুফজাই মাত্র ১৪ বছরের এক স্কুলছাত্রী সোয়াতে তালেবানদের গুলিতে মারাত্মকভাবে আহত হয়ে এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। সংবাদপত্র রিপোর্ট থেকে জানা যায় যে, মালালা তার স্কুল সহপাঠীদের সঙ্গে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাসের মধ্যে এক তালেবান সন্ত্রাসী দ্বারা গুলিবিদ্ধ হয়। এত অল্প বয়স্ক একটি মেয়ের বিরুদ্ধে তালেবানদের এই আক্রোশের কারণ সে তাদের নারী শিক্ষাবিরোধী কঠোর নীতির একজন কড়া বিরোধী ছিল এবং তিন বছর আগে থেকে অর্থাৎ মাত্র ১১ বছর বয়স থেকেই সে এই বিরোধিতার বিষয়ে সোচ্চার ছিল! মালালার এই ...
দুদক চেয়ারম্যানের বিস্ময়কর ঘোষণা
সাম্প্রতিক প্রসঙ্গ
সমকাল
০৯ অক্টোবর ২০১২
রেলের কয়েকজন বড় কর্তা ৯ এপ্রিল, ২০১২ তারিখের রাতে একটি গাড়িতে থাকার সময় গাড়ির ড্রাইভার হঠাৎ করে জিগাতলার কাছে বর্ডার গার্ডের গেটের ভেতরে ঢুকে পড়ে সোজা বর্ডার গার্ড হেডকোয়ার্টারে উপস্থিত হয়ে বলেন যে, গাড়ির মধ্যে বড় অঙ্কের অবৈধ টাকা আছে। সামান্য একজন ড্রাইভার হলেও বর্ডার গার্ড তার কথায় বিশ্বাস করে গাড়ি তল্লাশি করে এবং গাড়ির মধ্যে ৭০ লাখ টাকা পাওয়া যায়। এরপর বর্ডার গার্ড ড্রাইভার ও গাড়ির অন্য তিনজন আরোহীকে সারারাত আটক রাখে। এই তিনজন হলেন_ রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের ...
আ.লীগের ঠ্যাঙ্গাড়ে বাহিনী ছাত্রলীগ প্রসঙ্গে
উপ-সম্পাদকীয়
আমার দেশ
১৩/০৯/২০১২
১৯৭২ সালে ক্ষমতাসীন হয়ে তত্কালীন আওয়ামী লীগ সরকার সব ধরনের বিরোধী শক্তির ওপর নিষ্ঠুর দমনপীড়নের আশ্রয় নিয়ে যে ঐতিহ্য সৃষ্টি করে গেছে তার ধারাবাহিকতাই বর্তমান আওয়ামী লীগ জোট সরকারের মধ্যে আমরা দেখছি। ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ কয়েকটি বাম ও দক্ষিণপন্থী দল নামে পরিচিত সংগঠনের সঙ্গে একটি কোয়ালিশন সরকার গঠন করে তাদের সব ধরনের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির বরখেলাফ করে জনগণের ওপর দমনপীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে। এইসঙ্গে যে তাদের চুরি, ঘুষখোরি, দুর্নীতি ইত্যাদি সবকিছুই জড়িত আছে এ বিষয়ে কারও সন্দেহ নেই। ...
অর্থমন্ত্রী বাংলাদেশের দুর্নীতিবাজদেরই অন্যতম প্রধান প্রতিনিধি
উপ-সম্পাদকীয়
আমার দেশ
০৬/০৯/২০১২
বাংলাদেশের বর্তমান অর্থমন্ত্রী ঢাকার রূপসী হোটেলে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় সোনালী ব্যাংকে অর্থ কেলেঙ্কারি প্রসঙ্গে বলেন, ‘সোনালী ব্যাংকে ৪০ হাজার কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়। সেখানে ৪ হাজার কোটি টাকা কোনো বিষয়ই নয়। মিডিয়ায় অহেতুক এটাকে নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করা হচ্ছে। এতে দেশের ক্ষতি হচ্ছে।’ (যুগান্তর ৫.৯.২০১২) প্রধানমন্ত্রী যেসব মণি-মুক্তা-হীরক খণ্ড দিয়ে তাঁর মন্ত্রিসভা সাজিয়েছেন তার অন্যতম হলেন এই অর্থমন্ত্রী। দেশের স্বার্থবিরোধী ও দায়িত্বহীন কথাবার্তা বলার ক্ষেত্রে তাঁদের মন্ত্রিসভাতেও তাঁর তুল্য লোক বেশি নেই। মনে হয়, এ কারণেই ...
পুলিশ না ক্রিমিনাল?
উপ-সম্পাদকীয়
আমার দেশ
৩০/০৮/২০১২
পুলিশ ও র‌্যাবের নির্যাতন এখন সব মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। মুখে বলা হয় যে, পুলিশ হলো শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী, জনগণের নিরাপত্তা বিধান করাই পুলিশের কাজ। প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, ক্ষমতাসীন দলের লোকজনও উচ্চ কণ্ঠে পুলিশের প্রশংসা করতে গিয়ে এ কথা বলেন। কিন্তু বাস্তবত পুলিশ এখন এদেশে জনগণের জীবনে এক মস্ত অভিশাপের মতোই কাজ করে। সরকারি ক্ষমতায় যে যখন থাকে তখন পুলিশ তাদের হুকুমমত সব রকম বিরোধী লোকদেরই লাঠিপেটা করে, গ্রেফতার করে, যত প্রকারে পারে তাদের ওপর নির্মম নির্যাতন করে। এমনকি হাজতে নিয়ে ...
সরকারের দমন নীতি ও নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/০৮/২০১২
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একদিকে বলছেন যে, সরকারের দায়িত্ব হলো জনগণের জানমাল রক্ষা করা, অন্যদিকে মাত্র কয়েকদিন আগে তিনি ঈদের ছুটিতে ঢাকা ছাড়তে থাকা লোকদের উদ্দেশে বলেন, তারা নিজের নিজের ঘরে তালা মেরে তারপর যেন বাইরে যান! ঘরে তালা না দিয়ে কেউই বাইরে যান না। কাজেই এ ক্ষেত্রে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এ কথার স্পষ্ট অর্থ, বাসায় অনুপস্থিত থাকলে মালের হেফাজতের দায়িত্ব সরকারের নয়। নিজের মাল রক্ষার জন্য প্রত্যেককেই নিজে দায়িত্ব এবং উদ্যোগ নিতে হবে। শিক্ষার অভাব, রাজনৈতিক প্রজ্ঞার অভাব এবং ঔদ্ধত্য বর্তমান সরকারের সমগ্র ...
ভারত ও বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা
উপ-সম্পাদকীয়
আমার দেশ
২৩/০৮/২০১২
ভারতের আসাম রাজ্যে কয়েকদিন আগে মুসলমান ও দক্ষিণ ভারতীয় লোকদের বিরুদ্ধে এক সাম্প্রদায়িক ও আঞ্চলিকতাবাদী দাঙ্গা হলো। এর ফলে মুসলমান ও দক্ষিণ ভারতীয়, বিশেষত কর্নাটকের হাজার হাজার মানুষ আসাম ত্যাগ করে ভারতের অন্যত্র সরে আসতে বাধ্য হয়েছেন। এই দাঙ্গা দমনে রাজ্য সরকারের দ্রুত তত্পরতার অভাব থাকলেও কেন্দ্রীয় সরকার যথাসম্ভব দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আসামের এই অঞ্চলে দীর্ঘকাল ধরে বোড়োদের সঙ্গে আসামীদের দাঙ্গা-হাঙ্গামা চলে আসছে। এক্ষেত্রে বোড়োদেরকেই বেশি তত্পর দেখা গেছে। মনে হয়, এই প্রথম বোড়োরা প্রধানত মুসলমানদের ওপর বড় ...
চুরি ঘুষ দুর্নীতির সঙ্গে আহাম্মকির বিস্তার ঘটছে
উপ সম্পাদকীয়
আমার দেশ
১৯/০৭/২০১২
প্রধানমন্ত্রী খুব দম্ভের সঙ্গে বলেছেন, ‘পদ্মা সেতু তৈরি কোনো ব্যাপারই নয়!’ একথা শুনে মনে হয় কথার তুবড়ি ছুটিয়েই তিনি বাজিমাত্ করবেন। কিন্তু তিনি পদ্মা সেতু নিজেদের অর্থায়নেই করবেন, একথা বাংলাদেশের বাস্তব পরিস্থিতিতে এক চরম গণবিরোধী ও প্রতিক্রিয়াশীল উক্তি ছাড়া অন্য কিছু নয়। কারণ তার এই দাম্ভিক বক্তব্য কার্যকর করতে গিয়ে দেশের গরিব ও মধ্যবিত্ত শ্রমজীবী জনগণকে এমন সঙ্কটের মধ্যে পড়তে হবে যা তাদের জীবনকে এখনকার দুর্দশাগ্রস্ত জীবনের থেকে আরও ভয়াবহভাবে দুর্দশার মধ্যে নিক্ষেপ করবে। প্রথমত এটা বলা দরকার যে, ...
বিরোধী দল বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে জাতীয় সংসদে যায় না কেন?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১৫/০৬/২০১২
যে কোনো গণতান্ত্রিক সমাজে হরতাল, ধর্মঘট জনগণের ও শ্রমিকদের আন্দোলনের গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকর হাতিয়ার। কাজেই হরতাল, ধর্মঘট নিষিদ্ধ অথবা হরতাল, ধর্মঘট করলে হরতালি ও ধর্মঘটীদের বিরুদ্ধে পুলিশ লেলিয়ে দেওয়ার কাজ যারা করে তারা গণতান্ত্রিক রীতিনীতির কোনো ধার ধারে না। সাধারণ জনগণের ওপর পুলিশকে দিয়ে লাঠি হামলা, কাঁদানে গ্যাস আক্রমণ ও ক্ষেত্রবিশেষে গুলি চালানোর কাজ যারা করে তারা যে জনগণের বন্ধু নয়, এটা এ দেশের জনগণের ভালোভাবেই জানা আছে। অন্যদিকে হরতালের মতো গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক হাতিয়ার যারা ঘন ঘন ও সামান্য কারণে ব্যবহার করে তাদের সঙ্গেও জনগণের ও জনস্বার্থের কোনো সম্পর্ক নেই। জনগণের অংশগ্রহণের ব্যাপারে নিশ্চিত হতে না পারার কারণেই হরতালের ডাক দিয়ে হরতাল সফল করার জন্য হরতালের দু'একদিন আগে থেকে 'হরতাল হরতাল' বলে স্লোগান দিয়ে তারা রাস্তাঘাট গরম করে। ...
যে দুর্নীতির মামলার নিষ্পত্তি হয়নি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৫/০৬/২০১২
যদি এপিএস ৭০ লাখ টাকার উৎস প্রকাশ করতে দুদকের কাছে অস্বীকৃত হন, তাহলে দুদকের পরবর্তী কর্তব্য হবে তাকে পুলিশের হাতে সমর্পণ করা এবং পুলিশের উচিত হবে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা। অনেক নিরীহ লোককে পুলিশ ও র‌্যাব রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করছে। সে ক্ষেত্রে এপিএসের মতো একজন 'দুর্নীতিবাজ'কে যদি দুদক পুলিশের হাতে তুলে না দেয় এবং পুলিশ যদি তাকে রিমান্ডে না নেয়, তাহলে বুঝতে হবে এ দেশে ইতিমধ্যেই দুর্নীতির রাজত্ব প্রশাসন ক্ষেত্রে সার্বভৌম হয়েছে অধস্তন কর্মচারীদের দিয়ে গঠিত তার নিজের দুর্নীতি বিষয়ক তদন্ত করিয়ে নিজেকে খালাস দেখিয়ে সুরঞ্জিত বাবু এখন আবার রাজনীতির মাঠে নেমে পড়েছেন। বাংলাদেশের অবস্থা এমনই করুণ যে, ক্ষমতাসীন একটি রাজনৈতিক দলের উচ্চ পর্যায়ের একজন নেতার এসব করতে লজ্জা-শরম অথবা অন্য কোনো প্রকার অসুবিধা হয় না। দুর্নীতি ইত্যাদি ধরা পড়লে তাদের মতো লোকেরা লজ্জা-শরম একেবারেই পান না বা তাদের কোনো প্রকার অসুবিধাই হয় না, এটা অবশ্য ষোলোআনা ঠিক নয়। কারণ তারা বিপাকে পড়লে প্রথম কয়েকদিন মুখ লুকিয়ে থাকেন। ...
বাংলাদেশে পহেলা মে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০১/০৫/২০১২
বাংলাদেশে পহেলা মে যেভাবে ঢাকঢোল বাজিয়ে, লাল টুপি পরে বড় বড় মিছিল ও সভা করে পালিত হয় তা থেকে বোঝা মুশকিল শ্রমিকরা এখানে কতখানি শোষিত ও নির্যাতিত। বোঝা মুশকিল এখানে প্রকৃত শ্রমিক সংগঠন ও শ্রমিক আন্দোলন বলে কিছু নেই। কাজেই যারা সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশে শ্রমিক সংগঠন ও শ্রমিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চান তাদের কর্তব্য হলো, শুধু কথাবার্তার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে খোদ শ্রমিকদের মধ্যে কাজ করা। যত দ্রুত সম্ভব শ্রমিকদের নিজস্ব সংগঠনকে নিজের পায়ের ওপর দাঁড় করিয়ে নিজেদের অধিকার ...
নোট বই গাইড বই প্রকাশক ও বিক্রেতাদের মতবিনিময় সভা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৫/০১/২০১২
বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি ৪ জানুয়ারি ঢাকার ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে পুস্তক ব্যবসা ক্ষেত্রে তারা যে সংকটের সম্মুখীন হয়েছেন সে বিষয়ে মতবিনিময়ের জন্য এক সভা আহ্বান করেছেন। এখানে উল্লেখ করা দরকার, তারা সংকটের মধ্যে পড়ার কারণ বাংলাদেশের হাইকোর্ট কর্তৃক এক রায়ের মাধ্যমে নোট ও গাইড বুক নিষিদ্ধকরণ। এর দ্বিতীয় কারণ হলো, সরকার কর্তৃক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের ছাত্রছাত্রীদের বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক দেওয়ার সিদ্ধান্ত। এ সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যে কার্যকর করা শুরু হয়েছে। সুস্থ শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে যেমন প্রয়োজন সুশিক্ষার উপযোগী পাঠ্যতালিকা বা সিলেবাস, তেমনি প্রয়োজন পাঠ্যবইয়ের সহজলভ্যতা। এ দুই শর্ত পূরণ না হলে কোনো দেশেই ছাত্রছাত্রীদের সুশিক্ষা সম্ভব নয়। বাংলাদেশে এ দুই শর্তের কোনোটিই ঠিকমতো পূর্ণ না হওয়ায়, উপরন্তু এর উল্টো পরিস্থিতি বিরাজ করায় এখানে দেখা যায় শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্য ও শিক্ষার নিম্নমানতা। বর্তমান পাঠ্য তালিকার মধ্যে পশ্চাৎপদ চিন্তা-ভাবনার প্রাধান্যসহ এর অনেক নেতিবাচক দিক আছে, এ ক্ষেত্রে দলীয়করণ আছে। ...
‘শ্রীলংকা গার্ডিয়ানে’ প্রকাশিত রিপোর্টের ওপর সরকারকে আনুষ্ঠানিক ব্যাখ্যা দিতে হবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৮/০৪/২০১২
বাংলাদেশে এখন গুম বা অপহরণ নিয়ে সর্বস্তরের মানুষ এক মহা আতংকে আছেন। আইনবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশে বড় আকারে শুরু হয়েছিল ১৯৭১ সালের পর থেকেই। সে সময় আওয়ামী-বাকশালী সরকার হাজার হাজার বামপন্থী, জাসদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের গুম-খুন করেছিল। বাস্তবত বাংলাদেশে গুম-খুনের রাজনীতি শুরু বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই। এ দেশের শাসকশ্রেণীর ঐতিহ্য অনুযায়ী অপহরণ ও গুম-খুন এখনও চলছে। কিন্তু এদিক দিয়ে এখনকার মতো পরিস্থিতির অবনতি আগে কখনও দেখা যায়নি। কিছুদিন আগে পর্যন্ত র‌্যাব ও পুলিশ বেপরোয়াভাবে হত্যাকাণ্ড চালিয়ে তাকে ‘ক্রসফায়ার’ নামে অভিহিত করত। ক্রসফায়ার এখন একেবারে বন্ধ না হলেও উল্লেখযোগ্য হারে কমে এসেছে। তার স্থান দখল করেছে গুম বা অপহরণ করে আস্ত মানুষকে গায়েব করে দেয়া। এর সর্বশেষ দৃষ্টান্ত হল বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীকে অপহরণ করা। এভাবে অপহরণ বা গুম করার পর তার অবস্থান কী দাঁড়িয়েছে, এ নিয়ে চূড়ান্ত কিছু বলা সম্ভব না হলেও তাকে গায়েব করে দেয়ার আশংকা অমূলক নয়। ...
যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধী প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২১/০৪/২০১২
যে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ১৯৭২-এর পর শেখ মুজিবুর রহমানের সরকারের দ্বারা সম্ভব হয়নি, উপরন্তু যারা আটক ছিল তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছিল, তাদের বিচার এখন হচ্ছে। এর জন্য ট্রাইব্যুনালও গঠিত হয়েছে, যারা এই বিচার কাজ পরিচালনা করছেন। যথাসময়ে এ কাজ না করে দুর্বোধ্য দেরিতে এ কাজ শুরু হলেও এতে দোষ নেই। কারণ প্রকৃত ক্রাইম বা অপরাধ তো দেরির জন্য অবিচারযোগ্য হয় না। অপরাধের বিচার কাজের ন্যায্যতা সব সময়েই থাকে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বিষয়ে বর্তমান আলোচনার উদ্দেশ্য, এর একটি দিকের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা। সে দিকটি হল, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বলতে আসলে যা বোঝায়, সেটা এখন ট্রাইব্যুনাল গঠন করে যে বিচার হচ্ছে তার মাধ্যমে হচ্ছে না। এ বিষয়ে আমি সংক্ষিপ্তভাবে আগেও লিখেছি, কিন্তু এখানে আরও একটু খোলাসাভাবে এটা বলার চেষ্টা করব। ...
ইসরায়েলের পারমাণবিক বোমা ও গুন্টার গ্রাসের কবিতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৮/০৪/২০১২
গুন্টার গ্রাসের কবিতাটি প্রকাশিত হওয়ার পর ইসরায়েলের পারমাণবিক বোমা নিয়ে যে তর্ক-বিতর্ক ও ঝড় এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপে দেখা যাচ্ছে তাতে ইসরায়েলের পারমাণবিক কর্মসূচির ইন্সপেকশন বা পরিদর্শন আন্তর্জাতিকভাবে এখন জরুরি হয়েছে। জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক পারমাণবিক কমিশনকে এখন এ কাজে নিযুক্ত হতে হবে। এতদিনের জানা, কিন্তু গোপন রাখা বিষয়টি যখন আলোচিত হচ্ছে, তখন একে ধামাচাপা দিয়ে রাখা এবং সাম্রাজ্যবাদ কর্তৃক ইসরায়েলকে একটি সাধু রাষ্ট্র হিসেবে জাহির করার চক্রান্ত নস্যাৎ করে সাম্রাজ্যবাদ এবং ইসরায়েলের মুখোশ পুরোপুরি উন্মোচনের সময় এখন এসেছে জার্মান ...
বাংলাদেশে মার্কিন নৌঘাঁটির চক্রান্ত প্রতিহত করতে হবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১৭/০৪/২০১২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের নৌশক্তির বড় অংশ অন্তত ৬০% এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলে সরিয়ে আনার যে ঘোষণা আনুষ্ঠানিকভাবে ইতিপূর্বে দিয়েছে, সেই অনুযায়ী তারা নিজেদের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা বেশ চাতুর্যের সঙ্গেই এগিয়ে নেয়ার কাজ করছে। এই উদ্দেশ্যে তাদের এ অঞ্চলে একেক দেশের সঙ্গে একেক রকম চুক্তি করতে হবে। বাংলাদেশের সঙ্গে এ ব্যাপারে যে তারা গোপন চুক্তি করেছে এর প্রমাণ বিভিন্ন সূত্রের কথাবার্তার মধ্যে উঁকিঝুঁকি মারছে। এ নিয়ে কোন ঘোষণা বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি দেয়নি, উপরন্তু একথা দুই পক্ষই আনুষ্ঠানিকভাবে অস্বীকার করে আসছে। কিন্তু তা হলেও চুক্তি কার্যকর করতে শুরু করার আগে এ দেশের জনগণের চিন্তায় বিষয়টি ঢুকিয়ে দেয়ার ক্ষেত্রেও তারা বসে নেই। বাংলাদেশ আগেই ১৯৯৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘সোফা’ সামরিক চুক্তি করেছে। এছাড়া আরও কয়েকটি সামরিক চুক্তি দু’দেশের মধ্যে হয়েছে, যার মাধ্যমে মার্কিন সামরিক বাহিনীকে এমন সব সুবিধা দেয়ার ব্যবস্থা হয়েছে যার ফলে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব তাদের প্রয়োজনে লঙ্ঘন করার অসুবিধা তাদের নেই। ...
