কলামিস্টদের নাম
সোহরাব হাসান এর কলামগুলো

প্রার্থী’ জিতবে না ‘দল’ জিতবে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৫ জুন, ২০১৩
আজ সকালে যখন পাঠকের হাতে প্রথম আলো পৌঁছাবে, তখন বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী, সিলেট—এই চার সিটি করপোরেশনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে যাবে। সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দারা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের খবর বা বিশ্লেষণ পড়ার চেয়ে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করাকে নিশ্চয়ই অধিক জরুরি কাজ মনে করবেন। কেননা, সাধারণ মানুষের হাতে একটি মাত্র অস্ত্র আছে—ভোট। বাংলাদেশে ভোট হলো খরস্রোতা নদীর মতো, যা মুহূর্তে রাজাকে নিঃস্ব বানায়, আবার নিঃস্বকেও রাজা বানায়। চার সিটি করপোরেশন নির্বাচন কেমন হবে, এর ভবিষ্যৎ রাজা কারা হবেন, তা ...
উল্টো পথে আওয়ামী লীগ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৮ মে, ২০১৩
একটি রাজনৈতিক দলের মূল শক্তি নেতা-কর্মী বা সমর্থক নয়, মূল শক্তি হলো তার নীতি ও আদর্শ। ৬৪ বছর বয়সী আওয়ামী লীগ নানা ঝড়ঝঞ্ঝার মধ্যে টিকে আছে এ কারণে যে, নানা বিচ্যুতি সত্ত্বেও দলটি মোটামুটি একটি অবস্থান নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে পেরেছে; অনেক বাম দলই যেখানে আত্মা ও আত্মপরিচয়কে বিসর্জন দিয়েছে। কিন্তু ইদানীং আওয়ামী লীগের নেতা-নেত্রীদের মুখে সকালে এক কথা, বিকেলে আরেক কথা শুনে মনে হচ্ছে, সেই অবস্থানটি আর নেই। নেতৃত্ব বুঝতে পারছেন না যে কী করবেন। নেতারা একবার বলেন, বিরোধী ...
হেফাজতে বাংলাদেশ চাই
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১১ মে, ২০১৩
১৯৫১ সালের ১৬ অক্টোবর পাকিস্তানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলী খান রাওয়ালপিন্ডিতে এক জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। নিহত হওয়ার আগমুহূর্তে তিনি বলেছিলেন, ‘খোদা, পাকিস্তানকে হেফাজত করো।’ এ ঘটনার ২০ বছরের মাথায় পাকিস্তান ভেঙে যায় এবং লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে বাংলাদেশ নামের একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটে। হেফাজত শব্দটির অর্থ রক্ষণাবেক্ষণ, তত্ত্বাবধায়ন, তদারকি ইত্যাদি। যে শাসকবর্গের হাতে পাকিস্তান রক্ষার দায়িত্ব ছিল, সেই শাসকবর্গ সেটি করতে পারেনি বলেই পাকিস্তান ভেঙে গিয়েছিল। মুহাম্মদ আলী জিন্নাহর ‘পোকায় খাওয়া’ খণ্ডিত পাকিস্তান এখন ...
মৃত্যুকূপবাসিনীদের জন্য একটি প্রার্থনা
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৭ এপ্রিল, ২০১৩
মানুষ কতটা নিষ্ঠুর আর কতটা অমানুষ হলে সাভারের ভয়াবহ দুর্যোগ নিয়ে বাদানুবাদ করতে পারেন। একজন আরেকজনের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে পার পাওয়ার চেষ্টা চালাতে পারেন। ক্ষমতাধর এ মানুষগুলোর মনে সামান্য দয়ামায়া থাকলে এমন কাজ করতে পারতেন না। সবকিছু নিয়ে রাজনীতি করা গেলেও মানুষের জীবন ও মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি কাম্য হতে পারে না। রাজনীতিকেরা হবেন অন্য যেকোনো মানুষের চেয়ে অধিক হূদয়বান, সংবেদনশীল। মানুষের বিপদে-আপদে তাঁরাই ছুটে যাবেন সবার আগে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, দুর্যোগ মোচনের চেয়ে দুর্যোগ তৈরিতেই তাঁরা সিদ্ধহস্ত। কেউ অপরাধীকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেন, কেউ বা শাস্তি না পাওয়ার ব্যবস্থা করেন। সরকারি ও বিরোধী দল কেউ-ই এখন মানুষের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবে না। ক্ষমতা রক্ষা এবং ক্ষমতা পাওয়ার জন্য তারা সদা উদ্গ্রীব। তিন মাস ধরে দেশে আন্দোলন করা কিংবা আন্দোলন ঠেকানোর নামে যা চলেছে, তাকে কোনোভাবেই সুস্থ ও জনকল্যাণমুখী রাজনীতি বলা যায় না। কেউ খেলার নিয়ম মানছে না। আইন মানছে না। যেন হীরক রাজার দেশ। সব পেয়েছির রাজত্ব। না হলে এক ছিঁচকে ...
অবরুদ্ধ দেশ, অবরুদ্ধ মানুষ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৮ মার্চ, ২০১৩
মঙ্গলবার ছিল বাংলাদেশের ৪২তম স্বাধীনতা দিবস। এবারের স্বাধীনতা দিবসটি ‘গৌরবের সমাচারে’ অধিকতর মহিমান্বিত হতে পারত। যেসব বিদেশি নাগরিক মহান মুক্তিযুদ্ধে সহায়তা করেছেন, আমরা তাঁদের সম্মাননা দিয়েছি। এটি চতুর্থ পর্বের সম্মাননা। এ রকম সম্মাননা যেকোনো জাতিরই গর্বের বিষয় এবং তা হওয়া উচিত দলমত-নির্বিশেষে সবার অংশগ্রহণে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেটি হয়নি। সম্মাননা অনুষ্ঠানে বিরোধী দলের কেউই আসেননি। তাঁরা নিশ্চয়ই বলবেন, যথাযোগ্য মর্যাদায় আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। জানালেও কি তাঁরা যেতেন? ...
আওয়ামী লীগের যোগ-বিয়োগ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৫ জানুয়ারি ২০১৩
কেমন হলো আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্ব? কেউ বলছেন, চমক নেই; কেউ বলছেন, যেমনটি হওয়ার কথা তেমনটিই হয়েছে। আবার কারও মতে, আওয়ামী লীগে সাবেক কমিউনিস্টরা ঢুকে দল ও দেশের বারোটা বাজাচ্ছেন। তাঁরা হয়তো আওয়ামী লীগকে একটি প্রগতিশীল দল হিসেবে দেখতে চান না। পঞ্চাশের দশকের আওয়ামী মুসলিম লীগের পুনরাবির্ভাব চান। সাবেক কমিউনিস্টদের আওয়ামী লীগে প্রবেশের পথ বন্ধ করলে সাবেক ডেমোক্রেটিক লীগাররা জায়গা দখল করে নেবেন। সেটাই হয়তো কারও কারও বাসনা। আওয়ামী লীগের মতো একটি বিশাল দলের কাউন্সিল ও কমিটি নিয়ে ভেতরে-বাইরে ...