বাংলাদেশের জনগণই এ দেশের মাটি থেকে পাকিস্তান রাষ্ট্র উচ্ছেদ করেছিল
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/০৩/২০১২
বিষয়টি এভাবে দেখতে সক্ষম হলে এটা বোঝার কোনো অসুবিধা হবে না যে, পরবর্তীকালে স্বাধীনতা ঘোষণা কে করেছিল এই নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে যে কথা কাটাকাটি, ঝগড়া-বিবাদ, দাবি ও পাল্টা দাবি হতে থাকে তা এক অবাস্তব ও হাস্যকর ব্যাপার ছাড়া আর কী? স্বাধীনতা ঘোষণা নিয়ে যে মিথ্যাচার বাংলাদেশে হয়েছে এবং হচ্ছে, তার কোনো ঐতিহাসিক গুরুত্ব নেই। আসলে কোনো নেতার স্বাধীনতা ঘোষণার অপেক্ষা না করে এ দেশের জনগণ নিজেরাই পাকিস্তান সরকার ও তার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে স্বাধীনতার যুদ্ধ শুরু করেছিল। ...
বাংলাদেশে এখন উন্মাদের শাসন চলছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৬/০৩/২০১০
খুব ছোট মাপের লোক ঘটনাচক্রে ক্ষমতার গদিতে বসলে যা হওয়ার কথা সেটাই এখন বাংলাদেশে ঘটছে। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার পর নির্বাচনে পরাজিত বিরোধী দলকে ?পরাজিত শত্রু? আখ্যা দিয়ে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর গদিতে সমাসীন হয়েছেন। যে লোক যে কাজের উপযুক্ত নয়, তার ঘাড়ে সে কাজ পড়লে ছোট মাপের লোকের মাথা ঠিক রাখা মুশকিল। অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, এ ধরনের লোকেরা ধরাকে সরা জ্ঞান করে নিজের চারদিকে চাকর-বাকর ধরনের লোককে মন্ত্রী, উপমন্ত্রী, উপদেষ্টা ইত্যাদি পদ দিয়ে খোশমেজাজে দেশের শাসন কাজ পরিচালনা করতে নিযুক্ত হয়। ঠিক এ কারণে বর্তমান সরকারে যারা মন্ত্রিত্বের পদ লাভ করেছেন, তাদের অধিকাংশকেই আমাদের মতো লোক তো দূরের কথা, তাদের দল ও বিভিন্ন সংগঠনের লোকেরাও চেনে না। ...
জাতীয় সংসদ সমাচার
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২০/০৩/২০১২
জাতীয় সংসদ কোনো ফালতু সভাকক্ষ নয়। এটা হলো জাতির গুরুতর ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি আলোচনা এবং সেসব বিষয় সিদ্ধান্ত নেওয়া। আইন প্রণয়ন করার জায়গা। কিন্তু দেখা যায় আইনের পর আইন নিজেদের স্বার্থ অনুযায়ী তিন মিনিটে পাস করলেও কোনো গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় বিষয় নিয়ে সংসদে আলোচনা হয় না। অবস্থা দেখে মনে হয়, এই সংসদ একটা খিস্তিখেউরের জায়গা ছাড়া অন্য কিছু নয়। বিরোধী দল অনুপস্থিত থাকলেও খিস্তিখেউর চলে এবং অল্প সময়ের জন্য হলেও বিরোধী দল উপস্থিত থাকলে এই খিস্তিখেউর জমে আরও ভালো। মূর্খ, ...
পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জির দেউলিয়া শাসনে সংকট বাড়ছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১৭/০৩/২০১২
অনেক হৈ চৈ করে পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় এলেও বছর ঘোরার আগেই তাদের স্বরূপ জনগণের কাছে দ্রুত স্পষ্ট হচ্ছে। ২০০৬ সালের বিধান সভার নির্বাচনেই মমতা ব্যানার্জি জয় লাভ করে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে অধিষ্ঠিত হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত ছিলেন। কিন্তু সেই নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হওয়ার পর বিধ্বস্ত অবস্থায় তিনদিন তিনি ঘরের কপাট বন্ধ করে রেখেছিলেন। প্রায় ৩০ বছর একটানা ক্ষমতায় থাকা সত্ত্বেও ২০০৬ সালে সিপিএম নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট এত বড় জয় লাভ করেছিল যে, এতে তারা নিজেরাই স্তম্ভিত হয়েছিলেন। স্তম্ভিত হওয়ার কারণ, তারাও নিজেদের পরাজয়ের আশংকা করেছিলেন। সেই পরিস্থিতিতে তাদের বিরাট বিজয় সবাইকেই বিস্মিত করেছিল। অন্যদিকে ২০১১ সালের নির্বাচনে বামফ্রন্টের পরাজয় ঘটবে এমন চিন্তা ব্যাপক জনগণের মধ্যে থাকলেও ভোট শেষ হওয়ার পরও সিপিএম নেতৃত্ব নিজেদের জয় সম্পর্কে একেবারে নিশ্চিতই ছিলেন। কাজেই যেভাবে তারা এই নির্বাচনে পরাজিত হয়েছিলেন, তার মাত্রা তাদের স্তম্ভিত করেছিল। ...
নদীবক্ষে ভূমিদস্যুতা এবং অপরাধের জগৎ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১২/০৩/২০১১
চুরি-দুর্নীতি সব দেশেই অল্পবিস্তর হয়ে থাকে। অপরাধ নিয়ন্ত্রণে রাখা ও অপরাধীদের শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা থাকলেও সমাজ থেকে অপরাধ সম্পূর্ণ নির্মূল করা সম্ভব হয় না। কাজেই অপরাধহীন সমাজ বলে বাস্তবত কিছু নেই। কিন্তু বাংলাদেশে যেভাবে ও যত বিচিত্র ক্ষেত্রে চুরি-দুর্নীতি হতে দেখা যায়, এমনটা খুব কম দেশেই দেখা যায়। বাঙালিরা এমনিতেই চুরি-দুর্নীতিতে কোনো সময়েই খুব পিছিয়ে থাকেনি। এ কারণে বাংলায় 'পুকুরচুরি' বলে একটা কথা আছে। যতদূর মনে হয়, পুকুর ভরাট করে জমি তৈরি ও দখলের থেকেই এ কথার জন্ম। আসলে আগে কালেভদ্রে এ ধরনের ঘটনা ঘটলেও এ ধরনের চুরিকেই চৌর্যকর্মের সর্বোচ্চ ও সবচেয়ে বড় দৃষ্টান্ত মনে করা হতো। অন্য ভাষায়, এমনকি অন্য ভারতীয় ভাষাতেও এ রকম কথার প্রচলন আছে কি-না জানা নেই। যদি না থাকে তাহলে বোঝা যাবে, ভূমিদস্যুতা বাংলায় যেভাবে হয়ে এসেছে, এমন আর কোথাও হয়নি। শব্দ ও কথার উৎপত্তি সমাজের বাস্তবজীবন ও কাজ-কারবারের মধ্যে। পুকুরচুরির কথা যদি অন্য ভাষায় না থাকে তাহলে বুঝতে হবে যে, অন্য সমাজে সেই ...
পেশাজীবীদের আন্দোলন এবং সরকারের আশ্বাস ও আশ্বস্তকরণের কৌশল
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৩/০৭/২০১২
সাংবাদিকরাও এখন আন্দোলন করছেন। তাদের মূল বিক্ষোভ হলো, একের পর এক সাংবাদিক হত্যা হতে থাকা সত্ত্বেও সেগুলোর কোনো প্রকৃত তদন্ত ও অপরাধীদের শাস্তি না হওয়ার বিরুদ্ধে। তাদের দাবি হলো, এসব হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করা এবং অপরাধীদের দ্রুত শাস্তি দেওয়া। দুই টেলিভিশন সাংবাদিক সাগর ও রুনি হত্যার ব্যাপারে সরকারের অবহেলা এবং ধোঁয়াটে কথাবার্তার কারণে তারা সরকারকেই এই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী করছেন। এ নিয়ে তারা আন্দোলন করছেন। কিন্তু আপাতদৃষ্টিতে এই আন্দোলনকে খুব শক্তিশালী মনে হলেও এর প্রকৃত শক্তির পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি ...
বাংলাদেশে ব্যবসায়ী শ্রেণীর শাসন ও শিক্ষা ব্যবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০৬/০৩/২০১২
কয়েকদিন আগে ঢাকার সংবাদপত্রে বিজ্ঞান শিক্ষা ব্যাপারে ছাত্রদের অনীহার ওপর একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। বিষয়টি মোটেই নতুন নয়, কিন্তু কোনো কোনো পুরনো কথা নতুন করে শোনার পর তার দিকে আবার ফিরে তাকানো দরকার হয়। এটি তেমনই এক বিষয়। গুরুত্বের দিক দিয়ে তো অবশ্যই। রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে যে, বিজ্ঞান শিক্ষা লাভ করে, এমনকি এমএসসি পাস করলেও বাংলাদেশে চাকরির বা অন্য কাজের কোনো সুযোগ-সুবিধা না থাকা এবং আগে যেটুকু সুযোগ ছিল সেটাও ক্রমশ সংকুচিত হতে থাকার ফলে এখন খুব অল্পসংখ্যক ছাত্রই বিজ্ঞান বিষয়ে লেখাপড়ায় উৎসাহী। দ্বিতীয়ত, উপযুক্ত শিক্ষকের অভাবে ছাত্ররা কোনো স্তরেই উপযুক্তভাবে বিজ্ঞান শিক্ষা লাভ করে না। এ কারণে তাদের বিজ্ঞান শিক্ষা ভালোমতো হয় না, তাদের মধ্যে কোনো বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিভঙ্গিও গড়ে ওঠে না। ...
বাংলা ভাষার বর্তমান অবস্থা ও ব্যবহার দেখে কিছু বুদ্ধিজীবী শিক্ষক ও লেখকের উদ্বেগ প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৩/০২/২০১২
ভাষা আন্দোলনের ৬০ বছর পর স্বাধীন বাংলাদেশে বাংলা ভাষা চর্চার দুরবস্থা নিয়ে এখন শাসক শ্রেণীর বুদ্ধিজীবী ও লেখকদের অনেক কথাবার্তা শোনা যাচ্ছে। বৈদ্যুতিক মাধ্যমে আলোচনা থেকে নিয়ে পত্রপত্রিকায় এ বিষয়ে যেসব কথাবার্তা ও লেখালেখি হচ্ছে, তার মধ্যে একটি ‘হায় হায়’ অবস্থা এ বছর বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এটা দেখে-শুনে মনে হচ্ছে যেন এ বিষয়ে এদেশের শাসক শ্রেণীর বুদ্ধিজীবীদের কুম্ভকর্ণ নিদ্রা পুরোপুরি ভঙ্গ না হলেও একটা সংঘর্ষের চেতনা তাদের মধ্যে দানা বাঁধছে। এ দেশের ভাষা, সাহিত্য ইত্যাদির যে বিকাশ এবং উত্কর্ষ সাধন এতদিনে হওয়ার কথা ছিল সেটা তো হয়ই নি, উপরন্তু ভাষার অবস্থা এখন এমন দাঁড়িয়েছে যা সৃষ্টিশীল সাহিত্য সৃষ্টির ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধক হয়েছে। উনিশ শতকে সাহিত্যের যে স্বর্ণযুগ সৃষ্টি হয়েছিল, তার আগে হয়েছিল সেই সাহিত্যের উপযোগী ভাষা নির্মাণ। ...
নতুন সরকারের শাসনে পশ্চিমবঙ্গ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৭/০২/২০১২
তৃণমূল কংগ্রেস ও মমতা ব্যানার্জি দেশের কোনো গুরুত্বপূর্ণ সমস্যার সমাধান করতে যতই ব্যর্থ হবে ততই সংসদীয় রাজনীতির নিয়ম অনুযায়ী বিরোধী দলের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেতে থাকবে। এ ক্ষেত্রে কংগ্রেস ও বিজেপির থেকে সিপিএমের লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। পরবর্তী নির্বাচনে তাদের জয়ের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়ার নয়, যদিও দলগতভাবে তারা আর আগের জায়গায় ফিরে যেতে সক্ষম হবে এমন কোনো সম্ভাবনা আছে বলেও মনে হয় না পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেসের জোট সরকারের আট মাস হলো। আট মাস কোনো সরকারের কার্যকলাপ মূল্যায়নের ...
পাকিস্তানে গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
25/01/2012
বর্তমানে পাকিস্তানে যে রাজনৈতিক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার নতুন দিক হচ্ছে এই যে, সামরিক বাহিনী, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও নির্বাচিত সরকার ছাড়াও সেখানে সাধারণ জনগণ এখন মার্কিনবিরোধী হিসেবে একটি গণ্য শক্তি। যতই অসংগঠিত হোক, একে অবহেলা করার উপায় নেই, এর প্রভাব শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতির ওপর অল্প বিস্তর যা-ই বিস্তার করুক। এই চতুর্মুখী দ্বন্দ্বে পাকিস্তানে এখন এক টালমাটাল অবস্থা তৈরি হয়েছে, যাকে দক্ষিণ এশিয়ার বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির হিসাবের বাইরে রাখার উপায় নেই পাকিস্তানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের অভ্যন্তরীণ সংকট সৃষ্টির ক্ষেত্রে যেভাবে ...
সাম্রাজ্যবাদের ধ্বংসের মুখে সমাজতন্ত্রের পদধ্বনি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১০/০১/২০১২
পুঁজিবাদ খতম করে মানুষ তো হাওয়ায় বসবাস করতে পারে না। তাহলে পুঁজিবাদের পর কী? এর জবাব নিয়ে প্রতিক্রিয়াশীলদের তো বটেই, এমনকি প্রগতিশীল ও বিপ্লবীদের মধ্যেও যতই দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাক এ নিয়ে কোনো সংশয় নেই। পুঁজিবাদের অন্তর্নিহিত মূল দ্বন্দ্ব, ব্যক্তিগত মালিকানা ও সামাজিক উৎপাদনের দ্বন্দ্বের কোনো সমাধান পুঁজিবাদী ব্যবস্থার মধ্যে সম্ভব নয়। এই দ্বন্দ্বের নিয়ামক যে ব্যবস্থার মধ্যে হয় তার নামই সমাজতন্ত্র। সমাজতন্ত্রের কোনো দেশ নেই, জাতি নেই। সমাজতন্ত্র হলো সামাজিক ব্যবস্থা হিসেবে পুঁজিবাদেরই ঐতিহাসিক পরবর্তী সাম্রাজ্যবাদীরা বিশ্বজুড়ে তাদের প্রচারমাধ্যম ছড়িয়ে ...
বাংলাদেশে নরহত্যার বৈচিত্র্য
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২০/১২/২০১১
এই মুহূর্তে বাংলাদেশে গুপ্তহত্যা এমন দাঁড়িয়েছে যেখানে এ নিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশীয় সংস্থা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে। সাধারণভাবে জনগণের মধ্যেও নিরাপত্তাহীনতাসৃষ্ট এক ধরনের ত্রাসের প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে। অপরাধের বৈচিত্র্যের কথা আগে বলা হয়েছে। গুম-খুন এখন এই বৈচিত্র্য ক্ষেত্রে এক নতুন মাত্রা যুক্ত করেছে। এদিক দিয়ে দুনিয়ার অন্যতম নিকৃষ্ট রাষ্ট্র পাকিস্তানকেও বাংলাদেশ ছাড়িয়ে গেছে! বাংলাদেশে দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তগিরি এখন যেভাবে সমগ্র জনজীবনে অভিশাপ হিসেবে দেখা দিয়েছে এটা হঠাৎ করে ঘটেনি। বাস্তবত পাকিস্তান রাষ্ট্রের গর্ভ থেকে বের হয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন ...
চাই সত্যের উদ্ঘাটন
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০১/১২/২০১১
রোডমার্চের নামে এই গাড়ি প্রদর্শনী নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে বিএনপির রাজনৈতিক আন্তরিকতা সম্পর্কে প্রশ্ন ওঠা বিচিত্র নয়। বিষয়টি রোডমার্চ হলে নেত্রী খালেদা জিয়া এবং তার দলের গুটিকয়েক বয়স্ক ও অসুস্থ লোকের জন্য কয়েকটি গাড়ি থাকতেই পারে। কিন্তু কয়েক হাজার গাড়ি নিয়ে রাজনীতির নামে ওই মোটর প্রদর্শনী কতটা কাম্য ও রাজনীতিসুলভ_ তা প্রশ্নাতীত নয় প্রথমেই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী পদে বৃত হওয়ার জন্য ওবায়দুল কাদের, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এবং ড. হাছান মাহমুদকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে লেখাটি শুরু করছি। দেশে এখন ...
চিকিৎসা ব্যবস্থার বাণিজ্যিকীকরণ সম্পূর্ণ হতে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১১/১০/২০১১
জনগণের ভোটে নির্বাচিত এমপি, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সরকারি আমলারা, এমনকি জজ সাহেবরা সরকারি অর্থে দেশে ও বিদেশে নিজেদের চিকিৎসা করে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করছেন। এই ব্যয় জনগণের ট্যাক্সের টাকা থেকে করা হচ্ছে। কিন্তু যারা উপরোক্ত ক্ষমতাবান লোকদের চিকিৎসার জন্য এই বড় আকারে ব্যয়ভার বহন করছেন তাদের নিজেদের চিকিৎসার কোনো সুব্যবস্থা তো দূরের কথা মোটামুটি একটা ব্যবস্থাও নেই! সামান্য যে ব্যবস্থা আগে ছিল সেটাও বন্ধ করে, সব রকম সরকারি ভর্তুকি প্রত্যাহার করে চিকিৎসা ক্ষেত্রে এখন এক ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি ...
ব্রিটেনে পুলিশবিরোধী দাঙ্গা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৩/০৮/২০১১
মাত্র কয়েকদিন আগে ব্রিটেনে সপ্তাহব্যাপী এক দাঙ্গা সংঘটিত হয়েছে। ১৯৮১ সালে দক্ষিণ লন্ডনের দাঙ্গার তিরিশ বছর পর উত্তর লন্ডনে শুরু হওয়া এই দাঙ্গা আরও ভয়াবহ। ব্রিটেন বর্তমানে যে অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংকটে নিক্ষিপ্ত হয়েছে তারই প্রতিফলন এর মধ্যে দেখা গেছে। এ কারণে এই দাঙ্গা শুধু লন্ডনেই সীমাবদ্ধ থাকেনি, বামিংহাম, লিভারপুল ইত্যাদি অন্য শহরেও ছড়িয়ে পড়েছে। দাঙ্গা এমন এক সামাজিক দুর্ঘটনা যা হঠাৎ করে শুরু হলেও সেটা হঠাৎ কোনো কারণে হয় না। হঠাৎ কোনো ঘটনাকে কেন্দ্র করে দাঙ্গা শুরু হলেও এই হঠাৎ ঘটা ঘটনা কোনো দাঙ্গারই মূল কারণ নয়। দীর্ঘদিন ধরে জারি থাকা সামাজিক দ্বন্দ্ব ও জমে থাকা অসন্তোষ-ক্ষোভ-অবিচার ইত্যাদি একত্রিত হয়ে জনগণের বিভিন্ন অংশের মধ্যে যে প্রতিক্রিয়া ও প্রতিরোধের প্রয়োজন সৃষ্টি হয়, তারই এক ধরনের প্রতিফলন ঘটে দাঙ্গায়। সম্প্রতি ব্রিটেনে যে দাঙ্গার কথা ওপরে উল্লেখ করা হয়েছে এটিও এদিক থেকে কোনো ব্যতিক্রম নয়। উত্তর লন্ডনের একটি দরিদ্র এলাকায় মার্ক ডাগান নামে এক কৃষ্ণকায় যুবক পুলিশের হাতে নিহত হওয়ার ...
নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সংগ্রাম নারী-পুরুষের
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৬/০৭/২০১১
ভিকারুননিসা স্কুলে ছাত্রী নির্যাতনের বিরুদ্ধে যে প্রবল প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে তা যথার্থ। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ যেভাবে সারাদেশের স্কুল-কলেজে হয়েছে এটা এক অতি উচিত কাজ। কিন্তু এখানে এটাও বলা দরকার যে, ভিকারুননিসা ঢাকা শহরে বিত্তশালী বাঙালি পরিবারের ছাত্রীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হওয়ায় এখানে ছাত্রী নির্যাতনের বিরুদ্ধে যেভাবে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ হয়েছে সেটা মফস্বলের অন্য সাধারণ স্কুলে এই ধরনের ঘটনায় ঘটতে দেখা যায় না। শুধু শ্রেণী নয়, জাতি প্রশ্নও এ ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক ২০ জুলাই ২০১১ তারিখের 'দৈনিক সকালের খবরে' ঢাকা ...
জাতীয় সংসদের বেহাল অবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৮/০৬/২০১১
উন্নত ও পশ্চিমা দেশগুলোতে তো নয়ই, এমনকি ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, নেপাল ইত্যাদি দেশেও পার্লামেন্ট, সিনেট, বিধানসভা ইত্যাদিতে কোরাম ফেলের কোনো ব্যাপার নেই। ব্রিটিশ আমলে বাংলার ব্যবস্থা পরিষদ, পাকিস্তান আমলে পূর্ববঙ্গ বা পূর্ব পাকিস্তান আইন পরিষদেও কোরাম ফেলের ব্যাপার ছিল না। ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশে যে জাতীয় সংসদ নির্বাচিত হয়েছিল, সেখানেও অধিবেশনের সময় কোরাম ফেল হওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। অর্থাৎ স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র জাঁকিয়ে বসার আগ পর্যন্ত এখানেও কোরাম ফেল হওয়ার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি বাজেট আলোচনায় ১৪ আনা মন্ত্রীর অনুপস্থিতি ...
লুণ্ঠনজীবী সাম্রাজ্যবাদীরা নিজেদের মুখোশ নিজ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২১/০৬/২০১১
লিবিয়ার তেল লুণ্ঠনের উদ্দেশ্যে সাম্রাজ্যবাদীদের সামরিক হস্তক্ষেপ ও আক্রমণ থেকে নিয়ে আমাদের দেশের গ্যাস-সম্পদ লুণ্ঠনের দিকে তাকালে প্রত্যেক ক্ষেত্রেই সাম্রাজ্যবাদের লুণ্ঠনজীবী চরিত্রই চোখের সামনে বড় হয়ে দেখা দেয়। নিজেদের এই লুণ্ঠনজীবী চরিত্র আড়াল করার উদ্দেশ্যেই এরা লুণ্ঠনকে গণতন্ত্র ও মানবিকতার মোড়কে বিশ্বের জনগণের সামনে উপস্থিত করে। কিন্তু দিনের পর দিন অতিরিক্ত আগ্রাসী চরিত্র পরিগ্রহ করে এরা নিজেদের তৈরি এই মোড়ক নিজেরাই এমনভাবে ছিঁড়ে ফেলছে, যাতে কুৎসিত নিষ্ঠুর লুণ্ঠনজীবী চরিত্র বিষয়ে তাদের তাঁবেদার সরকার ও দেশে দেশে তাদের উচ্ছিষ্টভোগীরা ছাড়া ...
সংবিধানে ধর্ম নিয়ে কেন এত মাতামাতি
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৪/০৬/২০১১
জিয়াউর রহমান ও এরশাদের এই ধর্ম প্রচেষ্টার কী প্রভাব মুসলমান জনগণের জীবনে পড়েছিল, এর ফলে জনগণের জীবনে ধর্ম চেতনা কতখানি জাগ্রত হয়েছিল, মানুষকে তা কতখানি সৎকর্মে প্রণোদিত এবং দেশের ভাগ্য নির্ধারকদের অসৎ ও দুর্নীতিপরায়ণ জীবনযাপন থেকে কতদূর বিরত রেখেছিল, আমরা তা জানি আওয়াজ দিয়ে যারা কোনো কিছুর মর্যাদা রক্ষার বা কোনো কিছুর প্রতিকারের জন্য আন্দোলনে নামে তারা নিজেরাই অনেক সময়ে নিজেদের কাজের মাধ্যমে তার মর্যাদাহানি করে অথবা প্রতিকারের পথ বন্ধ করে। ইসলামের মর্যাদা রক্ষার নামে বাংলাদেশের এক ধরনের ইসলামপন্থি ...
সমকালের সপ্তম বর্ষ ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
৩১/০৫/২০১১
সমকালের ৬ বছর পূর্ণ হলো। ২০০৫ সালে যাত্রা শুরু করে এই পত্রিকা এখন বাংলাদেশের একটি প্রথম শ্রেণীর পত্রিকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। দৈনিক পত্রিকা প্রতিষ্ঠার জন্য এখন কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে হয়। কিন্তু শুধু পুঁজি বিনিয়োগ করলেই একটা পত্রিকা দাঁড়ায় না। যে কোনো পত্রিকার প্রতিষ্ঠা অর্জনের ক্ষেত্রে যারা পত্রিকা পরিচালন করেন ও তাতে নিয়মিত শ্রমদান করেন তাদের ভূমিকাই মুখ্য। সমকালও এদিক দিয়ে ব্যতিক্রম নয়। একটি পত্রিকা কোন মূল নীতির ওপর দাঁড়িয়ে পরিচালিত হবে তার নির্ধারক পত্রিকায় কর্মরত ব্যক্তিরা নন। বলাবাহুল্য, এটা নির্ধারিত হয় যিনি পুঁজি বিনিয়োগ করেন তার ধ্যান-ধারণা, নীতি ও প্রয়োজনের দ্বারা। এদিক দিয়ে বিচার করলে পত্রিকার সম্পাদক থেকে নিয়ে সবাইকে একটা নির্দিষ্ট নীতির কাঠামোর মধ্যে কাজ করতে হয়। সংবাদপত্রের স্বাধীনতার কথা বলা হয়। এর প্রয়োজন ও গুরুত্ব বুঝিয়ে বলার প্রয়োজন হয় না। কিন্তু তা হলেও এই স্বাধীনতা বলতে ঠিক কী বোঝায় ও কার স্বাধীনতা বোঝায় এ নিয়ে স্পষ্ট ধারণা খুব কম লোকেরই আছে। সাধারণত সংবাদপত্রের স্বাধীনতার কথা ...
রাঙামাটিতে ইউপিডিএফের ওপর সন্ত্রাসীদের সশস্ত
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৪/০৫/২০১১
সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) সন্ত্রাসীরা ২১ মে ২০১১ তারিখ সকালে রাঙামাটির বরকল উপজেলার নারাইছড়ি গ্রামে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) চার কর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে। ওই গ্রামের বাসিন্দা রিপন চাকমা বলেন, ইউপিডিএফের ছয় কর্মী কয়েকদিন আগে এসে অরুণ চাকমার বাসায় ছিলেন তাদের এক বৈঠক উপলক্ষে। ২০ মে শুক্রবার মধ্যরাতে পিসিজেএসএসের কিছুসংখ্যক সশস্ত্র কর্মী অরুণ চাকমার বাড়ি ঘেরাও করে এবং সকালে যখন ইউপিডিএফের কর্মীরা নাস্তা করছিলেন তখন তাদের ওপর গুলি চালায়। (উধরষু ঝঃধৎ ২২.৫.২০১১) গুলিতে যারা নিহত হন তারা হলেন ইউপিডিএফের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অনিমেষ চাকমা, পূর্ণভূষণ চাকমা (নবদ্বীপ), পুলক জীবন চাকমা (বিবেক) ও শুক্র সেন (প্রবীণ)। ইউপিডিএফ এই হত্যাকাণ্ডের জন্য পিসিজেএসএসকে দায়ী করলেও পিসিজেএসএসের এক মুখপাত্র হত্যার ব্যাপারে তাদের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে বলেছেন, খুন ও সহিংসতার সঙ্গে তাদের লোকদের কোনো সম্পর্ক নেই! এ কাজ ইউপিডিএফের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের ফল! সরকার ও সামরিক বাহিনীর সঙ্গে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক সম্পর্কে আবদ্ধ পিসিজেএসএসের ...
র‌্যাব ও পুলিশের অপ্রতিহত 'ক্রসফায়ার'
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১০/০৫/২০১১
একটি নিরীহ ছেলেকে গুলি করে আহত ও চিরদিনের জন্য পঙ্গু করে দিলেও এ নিয়ে তাদের কোনো 'ভুল' স্বীকার নেই। উল্টো তাদের প্রমাণবিহীন বক্তব্য হলো, লিমন একজন সন্ত্রাসী এবং তার আক্রমণ থেকে নিজেদের রক্ষার জন্যই তারা তাকে গুলি করেছিল। একটি নিরস্ত্র ছেলে কীভাবে সন্ত্রাসী হিসেবে তাদের আক্রমণ করতে উদ্যত হয়েছিল, এর মাথামুণ্ডু বোঝা কোনো স্বাভাবিক লোকের পক্ষে সম্ভব নয় ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামে বিগত ১৩ মার্চ লিমন নামে ১৬ বছরের একটি গরিব ছেলে র‌্যাবের গুলিতে আহত হওয়ার পর হাসপাতালে তার একটি পা কেটে বাদ দিতে হয়। ছেলেটি কলেজে প্রথম বর্ষের ছাত্র হলেও তাকে সংসারের কাজকর্ম করতে হতো। ঘটনার সময় মাঠ থেকে নিজেদের গরু ফিরিয়ে আনার জন্য সে ঘর থেকে বের হয়েছিল। বাংলাদেশে এখন র‌্যাব ও পুলিশ যে পাখি মারার মতো করে মানুষ মারছে, এর দৃষ্টান্তের অভাব নেই। খুব নিয়মিতভাবে ও ঘন ঘন তারা নিরপরাধ ও নিরীহ মানুষ খুন করে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী হিসেবে এরই মধ্যে পরিচিত হয়েছে। ...
নারায়ণগঞ্জে শ্রমিক হত্যা ও প্রসঙ্গ কথা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৫/০১/২০১১
এই শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ সম্পর্কে মালিকপক্ষ গতানুগতিকভাবে শ্রমিকদের দায়ী করে নিজেদের বক্তব্য প্রদান করেছে। পুলিশের বক্তব্য ও মালিকদের বক্তব্যের মধ্যে যে ঐক্য থাকে সেটা এ ক্ষেত্রেও আছে। এক কথায় বলতে গেলে, শ্রমিক নির্যাতন ও শ্রমিকদের বিরুদ্ধে গতানুগতিক বক্তব্য দেওয়ার বরাবরের ঐতিহ্য এখনও সমানে বহাল আছে। গতকাল ২৩ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে অবস্থিত এসিআই ফার্মাসিউটিক্যাল ফ্যাক্টরিতে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে একজন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। বুলেটবিদ্ধ হওয়ার পর এনামুল হক নামে ২৫ বছর বয়স্ক এই শ্রমিককে নারায়ণগঞ্জের হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে তার মৃত্যু ...
বাংলাদেশে ব্যবসায়ীরা দেশ শাসন করছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১১/০১/২০১১
সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) নামে একটি সংগঠন এক সংবাদ সম্মেলনে আগামী মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনের প্রার্থীদের ওপর একটি সমীক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। ২১২ মিউনিসিপ্যালিটিতে ১ হাজার ৭৮ জন প্রার্থী নির্বাচন কমিশনের কাছে নিজেদের যে ব্যক্তিগত তথ্য প্রদান করেছেন তার থেকে দেখা যায়, এই প্রার্থীদের মধ্যে শতকরা ১৯ জন ট্যাক্স প্রদান করেন এবং তাদের মধ্যে শতকরা ৭০ জন হলেন ব্যবসায়ী। এছাড়া তাদের মধ্যে ৮৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা আছে। (উধরষু ঝঃধৎ ১০.১.২০১১) সুজন সভাপতি অধ্যাপক মুজাফফর আহ্মদ এ প্রসঙ্গে বলেন, 'আমাদের বিশ্লেষণ থেকে দেখা গেছে যে, কিছুসংখ্যক প্রার্থী কোটিপতি এবং তারা নির্বাচনী প্রচারণার ক্ষেত্রে প্রাধান্য বিস্তার করে আছেন। বহুসংখ্যক ব্যবসায়ী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, যার অর্থ ব্যবসায়ীরা ভালো ও যোগ্য রাজনীতিবিদদের স্থান দখল করছেন।' (ঐ)। এই প্রথমবারের মতো মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনে প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, ধন-সম্পদ ও পুলিশ রেকর্ডসহ আটটি বিষয়ে নিজেদের সম্পর্কে তথ্য সরবরাহ করতে হয়েছে। 'সুজন'-এর রিপোর্টে বলা হয়েছে, নির্বাচন প্রার্থীদের মধ্যে ব্যবসায়ীদের সংখ্যা বিপুল হওয়ার কারণে নির্বাচন অর্থের দ্বারা প্রভাবিত হওয়ার সম্ভাবনা ...
রাজনীতি
সমাজব্যবস্থা পরিবর্তনের সংগ্রামের সমস্যা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৩০/১১/২০১০
বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর রাজনীতি দেশ ও জনগণকে আজ যে জায়গায় এনে দাঁড় করিয়েছে তাতে এই শ্রেণীর উচ্ছেদ এখন জরুরি হয়েছে। জরুরি এই অর্থে যে, এদের শোষণ-নির্যাতন-উপদ্রবে জনজীবন এখন চরমভাবে বিপর্যস্ত এবং এ অবস্থা পরিবর্তন বিদ্যমান শাসকশ্রেণীর উচ্ছেদ ছাড়া কোনোক্রমেই সম্ভব নয়। অর্থাৎ জনগণের জীবনে অর্থপূর্ণ ও বাস্তব পরিবর্তনের শর্তই এখন হলো, এই শাসকশ্রেণীর উচ্ছেদ। এই শ্রেণীর রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জামায়াতে ইসলামী ও এদের লেজুড় বিভিন্ন বাম ও দক্ষিণপন্থি সংগঠনগুলো আজ এই অর্থে অকেজো হয়ে গেছে যে, এদের থেকে জনগণের কোনো ধরনের কিছু প্রাপ্তির সম্ভাবনা নেই। পাকিস্তানি আমলের ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে এদেশে সামরিক ও বেসামরিক শাসন পরিস্থিতি অনুযায়ী কায়েম হয়। আপাতদৃষ্টিতে এ দুই ধরনের শাসন কায়দার মধ্যে কিছু পার্থক্য থাকলেও প্রকৃতপক্ষে যে এদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই, এটা ১৯৭২ সাল থেকে বর্তমান মুহূর্ত পর্যন্ত দেখা যায়। এক্ষেত্রে পার্থক্য না থাকার মূল কারণ সামরিক অথবা বেসামরিক যে শাসনই হোক, তাদের শ্রেণীচরিত্র অভিন্ন। ...
রাজনীতি
বাংলাদেশের দুই জমিদার
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৯/১১/২০১০
বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর পক্ষে তাদের দুই প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দেশের জনগণকে জিম্মি করে রেখেছে। ১৯৯০ সালের পর থেকে এমন পরিস্থিতি তৈরি করে রাখা হয়েছে যাতে তারা এ দুই দলের একটিকে ভোট দিয়ে সরকারি ক্ষমতায় বসাতে বাধ্য হয়। বাধ্যকরণের এই কাজ লাঠিসোটা মেরে অর্থাৎ সরাসরি জোরজবরদস্তি করে হয় না। এটা হয় কতকগুলো শর্তের অধীনে। বাংলাদেশে ১৯৭২ সাল থেকেই লুণ্ঠনজীবী লুম্পেন চরিত্র সম্পন্ন নতুন শাসকশ্রেণী যে নৈরাজ্যিক পরিস্থিতি অর্থনীতি, রাজনীতি ও নৈতিক ক্ষেত্রে সৃষ্টি করে রেখেছে তার মধ্যেই এই শর্ত তৈরি হয়েছে। ব্যাপক শোষণ-নির্যাতনের ওপর দাঁড়িয়ে থাকা শাসকশ্রেণীর বিরুদ্ধে জনগণের সংগ্রাম কঠিন হলেও সে সংগ্রাম জারি থাকে ও বিকশিত হয়। তাদের ফ্যাসিস্ট দমনপীড়ন জনগণের সংগঠিত শক্তিকে দুর্বল ও নিশ্চিহ্ন করতে ব্যর্থ হয়। কিন্তু এ ধরনের শাসকশ্রেণীর বিরুদ্ধে সংগ্রাম এভাবে সম্ভব হলেও লুণ্ঠনজীবী লুম্পেন শাসকশ্রেণীর সৃষ্ট নৈরাজ্যিক পরিস্থিতিতে এটা অনেক বেশি কঠিন হয়। শুধু তাই নয়, এটা সম্ভব হতেও সময় লাগে না। ...
সুশাসন
বাংলাদেশে ভূমিদস্যুতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৬/১০/২০১০
বাংলাদেশে ভূমিদস্যুতা এখন একটা নিয়মিত ব্যাপারে পরিণত হয়েছে। যারা এ দেশে হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছে, তাদের বিপুল অধিকাংশই ভূমিদস্যু। শুধু জমি নয়, লেকসহ বিভিন্ন ধরনের জলাভূমি, নদী সবকিছুই এদের দস্যুবৃত্তির লক্ষ্য। জমি দখলের ব্যাপার নতুন নয়। ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলেও ভূমিদস্যুতা ছিল, জমি দখল হতো। কিন্তু তখন এই দস্যুদের সংখ্যা কম ছিল এবং তাদের দ্বারা দখলকৃত জমির পরিমাণও কম হতো। লেক, নদী ইত্যাদি দখলের কোনো ব্যাপার ছিল না। তখনকার দিনে ভূমিদস্যুরাও এ চিন্তা করত না। কিন্তু সে সময় যা দস্যুদেরও চিন্তার বাইরে ছিল, এখন তা-ই ঘটছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের তো কথাই নেই, এমনকি রাজধানী ঢাকা শহরের ভেতর লেক ও এর চারপাশের নদী পর্যন্ত দখল হচ্ছে। সরকারের নাকের ডগাতেই এই দস্যুবৃত্তি চলছে। মাঝে মধ্যে সরকারি কর্তৃপক্ষ এই দখলকৃত নদীর জায়গা থেকে দস্যুদের উচ্ছেদ করার মহড়া দিলেও অল্পদিন পর জায়গা আবার বেদখল হচ্ছে। দস্যুরা তাদের দখলকৃত জায়গায় নতুন করে জাঁকিয়ে বসছে। ...
বিএনপির সংসদ অধিবেশন বর্জন ও প্রাসঙ্গিক কথা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/০৯/২০১০
সংসদ বর্জন করলেও বিরোধী দলে যারাই থাকুন তারা সংসদ সদস্য হিসেবে নিজেদের পাওনা কড়ায়-গণ্ডায় বুঝে নিতে কোনো গাফিলতি করেন না। সরকারের আচরণের কথা বলে তারা সংসদ বর্জন করে জনগণের দ্বারা তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন না করলেও তারা সংসদ সদস্য হিসেবে নিজেদের মাসিক পাওনা টাকা-পয়সা, বাসা, টেলিফোন, গাড়ি, এমনকি ট্যাক্স ফ্রি গাড়ি আমদানির সুযোগ পর্যন্ত ছাড়েন না বাংলাদেশের শাসক শ্রেণীর যে দুই প্রধান দল কখনও এককভাবে ও কখনও অন্যদের সঙ্গে জোট বেঁধে সরকার গঠন করে, তারা উভয়েই নির্বাচনে পরাজিত ...
শহীদ মিনারে সভা-সমাবেশ অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ করা প্র
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৭/০৯/২০১০
ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সভা-সমিতি করা যেতে পারলেও মূল শহীদ মিনারে এখন থেকে সভা-সমিতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবিকই বিস্ময়কর। কারণ, শহীদ মিনার নির্মাণের পর থেকে সেখানে সভা-সমাবেশ করা হয়ে আসছে। দল-মত নির্বিশেষে, মনে হয় জামায়াতে ইসলামী বা ওই ধরনের সংগঠন ছাড়া, সবাই আজ পর্যন্ত শহীদ মিনারে সভা-সমিতি করে এসেছেন। কখনও প্রতিবাদ, কখনও কোনো কর্মসূচির উদ্বোধন, কখনও নাটক-গান ইত্যাদি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপলক্ষে শহীদ মিনারে সমবেত হওয়া এ দেশের এক গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে। কাজেই হঠাৎ করে শহীদ মিনারে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা বিস্ময়কর তো বটেই। এই নিষেধাজ্ঞার কারণ বা অজুহাত সম্পর্কে বলা হয়েছে, সেখানে কোনো বাধানিষেধ না থাকায় এমন সব সভা-সমিতি অনুষ্ঠান হচ্ছে, যাতে স্থানটির পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে, ভাবগাম্ভীর্য বলে আর কিছু থাকছে না। ২১ ফেব্রুয়ারির অনুষ্ঠানই সেখানে হওয়া উচিত। ...
গার্মেন্ট শিল্প পরিস্থিতি ও ষড়যন্ত্র তত্ত্ব
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৩/০৮/২০১০
গার্মেন্ট শিল্প শ্রমিক অঞ্চলে যে অশান্ত পরিস্থিতি মজুরিকে কেন্দ্র করে জারি আছে, তাকে ষড়যন্ত্রের ব্যাপার বলে আখ্যায়িত করতে মালিকপক্ষ ও তাদের সরকারের কোনো ক্লান্তি নেই। বাংলাদেশের গার্মেন্ট শিল্প ধ্বংস থেকে নিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া পণ্ড করা পর্যন্ত এই ষড়যন্ত্রের কারণ হিসেবে বলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর মতো দায়িত্বশীল একজন ব্যক্তিও এটা বলতে কোনো অসুবিধা বোধ করছেন না। এদিক দিয়ে মালিকপক্ষ ও সরকারের বক্তব্য এবং সুরের মধ্যে পার্থক্য নেই। এর ওপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবার বলছেন, গার্মেন্ট শিল্পে যা হচ্ছে এটা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র! মালিকপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে সরকার গার্মেন্ট শ্রমিকদের মূল মজুরি, বাসস্থান ও চিকিৎসা ভাতাসহ মোট মাসিক মজুরি ধার্য করেছে ৩ হাজার টাকা। বলা হয়েছে, ট্রেড ইউনিয়ন নেতাদের সঙ্গেও আলোচনা করে এই মজুরি সর্বসম্মতিক্রমে ধার্য করা হয়েছে। কিন্তু এই ট্রেড ইউনিয়ন নেতারা কারা? গার্মেন্ট শ্রমিকদের যে প্রধান কয়েকটি ট্রেড ইউনিয়ন আছে, তার একটিরও প্রতিনিধি তো এই তথাকথিত আলোচনার সময় উপস্থিত থাকেননি। উপরন্তু তাদের নেতা-নেত্রীদের গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ এখন তৎপর রয়েছে। ...
সাংসদদের শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানি ও দুর্নীতির প্
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৬/০৭/২০১০
সংবাদপত্রে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, 'মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানির দাবি নাকচ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উল্টো যেসব মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানির সুবিধা চান, তাদের মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়ে এ সুযোগ নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। গতকাল রোববার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা শুল্কমুক্ত গাড়ি ব্যবহারের সুযোগ দাবি করলে শেখ হাসিনা তার এ মনোভাবের কথা জানান। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ কথা জানা গেছে।' বিষয়টি অনেকের কাছেই অগুরুত্বপূর্ণ মনে হলেও বাংলাদেশের অবস্থা বোঝার জন্য এর গুরুত্ব যথেষ্ট। মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের শুল্কমুক্ত গাড়ি কেনার দাবি যে প্রধানমন্ত্রী নাকচ করে দিয়েছেন এটা প্রধানমন্ত্রীর দফতর (সংশ্লিষ্ট সূত্র) থেকেই সংবাদ মাধ্যমে ছাড়া হয়েছে। এর দ্বারা বোঝাতে চেষ্টা করা হয়েছে যে, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের শুল্কমুক্ত গাড়ি কেনার দাবি এক ধরনের দুর্নীতি এবং প্রধানমন্ত্রী এই দুর্নীতির বিরোধী হওয়ার জন্যই তিনি তাদের এই দাবি নাকচ করেছেন। ...
সভা-সমিতির ওপর নিষেধাজ্ঞা ও হামলা বন্ধ করা দরকার
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৩/০৪/২০১০
বাংলাদেশে বাকস্বাধীনতা, লেখালেখির স্বাধীনতা, সভা-সমাবেশের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে এখন যেভাবে নানা কায়দায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে সেটা এই অঞ্চলে স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আগে দেখা যেত না। অন্তত এই মাত্রায় একেবারেই দেখা যেত না। কিন্তু স্বাধীনতার এমনই সুফল জনগণের ভাগ্যে জুটেছে, যাতে এক্ষেত্রে তাদের স্বাধীনতা ভালোভাবেই খর্ব হওয়ার শর্ত চারদিকে সৃষ্টি হয়েছে। এটা যে শুধু এখনই হচ্ছে তা-ই নয়, এর মাত্রা ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকলেও এ অবস্থা প্রথম থেকেই দেখা গেছে। বাকশাল প্রতিষ্ঠার পর সংবিধানের চতুর্থ সংশোধনীর মাধ্যমে যেভাবে জনগণের নিম্নতম গণতান্ত্রিক অধিকার পর্যন্ত সম্পূর্ণভাবে হরণ করা হয়েছিল, পরবর্তী সময়ে ঠিক সে রকম না হলেও জনগণের স্বাধীনতার ওপর আক্রমণ একটানাভাবেই অব্যাহত আছে। ২০০৭-০৮ সালে সামরিক বাহিনী নিয়ন্ত্রিত ফখরুদ্দীন সরকার দেশে যেভাবে প্রায় দু'বছর জরুরি অবস্থা জারি রেখেছিল, এটা পুলিশ রাষ্ট্রেই সম্ভব। সেই পুলিশ রাষ্ট্র এখন আর আনুষ্ঠানিকভাবে নেই, কিন্তু তার পরম্পরা ঠিকই আছে। কাজেই জনগণের গণতান্ত্রিক স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ চলছে। ...
দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষমতাসীনদ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৬/০৪/২০১০
রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, এমপি, বিচারপতিদের বেতন বৃদ্ধির বিল ৪ এপ্রিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্য বৃদ্ধির এই আকালে বেতন বৃদ্ধি স্বাভাবিক। তবে এ ক্ষেত্রে কোনটা স্বাভাবিক আর কোনটা অস্বাভাবিক, এটা নির্ধারণের মাপকাঠি সবার জন্য অভিন্ন নয়। এটা নির্ভর করে কে কোন শ্রেণীর লোক, কার হাতে ক্ষমতা আছে, আর কার হাতে ক্ষমতা নেই তার ওপর। এদিক দিয়ে বিচার করলে যারা ক্ষমতার অধিকারী তাদের বেতন বৃদ্ধি খুব স্বাভাবিক। যাদের হাতে ক্ষমতা আছে তারা ক্ষমতার জোরে নিজেদের বেতন বৃদ্ধি করেছে। সংবাদপত্র রিপোর্ট থেকে দেখা যাচ্ছে, দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে এই বেতন বৃদ্ধির বিরোধিতা করে সংসদে বিতর্ক ও ওয়াকআউট করেছে বিরোধী দল। তাদের এ আচরণ এক ঢিলে দুই পাখি মারার মতো। কারণ তারা জানেন, তাদের আপত্তি সত্ত্বেও এই বিল পাস হবে এবং তারাও সরকারি দলের লোকদের মতো সুযোগ-সুবিধা পাবেন, তারাও লাভবান হবেন অর্থনৈতিক দিক দিয়ে। অন্যদিকে দেশের অবস্থা, সাধারণ লোকের অবস্থার কথা বলে এ বিলের বিরোধিতা করে নিজেরা যে জনগণের প্রতিনিধি, এটা ...
দেশজুড়ে ফ্যাসিস্ট জামায়াতের সহিংসতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৫ মার্চ, ২০১৩
প্রতিক্রিয়াশীল ও ফ্যাসিস্ট রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে জামায়াতে ইসলামী এখন আবার নতুন করে সক্রিয় হয়েছে। এভাবে সক্রিয় হয়ে তারা যে শুধু দেশের রাজনৈতিক আবহাওয়াকে বিষাক্ত করছে তাই নয়, দেশজুড়ে সহিংসতা ও নৃশংসতার ব্যাপক বিস্তার ঘটাচ্ছে। এটা ঠিক যে, বাংলাদেশে ধর্মবিযুক্ততার (ঝবপঁষধৎরংস) দাবিদার রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ, বাকশাল ইত্যাদি তাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সহিংসতা ও নৃশংসতার যথেষ্ট ব্যবহার করে এসেছে এবং এখনও করছে। ধর্মের রাজনৈতিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে 'ধরি মাছ না ছুঁই পানি'র অবস্থানে দাঁড়িয়ে বিএনপিও তাই করেছে। কিন্তু ধর্মের ধুয়া তুলে জামায়াতে ...
বাংলাদেশে ইতিহাস চর্চার দুর্দিন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৩ জানুয়ারি ২০১৩
শ্রেণীবিভক্ত সমাজে যারা শোষক তারা ইতিহাসের সত্য গোপন করে সত্য ঘটনাকে মিথ্যা কাহিনী দিয়ে আড়াল করে এবং এ মিথ্যা কাহিনীকে প্রতিষ্ঠার জন্য বলপ্রয়োগ পর্যন্ত করে। নিজেদের শ্রেণীস্বার্থ রক্ষার জন্য যখনই প্রয়োজন হয় তখনই তারা এ কাজ করে থাকে। যারা অন্য দেশ দখল করে অন্য সমাজের ওপর নিজেদের শাসন-শোষণ কায়েম রাখে তারা দখলকৃত দেশের ইতিহাস বিকৃত করে। আমরা ইতিহাসের এই বিকৃতকরণ যেমন দেখেছি, ব্রিটিশ আমলের ইতিহাস চর্চায় তেমনি দেখেছি ও দেখছি সাম্প্রতিক সময়ের ইতিহাস চর্চায়। বিখ্যাত জন স্টুয়ার্ট মিলের পিতা ...
ধর্ষণসহ অন্য অপরাধের বিরুদ্ধে সংগ্রাম মূলত হতে হবে রাজনৈতিক সংগ্রাম
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৫ জানুয়ারি ২০১৩
বিভিন্ন শারীরিক ও মানসিক রোগের যেমন একটা সামাজিক ভিত্তি থাকে, অপরাধের ক্ষেত্রেও তেমনি। ইউরোপ-আমেরিকার মতো উন্নত দেশে যেসব রোগ সাধারণভাবে দেখা যায় তার সঙ্গে এশিয়া-আফ্রিকায় যেসব রোগ বেশি দেখা যায় তার পার্থক্য আছে। সামাজিক, অর্থনৈতিক অবস্থার ওপরই এটা নির্ভর করে। এ কারণে আমাদের দেশেও শহর ও গ্রামাঞ্চলে যেসব রোগের দেখা সাধারণভাবে পাওয়া যায় তার মধ্যেও পার্থক্য থাকে। অপরাধের যে সামাজিক ভিত্তি আছে, এর সঙ্গে যে দেশের আর্থসামাজিক বন্ধনের সম্পর্ক আছে, এটা সহজেই বোঝা যাবে যদি আমরা আমাদের দেশে ব্রিটিশ, ...
ধাপ্পাবাজির নদী রক্ষা কমিশন
কলাম
আমার দেশ
১০ জানুয়ারী ২০১৩
জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন অ্যাক্ট, ২০১৩ গঠনের জন্য একটি খসড়া প্রস্তাব মন্ত্রিসভার ৭ জানুয়ারির এক বৈঠকে চূড়ান্ত করা হয়েছে। ঢাকার পার্শ্ববর্তী চার নদীসহ দেশের শত শত নদী ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা ও দখলমুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা যারা বোধ করেন তাদের মনে এই ধরনের একটি সরকারি কমিশন গঠনের কথা শোনার পর যে আশার সঞ্চার হয়েছিল সরকারি প্রস্তাবটির বিবরণ প্রকাশিত হওয়ার পর সে আশা ভঙ্গ হয়েছে। যা আশা করা বোকামি সেটা আশা করলে এই ধরনের আশা ভঙ্গ হওয়া স্বাভাবিক। নদী রক্ষা চেষ্টার ...
হরতাল প্রসঙ্গে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
৮ জানুয়ারি ২০১৩
বাংলাদেশে কাণ্ডজ্ঞানহীন হরতাল প্রায়ই দেখা যায়। বিশেষত এটা দেখা যায় প্রধান বিরোধী দলের ক্ষেত্রে। এখনকার প্রধান বিরোধী দল বিএনপি ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার এ ধরনের হরতাল করেছে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় প্রধান বিরোধী দল আওয়ামী লীগও একইভাবে হরতাল ডেকে এসেছে। প্রায় সব ক্ষেত্রের মতো এ ক্ষেত্রেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি বলে কোনো কথা নেই। কথা আছে সরকারি ক্ষমতায় বসে থাকা দল এবং সরকারি ক্ষমতার বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা দল। ক্ষমতায় যে দলই থাকুক, তার আচরণ ও কথাবার্তা একই প্রকার। আবার বিরোধী ...
আওয়ামী লীগের ধর্মবিযুক্ত রাজনীতির স্বরূপ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২০ নভেম্বর ২০১২
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন দায়িত্বশীল প্রধানমন্ত্রী। এমনকি দায়িত্বশীল ব্যক্তি, এটা আওয়ামী লীগের কিছু খাস লোক এবং অন্ধ সমর্থক ছাড়া অন্য কেউ আর বিশ্বাস করে না। কোনো বিরোধী দল, গোষ্ঠী বা ব্যক্তির দ্বারা এই ধারণার সৃষ্টি হয়নি। শেখ হাসিনার নিজের জিহ্বা সঞ্চালনের দ্বারাই সকলের মনে এই ধারণার সৃষ্টি হয়েছে। তার জিহ্বার যে কোনো লাগাম নেই, নিজের গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানের যে কোনো উপলব্ধি তার নেই, এর প্রমাণ প্রায় প্রত্যেক দিনই তিনি নিজের বাক্য বিস্তারের দ্বারা দিয়ে থাকেন। এ ধরনের কোনো প্রেসিডেন্ট ...
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বিতর্ক
কলাম
আমার দেশ
১৮ অক্টোবর ২০১২
মার্কিন বিদেশ সচিব হিলারি ক্লিনটন বলেছেন, সেপ্টেম্বর মাসে বেনগাজিতে লিবিয়ায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতসহ চারজন দূতাবাস অফিসারের মৃত্যুর দায়দায়িত্ব পররাষ্ট্র সচিব হিসেবে তার, প্রেসিডেন্ট ওবামার নয়। এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন যে, বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা দূতাবাসগুলোতে কোথায় কী করা দরকার বা কোথায় কী হচ্ছে এটা দেখার দায়িত্ব কোনো প্রেসিডেন্টের নয়। এর জন্য পররাষ্ট্র সচিব আছেন। সেই হিসেবে তিনিই এর জন্য দায়ী। স্পষ্টতই আসন্ন ৪ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ওবামার পক্ষ অবলম্বন করে তাকে সমালোচনার হাত থেকে রেহাই দেয়ার জন্যই তিনি ...
কক্সবাজারের রামুতে বৌদ্ধদের ওপর হামলার কয়েকটি দিক
কলাম
বিডি টুডে
১৪ অক্টোবর ২০১২
বাংলাদেশে যেমনটি হয়। এক একটা ঘটনা ঘটে পুকুর চুরি থেকে নিয়ে সাগর চুরি, রোমহর্ষক হত্যাকাণ্ড, মাফিয়া সংগঠনের হামলা বা এ ধরনের কিছু। ঘটনার অব্যবহিত পর এ নিয়ে অনেক হইচই হয়, প্রচারমাধ্যম তোলপাড় করে, কোন বিশেষ ব্যাপার আদালত পর্যন্ত গড়ায়। কিন্তু কিছু দিন পর আর একটি ঘটনা ঘটলে তাই নিয়ে শুরু হয় একই প্রতিক্রিয়ার পুনরাবৃত্তি। পুরনো ঘটনা ধামাচাপা পড়ে। অপরাধীদের শাস্তি হয় না। তারা নতুন নতুন অপরাধ ঘটায়। এই বৃত্তপথেই বাংলাদেশের ঘটনাবলী ঘুরপাক খেতে থাকে। বাংলাদেশের অপরাধ জগতে ২৯ সেপ্টেম্বর ...
বুয়েটে সরকারবিরোধী আন্দোলনের কয়েকটি দিক
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১১/০৯/২০১২
বুয়েটে এখন যে আন্দোলন চলছে এটা বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে যে দুর্নীতি চলছে তার বিরুদ্ধে সব থেকে দীর্ঘস্থায়ী, ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী আন্দোলন। এই আন্দোলনের গণতান্ত্রিক চরিত্রও বেশ উল্লেখযোগ্য। এহেন এক আন্দোলনের সঙ্গে বাস্তবত বিএনপির কোনো সম্পর্ক না থাকা সত্ত্বেও এটা বিএনপির উস্কানিতেই শুরু হয়েছে_ একথা বলে বিএনপিকে এক বড় কৃতিত্বই দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে বলা হয়েছে যে, বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্র-শিক্ষক-কর্মচারীদের নজিরবিহীন এক আন্দোলন বিএনপির উস্কানিরই পরিণতি! বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির (বুয়েট) ছাত্ররা তাদের ...
বিশ্বব্যাংকের কাছে নতজানু সরকার
উপ সম্পাদকীয়
আমার দেশ
২৬/০৭/২০১২
প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, সাবেক যোগাযোগমন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগ সরকার ও দলীয় লোকরা অনেক উল্টোপাল্টা বাজে কথা বলার পর অবশেষে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন পদত্যাগ করেছেন। পদত্যাগের ঠিক আগে পদত্যাগী মন্ত্রী নিজেকে নিরীহ, পরিচ্ছন্ন ও সত্ প্রমাণের জন্য দেশের শাসনের শরিক বেশ কয়েকটি পত্রিকায় লাখ লাখ টাকা ব্যয় করে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন। ...
পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য চাঁদাবাজি
সাম্প্রতিক প্রসঙ্গ
সমকাল
২৪/০৭/২০১২
শুধু বিশ্বব্যাংকই নয়, এডিবি ও জাপান সরকারও এই একই দাবি করায় বৈদেশিক ঋণের ওপর নির্ভরশীল সরকার এখন ঋণদাতাদের মেজাজ নরম করার উদ্দেশ্যে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছে। অবস্থা দেখে মনে হয় শুধু এই একটি শর্তই নয়, অন্যান্য শর্তও শেষ পর্যন্ত স্বীকার করে নিয়েই সরকারকে আবার বিশ্বব্যাংক, এডিবি ইত্যাদির দ্বারস্থ হয়ে নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের স্বপ্ন জলাঞ্জলি দিতে হবে। কিন্তু এ স্বপ্ন জলাঞ্জলি এবং অপরিপকস্ফ কর্মসূচি প্রত্যাহার করলেও একে কেন্দ্র করে চাঁদাবাজির যে নতুন হিড়িক শুরু হয়েছে তা ...
চুরি, ঘুষ, দুর্নীতির পর এবার রাহাজানি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১০/০৭/২০১২
বাংলাদেশে যে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম হয়েছে সেটা একের পর এক রঙবেরঙের সরকারের আমলে বন্ধ না হয়ে ক্রমশ বিস্তার লাভ করেছে এবং এখন এমন কোনো ক্ষেত্র নেই যা এই লুটপাটের বাইরে আছে। এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে লুটপাট বলতে সাধারণ অর্থে লুটপাটই বোঝায় না, ঘুষ, দুর্নীতি, চুরি, কমিশনখোরী থেকে নিয়ে জমি ও জলা দখল, রাহাজানি সবকিছুই এখন এই লুটপাটের অন্তর্গত। এরই এক একটি রূপ। এই সর্বজনীন লুটপাটই এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশে সম্পদ অর্জনের সর্বপ্রধান উপায় দেশে এখন চুরি-ডাকাতি-রাহাজানি এত বিস্তার লাভ করেছে ...