২০১৩ শুভ না অশুভ?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৯ ডিসেম্বর ২০১২
আগামী সোমবার যে খ্রিষ্টীয় বছরটি শেষ হবে, সেই বছরটি মহাজোট ওরফে আওয়ামী লীগ সরকারের জন্য মোটেই সুখকর ছিল না। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে বিরোধী দলের আন্দোলন কাবু করতে না পারলেও দেশ পরিচালনায় নানা ব্যর্থতা, অব্যবস্থা, অদক্ষতা এবং ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সরকারকে বেশ বেকায়দায় ফেলেছে। ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ক্ষমতা নেওয়ার অব্যবহিত পর পিলখানা ট্র্যাজেডি সত্ত্বেও শেখ হাসিনার সরকার দ্রুত পরিস্থিতি সামাল দিতে পেরেছিল। বিরোধীদলীয় নেতা এখন যা-ই বলুন, সেটাই ছিল বাস্তবসম্মত। সেদিন পিলখানায় সেনা অভিযান চালালে আরও বেশি রক্তপাত হতো। পরবর্তী ...
সরকার কি সত্যকে ভয় পায়?
কলাম
প্রথম আলো
২১ ডিসেম্বর ২০১২
সম্প্রতি ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার যে কাজটি করে রাজ্যব্যাপী বিতর্কের সৃষ্টি করেছে, তাহলো পাঠাগারগুলো থেকে বহুল প্রচারিত বাংলা পত্রিকাগুলো উধাও করে দেওয়া। গত মে মাসে রাজ্য সরকারের গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, রাজ্যের পাঠাগারগুলোতে সংবাদ প্রতিদিন, সকাল বেলা, একদিন, দৈনিক স্টেটসম্যান এবং দুটি উর্দু ও একটি হিন্দি পত্রিকার বাইরে কোনো পত্রিকা কেনা যাবে না। বহুল প্রচারিত আনন্দবাজার পত্রিকা ও বর্তমান এই তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। বাদ দেওয়া হয়েছে ইংরেজি পত্রিকাও। প্রায় অনুরূপ তুঘলকি কাণ্ড ঘটিয়েছে বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন ...
রাষ্ট্র কার: বিশ্বজিৎ না বিকাশদের?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৮ ডিসেম্বর ২০১২
দেশের ১৬ কোটি মানুষের সঙ্গে বিকাশ কুমার বিশ্বাস নামের পুলিশের তালিকাভুক্ত এক সন্ত্রাসীও এবার মুক্ত মানুষ হিসেবে বিজয় দিবস উদ্যাপন করেছেন। কিন্তু পুরান ঢাকার ‘আমন্ত্রণ’ টেইলারিংয়ের বিশ্বজিৎ দাস বিজয় দিবস উদ্যাপন করতে পারলেন না। বিজয় দিবসের কয়েক দিন আগেই বিরোধী দলের অবরোধের এক সকালে ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় সন্ত্রাসী ছুরি, চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে তাঁকে হত্যা করেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর বলেছেন, বিকাশ কুমার বিশ্বাস মুক্তি পেয়েছেন আইন অনুযায়ী। তাঁর ভাষায়, ‘যে ব্যক্তির কথা বলেছেন, তিনি আদালতের নির্দেশেই বের হয়েছেন। এখানে ...
নৈতিক সমর্থন!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৫ ডিসেম্বর ২০১২
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারকে ‘মিথ্যা মামলা’ আখ্যা দিয়ে এই মামলায় আটক ব্যক্তিদের মুক্তির দাবিতে জামায়াতে ইসলামীর হরতাল পালনে আমরা মোটেই বিস্মিত হইনি। স্বাধীনতার পর প্রায় চার দশক তারা হেসেখেলে কাটালেও ৪১ বছরে এসে কট্টর মৌলবাদী এই দলটি প্রথম কঠিন সত্যের মুখোমুখি হলো। দলের সাবেক ও বর্তমান আমিরসহ শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েকজন নেতা যুদ্ধাপরাধ তথা মানবতাবিরোধী অপরাধের অকাট্য প্রমাণসহ এখন বিচারের সম্মুখীন। বিশ্লেষকদের মতে, আন্তর্জাতিক আইন ও দেশীয় আইনের সব শর্ত মেনেই এই বিচার হচ্ছে, অতএব আইনগতভাবে একে চ্যালেঞ্জ করা অসম্ভব, ...
মালালা, হামিদ মির আমরা তোমাদের পাশে আছি
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১ ডিসেম্বর ২০১২
হামিদ মির পাকিস্তানি সাংবাদিক। বেসরকারি টিভি চ্যানেল জিয়ো টিভির নির্বাহী সম্পাদক, জনপ্রিয় কলাম লেখক ও অনুষ্ঠান উপস্থাপক। মালালা ইউসুফজাই ১৪ বছরের এক কিশোরী। স্কুলছাত্রী। বাড়ি পাকিস্তানের পাকতুনখাওয়া প্রদেশের সোয়াত অঞ্চলে। দুজনের মধ্যে পেশা ও পদবিতে কোনো মিল নেই। তবে একটি মিল আছে। দুজনই তালেবান নামের এক দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর নিশানা হয়েছেন। ২০০৯ সালে সোয়াত অঞ্চলে তালেবান জোর করে মেয়েদের স্কুল বন্ধ করে দিলে মালালা ইউসুফজাই প্রতিবাদ করেছিল। প্রতিবাদ করেছিলেন তার বাবাও। তাতে কাজ হয়নি। এরপর মালালা বিবিসির উর্দু ভাষার ...