শুধুই কি একজন মন্ত্রীর দুর্নীতির জন্য?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০৭/০৭/২০১২
বিশ্বব্যাংক শুধু সন্ন্যাসীদের দ্বারা পরিচালিত কোন আর্থিক সংস্থা নয়। তাছাড়া একে শুধু আর্থিক সংস্থা হিসেবে বিবেচনা করাও ঠিক নয়। মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ যেসব দেশের অর্থায়নে এই সংস্থাটি পরিচালিত হয় তারা রাষ্ট্রীয় ও রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবেও একে ব্যবহার করে থাকে। এ কারণে বিশ্বব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে কোন দেশ প্রকৃত উন্নতি সাধন করেছে বা উন্নতির পথে পা বাড়িয়েছে এমন দৃষ্টান্ত কোথাও নেই। কারণ নির্ভরশীল ও দুর্বল দেশগুলোর শাসক শ্রেণী বিশ্বব্যাংক থেকে ঋণ নিতে বাধ্য হওয়ার কারণে তারা এই ঋণের আগে এমন সব শর্ত জুড়ে দেয় যাতে তারা ঋণ হিসেবে যা দেয় তার থেকে অনেক বেশি আর্থিক ও রাজনৈতিক ফায়দা এর মাধ্যমে নিয়ে থাকে। এটা না হলে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, এডিবি ইত্যাদি সাম্রাজ্যবাদী অর্থলগ্নি সংস্থা নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে সক্ষম হতো না। ...
জমি, লেক, নদী দখল ও কালো টাকা সাদা করার প্রক্রিয়া
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৬/০৬/২০১২
এখানে মূল প্রশ্ন হচ্ছে, উৎপাদন খাতে কালো টাকা সাদা করে বিনিয়োগের যৌক্তিকতা যা-ই থাক, এই টাকার পরিমাণ ক্রমাগত বৃদ্ধি হতে থাকা এবং এই প্রক্রিয়া বন্ধ করা বা তার ব্যাপকতা কমিয়ে আনার কোনো ব্যবস্থাই ১৯৭২ সাল থেকে আজ পর্যন্ত কোনো সরকারই করেনি। এর কারণ প্রথম থেকেই বাংলাদেশে দুর্নীতির যে সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে সে অনুযায়ী একে দমন বা খর্ব করার কোনো পাল্টা প্রক্রিয়া এখানে গড়ে ওঠেনি। কাজেই ১৯৭২ সালে যার শুরু আজ তার ভয়াবহ রূপই দেখা যাচ্ছে গুলশান লেকসহ ঢাকার বিভিন্ন ...
আওয়ামী লীগের আকাশে কালো মেঘ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৬/০৫/২০১২
২২৯ জন সংসদ সদস্য নিয়ে আওয়ামী লীগ এখন শনির দশাপ্রাপ্ত হয়েছে। কোন দিকেই এখন তার আশা-ভরসার কূলকিনারা নেই। ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ ইত্যাদির মতো তাদের তথাকথিত মহাজোটের শরিকদের পা-চাটা কথাবার্তা যে তাদের কোন কাজেই আসছে না ও আসবে না, এটা কাউকে বুঝিয়ে বলার প্রয়োজন নেই। বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে প্রকৃতপক্ষে উৎখাত হয়ে যাওয়া এই দলগুলোর একমাত্র ভরসা এখন আওয়ামী লীগ, যার নিজেরই এখন শুরু হয়েছে অন্তর্জলি যাত্রা। যার নিদান হাঁকা শুরু হয়েছে দেশে-বিদেশে সর্বত্র, এমনকি তার প্রধান রক্ষক সাম্রাজ্যবাদী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের দ্বারা। ভারতই এখন বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের সব থেকে ঘনিষ্ঠ সাম্রাজ্যবাদী পৃষ্ঠপোষক এবং পেয়ারের রাষ্ট্র। কিন্তু যে দেশের প্রভাবশালী অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় অল্প সময়ের জন্য ঢাকা সফরে এসে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে শুধু তাকে দিল্লিতে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে যাননি, তিনি বলেছেন, অনেকের ধারণা, ভারত বাংলাদেশে একটি বিশেষ দলের প্রতি বেশি পক্ষপাতিত্ব করে। ...
দেশ টিভির বাজেট আলোচনা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৯/০৬/২০১২
দেশে আমলা, পুলিশ, রাজনীতিবিদ প্রমুখ যারা শত শত, হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক পর্যন্ত হয়েছেন এবং যাদের এই টাকার বিপুল অংশ কালো টাকা তাকে কি এই ধরনের অপ্রদর্শিত আয় বলা চলে? তাকে কি কোনোভাবে 'আয়ে'র পর্যায়ে ফেলা যায়? চুরি, ঘুষ, লুটপাট ইত্যাদি মাধ্যমে অর্জিত ধনসম্পদ কি প্রদর্শিত অথবা অপ্রদর্শিত কোনো ধরনের 'আয়' বলে গণনার যোগ্য? এটা নয় বলেই অপ্রদর্শিত আয় ঘোষণার সময় তার উৎস উল্লেখ করার কোনো ব্যবস্থা কালো টাকা সাদা করার ব্যবস্থার মধ্যে নেই। শুধু ঘোষণা করলেই হলো, ...
'ঈশ্বর' ছাড়া এদেরকে রক্ষার কেউ নেই
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১২/০৬/২০১২
সরকার এখন সভা-সমাবেশ-মিছিলের ওপর যেভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করে তা বন্ধ করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে এর মধ্যে তাদের শক্তি ও জনপ্রিয়তার কোনো পরিচয় নেই। যারা এ কাজ করে তারা স্বাভাবিকভাবে বিরোধিতার মোকাবেলা করতে পারে না এবং জনগণও এ কাজে তাদের সঙ্গে থাকে না। থাকার কারণ নেই। কারণ সরকার খোদ জনগণের কণ্ঠ রোধ করতেই আজ বদ্ধপরিকর। শাসন ব্যবস্থার মধ্যে শোষণ-নির্যাতন অল্পবিস্তর চলতে থাকলে তার প্রতিক্রিয়ায় শ্রমজীবী থেকে নিয়ে সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে যে ক্ষোভ তৈরি হয় তা বের হতে দেওয়াই রাজনৈতিক ...
মন্ত্রিসভা না ঘুষ-দুর্নীতির আখড়া?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১২/০৫/২০১২
গত ১৭ এপ্রিল বিশ্বব্যাংকের ঢাকাস্থ প্রতিনিধি অ্যালান গোল্ডস্টেইন পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক কর্তৃক অর্থায়ন বিষয়ে একটি বিবৃতি দেন। তাতে তিনি বলেন, ‘বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশ সরকারের কাছে পদ্মা সেতু প্রকল্পে গুরুতর দুর্নীতির তথ্য সেপ্টেম্বর ২০১১ থেকে প্রদান শুরু করে। বিশ্বব্যাংক নিজস্ব তদন্তে আস্থা রাখে এবং আমরা বাংলাদেশ সরকারকে জোরালো অনুরোধ করব, যেন দেশের নিজস্ব আইন অনুসারে এই গুরুতর বিষয়ে তদন্ত করে দায়ী ব্যক্তিদের জবাবদিহিতার আওতায় আনে।’ (প্রথম আলো ১০.৫.২০১২) পত্রিকাটির রিপোর্টে আরও বলা হয় যে, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগসংবলিত একটি প্রতিবেদন দিয়েছিল। এরপর বিশ্বব্যাংক সূত্র থেকে জানা যায়, ওয়াশিংটনে অবস্থিত বিশ্বব্যাংকের দুর্নীতি প্রতিরোধ সংক্রান্ত সংস্থা ইন্টেগ্রিটির ভাইস প্রেসিডেন্টের দফতর থেকে গত এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে অর্থমন্ত্রীর বাসায় গিয়ে তার কাছে আরও একটি প্রতিবেদন দেয়া হয়। বাংলাদেশের অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, অর্থমন্ত্রীর কাছে দেয়া প্রতিবেদনে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত বলে দু’জনের নাম উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। ...
মুরবি্বদের বাংলাদেশ সফর
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৮/০৫/২০১২
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি বিরোধী নেত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তিনি হিলারির সঙ্গে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কথা বলেন। আওয়ামী লীগ এ দেশে গুম, হত্যাসহ যেসব অনাচার করছে সে বিষয়ে তার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। একজন বিদেশি মন্ত্রীর সঙ্গে দেশের এসব সমস্যা নিয়ে কথা বলার অর্থ এ ক্ষেত্রে তাদের হস্তক্ষেপ কামনা। এটা যে কোনো মতেই সঠিক ও সমর্থনযোগ্য কাজ নয়_ এটা বলাই বাহুল্য। আমরা আমাদের দেশে সাম্রাজ্যবাদীদের হস্তক্ষেপের কথা সবসময়ই বলে থাকি। কিন্তু আমরা যদি নিজেরাই গায়ে পড়ে দেশীয় ব্যাপারে তাদের ...
মুরব্বিদের বাংলাদেশ সফর
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০৭/০৫/২০১২
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি বিরোধী নেত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তিনি হিলারির সঙ্গে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কথা বলেন। আওয়ামী লীগ এ দেশে গুম, হত্যাসহ যেসব অনাচার করছে সে বিষয়ে তার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। একজন বিদেশি মন্ত্রীর সঙ্গে দেশের এসব সমস্যা নিয়ে কথা বলার অর্থ এ ক্ষেত্রে তাদের হস্তক্ষেপ কামনা। এটা যে কোনো মতেই সঠিক ও সমর্থনযোগ্য কাজ নয়_ এটা বলাই বাহুল্য। আমরা আমাদের দেশে সাম্রাজ্যবাদীদের হস্তক্ষেপের কথা সবসময়ই বলে থাকি। কিন্তু আমরা যদি নিজেরাই গায়ে পড়ে দেশীয় ব্যাপারে তাদের হস্তক্ষেপ চাই তাহলে সেটা যে দূষণীয় ব্যাপার এতে আর সন্দেহ কি? দুনিয়াতে বিদেশি রাজনৈতিক নেতা ও কূটনীতিবিদদের আসা-যাওয়া হামেশাই হয়ে থাকে। এর মধ্যে দোষের কিছু নেই। কিন্তু দোষ দাঁড়ায় তখনই, যখন তারা আসেন জমিদারি পরিদর্শনের মতো লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও মেজাজ নিয়ে। ...
বাংলাদেশে স্বাধীন হয়েছে কারা?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০৫/০৫/২০১২
১৯৭১ সালে একটা যুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন করে আমরা কী পেলাম? এটা বেশ কিছুদিন থেকেই এ দেশের জনগণের এক হƒদয় মোচড়ানো জিজ্ঞাসা। জনগণের নিজের কাছে এ প্রশ্ন স্বপ্নে পাওয়া অথবা আকাশ থেকে পড়া নয়। স্বাধীনতা-উত্তরকালে এদেশে যা ঘটে চলেছে এবং এই ঘটনাপ্রবাহে সাধারণ মানুষের ভাগ্যে কী এসেছে, তার দিকে তাকালেই জনগণের এই জিজ্ঞাসার বাস্তব ভিত্তির দেখা পাওয়া যাবে। এসব নিয়ে কথাবার্তা নতুন নয়। কিন্তু এমন কিছু কথা বা বিষয় আছে যা পুরান হয় না। বাংলাদেশে জনগণের দুরবস্থার কথা তেমনই একটি। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের আসল ইতিহাসের সঙ্গে যারা পরিচিত তারা জানেন যে, স্বাধীনতা-উত্তরকালে যারা এদেশে রাজা-উজির হিসেবে গদিতে বসেছিলেন তারা কোন যুদ্ধ ১৯৭১ সালে করেননি। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বরের পর যারা বিপ্লবী স্বাধীনতাযোদ্ধা হিসেবে অনেক লম্ফঝম্প করে লুটপাটে অংশগ্রহণ করেছিলেন, ক্ষমতার তলোয়ার ঘুরিয়েছিলেন, তারা ১৯৭১ সালের যুদ্ধকালীন প্রায় পুরো সময়টা ভারতীয় জেনারেল ওবানের অধীনে দেরাদুনে কমিউনিস্ট ও বামপন্থী নিধনের ট্রেনিং নিয়েছিলেন। ...
বাংলাদেশে আইনের শাসন ভেঙে পড়েছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
২৮/০৪/২০১২
বাংলাদেশে দুর্নীতি-হত্যাকাণ্ডসহ হাজার রকম অপরাধের মাত্রা দৌড় দিয়ে বাড়তে থাকার মূল কারণ এখানে এখন আইনের শাসন বলে আর কিছু নেই। বেড়া যেখানে ধান খায়, রক্ষক যেখানে ভক্ষক, সেখানে এটা হওয়াই স্বাভাবিক। বাংলাদেশে এখন শেয়ারবাজার, ব্যাংক থেকে নিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্যে যে সঙ্কট দেখা দিয়েছে, শ্রমজীবী জনগণের ওপর যে অমানুষিক শোষণ ও আর্থিক নির্যাতন চলছে; তার মূলেও এই একই কারণ। যে দেশে অপরাধীর শাস্তির ব্যবস্থা নেই এবং বিপুল অধিকাংশ অপরাধী যেখানে সরকারের লোক অথবা সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত তাদের পেয়ারের লোক—সেখানে যে ভয়াবহ পরিস্থিতি হওয়ার কথা সেটাই বাংলাদেশে এখন দেখা যাচ্ছে। এই মুহূর্তে একথা বলার কারণ, নরসিংদীতে মেয়র লোকমান হত্যার চিহ্নিত আসামি আওয়ামী লীগের স্থানীয় মন্ত্রীর ভাইসহ অন্যদের বিরুদ্ধে সমন জারি করতে দেরি করা এবং তারা আত্মসমর্পণ করার পর তাদের সবাইকেই যেভাবে নির্বাচনের ঠিক আগে জামিন দেয়া হয়েছে, এটা ‘ক্রিমিনালদের পৃষ্ঠপোষকতা’ ছাড়া আর কিছুই নয়। ...
উচ্ছৃঙ্খল হরতাল বন্ধ করতে হবে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৪/০৪/২০১২
জনগণ এসবের বিরুদ্ধে। তারা যেমন সরকারি দমন নীতির বিরুদ্ধে, তেমনি তারা হরতালের নামে বিরোধী দল কর্তৃক জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে তাদের সপক্ষে নিয়ে আসার কৌশলের বিরুদ্ধে। হরতালের সময়েই এসব প্রতিক্রিয়া জনগণের মধ্যে দেখা যায়। সরকার এখন ফ্যাসিষ্ট লাইনে শাসন কাজ পরিচালনা করছে। তার বিরুদ্ধে আন্দোলন-সংগ্রাম দরকার। কিন্তু সে আন্দোলন যেই করুক, জনগণকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে সে কাজ করা চলবে না হরতাল একটি গণতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু দায়িত্বহীন গণতন্ত্র চর্চা অনুমোদনযোগ্য নয়। বাংলাদেশে দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্বহীন ...
মার্কিন কূটনীতিক ও রাষ্ট্রদূতদের সফর এবং বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
০৭/০৪/২০১২
রাজনৈতিক বিষয়ক মার্কিন আন্ডার সেক্রেটারি অব স্টেট ওয়েন্ডি শেরম্যান ৬ এপ্রিল ঢাকার এটিএন বাংলা টেলিভিশনে এক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। এই সাক্ষাৎকারে তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অথবা বিশ্ব পরিস্থিতির বিষয় নয়, বাংলাদেশের বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়েছে। এমনভাবে এসব প্রশ্ন করা হয়েছে, যার থেকে স্পষ্টই বোঝা যায়, প্রশ্নকর্তারা মনে করেন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে সবক দেয়ার এখতিয়ার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আছে! অন্যথায় অন্য একটি দেশের একজন কূটনীতিককে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে যেসব প্রশ্ন করা হয়েছে, সেসব প্রশ্ন করা যেত না। এ ধরনের কোন প্রশ্ন এদেশে রাশান, চীনা, জাপানি, এমনকি ব্রিটিশ ও ভারতীয় সফরকারী কূটনীতিকদের জিজ্ঞেস করা হয় না। যদিও ভারতীয়রা অনেক বিষয়েই বাংলাদেশের মুরব্বির মতো কথা বলে। ...
ইসরাইলের পারমাণবিক বোমার বিরুদ্ধে কোন আওয়াজ ও প্রতিরোধ নেই কেন?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দেশে বিদেশে
১০/০৩/২০১২
ইরানকে নিয়ে মার্কিনের নেতৃত্বে সাম্রাজ্যবাদীরা যে চক্রান্ত এখন করছে তার মধ্যে গোপন কিছুই আর নেই। যেসব অভিযোগ তারা ইরানের বিরুদ্ধে উপস্থিত করে দেশটি আক্রমণের তোড়জোড় করছে, তার ভুয়া চরিত্র এরই মধ্যে দুনিয়ার সচেতন মানুষের কাছে ধরা পড়েছে। এই লুণ্ঠনজীবীরা নিজেদের লুণ্ঠনকে আজ যে পর্যায়ে এনে দাঁড় করিয়েছে তাকে দিনদুপুরে ডাকাতি ছাড়া আর কিছুই বলা যায় না। পুঁজিবাদ ও সাম্রাজ্যবাদের সঙ্গে লুণ্ঠন ওতপ্রোতভাবে সম্পর্কিত। কিন্তু তারা যখন লুণ্ঠনকেই নিজেদের প্রভুত্ব, আধিপত্য ও শোষণের প্রধান উপায় হিসেবে ব্যবহার করে, তখন বোঝা যায় যে তারা বড় রকম সংকটের মধ্যে নিমজ্জিত হয়েছে। বস্তুতপক্ষে এই সংকট আজ মার্কিন ও ইউরোপীয় সাম্রাজ্যবাদীদের গ্রাস করেছে। মধ্যপ্রাচ্যে নিজেদের আধিপত্য টিকিয়ে রাখা ও শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে ১৯৪৮ সাল থেকে তারা ইসরাইলকে ব্যবহার করছে। এই উদ্দেশ্যেই তারা এই রাষ্ট্রটির জš§ দিয়েছিল। ...
বাংলাদেশে ব্যবসায়ী শ্রেণীর শাসন ও শিক্ষা ব্যবস
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৬/০৩/২০১২
ব্যবসা ও ব্যাংকিং যেহেতু অর্থনীতির শীর্ষদেশ নিয়ন্ত্রণ করছে, সে কারণে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাও এখন তার সঙ্গে সম্পর্কিত ও সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে গড়ে উঠেছে। জীবিকার সঙ্গে শিক্ষার নিবিড় সম্পর্ক। জ্ঞানচর্চা ও মানসিক বিকাশ শিক্ষার অন্যতম লক্ষ্য হলেও তা কখনও জীবিকার সঙ্গে সম্পর্কহীন হতে পারে না। ঠিক এ কারণেই বাংলাদেশে এখন বিজ্ঞান অথবা মানববিদ্যা শিক্ষা ও চর্চার থেকে ব্যবসার সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয়ে শিক্ষার কদর বেশি। যারা বিজ্ঞান বা মানববিদ্যার বিভিন্ন শাখায় পড়াশোনা করেন তারাও উপযুক্ত কর্মসংস্থান না পেয়ে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন, নয়তো ...
সরকারের ক্ষমাশীলতার কারণে দেশে অপরাধ বাড়ছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/০২/২০১২
বাংলাদেশে হত্যাকাণ্ড এখন এত নিয়মিতভাবে দেশের সর্বত্র ঘটছে যে, এটা এখানে প্রায় এক 'স্বাভাবিক' ব্যাপারে পরিণত হয়েছে। শুধু তাই নয়। হত্যাকাণ্ডের ঘটনা কমে আসার পরিবর্তে দিন দিন বেড়েই চলেছে। এই বৃদ্ধির মূল কারণ, এই চরম অপরাধের জন্য দেশে কোনো শাস্তির ব্যবস্থা বাস্তবত নেই বললেই চলে। ক্ষেত্রবিশেষে ব্যতিক্রম হিসেবে কোনো হত্যাকারীর শাস্তি হলেও শাস্তি না হওয়াটাই সাধারণ ব্যাপার। শুধু সাধারণ নাগরিক বা গরিব মানুষরা খুন হলেই যে তার কোনো বিচার ও শাস্তি হচ্ছে না তাই নয়। অনেক গুরুত্বপূর্ণ হত্যাকাণ্ডেরও কোনো ...
সামরিক খাতে ব্যয় ও জনগণের স্বার্থ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৪/০২/২০১২
বাংলাদেশে সমস্যার কি শেষ আছে? মানুষের জন্য করণীয় কাজ কি কিছু কম আছে? এই অবস্থা পরিবর্তনের জন্য এসব খাতে ব্যয় বরাদ্দ এবং বিনিয়োগ বৃদ্ধির প্রয়োজন কি কেউ অস্বীকার করতে পারেন? এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ কর্তৃক লাখ লাখ কোটি টাকার অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় করা কি জনস্বার্থের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ? এর দ্বারা রাষ্ট্র ও সরকারের কোন মহল উপকৃত হচ্ছে এবং নিজেদের পকেট ভর্তি করছে এ বিষয়ে তথ্য প্রকাশের দাবি কি যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত নয়? বাংলাদেশ সরকার রাশিয়া থেকে ৮৫০ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে (আমার দেশ, ১৩.২.২০১২)। বাংলাদেশ শুধু রাশিয়া থেকেই যে অস্ত্র কিনছে তাই নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, ব্রিটেন ইত্যাদি দেশ থেকেও বাংলাদেশ হাজার হাজার কোটি টাকার অস্ত্র এবং অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম কিনে থাকে। একটি দেশের সামরিক বাহিনীর জন্য অস্ত্র কেনা দরকার হয়। কাজেই বাংলাদেশ সামরিক বাহিনীর জন্য অস্ত্র কেনা হচ্ছে, শুধু এটাই কোনো অস্বাভাবিক বা অসাধারণ ব্যাপার নয়। এ নিয়ে ...
বাংলাদেশে নববর্ষের কথা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৩/০১/২০১২
আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি যে উত্তরোত্তর ঘটছে এ নিয়ে কোনো সংশয় কোথাও নেই, তবে বিতর্ক আছে। এই অবনতির জন্য সরকারি লোকজন দায়ী করে বিরোধী পক্ষকে এবং বিরোধী পক্ষ এর জন্য দায়ী করে সরকারকে। যারা সরকার ও বিরোধী পক্ষের এই মতামতের বাইরে থাকে তারা এর জন্য দায়ী করে রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে। তাদের মতে, আসল ভাঙন ঘটছে রাষ্ট্রের অভ্যন্তরে। সরকার এই রাষ্ট্রযন্ত্রের ম্যানেজার হিসেবে এই প্রক্রিয়ার মধ্য থেকে কাজ করছে বাংলাদেশে ইংরেজি নববর্ষের উৎসব প্রায় সর্বাংশেই টাকাপয়সাওয়ালা শহুরে লোকদের ব্যাপার। এর সঙ্গে যেমন গ্রামের লোকদের বিশেষ সম্পর্ক নেই, তেমনি সম্পর্ক নেই অর্থসম্পদহীন লোকদের। গ্রামাঞ্চলে নববর্ষ হিসেবে বাংলা নববর্ষই একভাবে পালিত হয়। কিন্তু নববর্ষের আগমনের থেকে পুরনো বছরের গমন চৈত্রসংক্রান্তিই পালিত হয় ঘটা করে। অনেক রকম পালা-পার্বণও জড়িত থাকে তার সঙ্গে। চৈত্রসংক্রান্তি শহরেও পালিত হয় পুরনো ধারার ব্যবসায়ীদের দ্বারা। ২০১১ সালের শেষে এবারও নববর্ষের উৎসব বাংলাদেশে ঘটা করে পালন করা হয়েছে। ...
পাকিস্তানের জনগণের মধ্যে পরিবর্তনের তাগিদ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৭/১২/২০১১
১৯৪৭ সালের পর থেকে, বিশেষত জিন্নাহ ও লিয়াকত আলীর পর থেকে পাকিস্তানে যে রাজনীতি চলে আসছে তার থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য সেখানে জনগণের মধ্যে যে তাগিদ মাঝে মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে সেটা কোনো গণতান্ত্রিক দলই আজ পর্যন্ত ধারণ করতে পারেনি। তার ভিত্তিতে রাজনীতি সংগঠিত করতে পারেনি। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানে সামরিক শাসন বারবার ফিরে এসেছে এবং বাহ্যত নির্বাচিত সরকার মাঝে মধ্যে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত থাকলেও সে দেশে সামরিক বাহিনীই সবসময় শাসন ক্ষমতা বেশ দৃঢ়ভাবে নিজের আয়ত্তে রেখেছে। এখনও সেখানে একটি নির্বাচিত সরকার ...
পাকিস্তানে ন্যাটো বিমান বাহিনীর হত্যাকাণ্ড
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
৩০/১১/২০১১
বিগত ২৬ নভেম্বর শনিবার পাকিস্তান-আফগান সীমান্তে ন্যাটো বিমানবাহিনীর হামলায় পাকিস্তানের অভ্যন্তরে ২৪ জন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্য নিহত হয়েছে। এটাই এ ধরনের প্রথম ঘটনা নয়। এ রকম ঘটনা পাকিস্তানে প্রায়ই ঘটে চলেছে এবং তাতে শুধু সেনাসদস্যই নয় অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিরীহ বেসামরিক লোকজনই বেশি নিহত হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পদলেহী ও সেবাদাস রাষ্ট্র হিসেবে পাকিস্তান নিজেকে নিযুক্ত রাখার ফলে এ ধরনের ঘটনা সেখানে ঘটা স্বাভাবিক। ব্যক্তিগত সম্পর্কই হোক বা রাষ্ট্রীয় সম্পর্কই হোক, কেউ যদি অন্যের পদতলে নিজেকে সমর্পণ করে তাহলে মাঝে মধ্যে পদাঘাত খেতেই হয়। পাকিস্তানেরও হয়েছে সেই অবস্থা। প্রেসিডেন্ট জিয়াউল হক ক্ষমতায় থাকার সময় থেকে আফগান যুদ্ধে জড়িত হয়ে পাকিস্তান নিজেকে আমেরিকার কাছে যেভাবে খুলে দিয়েছে তাতে অল্পদিনের মধ্যে পাকিস্তানের সার্বভৌমত্ব বলে আর কিছু থাকেনি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের প্রয়োজনে পাকিস্তান সরকার ও সেনাবাহিনীর কোনো অনুমতির অপেক্ষা না করে ইচ্ছামতো পাকিস্তানের বিমান ঘাঁটি থেকে অথবা আফগানিস্তান থেকে উড়ে এসে পাকিস্তানের বিভিন্ন এলাকায় হামলা করেছে। এই হামলা তারা শুধু পাক-আফগান সীমান্তই নয়, বেলুচিস্তানেও ...
শিক্ষা ব্যবস্থার ভাঙন :কোচিং সেন্টারের উদ্ভব ও বিস্তার
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০৮/১০/২০১১
মানুষ যা কিছু কারবার করে, রাজনীতি, সংস্কৃতি থেকে নিয়ে শিক্ষা পর্যন্ত সবকিছুই গড়িয়ে শেষ পর্যন্ত ব্যবসাতেই পরিণত হয়। ব্যবসার মধ্যেই সবকিছু লয়প্রাপ্ত হয়। বাংলাদেশের শিক্ষাক্ষেত্রে সামগ্রিকভাবে এবং বিশেষত স্কুল পর্যায়ে এখন যা ঘটছে তার মধ্যেও এটাই দেখা যাচ্ছে। শিক্ষা এখন ব্যবসায় পরিণত হওয়ায় শিক্ষার মান শোচনীয়ভাবে কমে আসায় অনেক জৌলুস সত্ত্বেও সংস্কৃতি এখন ব্যবসার অধীন হয়েছে এবং সাধারণভাবে নৈতিকতার মান ভয়ঙ্করভাবে নিচে নেমেছে বাংলাদেশে এখন শিক্ষা ব্যবস্থার করুণ অবস্থা। বলা চলে, এই ব্যবস্থা এখন ভেঙে পড়েছে। উচ্চশিক্ষার অবস্থা খারাপ, ...
উইকিলিকসের ফাঁস করা তথ্য কী প্রমাণ করছে?
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২০/০৯/২০১১
কিছুদিন থেকে উইকিলিকস বাংলাদেশ সম্পর্কিত কিছু তথ্য ফাঁস করছে। এসব ফাঁস করা তথ্য প্রায় সবই রাজনীতি বিষয়ক। এ প্রসঙ্গে আরও উল্লেখযোগ্য ব্যাপার, এগুলো হলো ঢাকা থেকে মার্কিন রাষ্ট্রদূত কর্তৃক ওয়াশিংটনে স্টেট ডিপার্টমেন্টের কাছে পাঠানো তাদের নিয়মিত বার্তা বা ফবংঢ়ধঃপয. যেসব বার্তা এভাবে ঢাকা থেকে পাঠানো হয়ে থাকে সেটা দেখে মনে হয় মার্কিন রাষ্ট্রদূত অন্য দেশের রাষ্ট্রদূতের মতো একজন সাধারণ রাষ্ট্রদূত নন। তিনি হলেন ভারতে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির গভর্নর জেনারেল বা ব্রিটিশ সরকারের ভাইসরয় ও গভর্নর জেনারেলের মতো কোনো ঔপনিবেশিক দখলদার শক্তির এমন একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি, যিনি বাংলাদেশে যা কিছু ঘটছে তার তদারকি করছেন, প্রায় সবকিছুই একভাবে নিয়ন্ত্রণ করছেন! উইকিলিকসের ফাঁস হওয়া এসব তথ্য থেকে দেখা যাচ্ছে যে, বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের লোক এবং সামরিক বাহিনী, গোয়েন্দা বিভাগ, ব্যবসায়ী ইত্যাদি সব মহলের লোকই মার্কিন রাষ্ট্রদূতের কাছে বিভিন্ন বিষয়ে ধরনা দিচ্ছেন, তাদের নিজেদের দলের ভেতরকার সব তথ্য প্রদান করছেন, রাজনৈতিক ও দলীয় পরিস্থিতি বিষয়ে নিজেদের মতামত তাদের জানাচ্ছেন! ডিজিএফআই মার্কিন ...
মার্কিনের রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসই বিশ্বজুড়ে সন্ত্
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৩/০৯/২০১১
২০০০ সালে জর্জ ডবি্লউ বুশ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বিশ্বজুড়ে যেভাবে সন্ত্রাসী তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে এর কাছাকাছি কোনো অবস্থাও আগে ছিল না। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ার ধ্বংস এবং ওয়াশিংটনে পেন্টাগনের ট্রেড কোয়াটার্সে বিমান হামলার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে প্রথমে আফগানিস্তান আক্রমণ ও দখল, পরে ইরাক আক্রমণ এবং দখলের অজুহাত ও সুযোগ সৃষ্টি হয়। ৯/১১-এর ঘটনার হোতা হিসেবে প্রেসিডেন্ট বুশ কোনো তদন্ত বা প্রমাণের অপেক্ষা বা পরোয়া না করে আল কায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে ঘটনার পরমুহূর্ত থেকেই অভিযুক্ত করে তাদের বিশ্বজোড়া প্রচার-প্রচারণা চালান, যা আজ পর্যন্ত অব্যাহত আছে। প্রকৃতপক্ষে এই বিশাল প্রচারণার সবটাই দাঁড় করানো হয়েছিল সম্পূর্ণ মিথ্যার ওপর। এ বিষয়ে ওই সময়ের মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল ৯/১১-এর দশম বার্ষিকী উপলক্ষে যা বলেছেন তার মধ্যেই এর সত্যতার প্রমাণ পাওয়া যায়। এ প্রসঙ্গে তাকে একটু বিস্তারিতভাবে এখানে উদ্ধৃত করা দরকার। কলিন পাওয়েল বলেন, '২০০১ সালের হামলার পর মার্কিন সরকার প্রথমে আফগানিস্তান ও পরে ইরাকে হামলা ...
ভারতে আন্না হাজারের অনশন ও দুর্নীতি সমাচার
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
৩০/০৮/২০১১
রাজনৈতিক প্রতিবাদ ও দাবি আদায়ের পদ্ধতি হিসেবে ভারতে অনশনের প্রচলন করেন কংগ্রেস নেতা গান্ধী। সেই থেকে অনশনকে আন্দোলনের হাতিয়ার হিসেবে অনেকেই অনেক সময় ব্যবহার করে আসছেন। গান্ধীবাদী সমাজকর্মী আন্না হাজারে ভারত থেকে দুর্নীতি নির্মূল করার উদ্দেশ্যে সরকারকে লোকপাল বিল পাস করতে বাধ্য করার জন্য আমরণ অনশন করেন। বর্তমান বিশ্বে সর্বপ্রধান দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলোর অন্যতম হচ্ছে ভারত। বিশ্বের এই 'বৃহত্তম গণতান্ত্রিক' দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার প্রকৃত চরিত্র এর মধ্যে প্রতিফলিত হয়_ এ কথা বললে সত্যের কোনো অপলাপ হয় না। ভারত একটি বৃহৎ দেশও বটে। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, সুইজারল্যান্ডের ব্যাংকগুলোতে ভারতীয় নাগরিকদের লাখ লাখ কোটি দুর্নীতিলব্ধ ডলার জমা আছে। এদিক দিয়ে বিশ্বে ভারতের স্থান সর্বশীর্ষে! রাজনীতিবিদ, সরকারি আমলা, ব্যবসায়ীদের হিসাবে সেখানকার ব্যাংকগুলোতে এই অর্থ জমা হয়েছে ভারতের শ্রমজীবী কৃষক, শ্রমিক ও মধ্যবিত্তের রক্ত শোষণ করে, তাদের গরিব থেকে আরও গরিব বানিয়ে, অভুক্ত-অর্ধভুক্ত রেখে, ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ করে, তাদের পকেট মেরে। রাতারাতি এটা হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে দুর্নীতির এই প্রক্রিয়া জারি থেকে এখন ...
হিরোশিমা ও নাগাসাকি দিবসে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০৯/০৮/২০১১
জার্মানির মতো দেশ যেখানে পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে দুর্ঘটনার আশঙ্কা করে দেশকে সম্পূর্ণভাবে পারমাণবিক শক্তির ওপর নির্ভরতা থেকে মুক্ত করতে সক্রিয়ভাবে পদক্ষেপ নিচ্ছে, সেখানে বাংলাদেশের মতো একটি দেশ নতুন করে পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র স্থাপনের পদক্ষেপ কীভাবে গ্রহণ করতে পারে? সরকার যে সিদ্ধান্তই নিক, বাংলাদেশে পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র স্থাপনের সরকারি সিদ্ধান্ত বাতিলের জন্য সরকারের সুবুদ্ধির ওপর নির্ভর না করে জনগণকেই এর বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগঠিত করতে হবে। এই আন্দোলন যদি না করা যায় এবং পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র স্থাপন যদি রোধ না ...
বাংলাদেশে অপরাধের জগৎ যেভাবে চলছে
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০২/০৮/২০১১
পুলিশের অপরাধমূলক বেপরোয়া কর্মকাণ্ডের এই মুহূর্তের এক দৃষ্টান্ত হলো, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আবদুল কাদেরকে ডাকাত বলে গ্রেফতার করে, তাকে নিজেদের হেফাজতে আটকে রেখে অমানবিক নির্যাতন করা। আবদুল কাদেরকে সম্পূর্ণ নির্দোষ ও নিরপরাধ জেনেও পুলিশ যে এখনও তার বিরুদ্ধে মামলা তুলে না নিয়ে তাকে আটকে রেখে নির্যাতন করছে এটা স্বাভাবিক অবস্থায় সম্ভব নয়। এটা সম্ভব হচ্ছে বর্তমানে সরকারি ও রাষ্ট্রীয় সহযোগিতায় দেশজুড়ে এক অস্বাভাবিক অপরাধের পরিবেশ গড়ে ওঠার কারণে। একের পর এক সরকার যদি নানা ধরনের অপরাধমূলক তৎপরতায় নিজেরা জড়িত ...
মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ওসামা বিন লাদেন ও গাদ্দাফ
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
০৩/০৫/২০১১
ভালো কাজের জন্য ধর্ম বিশ্বাস, জাতি, গায়ের রঙ ইত্যাদি যেমন কোনো ব্যাপার নয়, তেমনি ক্রিমিনাল কাজের সঙ্গেও ধর্ম, জাতি, গায়ের রঙের কোনো সম্পর্ক নেই। শ্রেণী, দল ও ব্যক্তিগত স্বার্থে মানুষ মানুষের বিরুদ্ধে অনেক ধরনের ক্রাইম করে থাকে। বর্তমানে আমরা আরব বিশ্বে যে ঘটনাবলি প্রত্যক্ষ করছি, সেখানকার বিভিন্ন দেশের প্রতিক্রিয়াশীলদের সঙ্গে সাম্রাজ্যবাদীদের যে সম্পর্ক দেখছি তার মধ্যেও এ সত্যেরই প্রতিফলন ঘটছে  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার আল কায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে খুন করেছে। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা হোয়াইট হাউস থেকে এক বিশেষ ...
সংবিধান সংশোধন প্রচেষ্টা ও শাসক শ্রেণীর শাসন স
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
২৬/০৩/২০১১
বাংলাদেশে রাজনৈতিক সংস্কৃতির করুণ অবস্থা নিয়ে কোথাও কোনো উল্লেখযোগ্য ও গ্রাহ্য বিতর্ক নেই। রাজনৈতিক সংস্কৃতি রাজনৈতিক আচরণ থেকে অবিচ্ছেদ্য। রাজনৈতিক আচরণের মধ্যেই রাজনৈতিক সংস্কৃতির প্রতিফলন ঘটে। শুধু রাজনৈতিক ক্ষেত্রেই নয়, সাধারণভাবেও আচরণগত সংস্কৃতির (নবযধারড়ঁৎধষ পঁষঃঁৎব) মধ্যেই যে কোনো জনগোষ্ঠীর সংস্কৃতির আসল পরিচয় পাওয়া যায়। বাংলাদেশে সামাজিক সম্পর্ক, রাজনীতি, অর্থনীতি ইত্যাদি ক্ষেত্রে যে ধরনের সব সমস্যা ও সংকটের দেখা পাওয়া যায়, সেগুলোর সঙ্গে সংস্কৃতির সম্পর্ক যে কত গভীর এবং অবিচ্ছেদ্য এ ধারণা কম লোকেরই আছে। এই সম্পর্ক শুধু গভীর এবং অবিচ্ছেদ্য বললেই সবটুকু বলা হয় না। প্রকৃতপক্ষে অন্য সব ক্ষেত্রও সংস্কৃতির দ্বারা প্রভাবিত ও শাসিত হয়। একটি সমাজে মানবিক সম্পর্ক, অর্থনীতি, রাজনীতি সংস্কৃতি সবকিছুই পরস্পরের সঙ্গে সম্পর্কিত। এদের কোনোটিকেই অন্যটি থেকে বিচ্ছিন্নভাবে দেখা বা বিচার করা চলে না। কাজেই সংস্কৃতি কোনো স্বাধীন বর্গ (পধঃবমড়ৎু) নয়। সংস্কৃতির গঠনে মানুষের অর্থনৈতিক প্রক্রিয়ার প্রভাবই সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে দেখা যায়, নতুন সুযোগ-সুবিধার কাঠামোর মধ্যে একেবারে গ্রাম থেকেই নিম্ন সাংস্কৃতিক চেতনা ও আচরণগত ...
'মানবাধিকার' প্রতিষ্ঠার জন্য সাম্রাজ্যবাদীরা লি
সমকালীন প্রসঙ্গ
দৈনিক সমকাল
১৯/০৩/২০১১
লিবিয়ায় যে সাম্রাজ্যবাদী 'মানবিক' সামরিক আগ্রাসন চলছে তার ঘোষিত উদ্দেশ্য হলো, সে দেশের নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে ক্ষমতাচ্যুত করে সেখানে নিজেদের দখল কায়েম করে 'গণতন্ত্রপন্থি' ও 'স্বাধীনতাকামী' নামে আখ্যায়িত একদল লোককে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করা। এই লোকরা গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার কথা বলে 'লিবিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিল' নামে একটি সংগঠন খাড়া করেছে সাম্রাজ্যবাদীদেরই পরামর্শে। গাদ্দাফি লিবিয়ার জনগণের জন্য অনেক কিছু করলেও যেভাবে ফ্যাসিস্ট কায়দায় তিনি লিবিয়া শাসন করে এসেছেন, তার বিরুদ্ধে সে দেশের নব্যগঠিত মধ্যশ্রেণীর মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই ক্ষোভ ও বিরোধিতা সৃষ্টি হয়েছে। এই ক্ষোভ ও বিরোধিতারই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে লিবিয়ার পূর্বদিকে অবস্থিত বেনগাজি শহরকেন্দ্রিক এক গণঅভ্যুত্থানে। কিন্তু লিবিয়ায় কোনো ধরনের গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক প্রক্রিয়া না থাকায় সেখানে গাদ্দাফির বিরুদ্ধে ক্ষোভ সৃষ্টি হওয়া সত্ত্বেও কোনো প্রকৃত গণতান্ত্রিক চিন্তার উন্মেষ হয়নি। গাদ্দাফির শাসন উচ্ছেদের জন্য ব্যস্ত হলেও কীভাবে নিজেদের পায়ের ওপর দাঁড়িয়ে গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা কায়েম করা সম্ভব এ বিষয়ে তাদের কোনো ধারণা না থাকায় অভ্যুত্থান-পরবর্তী পর্যায়ে তারা দিশেহারা অবস্থায় ইঙ্গ-মার্কিন ও ফরাসি সাম্রাজ্যবাদের পাতা ফাঁদে পা ...