সরকারের সাংবাদিক বর্জন!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২০ অক্টোবর ২০১২
পৃথিবীর প্রায় সব গণতান্ত্রিক দেশেই রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারপ্রধানের অনুষ্ঠানাদির খবর সংগ্রহের দুটি উপায় আছে। প্রথমত, গণমাধ্যমকর্মীরা অনুমতি নিয়ে সরাসরি সেই অনুষ্ঠানের খবর পরিবেশন করবেন। দ্বিতীয়ত, সেই অনুষ্ঠানে প্রবেশের সুযোগ না দিয়ে সরকার মুখপাত্রের মাধ্যমে গণমাধ্যমকর্মীদের অনুষ্ঠানের খবর জানাবে। নিরাপত্তা বা অন্য কোনো কারণে তারা প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতির সব কর্মসূচিতে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ না-ও জানাতে পারে। সে ক্ষেত্রে অনুষ্ঠান বা কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর সরকারের মুখপাত্র প্রেস ব্রিফিং করবেন এবং সেখানে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানাবেন—এটাই সভ্য ও গণতান্ত্রিক দেশের রীতি। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত না হয়েও গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা তথ্য পাওয়ার অধিকারী। সে কারণেই সরকার মুখপাত্রের মাধ্যমে তার কর্মকাণ্ডের খবর জানিয়ে থাকে। বাংলাদেশে এত দিন প্রধানমন্ত্রীর প্রায় সব অনুষ্ঠানের খবর সংগ্রহের জন্য গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা আমন্ত্রণ পেতেন। এটি ভালো দৃষ্টান্ত। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সম্পর্কও বেশ ভালো বলে আমরা জানতাম। বিশেষ করে, ঢাকার বা দেশের বাইরে কোথাও সফরে গেলে শেখ হাসিনা সব সময় সফরসঙ্গী সাংবাদিকদের সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে খোঁজখবর নেন। ফলে সরকারের ...
দেউলিয়া রাজনৈতিক নেতৃত্ব
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৫ অক্টোবর ২০১২
পাকিস্তানে তালেবান জঙ্গিদের হাতে মালালা ইউসুফজাইয়ের গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনা সে দেশের রাজনৈতিক নেতৃত্বকে ঐক্যবদ্ধ করলেও রামুর সন্ত্রাসী ঘটনা বাংলাদেশের রাজনীতিকদের চৈতন্যোদয় ঘটাতে পারেনি। সেই রাজনৈতিক নেতৃত্বই প্রাজ্ঞ ও বিচক্ষণ বলে বিবেচিত হয়, যে নেতৃত্ব জাতীয় দুর্যোগে সঠিক সিদ্ধান্তটি নিতে পারে। সন্ত্রাসীরা যখন বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অস্তিত্ব ধরে টান দিয়েছে, তখন নেতা-নেত্রীরা কাদা ছোড়াছুড়িতে ব্যস্ত আছেন। এটি কিসের লক্ষণ? স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতৃত্ব খুব কম ক্ষেত্রেই দূরদর্শিতার পরিচয় দিয়েছে; যে কারণে বারবার অসাংবিধানিক শাসন জেঁকে বসেছে। তার চেয়েও কঠিন সত্য হলো, আমাদের গণতান্ত্রিক শাসকেরা দেশকে এমন অবস্থায় নিয়ে গেছেন, যখন যে উপায়েই ক্ষমতার পরিবর্তন হোক না কেন, জনগণ মহা-উৎসাহে তাকে স্বাগত জানিয়েছে; যদিও তার ফল ভালো হয়নি। ১৯৮২ সালে এরশাদের সামরিক শাসন জারি এবং ২০০৭ সালের সেনা-সমর্থিত সরকার প্রতিষ্ঠায় ক্ষণিকের জন্য হলেও জনগণ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছিল। কেন? সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে বের করতে হবে রাজনীতিকদেরই। এখন যাঁরা ক্ষমতায় কিংবা বিরোধী দলে থেকে ফের এক-এগারো আসবে বলে জুজুর ভয় দেখাচ্ছেন, তাঁদের ...
শিক্ষাঙ্গনের অস্থিরতায় রাজনৈতিক ইন্ধন থাকতে পারে
মুক্তধারা
১০ অক্টোবর ২০১২
সম্প্রতি দেখা যাচ্ছে, দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো একটুতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। সৃষ্টি হচ্ছে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি। দেশের উচ্চশিক্ষার বিদ্যাপীঠগুলোতে এমন হচ্ছে কেন? এম. আবদুস সোবহান : ১৯৭৫-পরবর্তী অগণতান্ত্রিক স্বৈরশাসকরা ছাত্ররাজনীতিতে পচন ধরিয়েছে; যার ধারাবাহিকতা এখনো চলছে। ছাত্ররাজনীতির গুণগত পরিবর্তন না হওয়ার জের ও বর্তমানে মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারপ্রক্রিয়া ভণ্ডুল করার জন্য স্বাধীনতাবিরোধী প্রতিক্রিয়াশীল ধর্মান্ধ গোষ্ঠী দেশজুড়ে তথা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহে, বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে চলেছে। কালের কণ্ঠ : বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর এ অস্থিরতার নেপথ্যে রাজনৈতিক ইন্ধন আছে বলে মনে করেন কি? এম. আবদুস ...
‘বিএনপি কি ক্ষমতায় এসেই গেছে?’
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৮ অক্টোবর ২০১২
আমাদের দেশে যাঁরা ক্ষমতায় থাকেন, তাঁদের মাথা ঠিক থাকে না বলে একটি কথা প্রচলিত আছে। কিন্তু বিরোধী দলে গিয়েও যদি কারও মাথা বেঠিক হয়ে যায়, তা মহা চিন্তার বিষয়। সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী দলের নেতাকে বিকল্প প্রধানমন্ত্রী ভাবা হয়। যদিও আমাদের দেশে কোনো বিরোধীদলীয় নেতাই দায়িত্বশীল আচরণ করেননি, এখনো করছেন না। কেননা, নির্বাচনের পরদিন থেকেই তাঁরা রাজনীতি শুরু করেন ‘মানি না মানব না’ স্লোগান দিয়ে। নির্বাচনে জয়ী হলে সবকিছু ঠিক আছে, নির্বাচন কমিশন ভালো, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ভালো, পুলিশ ভালো, বিজিবি ...
ইতিমণি, তুমি আমাদের ক্ষমা করো
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৪ অক্টোবর ২০১২
অঘটনের দেশ বাংলাদেশ। একটার পর একটা অঘটন ঘটে চলেছে। বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া যখন আগামী ডিসেম্বরের পর কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছিলেন তখন ভেবেছিলাম, অন্তত দুটি মাস দেশের মানুষ শান্তিতে থাকতে পারবে। কিন্তু অক্টোবর শুরু না হতেই কক্সবাজার থেকে রাজশাহী—হঠাৎ সারা দেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। রাস্তায় ভাঙচুর শুরু হয়ে গেছে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে সন্ত্রাসীরা কক্সবাজারের রামু উপজেলার বৌদ্ধপল্লিতে সংঘবদ্ধ হামলা চালিয়ে বহু বৌদ্ধমন্দির, বিগ্রহ ও বসতবাড়ি আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে, ভাঙচুর করেছে। কারা হামলাকারী তা নিয়ে রাজনীতি চলছে। এক দল ...