একুশে ফেব্রুয়ারির অর্জন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২২/০২/২০১১
আজ একুশে ফেব্রুয়ারি। বাংলাদেশের ইতিহাসের এ দিনটি জনগণকে যেভাবে নাড়া দেয়, এমন আর কোনো দিন দেখা যায় না। এদিনের আবেগ ও উচ্ছ্বাস একটা জাতির জীবনে শুধু উল্লেখযোগ্য বা গুরুত্বপূর্ণই নয়, বিস্ময়করও বটে। ব্রিটিশ আমলে ও পাকিস্তানের একেবারে প্রথম দিকে, অধিকাংশ বাঙালি মধ্যবিত্ত মুসলমান মনে করত আরব, ইরান, তুর্কির ঐতিহ্যই তাদের ঐতিহ্য, ভারতের ও বাংলার ঐতিহ্যের সঙ্গে তাদের বিশেষ সম্পর্ক নেই, থাকলেও তা সামান্য। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন ছিল এমন এক ঘটনা, যা বাঙালি মুসলমানদের ঘাড় আরব, ইরান, তুর্কি থেকে ভারতবর্ষ, বিশেষত বাংলার দিকে ঘুরিয়েছিল। বাঙালি মুসলমানদের মানসলোকের এই পরিবর্তনকে আমি আমার এক প্রবন্ধে বলেছিলাম বাঙালি মুসলমানদের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন, বাঙালি মুসলমানদের সুশাসন বাঙালিতে পরিণত হওয়া। অর্থাৎ মুসলমানের থেকে বাঙালি পরিচয়টিই প্রাধান্যে আসা, সেটাই তার মুখ্য পরিচয়ে পরিণত হওয়া। প্রতিটি ২১ ফেব্রুয়ারিতে এখানকার মুসলমানদের জীবনে সেই যুগান্তকারী পরিবর্তনেরই জয়ধ্বনি আমরা শুনে থাকি। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন শুধু বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠার আন্দোলন ছিল না। এদিক দিয়ে ১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনের প্রাথমিক ...
'ভাষাসৈনিকদের' সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে!
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৫/০২/২০১১
আমি কয়েক বছর আগে একবার লিখেছিলাম, ফেব্রুয়ারি মাস এলে আমার খারাপ লাগে। মানুষ এত মিথ্যা কথা বলে। গতকালই আমাকে দেশের বাইরে থেকে একজন ফোন করে জিজ্ঞেস করছিলেন, এতদিন পর এখন এত ভাষাসৈনিক কোথা থেকে এলো? আসলে ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের যখন থেকে 'ভাষাসৈনিক' বলে আখ্যায়িত করা শুরু হয়েছে তখন থেকেই এই অভিধা লাগামছাড়া হয়েছে। এরশাদের শাসনামলের গোড়ার দিকেই মিলিটারি কালচারের প্রভাবে ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের ভাষাসৈনিক বলে আখ্যায়িত করার রেওয়াজ শুরু হয়েছে। ১৯৫২ থেকে ১৯৭১ সাল এবং তারপর পুরো সত্তরের দশকেও ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের ভাষাসৈনিক বলার চিন্তা কারো মাথায় আসেনি। এরশাদের আমলে কতিপয় মতলবাজ বুদ্ধিজীবী নিজেদের 'ভাষাসৈনিক' বলে আখ্যায়িত করে এ কাজ শুরু করার পর দেশের বর্তমান অবস্থায় এতে বাতাস লেগে এই অভিধা চারদিকে ছড়িয়ে গেছে। এখন এর থেকে মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা আর আছে বলে মনে হয় না। তা ছাড়া ১৯৭১ সালে যারা অস্ত্র হাতে নিয়ে কোনো যুদ্ধই করেনি তারা যেমন নিজেদের 'মুক্তিযোদ্ধা' বলে পরিচয় দিয়ে তাদের অনেক কীর্তিকথা শোনাচ্ছে, তেমনি ...
বাংলাদেশ কোনো ব্যর্থ রাষ্ট্র নয়
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৮/১২/২০১০
বাংলাদেশের অবস্থা এখন এমন দাঁড়িয়েছে যাতে আইনের শাসন বলতে যা বোঝায় সেটা এ দেশে দ্রুত ভেঙে পড়ছে। এ কারণে বাংলাদেশকে ইতিমধ্যে অনেকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যায়িত করছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এর যা অবস্থা তাতে একে ব্যর্থ রাষ্ট্র বলা চলে না। রাষ্ট্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো, তার বলপ্রয়োগের ক্ষমতা। এ বলপ্রয়োগের ক্ষমতা যতক্ষণ বা যতদিন থাকে ততক্ষণ বা ততদিন কোনো রাষ্ট্রকে ব্যর্থ বলা যায় না। এ ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের কাছ থেকে সাধারণ মানুষ যা চায় তা দিতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য অর্থাৎ রাষ্ট্রের ঘোষিত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণ না হওয়াকেই রাষ্ট্রের ব্যর্থতা বলে ধরে নেওয়া হয়। কিন্তু রাষ্ট্র তার ঘোষিত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণ না করলেও বা সেটা করতে ব্যর্থ হলেও তার অস্তিত্ব বিলুপ্ত হয় না বা সে রাষ্ট্র ব্যর্থ এমন বলা যায় না। যতদিন রাষ্ট্রের হাতে বলপ্রয়োগের ক্ষমতা থাকে ও বলপ্রয়োগে সক্ষম থাকে, ততদিন সেটা রাষ্ট্র হিসেবে ব্যর্থ হয় না। রাষ্ট্র হিসেবে সে এমন স্বার্থ রক্ষা করে যার সঙ্গে সাধারণ ...
বাংলাদেশে অপ্রতিহত ভূমিদস্যুতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৭/১২/২০১০
ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকায় কীভাবে খাল দখল হয়ে চলেছে, তার ওপর ঈধহধষং ভড়ৎ মৎধননবৎং শীর্ষক একটি রিপোর্ট ইংরেজি দৈনিক উধরষু ঝঃধৎ-এ আজ (৬-১২-২০১০) প্রথম পৃষ্ঠায় বড় বড় অক্ষরে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কীভাবে তুরাগ ও বুড়িগঙ্গার মধ্যে সংযোগকারী হাইক্কার খাল ভূমিদস্যুদের দ্বারা দখল হয়েছে। কিছুদিন আগ পর্যন্ত তুরাগ নদ থেকে বের হয়ে আসা এ খালটি রামচন্দ্রপুর, বছিলা, মোহাম্মদপুর ও রায়েরবাজারের শহীদ বুদ্ধিজীবী মেমোরিয়ালের পেছন দিয়ে প্রবাহিত হয়ে বুড়িগঙ্গা নদীতে পড়ত। এখন এ খালটি একটি শীর্ণ জনপথ ছাড়া আর কিছুই নয়। যেভাবে খালের ওপর শত শত সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে ভূমিদস্যুরা নিজেদের মালিকানা ঘোষণা করেছে তাতে মনে হয়, অল্পদিনের মধ্যেই এই শীর্ণ জনপথেরও কোনো অস্তিত্ব আর থাকবে না। পশ্চাৎপদ দেশে ভূমিদস্যুতা অপরিচিত কোনো ব্যাপার নয়। কিন্তু বাংলাদেশে ভূমিদস্যুতা যেভাবে ও যে আকারে হচ্ছে, এর কোনো তুলনা এ দেশে পূর্বে কোনোদিন ছিল না এবং বিশ্বের অন্য কোনো দেশেও নেই। এখানে এই দস্যুরা শুধু দুর্বল ও গরিবদের জমিই যে বেআইনি ও জবরদস্তিমূলকভাবে দখল করছে ...
যোগাযোগ
পরিবহন খাতে ক্রিমিনালদের রাজত্ব
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০২/১১/২০১০
সারাদেশে আজ পরিবহন ব্যবস্থায় যে বিশৃঙ্খলা দেখা যাচ্ছে তার মূলে আছে বেসরকারি বাসের বিশাল সংখ্যাধিক্য, যাত্রীদের নিরাপত্তা বিষয়ে মালিকদের চরম উদাসীনতা, এক একটি রুটে নানা কোম্পানির সার্ভিস, পরিবহন ক্ষেত্রে চরম সমন্বয়হীনতা বাংলাদেশে সাধারণভাবে এখন শুধু খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসার ব্যবস্থাই নয়, যাতায়াত ব্যবস্থার অবস্থাও রীতিমতো ভয়াবহ। ঢাকা শহরের অবস্থা এদিক দিয়ে সব থেকে খারাপ হলেও, দেশজুড়েই যাতায়াত ব্যবস্থা শোচনীয়। যানজট, সাধারণ পরিবহনের সংখ্যাল্পতার ফলে যাতায়াতের দুঃসহ অবস্থা, সড়কপথের নিরাপত্তাহীনতা ও নিয়মিত দুর্ঘটনার কারণে এ ক্ষেত্রে এক সংকটজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এ পরিস্থিতি অকারণে হয়নি। এর অনেক কারণ আছে, তার মধ্যে একটি এখানে বিশেষভাবে আলোচনা করা হবে। ব্যক্তিমালিকানাধীন বাস মালিকরা কীভাবে রাষ্ট্রীয় পরিবহন ব্যবস্থাকে বাধাগ্রস্ত করছে এর ওপর চৎরাধঃব নঁং ড়ঢ়বৎধঃড়ৎং ড়নংঃৎঁপঃ ইজঞঈ ংবৎারপবং শীর্ষক একটি রিপোর্ট গত ৩০ অক্টোবর ডেইলি স্টারে প্রকাশিত হয়েছে। ...
পঞ্চম সংশোধনী বাতিল এবং ১৯৭২ সালের সংবিধানে ফের
কালের পুরাণ
সমকাল
০৫/১০/২০১০
পঞ্চম সংশোধনী বাতিল প্রসঙ্গে বলা দরকার যে, এর দ্বারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাংলাদেশের সংবিধান ১৯৭২ সালের আদিরূপে মোটেই ফেরত যায়নি। মনে রাখা দরকার যে, আদালত পঞ্চম সংশোধনী পুরোপুরি বাতিল না করে তাকে সরকারের প্রয়োজন অনুযায়ী আংশিকভাবে বাতিল করেছেন বাংলাদেশে আদালত, বিশেষত শীর্ষ আদালত পর্যন্ত এখন যেভাবে সমালোচনার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে এটা সমগ্র বিচার ব্যবস্থার মধ্যে ভাঙনের প্রক্রিয়াকেই নির্দেশ করে। এটাই স্বাভাবিক, কারণ একটি দেশের বিচার ব্যবস্থা সামগ্রিকভাবে সে দেশের শাসনব্যবস্থা থেকে বিচ্ছিন্ন কোনো ব্যাপার নয়। উপরন্তু তারই অংশ ও সেই হিসেবে ...
শিল্পাঞ্চল পুলিশ ও বাংলাদেশে ফ্যাসিবাদ
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২১/০৯/২০১০
বাংলাদেশে জনগণের ওপর খবরদারির জন্য সশস্ত্র বাহিনীর অভাব নেই। পুলিশ ছাড়াও এখানে আছে আনসার ও র‌্যাব। বিডিআরকেও প্রয়োজনে ব্যবহার করা হয়। এরা থাকা সত্ত্বেও শিল্পাঞ্চলের জন্য বিশেষ পুলিশ বাহিনী গঠনের প্রয়োজনীয়তা কেন দেখা দিল? এসব এলাকায় কোনো আইন-শৃঙ্খলাগত সমস্যা দেখা দিলে পুলিশই বরাবর সেখানে মোতায়েন করা হয়েছে দেশে অপরাধ মহামারীর আকারে ছড়িয়ে পড়ছে, এ কথা বলতে গিয়ে ঢাকা রেঞ্জের পুলিশের ডিআইজি ১৫ সেপ্টেম্বর নিজের সেগুনবাগিচা কার্যালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সামনে অনেক কিছু বলেন। তার মধ্যে দুটি কথা এখানে উল্লেখ করা ...
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৪/০৯/২০১০
মার্কিন সাম্রাজ্যবাদীদের সাধ যতই থাক, তাদের এখন অনেক রকম হিসাব করে চলতে হচ্ছে। সন্ত্রাসের জিগির তুলে তারা আমেরিকার জনগণের পকেট মেরে সামরিক খাতে অসাধারণ হারে ব্যয় বৃদ্ধি করেছে নিউইয়র্কের যে জায়গাটিতে ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর বিমান আক্রমণে জোড়া টাওয়ার বিধ্বস্ত হয়েছিল, সেটিকে এখন 'গ্রাউন্ড জিরো' নামে অভিহিত করা হয়। টাওয়ার দুটি বিধ্বস্ত হওয়ার সময় সেখানে অবস্থানকারীদের মধ্যে তিন হাজারেরও বেশি লোক নিহত হন, যাদের মধ্যে বিভিন্ন জাতির ও ধর্মের লোক ছিলেন। ঘটনাটি ঘটার সঙ্গে সঙ্গে প্রেসিডেন্ট বুশ থেকে নিয়ে ...
উপমহাদেশ
বন্যা পরিস্থিতি পাকিস্তানে শাসন সংকট ঘনীভূত কর
সমকালীন প্রসঙ্গ
প্রথম আলো
২৪/০৮/২০১০
প্রকৃতি তার প্রতিশোধ নিচ্ছে। প্রকৃতির মতো নিরপেক্ষ আর কিছু নেই। এ কারণে এই প্রতিশোধ দেশ-জাতি, উন্নত-অনুন্নত কিছুরই হিসাব করে না। পুঁজিবাদী মুনাফার লোভ বিশ্বজুড়ে প্রকৃতির সর্বক্ষেত্রে যে দুর্যোগ ও ধ্বংস সাধন করছে তার প্রতিফল গোটা মানবজাতিকেই পেতে হবে। বলা চলে, এটিই মানবজাতির ওপর পুঁজিবাদ এবং সাম্রাজ্যবাদের সর্ববৃহৎ ও সব থেকে বিপজ্জনক হামলা। শিল্প-কারখানাগুলোতে অনিয়ন্ত্রিত কার্বন ডাই-অক্সাইড, কার্বন মনো-অক্সাইড, সালফার ইত্যাদি গ্যাস বিশাল আকারে নির্গত হতে থাকা, গাছ কেটে বনজঙ্গল উজাড় করা, হাতি, বাঘ, সিংহ, হরিণ, বানর থেকে নিয়ে হাজার রকম জীবজন্তু, পাখি হত্যা করা, জ্বালানির জন্য নদীর ওপর বাঁধ দিয়ে নদীর পথ ও প্রবাহের গতি পরিবর্তন করা, ভূগর্ভস্থ পানি ক্রমাগত টেনে ওপরে তুলে ব্যবহার করা, দীর্ঘদিন ধরে ভূগর্ভে আণবিক বোমার পরীক্ষা-নিরীক্ষা ইত্যাদির ফলে প্রাকৃতিক ভারসাম্য বিপর্যস্ত হয়ে চলেছে। মানুষ যেহেতু নিজেও প্রকৃতিরই অংশ, তাই এ বিপর্যয় থেকে তার রক্ষা পাওয়ার উপায় নেই। ...
সামাজিক ও পারিবারিক বিশৃঙ্খলা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৯/০৬/২০১০
বাংলাদেশে এখন যে শুধু অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে চরম বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য বিরাজ করছে তা-ই নয়, সামাজিক ক্ষেত্রে এদিক দিয়ে যে পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে, তার চিত্র ও চরিত্র ভয়াবহ। এটা হওয়াই স্বাভাবিক, কারণ অর্থনীতি ও রাজনীতি সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন কোনো ব্যাপার নয়। উপরন্তু সমাজ সম্পর্ক যেভাবে বিন্যস্ত থাকে, তার প্রতিফলনই ঘটে অর্থনীতি, রাজনীতি ও সংস্কৃতি ক্ষেত্রে। সমাজে যত প্রকার বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য এখন দেখা যাচ্ছে, তার সবকিছুর ওপর আলোচনা এখানে সম্ভব নয়। কাজেই শুধু এর একটি দিক, পারিবারিক সম্পর্ক বিষয়েই এখানে কিছু কথা বলা যেতে পারে। অনেক দিন থেকেই বাংলাদেশে পারিবারিক জীবনে ভাঙন ও বিশৃঙ্খলার দেখা এমনভাবে পাওয়া যাচ্ছে, যা আগে কল্পনাও করা যেত না। এটা সামান্য কয়েক ক্ষেত্রে দেখা গেলে এত বেশি বিপজ্জনক হতো না। কিন্তু ক্রমেই এর ব্যাপকতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া পারিবারিক ক্ষেত্রে ক্রাইম বা অপরাধ এমনভাবে ঘটছে, যার একটি দৃষ্টান্তই দেশের পরিস্থিতি কত ভয়াবহ, তা ভালোভাবে বুঝিয়ে দিচ্ছে। ...
সাম্রাজ্যবাদী কোম্পানি ও মক্কেল দেশের অবস্থা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২২/০৬/২০১০
কাছাকাছি সময়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতে দুটি ঘটনা ঘটেছে। প্রথমটি হলো, বিগত এপ্রিল মাসে মেক্সিকো উপসাগরে ব্রিটিশ পেট্রোলিয়ামের (বিপি) তেল উত্তোলনে বিপর্যয় ঘটায় তেল সমুদ্রের গভীর তলদেশ থেকে উপচে পড়তে শুরু করা। তেল ক্রমাগত বের হয়ে সেই থেকে মেক্সিকো উপসাগর ভাসিয়ে দিচ্ছে। কিছুতেই তা বন্ধ করা যাচ্ছে না। এই সঙ্গে আমেরিকার দক্ষিণে তিনটি রাজ্যের উপকূলে তেল ছড়িয়ে পড়তে থাকায় ওইসব অঞ্চলের পানি এমনভাবে দূষিত হয়েছে, যাতে তার ফলে সব ধরনের জলজ প্রাণী ধ্বংস হওয়ার পথে। এর দ্বারা সমুদ্র উপকূলবর্তী রাজ্যগুলোর জনজীবনও এখন দারুণভাবে বিপর্যস্ত। প্রায় দুই মাস ধরে যখন মেক্সিকো উপসাগরে এই ধ্বংসকাণ্ড চলছে, তখন ভারতের আদালত ১৯৮৪ সালে ভূপালে মার্কিন কোম্পানি ইউনিয়ন কার্বাইডের মালিকানাধীন গ্যাস প্ল্যান্ট বিস্ফোরণের ফলে লাখ লাখ মানুষ নিহত এবং আরও বহু লাখ মানুষ শারীরিকভাবে বড় রকম ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঘটনার মামলার রায় ঘোষণা করেছেন। ...
বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় সান্ধ্যকালীন শিফট
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৫/০৫/২০১০
কয়েক বছর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন সান্ধ্যকালীন ক্লাস নেওয়ার অর্থাৎ সান্ধ্য শিফট চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তখন আমি 'বিশ্ববিদ্যালয় না পাঠশালা?' নামে একটি প্রবন্ধ লিখেছিলাম। সে সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রমণ্ডলী এই সান্ধ্য শিফটের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরেও এর বিরুদ্ধে অনেক প্রতিবাদ হয়। শেষ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই প্রতিরোধের মুখে সান্ধ্য শিফট চালুর সিদ্ধান্ত বাতিল করে। এ ঘটনার বেশকিছু আগে থেকে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) উচ্চশিক্ষা সম্প্রসারণের নামে বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শিফটের দাবি জানিয়ে আসছিল। শিক্ষা সম্মেলন করে সেখানেও তারা এই দাবির সপক্ষে অনেক আলোচনা করে এবং সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু লক্ষ্য করার বিষয় ছিল, কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন সত্যি সত্যি দুই শিফট চালুর সিদ্ধান্ত গৃহীত হলো তখন তার বিরুদ্ধে ছাত্রদের প্রতিক্রিয়া দেখে তারা আর এ নিয়ে কোনো উচ্চবাচ্য করেনি। তারা এতদিন উচ্চশিক্ষা সম্প্রসারণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই শিফটের পক্ষে যে যুক্তি বিস্তার করেছিল, সে যুক্তির ফাঁকা চরিত্র ছাত্ররাই নিজেদের আন্দোলনের মাধ্যমে দেখিয়ে দিয়েছিল। ...