শেখ হাসিনার সম্প্রসারিত ‘নবরত্নসভা’
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৫/০৯/২০১২
শেখ হাসিনার সরকারের ব্যর্থতার পাল্লা যত ভারী হচ্ছে, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যাও তত বাড়ছে। গত বৃহস্পতিবার নতুন সাতজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী শপথ নিয়েছেন। তাঁরা কি কোনো কাজে সাফল্য দেখাতে পারবেন? এঁদের মধ্যে একজন ছাড়া সবাই অনভিজ্ঞ, প্রায় অপরিচিত। বলতে গেলে অভিজ্ঞতাও নেই। দলের কর্মীরাও তাঁদের চেনেন না, প্রধানমন্ত্রী চেনেন, এটাই একমাত্র যোগ্যতা। সরকারের অদক্ষতা, অব্যবস্থা ও দুর্নীতির বিষয়টি যখন সর্বমহলে আলোচিত ও সমালোচিত, তখন ধারণা করা হয়েছিল, পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শক্ত পদক্ষেপ নেবেন। অন্তত অদক্ষ, বিতর্কিত ও দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত মন্ত্রীদের মন্ত্রিসভা থেকে ...
এক দাম্ভিক পাকিস্তানি সেনার চোখে একাত্তর
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৮/০৯/২০১২
অন্য পাকিস্তানি সেনা কর্মকর্তাদের চেয়ে খাদিম হুসেন রাজার দৃষ্টিভঙ্গিতে খুব পার্থক্য নেই। তার পরও তাঁর লেখা এ স্ট্রেনজার ইন মাই ওউন কান্ট্রি পাকিস্তান ১৯৬৯-১৯৭১ বইটি নিয়ে পাকিস্তান ও বাংলাদেশে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে কিছু সাহসী সত্য পাঠকের সামনে তুলে ধরার জন্য। এর একটি হলো একাত্তরে পূর্বাঞ্চলীয় সামরিক কমান্ডার জেনারেল এ কে নিয়াজির বক্তব্য। তিনি বলেছিলেন, ‘এই হারামজাদা জাতি জানে না, আমি কে? আমি তাদের জাত বদলে দেব।’ খাদিম হুসেন বিদায়ের মুহূর্তে তাঁর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে নিয়াজিকে বোঝাতে গিয়েছিলেন, কীভাবে যুদ্ধ ...
জনপ্রিয়তা যাচাই, ঢাকায় নয় কেন?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৫/০৯/২০১২
তানজিম আহমদ সোহেল তাজের ছেড়ে দেওয়া আসন গাজীপুর-৪-এ উপনির্বাচন হবে ৩০ সেপ্টেম্বর। আমাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে একটি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন খুব একটা তাৎপর্য বহন করে না। কিন্তু বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের জন্মভূমি কাপাসিয়ার এই উপনির্বাচনটি সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে এ কারণে যে এতে অন্যতম প্রার্থী হয়েছেন তাঁরই কন্যা সিমিন হোসেন রিমি। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কে হবেন, তা নিয়ে বেশ জল্পনা ছিল। শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য জোহরা তাজউদ্দীনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাজউদ্দীন ...
এই ছবি! এই পুলিশ!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০১/০৯/২০১২
ছবি কখনো মিথ্যে বলে না। গত বুধবার ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার-এর প্রথম পাতায় ছয় কলামজুড়ে প্রকাশিত ছবিটি দেখে আমরা একই সঙ্গে ক্ষুব্ধ ও বিপন্ন বোধ করছি। ছবিতে দেখা যায় একজন নিরস্ত্র তরুণের ওপর পাঁচ-ছয়জন পুলিশ কমান্ডো কায়দায় ঝাঁপিয়ে পড়েছে। পেছন থেকে একজন পুলিশ তরুণটিকে পাকড়াও করে কনুই দিয়ে সজোরে তাঁর ঘাড় চেপে রেখেছে, যাতে তিনি পালিয়ে যেতে না পারেন। আরেকজন পুুলিশ সামনের দিক থেকে তরুণটির শরীরের মাঝ বরাবর সবুট লাথি মেরে শক্তি প্রদর্শন করছেন, তাঁর ডান হাতে ধরা আগ্নেয়াস্ত্র। ...
বিএনপির ক্ষমতার খোয়াব ও গলার কাঁটা
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৪/০৭/২০১২
২০০৬ সালের অক্টোবরের পর প্রায় ছয় বছর বিএনপি ক্ষমতার বাইরে থাকলেও ক্ষমতার ক্লেদ ও ক্লান্তি তাদের পিছু ছাড়ছে না। বিভিন্ন মত ও পথের অনুসারীদের নিয়ে গড়ে ওঠা এই দলটি আদর্শিক ও সাংগঠনিকভাবে বরাবরই দুর্বল ছিল। প্রতিটি বিপর্যয়ের পর বিএনপি ঘুরে দাঁড়িয়েছে নেতা নয়, কর্মীদের শক্তিতে। কিন্তু এবার বিএনপি যে নতুন প্রজন্মের কর্মীদের দলে টানতে পারেনি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রদলের নাজুক অবস্থাই তার প্রমাণ। বিএনপিতে এখন কর্মীর চেয়ে নেতা বেশি এবং সেই নেতাদের অধিকাংশ দৃশ্যমান নেতৃত্বের চেয়ে অদৃশ্যমান নেতৃত্বের প্রতি ভক্তি ও ...
আওয়ামী লীগের পৃথিবী ছোট হয়ে আসছে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৭/০৭/২০১২
পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের ঋণচুক্তি বাতিল নিয়ে দেশব্যাপী তোলপাড় হচ্ছে। ঋণচুক্তি বাতিল হওয়ার পর জনদরদি মহাজোট সরকার বিশ্বব্যাংক যে কত বড় দুর্নীতিবাজ, তা প্রমাণ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। পৃথিবীর কোন দেশের নামকরা অর্থনীতিবিদ বিশ্বব্যাংকের দুর্নীতি সম্পর্কে কী মন্তব্য করেছেন, কোন পত্রিকা কী প্রতিবেদন করেছে, তার ফিরিস্তি দিচ্ছেন মন্ত্রীরা। বিশ্বব্যাংক যদি এত খারাপ প্রতিষ্ঠানই হয়ে থাকে, তাহলে ঋণচুক্তি করার আগে কেন দেশবাসীকে সে সম্পর্কে কিছু জানানো হলো না? কেন জনগণকে জিজ্ঞাসা করা হলো না, এই বদনামি প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে আমাদের চুক্তি করা ঠিক হবে কি না? ঋণচুক্তি বাতিলের পর জাতীয় সংসদের উপনেতা সাজেদা চৌধুরী তো বলেই ফেলেছেন, ‘এক বেলা বাজার না করে সেই পয়সা দিয়ে পদ্মা সেতু করবেন।’ কিন্তু বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপনের আগে কেন এ আহ্বান জানালেন না তিনি? তখন যদি এক বেলা বাজার না করে (মাননীয়ার কাছে জানতে চাই, বাংলাদেশের কতজন মানুষ দিনে দুই বেলা বাজার করে?) নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতু করার কথা বলতেন, মানুষ বিশ্বাস করত। এখন বিশ্বব্যাংকের কাছ ...
ধনবান মন্ত্রী-সাংসদদের গাড়ি-ক্ষুধা
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২৪/০৬/২০১২
স্বৈরশাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৯৮৬ সালে যে নির্বাচন করেছিলেন, তা নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। বিএনপি এই নির্বাচন বর্জন করেছিল। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে অংশ নিলেও শেষ পর্যন্ত সংসদে থাকতে পারেনি। ১৯৮৭ সালের নভেম্বরে নূর হোসেনের জীবন দেওয়া আন্দোলনের মুখে এরশাদ সংসদ ভেঙে দিতে বাধ্য হয়েছিলেন। দেশের সর্বোচ্চ আদালত জিয়া ও এরশাদের সামরিক শাসনকে অবৈধ ঘোষণা করলেও তাঁদের আমলের গণবিরোধী আইনগুলো পরবর্তী গণতান্ত্রিক সরকার ঠিকই রেখে দিয়েছিল। এ রকমই একটি গণবিরোধী আইন হলো ১৯৮৭ সালের ২৪ মে পাস করা সাংসদদের জন্য শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানি। এই আইনের সুবিধা নিয়েছেন পরবর্তীকালে নির্বাচিত সাংসদেরা। মাঠে-ময়দানে যাঁরা এরশাদকে স্বৈরাচার বলে কষে গাল দিয়েছেন, তাঁদের অনেকেই তাঁর কাছ থেকে বৈধ-অবৈধ সুবিধা নিয়েছেন। এ কারণেই স্বৈরাচারী শাসক নয় বছর ক্ষমতায় থাকতে পেরেছেন। ...
পাকিস্তান : আগাম নির্বাচন, না সেনাশাসন?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২০/০৬/২০১২
পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের রায়ে প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি পদচ্যুত হওয়ার পর দেশটির রাজনীতি কোন দিকে মোড় নেয়, সেটাই এখন আলোচনার বিষয়। পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) এ মুহূর্তে আদালতের সঙ্গে বিরোধে না গিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্যই যে প্রাণপণ চেষ্টা চালাবে, তা নিশ্চিত। ইতিমধ্যে দলটি নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মখদুম শাহাবুদ্দিনকে মনোনয়ন দিয়েছে। পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের আগামীকাল আহূত অধিবেশনে তাঁর প্রধানমন্ত্রী পদে অধিষ্ঠিত হওয়া হয়তো কঠিন হবে না; কিন্তু তাতে সংকট কাটবে কি? গিলানি সর্বোচ্চ আদালতের যে আদেশ অমান্য করেছেন, সে আদেশ নতুন প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মান্য করা সম্ভব না হলে তাঁকেও পদচ্যুতির ঝুঁকি নিতে হবে কিংবা গিলানিকে সরিয়ে যদি সুপ্রিম কোর্ট চুপচাপ বসে থাকেন, তাহলে প্রতিষ্ঠানটি গ্রহণযোগ্যতা হারাবেন। ...
১৭৫ আসন শুধু ৭৫ হতে কতক্ষণ?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৫/০৬/২০১২
নির্ভেজাল সুখ ও সুখবর বলতে কিছু নেই। একটি সুসংবাদের পাশে আরেকটি দুঃসংবাদ প্রায় পিঠাপিঠি লেগে আছে। বাংলাদেশে এই সত্যটি ভয়াবহভাবে নির্মম। বিশ্বমন্দা সত্ত্বেও দেশের অর্থনীতি যখন এগিয়ে চলেছে, বাজেটে প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ২ শতাংশ হবে বলে আশা জাগানো হচ্ছে, তখনই সরকার ও বিরোধী দল রাজপথে অহেতুক কাজিয়ায় লিপ্ত। একদিকে বাংলাদেশের মেয়েরা এভারেস্ট জয়ের বিরল গৌরব অর্জন করছেন, অন্যদিকে বিচারপ্রার্থী নারী প্রকাশ্যে পুলিশের হাতে লাঞ্ছিত হচ্ছেন। টাকার অবমূল্যায়নের সুযোগে পোশাকশিল্পের মালিকেরা যখন বাড়তি মুনাফা করছেন, তখন এই শিল্পে কর্মরত শ্রমিকদের প্রকৃত মজুরি কমে যাচ্ছে। মালিকেরা শ্রমিকদের বেঁচে থাকার জন্য ন্যূনতম মজুরিও দিতে রাজি নন। যে কারণে কয়েক দিন ধরে আশুলিয়া অশান্ত। বৃহস্পতিবার প্রথম আলোর খবর অনুযায়ী, বিশ্বশান্তি সূচকে (জিপিআই) বাংলাদেশের অবস্থান ভারত ও পাকিস্তানের অনেক ওপরে। ...
তবুও আবুল হোসেন!
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৫/০৬/২০১২
`কাদম্বিনী মরিয়া প্রমাণ করিয়াছিল সে মরে নাই'। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সৈয়দ আবুল হোসেনকে যোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে প্রকারান্তরে স্বীকার করে নিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে এত দিন যেসব দুর্নীতি, অযোগ্যতা ও অনিয়মের অভিযোগ এসেছিল তার সবটা মিথ্যে নয়। সোমবার মন্ত্রিসভার দপ্তর পুনর্বিন্যাসে দেখা গেল, যোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে সৈয়দ আবুল হোসেন বিতাড়িত হলেও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন। যোগাযোগ প্রযুক্তি আছে, কিন্তু পদ্মা সেতু নেই। নতুন যোগাযোগমন্ত্রী হয়েছেন ওবায়দুল কাদের, রেলমন্ত্রী হয়েছেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। প্রথমেই যে প্রশ্নটি ওঠে তা হলো, একজন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে যখন গুরুতর অভিযোগ উত্থাপিত হয় এবং সেই অভিযোগ যখন দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্তাধীন থাকে, তখন তাঁকে মন্ত্রী পদে রাখা কতটা সমীচীন? ...
বিএনপির ‘না’কে ‘হ্যাঁ’ করাবে কে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০১/০৬/২০১২
২৩টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে সার্চ বা অনুসন্ধান কমিটি গঠনের যে প্রস্তাব দিয়েছেন তাতে চলমান বৈরী রাজনীতিতে সমঝোতার ক্ষীণ আলোকরেখা দেখেছিলেন কেউ কেউ। কিন্তু প্রধান বিরোধী দল বিএনপি সেই আলোকরেখাটি দপ করে নিভিয়ে দিল। দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার বলেছেন, ‘আমরা মানি না।’ কী মানেন না? সরকারের কোনো সিদ্ধান্ত নয়। নির্বাচন কমিশনার পদে কারও নামের প্রস্তাব নয়। তিনি সরাসরি সার্চ কমিটি গঠনের প্রস্তাবকেই নাকচ করে দিয়েছেন। কেননা তাঁদের এক দফা এক দাবি, ‘সবার আগে চাই নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার।’ তার আগে গাছের পাতাও নড়বে না, বাতাসও বইবে না। ...