অর্থনীতি
বাংলাদেশের খনিজসম্পদ এবং লুণ্ঠনজীবীরা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১১/০৫/২০১০
মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া সংরক্ষিত বনাঞ্চলে গ্যাস অনুসন্ধানের জন্য সরকার আমেরিকান তেল কোম্পানি শেভরনকে অনুমতি দেওয়ার বিরুদ্ধে অনেক প্রতিবাদ হয়েছিল। এর যুক্তিসম্মত কারণ এই ছিল যে, এ বনাঞ্চলে বহু ধরনের দুষ্প্রাপ্য প্রাণীর বাস। নানা জাতের পশুপাখি থেকে নিয়ে সরীসৃপের অস্তিত্বের জন্য এ বনাঞ্চলের জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ। তেল কোম্পানি সেখানে ভারী ভারী যন্ত্রপাতি নিয়ে, আওয়াজ দিয়ে অনুসন্ধান কাজ চালিয়ে গেলে তার দ্বারা পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ট হয়ে সেখানকার প্রাণিজগতের সমূহ ক্ষতির সম্ভাবনা। কিন্তু সরকার এ বিষয়ে ভ্রুক্ষেপ না করে শেভরনকে গ্যাস অনুসন্ধানের অনুমতি দিয়েছিল। ফলে লাউয়াছড়ার জীবজন্তু, পাখি, সরীসৃপ কীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল, কীভাবে তাদের অনেকে লোকালয়ে বের হয়ে দুর্বৃত্ত প্রকৃতির লোকজনের হাতে নিধন হয়েছিল তার অনেক রিপোর্ট সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছিল। এখন এদিক দিয়ে পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। বর্তমান সরকার আমেরিকান সাম্রাজ্যবাদী তেল কোম্পানি শেভরনকে লাউয়াছড়ায় গ্যাস উত্তোলনের চূড়ান্ত অনুমোদন প্রদান করেছে। ...
মে দিবসের ভণ্ডামি
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০৪/০৫/২০১০
মে দিবস নামে পরিচিত মে মাসের প্রথম দিনটি বাংলাদেশের শাসকশ্রেণীর ডান, বাম, মধ্য_ সব অংশের লোকদের ভণ্ডামির জন্য তুলে রাখা এক বিশেষ দিন। এ ভণ্ডামির সুযোগ তারা এ বছরও হারায়নি। সরকার, বিরোধী দল, সংসদীয় বামপন্থি_ সবাই এ দিন শ্রমিকদের জন্য বাণী বিস্তার করে তাদের উপদেশ দিয়েছে, তাদের পরম হিতাকাঙ্ক্ষী হিসেবে নিজেদের উপস্থিত করার চেষ্টা করেছে এবং শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়া পূর্ণ করার প্রতিশ্রুতি প্রদান অথবা দাবি উপস্থাপন করেছে। এসবের মধ্যে অনেক ধরনের জৌলুস সত্ত্বেও মে দিবসের এসব অনুষ্ঠানের যান্ত্রিক দিক সহজেই লক্ষণীয়। ১৯৭২ সালে শ্রমজীবী জনগণকে প্রতারণার উদ্দেশ্যে ১ মে সাধারণ ছুটি হিসেবে ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই এ অবস্থা চলছে। যারা শ্রমজীবী জনগণের শত্রু তারা যখন শ্রমজীবী জনগণের শুভাকাঙ্ক্ষী সেজে মাঠ গরম করে তখন অবস্থা অন্যরকম হওয়ার কথা নয়। মে দিবস হিসেবে যখন সারাদেশে সরকারি ছুটি উদযাপিত হচ্ছে এবং ওসমানী মিলনায়তন থেকে নিয়ে অনেক জায়গায় সরকার, বিরোধী দলসহ শাসকশ্রেণীর বিভিন্ন অংশের জৌলুসপূর্ণ অনুষ্ঠান হচ্ছে, তখন ঢাকা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে ...
বাংলাদেশে শাসনব্যবস্থার ভাঙন
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২০/০৪/২০১০
বাংলাদেশের শাসনব্যবস্থার ভাঙন এখন এক সর্বাত্মক আকার ধারণ করেছে। এ মুহূর্তে এর একটা বড় দৃষ্টান্ত দেখা গেল সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের কার্যক্রমের মধ্যে। প্রধান বিচারপতির সুপারিশক্রমে রাষ্ট্রপতি ১৭ জনকে হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন। তার মধ্যে ২ জনের বিরুদ্ধে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি এবং হাইকোর্টের অনেক আইনজীবী আপত্তি জানিয়েছিলেন তাদের দুর্নীতি এবং উচ্ছৃঙ্খলতার কারণ দেখিয়ে। ১৮ এপ্রিল প্রধান বিচারপতি ১৫ জন বিচারপতিকে হাইকোর্টের বিচারক হিসেবে শপথ গ্রহণ করালেও উপরোক্ত ২ জনের শপথ গ্রহণ হয়নি। রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে প্রধান বিচারপতির শপথ গ্রহণ না করানো এমন এক ব্যতিক্রমী ব্যাপার, যা আগে ঘটেনি। এক্ষেত্রে দ্বিতীয় ব্যতিক্রমী ব্যাপার হলো, উপরোক্ত শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে আপিল বিভাগের সব বিচারপতির অনুপস্থিতি। এ অনুপস্থিতির সুনির্দিষ্ট কারণ জানা না গেলেও এটি নিশ্চিত, আপিল বিভাগের যে বিচারপতিরা এভাবে অনুপস্থিত ছিলেন তারা প্রধান বিচারপতি কর্তৃক যেভাবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়েছে তার বিরোধী। ...
ছাত্রলীগের দুর্নীতি ও সন্ত্রাস
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৩/০৩/২০১০
ছাত্রলীগের মধ্যে যে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, এর কোনো পূর্ব দৃষ্টান্ত কোনো ছাত্র সংগঠনের মধ্যেই নেই, ছাত্রলীগের নিজের ইতিহাসেও নেই। বিএনপির ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলও গুণগতভাবে ইতিপূর্বে একই কাজ করে থাকলেও এবং তাদের নেতারা ও প্রথম সারির কর্মীরা অনেক রকম দুর্নীতি, দাঙ্গাবাজি ইত্যাদি করে নিজেদের পকেট ভর্তি ও ধনসম্পদ অর্জন করলেও বর্তমানে ছাত্রলীগ যে আকারে এবং যত বেপরোয়াভাবে এসব করছে, এটি তার থেকেও অনেক বেশি। জামায়াতে ইসলামীর ইসলামী ছাত্রশিবির আশির দশকে প্রথম ছাত্র সংগঠনের মধ্যে সন্ত্রাসী তৎপরতা শুরু করে খুন-খারাবি, রগ কাটা, মারধর ইত্যাদির মাধ্যমে ছাত্রসমাজের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছিল। কিন্তু চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, ধর্ষণ, নারীঘটিত কারবার ইত্যাদি তখন তাদের কর্মকাণ্ডের মধ্যে ছিল না। এসব দিক দিয়ে বর্তমানে আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন আগের যে কোনো ছাত্র সংগঠন ও সে সঙ্গে নিজেদের সংগঠনেরও সব রকম রেকর্ড ছাড়িয়ে গিয়ে দেশজুড়েই এক বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। ...
বাংলাদেশে গাছপালা ধ্বংসের মহোৎসব
পরিবেশ
সমকাল
১৬/০৩/২০১০
একটি সংবাদপত্র রিপোর্টে (ডেইলি স্টার, ১৪-৩-২০১০) দেখা যাচ্ছে, গত ২২ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ শ্রীমঙ্গলে নাহার টি গার্ডেনের কাছে কাইলিনপুঞ্জিতে পানের জন্য সংরক্ষিত দুটি পরিবেষ্টনীর (বহপষড়ংঁৎবং) ৪ হাজার গাছ কেটে ফেলার অনুমতি প্রদানের পর ১৩ মার্চ সেখানে ১০০টি গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। এর আগে ২০০৮ সালে সেখানে ১২০০ গাছ কেটে ফেলা হয়েছিল। ২০০৮ সালের ৩০ জুন রহস্যজনকভাবে সরকারের পরিবেশ ও বন বিভাগ মৌলভীবাজারের এই নাহার চা বাগানকে ৪ হাজার গাছ কেটে ফেলার জন্য একটি পারমিট দিয়েছিল। এজন্য তাদের বলা হয়েছিল সরকারি কোষাগারে ৪৭.৫১ লাখ টাকা জমা দেওয়ার জন্য। কিন্তু এর আগেই কোনো সরকারি অনুমতির জন্য আবেদন না করে এবং তার জন্য অপেক্ষা না করে ২০০৬ সালের অক্টোবরে নাহার চা বাগান সালিম টিম্বার অ্যান্ড ট্রেডার্সের সঙ্গে ৪ হাজার গাছ বিক্রির একটি চুক্তি করে। এটি ছিল দেড় কোটি টাকার চুক্তি। এর বিরুদ্ধে খাসিয়া সম্প্রদায় ও বাপা (ইঅচঅ) প্রতিবাদ করায় বন মন্ত্রণালয় ২০০৮ সালের অক্টোবরে এই পারমিট স্থগিত করে। কিন্তু তার আগেই ...
চিলিতে ভূমিকম্প ও সংশ্লিষ্ট প্রসঙ্গ
আন্তর্জাতিক
সমকাল
০২/০৩/২০১০
২৭ ফেব্রুয়ারি শনিবার চিলির উপকূলবর্তী প্রশান্ত মহাসাগরে ৩৪ কিলোমিটার নিচে রিখটার স্কেলে ৮.৮-এর ভূমিকম্প হয়েছে এবং সেই ভূমিকম্পের পরই শুরু হয়েছে সুনামি। ৮.৮-এর মতো উঁচু স্কেলে ভূমিকম্প এক অতি ব্যতিক্রমী ব্যাপার। সাম্প্রতিক ইতিহাসে এত প্রবল শক্তির ভূমিকম্পের কোনো রেকর্ড নেই। এর আগে ১২ জানুয়ারি লাতিন আমেরিকার হাইতিতে হয়েছিল এক প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্প। হাইতির ভূমিকম্পে মৃত্যু এবং অন্যান্য ক্ষতির তুলনায় চিলির এই অনেক বড় আকারের ও শক্তির ভূমিকম্পে মৃত্যুর সংখ্যা এবং সেসঙ্গে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ হয়েছে অনেক কম। কারণ হাইতির থেকে চিলি তুলনামূলকভাবে ধনী দেশ। তাদের শাসন ব্যবস্থা অধিকতর সংগঠিত এবং ভূমিকম্পের মোকাবেলার জন্য রয়েছে কিছু পূর্বপ্রস্তুতি। তাছাড়া এই ভূমিকম্প হয়েছে সমুদ্রে এবং লোকালয়ের যে অংশে সব থেকে বেশি আঘাত লেগেছে_ সেখানে জনসংখ্যা কম। রাজধানী সান্টিয়াগো অথবা তার কাছাকাছি এ ভূমিকম্প হলে ক্ষয়ক্ষতি যে আরও অনেক বেশি হতো এতে সন্দেহ নেই। তবু এতে মৃত্যুর হিসাব এখন পর্যন্ত ৩০০। ...
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্র দুর্নীতি ও সন্ত
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৬/০২/২০১০
ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রামসহ দেশের সর্বত্র কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে এখন যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, তাতে সুষ্ঠু ও স্বাভাবিকভাবে শিক্ষাব্যবস্থা পরিচালনা করা সম্ভব নয় এবং এটা হচ্ছেও না। ১৯৭২ সাল থেকেই বাংলাদেশের নব্য ধনিকশ্রেণী মূলত দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিজেকে গঠন করেছে, তার জেরই এখন ছাত্রসমাজের মধ্যে ব্যাপক দুর্নীতি ও বিশৃঙ্খলার পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এর থেকে বিপজ্জনক ব্যাপার একটি জাতির জীবনে আর কী হতে পারে? যে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় শিক্ষার পরিবেশের পরিবর্তে দুর্নীতির পরিবেশ প্রাধান্যে থাকে এবং সন্ত্রাস রাজত্ব করে, সে দেশে শুধু ছাত্রসমাজই নয়, গোটা সমাজই যে গভীর সংকটে নিমজ্জিত থাকবে_ এটিই স্বাভাবিক। অন্যভাবে বলা যায়, সাধারণভাবে সমাজ এ ধরনের সংকটে পতিত ও নিমজ্জিত না থাকলে সে দেশের ছাত্রসমাজের মধ্যে, উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যে নৈরাজ্যিক পরিস্থিতি এখন দেখা যাচ্ছে, সেটি সম্ভব হতো না। যে তিনটি ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এবং অন্যত্রও এখন দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে, সেগুলো দেশের শাসকশ্রেণীর তিনটি প্রধান রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং তাদের ...
হেমাঙ্গ বিশ্বাসের স্মৃতি
স্মরণ
সমকাল
০৯/০২/২০১০
১৯৭২ সালের গোড়ার দিকেই আমি কলকাতা থেকে পাঠানো দু'জনের চিঠি পাই। একজন হলেন উৎপল দত্ত এবং অন্যজন হেমাঙ্গ বিশ্বাস। দুই চিঠিই এসেছিল হাতে। ১৯৭১ সালেই কলকাতায় আমার ভাষা আন্দোলনের ওপর লিখিত বইটির প্রথম খণ্ড প্রকাশিত হয়েছিল। ঢাকায় সেটি প্রকাশিত হয়েছিল ১৯৭০ সালের নভেম্বরে। আমার বই পড়েই ওরা দু'জন আমাকে চিঠি দিয়েছিলেন। সে সময় কলকাতায় আমার 'সাম্প্রদায়িকতা' ও 'সংস্কৃতির সংকটে'র ওপর অন্য দুটি প্রবন্ধ-সংকলনও পুনর্মুদ্রিত হয়েছিল। এগুলোর প্রকাশকদের সঙ্গে আমার কোনো পূর্ব-যোগাযোগ ছিল না। হেমাঙ্গ বিশ্বাসের সঙ্গে কলকাতায় আমার প্রথম দেখা হয় ১৯৭২ সালের প্রথম দিকে। তিনি আমাকে যে ফোন নম্বর দিয়েছিলেন তাতে ফোন করে তার নাকতলার বাড়িতে যাই। ছোট বাড়ির বসার ঘরে বসে তার সঙ্গে অনেক আলাপ হয়। তাছাড়া সে সময় কিছু গানও শুনি। তার একটি ছোট সঙ্গীত দল ছিল। তাদের কয়েকজনকেও তিনি ওই সময় আসতে বলেছিলেন। পরে অন্য এক সময়, মনে হয় ১৯৭৩ সালে, ক্যাসেট রেকর্ডার নিয়ে গিয়ে তাদের গাওয়া কতকগুলো গান রেকর্ড করেছিলাম। ...
বাংলা একাডেমীর বইমেলা এবং কূপমণ্ডূকতা
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
০২/০২/২০১০
১ ফেব্রুয়ারি থেকে বাংলা একাডেমীর বইমেলা শুরু। এই বইমেলা নিয়ে এ দেশের কিছু লেখককে ফেব্রুয়ারি মাসে যথেষ্ট উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা গেলেও এই বার্ষিক আয়োজনের দ্বারা পাঠকদের, বিশেষত নতুন প্রজন্মের পাঠকদের, বিশেষ কোনো উপকার হয় বলে মনে হয় না। এই মনে না হওয়ার ব্যাপারটা অনেক কারণেই ঘটে। কাজেই এর পরিবর্তে এ বইমেলার আয়োজন অন্য কীভাবে করলে তার দ্বারা শুধু কয়েকজন প্রকাশক ও লেখকের উপকার না হয়ে পাঠকদেরও উপকার হয়, সেই চিন্তা থেকে কিছু কথা বলা দরকার। এসব কথার কোনো গুরুত্ব এ আয়োজনের কর্তৃপক্ষের, বিশেষত সরকারের কাছে না থাকলেও এবং বর্তমান পরিস্থিতির পরিবর্তন বিদ্যমান শাসন কাঠামোর মধ্যে হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ হলেও এ নিয়ে চিন্তাভাবনা যাতে শুরু হতে পারে সে জন্যই এ প্রসঙ্গের অবতারণা করতে হলো। বাংলা একাডেমী ও জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের মতো সরকারি, আধা-সরকারি সংস্থা কর্তৃক ঢাকায় জাতীয়ভাবে একাধিক বইমেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে। এছাড়া অন্যভাবেও কিছু বইমেলা হয়। এসব বইমেলার অনেক অসুবিধা ও সীমাবদ্ধতা আছে। এগুলো দূর করার জন্য ঢাকায় ...
সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সংগ্রামের সংকট
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৬/০১/২০১০
উত্তর-পশ্চিম আফ্রিকা থেকে নিয়ে মধ্য ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া পর্যন্ত মুসলিম অধ্যুষিত দেশগুলো এখন এক বিপজ্জনক রাজনৈতিক সংকটে নিমজ্জিত হয়েছে। এ অঞ্চলের অধিকাংশ দেশ জ্বালানি তেল সম্পদে সমৃদ্ধ। এ কারণে এ দেশগুলোতে দীর্ঘদিন একাধিক বছর ধরে ইঙ্গ-মার্কিন তেল কোম্পানির উপস্থিতি দেখা যায়। দেশগুলো দরিদ্র ও দুর্বল হওয়ায় এবং তেল উত্তোলনের প্রয়োজনীয় প্রযুক্তির অভাবে সাম্রাজ্যবাদী দেশগুলো খুব সহজেই তাদের তেল সম্পদের ওপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে সক্ষম হয়। এই তেল স্বার্থকে কেন্দ্র করে বিংশ শতাব্দীতে, বিশেষত তার দ্বিতীয় ভাগে আমেরিকা, ব্রিটেনসহ অন্য ইউরোপীয় সাম্রাজ্যবাদী দেশগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এ প্রতিযোগিতার কারণে সমগ্র অঞ্চলে শুরু হয় তাদের চক্রান্তমূলক রাজনীতি, আধিপত্য ও নিয়ন্ত্রণ। সৌদি আরব, লিবিয়া, ইরাক, ইরান, মধ্য এশিয়া, আফগানিস্তান, উপসাগরীয় দেশগুলো, সর্বত্রই সাম্রাজ্যবাদীরা নিজেদের এই নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা কায়েম রাখার জন্য রাজনৈতিক তৎপরতা চালায়। ...
'সম্প্রসারিত মধ্যপ্রাচ্য' হওয়ার পথে দক্ষিণ এশিয়
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
১৯/০১/২০১০
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়ন দুই পরাশক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল। সমাজতান্ত্রিক সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে নিজেদের বিশ্ব অবস্থান শক্তিশালী করার উদ্দেশ্যে প্রেসিডেন্ট ট্রুম্যান ও প্রেসিডেন্ট আইসেন হাওয়ারের সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার নতুন সাম্রাজ্যবাদী স্ট্র্যাটেজির ভিত্তি স্থাপন করেছিল। ট্রুম্যান জাপানের ওপর আণবিক বোমা নিক্ষেপ করে এবং আইসেন হাওয়ার দূরপ্রাচ্যে ঝঊঅঞঙ ও মধ্যপ্রাচ্যে ইধমফধফ চধপঃ করে এসব অঞ্চলে নিজেদের সামরিক উপস্থিতি সংহত করেছিলেন। এই মার্কিন নীতির প্রকৃত নির্মাতা ছিলেন তাদের তৎকালীন সেক্রেটারি অব স্টেট বা পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন ফস্টার ডালেস। তিনি আমেরিকার ইতিহাসে এমন একজন শক্তিধর পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন, যিনি প্রকৃতপক্ষে প্রেসিডেন্টের মতোই কাজ করতেন। ১৯৫৮ সালে ইরাকে রাজতন্ত্র উচ্ছেদের সঙ্গে সঙ্গে করিম কাসেমের বিপ্লবী সরকার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং পাকিস্তানসহ তাদের সামরিক শরিকদের সেখান থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার পর ইধমফধফ চধপঃ-এর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ঈঊঘঞঙ। বাগদাদ থেকে উৎখাত হলেও এ সামরিক জোট আগের মতোই মধ্যপ্রাচ্যে তাদের সামরিক তৎপরতা বজায় রাখে। ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