গণতন্ত্র, তুমি জেগে আছো, না ঘুমিয়ে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৮/০৫/২০১২
বাংলাদেশে গণতন্ত্র কোন অবস্থায় আছে, তার একটি মূল্যায়ন করেছে ব্রিটেনের প্রখ্যাত সাপ্তাহিক ইকোনমিস্ট-এর থিংকট্যাংক ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট। প্রতিবছর সংস্থাটি বিশ্বব্যাপী গণতন্ত্রের হালহকিকত নিয়ে জরিপ প্রকাশ করে। ২০১১ সালের জরিপে বাংলাদেশ ১৬৭টি দেশের মধ্যে ৮৩তম স্থান পেয়েছে। গত বছরের অবস্থানও ছিল তাই। অর্থাৎ সূচকের পরিবর্তন হয়নি। প্রতিবেশী ভারত ৩৯তম ও শ্রীলঙ্কা ৫৭তম অবস্থানে আছে। বাংলাদেশের নিচে আছে পাকিস্তান, নেপাল ও ভুটান। এ নিয়ে ‘গণতান্ত্রিক’ সরকার আহ্লাদিত হতে পারে। চলতি বছরে ৯ দশমিক ৮ পয়েন্ট পেয়ে নরওয়ে প্রথম স্থান দখল করেছে। গত বছর প্রথম অবস্থানে ছিল সুইডেন। জরিপে আরও বলা হয়, ২০১১ সালে বিশ্বব্যাপী গণতন্ত্রের সূচক ছিল নিম্নগামী। অর্থনৈতিক ও আর্থিক সংকট কতিপয় দেশকে কর্তৃত্ববাদী শাসনের দিকে ঠেলে দিয়েছে। ...
শিকড়ের, না ব্যবসায়ীদের আওয়ামী লীগ?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৭/০৫/২০১২
বাটি চালান তত্ত্ব বনাম গণতন্ত্র শূন্য কলস বাজে বেশি। কাজে জোর থাকলে কথার জোরের প্রয়োজন হয় না। সাম্প্রতিককালে মন্ত্রীদের উল্টাপাল্টা বিবৃতি ও বক্তব্য শুনে মনে হচ্ছে, তাঁদের কাজের জোর একেবারেই কমে গেছে। ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগের নেতা ও মন্ত্রীরা মহা-উৎসাহে দিনবদলের কথা বলতেন, বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের খোয়াব দেখাতেন। কিন্তু তিন বছর চার মাস পর এখন আর তাঁদের মুখে সেসব আশার বাণী শোনা যাচ্ছে না। মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, নেতা-পাতিনেতারা হররোজ বিরোধী দল ও গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে হুঙ্কার ছাড়ছেন। যেকোনো ঘটনার ...
রাজনীতি বড়, না মানবতা?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৬/০৫/২০১২
গত ২ মে সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে নিখোঁজ বিএনপির নেতা ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীরের সাক্ষাতের দৃশ্যটি যাঁরা টিভির পর্দায় দেখেছেন, তাঁরা আবেগাপ্লুত হয়েছেন। প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের একজন নেতার স্ত্রী হিসেবে রুশদীরকে তিনি সাক্ষাৎ দিয়েছেন, তা মনে হয়নি। দুই কিশোর পুত্র ও এক শিশুকন্যাকে নিয়ে রুশদীর গিয়েছিলেন দেশের প্রধান নির্বাহীর কাছে নিখোঁজ স্বামীর সন্ধান পেতে। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে সালাম করলেন। প্রধানমন্ত্রীও তাঁকে পরম আদরে বুকে টেনে নিলেন, যে ছবি পরদিন প্রায় সব পত্রিকায়ই ছাপা হয়েছে। আলোচনার সময় প্রধানমন্ত্রী ...
আওয়ামী লীগ কি সত্যিই বিপদে পড়েছে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২০/০৪/২০১২
দুই সপ্তাহ আগে ১৪ দলের একজন প্রভাবশালী নেতা ও সাংসদ অভিযোগ করেছিলেন, ‘সরকার আমাদের কোনো পরামর্শ নেয় না।’ আওয়ামী লীগ ওরফে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় এসেছে প্রায় তিন বছর হলো। এর মধ্যে ১৪ দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের কোনো বৈঠক হয়নি। জোটের প্রধান শরিক আওয়ামী লীগ না চাইলে কীভাবে বৈঠক হবে? নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগের নেতাদের হাবভাব দেখে মনে হতো, দেশ চালাতে ১৪ দল বা মহাজোটের শরিকদের বুদ্ধি-পরামর্শের প্রয়োজন নেই। নাগরিক সমাজ বা গণমাধ্যমের সমালোচনাও আমলে নেওয়ার দরকার নেই। কেননা আওয়ামী লীগে এত বাঘা বাঘা নেতা আছেন, যাঁরা চোখ বন্ধ করেও দেশ চালাতে পারেন। দেশের সব সমস্যার সমাধান তাঁদের নখদর্পণে। ১৪ দলীয় ওই নেতার আক্ষেপ প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে দেখা গেল, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে ১৪ দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের নিয়ে ‘সফল’ বৈঠক করলেন। ...
‘ওয়াদা’ ও ‘শপথ ভঙ্গকারী’ সাংসদেরা
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২২/০৩/২০১২
নব্বইয়ের গণ-অভ্যুত্থানের পর এ পর্যন্ত পাঁচটি সংসদ গঠিত হয়েছে। ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন বাদ দিলে চারটি। এ চার সংসদের কার্যক্রম পর্যালোচনা করলে আমরা দেখব, পরের সংসদের চেয়ে আগের সংসদটি কিঞ্চিৎ বেশি কার্যকর ছিল। অন্তত বিরোধী দলের অনুপস্থিতির নিরিখে এ কথা বলা যায়।  পরিসংখ্যানে দেখতে পাই, পঞ্চম সংসদে মোট ৪০০ কার্যদিবসের মধ্যে বিরোধী দল বয়কট করেছে ১৩৫ দিন (১৯৯১-১৯৯৫)। সপ্তম সংসদে মোট ৩৮২ কার্যদিবসের মধ্যে বিরোধী দল বর্জন করেছে ১৬৩ দিন (১৯৯৬-২০০১)। অষ্টম সংসদে মোট ৩৭৩ কার্যদিবসের মধ্যে বিরোধী দল বর্জন করেছে ২২৩ দিন (২০০১-২০০৬)। ২৫ জানুয়ারি তক বর্তমান সংসদে অধিবেশন চলেছে ২৫৫ দিন। বিরোধী দল বর্জন করেছে ২০১ দিন। উপস্থিত ছিল মাত্র ৫৪ দিন। এ ধারা বজায় থাকলে আগামী দেড় বছরে তাদের অনুপস্থিতি ৩০০-এর ঘর ছাড়িয়ে যাবে। আর সরকারি দল ও বিরোধী দল সংসদ অকার্যকর করার জন্য পরস্পরকে দোষারোপ করতে থাকবে। বিরোধী দলে অভিযোগ, বর্তমান সংসদে তারা শত শত মুলতবি প্রস্তাব আনলেও স্পিকার একটি নিয়ে আলোচনা করেননি। ...
কে এফ রুস্তামজির চোখে ১৯৭১
মুজিব ভাই বলেছেন, 'ভারতকে বিব্রত কোরো না'
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৮/০৩/২০১২
কে এফ (খসরু ফারামুজ) রুস্তামজি। ১৯৭১ সালে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের মহাপরিচালক ছিলেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। নয়াদিল্লির উইজডম ট্রি প্রকাশিত রুস্তামজির আত্মজীবনীমূলক বই দ্য ব্রিটিশ দ্য বেনডিট অ্যান্ড দ্য বর্ডার মেন অবলম্বনে এ লেখাটি তৈরি করা হয়েছে। এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে কে এফ রুস্তামজি ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতা তাজউদ্দীন আহমদের বৈঠকেরও ব্যবস্থা করে দেন। ১০ এপ্রিল প্রবাসী বাংলাদেশ সরকার গঠন ও ১৭ এপ্রিল মুজিবনগরে সেই সরকারের শপথগ্রহণেও তাঁর অগ্রণী ভূমিকা ছিল। ...
জাসদ: না বিপ্লব, না সমাজতন্ত্র
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৩১/০৩/২০১১
আমাদের লক্ষ্য বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র’ স্লোগান নিয়ে ১৯৭২ সালের ৩১ অক্টোবর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল—জাসদ গঠিত হলে এর প্রতি ব্যাপকসংখ্যক তরুণ আকৃষ্ট হয়। মূল নেতা সিরাজুল আলম খান হলেও সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হন যথাক্রমে মেজর এম এ জলিল ও আ স ম আবদুর রব। সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে জনগণের যে বিপুল আশা-আকাঙ্ক্ষা ও প্রত্যাশা ছিল তা পূরণে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ব্যর্থ হতে যাচ্ছিল। ...
আওয়ামী লীগের ভোটে ভাটার টান
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৭/০১/২০১১
ভোটাররা আবারও প্রমাণ করলেন, তাঁরাই সার্বভৌম, কোনো দলের বন্ধকি সম্পত্তি নন। দেশের সাতটি বিভাগের মধ্যে গত সপ্তাহে যে চারটি বিভাগের ১২১টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো, তাতে যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও তার দোসর জাতীয় পার্টি যে সন্দেহাতীতভাবে খারাপ করেছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কেন এমনটি হলো? দলের নেতারা বলার চেষ্টা করছেন, অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও বিদ্রোহী প্রার্থীরাই এর জন্য দায়ী। এটি অর্ধসত্য মাত্র। পুরো সত্য হলো, ভোটাররা ক্ষমতাসীনদের প্রতি পিঠ ফেরাতে শুরু করেছেন। দুই বছর আগে যে আশা নিয়ে ভোটাররা আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করেছিলেন, সেই আশা সামান্যই পূরণ হয়েছে। ...
আবার তারেক যুগ! আবার হারিছ প্রশাসন!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১২/০৩/২০১১
ঘটনাটি কাকতাল কি না, জানি না। সারা দেশের মানুষ পনেরোই আগস্ট শোক দিবস হিসেবে পালন করলেও বিএনপি সাড়ম্বরে দেশনেত্রীর জন্মদিন পালন করে। আবার সাতই মার্চকে আমরা সবাই জানি রমনা রেসকোর্সে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ দিবস হিসেবে। যেখান থেকে পাকিস্তানিদের চূড়ান্ত কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। ২০০৯ সাল থেকে বিএনপি এটিকে তারেক রহমানের কারাবরণ দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। কারণ, সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ২০০৭ সালের ৭ মার্চ বিএনপির তৎকালীন যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানকে গ্রেপ্তার করে দুর্নীতির দায়ে। ...
মধ্যবর্তী নির্বাচনের জুজু ও দিন না-বদলের রাজনীত�
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০২-০৩-২০১১
যখন লিবিয়ায় আটকে পড়া হাজার হাজার বাংলাদেশি অবর্ণনীয় দুঃখ-যন্ত্রণা ভোগ করছেন, যখন তাঁদের কেউ কেউ সর্বস্ব হারিয়ে খালি হাতে দেশে ফিরে বিমানবন্দরেই আহাজারি করছেন, তখন আমাদের রাজনৈতিক নেতৃত্ব তাঁদের প্রতি মৌখিক সান্ত্বনা জানানোরও প্রয়োজন বোধ করেন না। অতীতের মতো তাঁরা কাদা-ছোড়াছুড়িতে ব্যস্ত। সোমবার টিভির খবরে শুনলাম, প্রধানমন্ত্রী লিবিয়ায় আটকে পড়া বাংলাদেশিদের উদ্ধারে পররাষ্ট্র এবং শ্রম ও প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন। তারা কি প্রশংসনীয় কাজ করল, দেশবাসী জানে না। তবে পরদিন পত্রিকায় আতঙ্কজনক খবর বের হয়েছে, ত্রিপোলির বাংলাদেশ দূতাবাস লুট হয়েছে, কয়েকজন কর্মকর্তাকে জিম্মি করা হয়েছে। ...
হরতাল অথবা বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বিএনপির উপহার!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৫/০২/২০১১
আড়িয়ল বিলে নতুন বিমানবন্দর নির্মাণ নিয়ে যে সংকটের সৃষ্টি হয়েছিল, সরকার তা মোটামুটি সামাল দিয়েছে। যদিও একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে জীবন দিতে হয়েছে। পক্ষকাল ধরে বিল এলাকায় ছিল টানটান উত্তেজনা। আশা করি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণার পর সেই উত্তেজনারও অবসান ঘটবে। বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সরকার আড়িয়ল বিলে বিমানবন্দর স্থাপন করবে না; বিমানবন্দর হবে পদ্মার ওপারে। এই প্রসঙ্গে তিনি বিরোধী দলের নেত্রী খালেদা জিয়ার দাবি মেনে নেওয়ার কথাও বলেন। খালেদা জিয়া বলেছিলেন, কোনোভাবেই আড়িয়ল বিলে বিমানবন্দর প্রতিষ্ঠা করতে দেওয়া হবে না। ...
জামায়াত ও হেফাজতের বন্ধু বিএনপি
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০১ জুন, ২০১৩
রাজনীতিকদের সমস্যা হলো তাঁরা পুরো দেশটিকে ‘হয় আমার না হয় তাঁর’ এই দুই দলে ভাগ করেন। জর্জ ডব্লিউ বুশের সেই দর্শনে তাঁরা বিশ্বাস করেন, ‘যে আমার সঙ্গে নেই সে আমার শত্রু।’ এর মাঝামাঝি কিছু হতে পারে না। ১৮ ও ১৯ মে প্রথম আলোতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সাম্প্রতিক রাজনীতি নিয়ে দুটি লেখা প্রকাশিত হয়। প্রথমটির শিরোনাম ছিল ‘উল্টো পথে আওয়ামী লীগ’, দ্বিতীয়টির ‘গভীর সংকটে বিএনপি।’ প্রথমটি প্রকাশের পর আওয়ামী লীগের নেতারা ক্ষুব্ধ এবং বিএনপির নেতারা পুলকিত হলেও লিখিত প্রতিক্রিয়া ...
হাসিনা-খালেদা পত্রবিনিময়
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৪ মে, ২০১৩
‘আপনি আমার আন্তরিক অভিনন্দন গ্রহণ করুন। আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে ১৯৯১ সালে নির্বাচিত জাতীয় সংসদের মেয়াদ খুব শিগগির শেষ হতে যাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই সংবিধান অনুযায়ী অদূর ভবিষ্যতে জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে হবে। বলার অপেক্ষা রাখে না যে, দেশ ও জনগণের স্বার্থে আগামী নির্বাচনের আগেই চলমান রাজনৈতিক সংকটের সমাধান হওয়া প্রয়োজন। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যারই সমাধান সম্ভব। দেশ ও জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে আগামী নির্বাচন-সংক্রান্ত সব সমস্যার সমাধানে আমি আপনাকে অবিলম্বে খোলা মন নিয়ে আলোচনায় বসার ...
সংকট কমবে না বাড়বে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৩ এপ্রিল, ২০১৩
বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। ডাক মারফত নয়, অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মারফত তাঁরা একে অপরকে শুভেচ্ছা কার্ড পাঠিয়েছেন। সাম্প্রতিক সহিংস ও বিদ্বেষপূর্ণ রাজনীতির প্রেক্ষাপটে এটি খবর বটে। তবে তাঁদের প্রাত্যহিক আচার-আচরণ ও কথাবার্তায় এই শুভেচ্ছার ন্যূনতম নিদর্শন থাকলে দেশের চলমান রাজনৈতিক সমস্যা অনেকটাই নিরসন হতো বলে বিশ্লেষক থেকে শুরু করে দুই দলের নেতা-কর্মীরাও মনে করেন। তাঁরা এও বিশ্বাস করেন যে এই দুই শীর্ষ নেতার প্রতি দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ...
৬ এপ্রিলের পর কী?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
টি এস এলিয়ট তাঁর বিখ্যাত কবিতা ‘ওয়েস্ট ল্যান্ড’-এ এপ্রিলকে অভিহিত করেছিলেন নিষ্ঠুরতম মাস হিসেবে। মূলত প্রকৃতির প্রকৃতি বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেছিলেন। কিন্তু বাংলাদেশে এপ্রিল বা চৈত্র-বৈশাখ মাস মোটেই নিষ্ঠুর নয়। এই মাসে বাংলা নববর্ষ থাকায় ব্যবসায়ীরা হালখাতা খোলেন। কৃষকেরা নতুন ফসল রোপণের প্রস্তুতি নেন। আবহমান কাল থেকেই গ্রামে নানা উৎসবের মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষ উদ্যাপিত হয়ে আসছে। এখন সেই উৎসবের ঢক্কানিনাদ শহরেও শোনা যাচ্ছে। বাড়ছে বেচাকেনাও। ...
পাকিস্তান পারলে আমরা কেন পারব না?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৩ মার্চ, ২০১৩
আসিফ আলী জারদারি নিজামউদ্দিন আউলিয়া নন; কিন্তু এককালের মি. টেন পার্সেন্ট খ্যাত পাকিস্তানের এই প্রেসিডেন্টের অধীনে জাতীয় পরিষদ প্রথমবারের মতো মেয়াদ পূরণ করেছে, ক্ষমতাসীন পিপলস পার্টি নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠু করার জন্য একটি অন্তর্বর্তী তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনের ব্যাপারেও বিরোধী দলের সঙ্গে মতৈক্যে পৌঁছেছে। নির্বাচন কমিশন আগামী ১১ মে পরবর্তী নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে। তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান কে হবেন, তা এখনো নির্ধারিত হয়নি। আলোচনা চলছে। দুই পক্ষ থেকে চারজন করে মোট আট সদস্যের কমিটি মনোনয়ন দেওয়া হবে। এর আগে ...
দুই বাংলাদেশ: তাঁরা কোন পথে যাবেন?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২১শে মার্চ, ২০১৩
সম্প্রতি অক্সফোর্ডের এক সমীক্ষায় বলা হয়েছে, বিশ্বে যেসব দেশ দারিদ্র্য বিমোচনে অসামান্য সাফল্য অর্জন করেছে, সেগুলোর মধ্যে শীর্ষে আছে বাংলাদেশ, নেপাল ও রুয়ান্ডা। এমনকি বাংলাদেশ ও নেপাল দারিদ্র্য বিমোচনে বৃহৎ প্রতিবেশী ভারতকেও অনেক পেছনে ফেলেছে। অক্সফোর্ড প্রভার্টি অ্যান্ড হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভের (ওপিএইচআই) পরিচালক সাবিনা আলকার পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, ভারত যেখানে ফিবছর দারিদ্র্যের হার ১ দশমিক ২ শতাংশ কমিয়েছে, সেখানে বাংলাদেশ ৩ দশমিক ২ শতাংশ এবং নেপাল ৪ দশমিক ১ শতাংশ কমাতে সক্ষম হয়েছে। এ কারণেই অক্সফোর্ডের গবেষণায় দারিদ্র্য ...
তাণ্ডবতন্ত্র
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২১শে মার্চ, ২০১৩
তাণ্ডব শব্দটির অর্থ উদ্দাম নৃত্য, তণ্ডু মুনি এই নৃত্যের আবিষ্কর্তা হলেও এখন বাংলাদেশের রাজনীতিতে নেতা-নেত্রীরা সবাই ভয়ংকর সব তাণ্ডব দেখিয়ে চলেছেন। কেউই নৃত্য বা খেলার নিয়মকানুন মানছেন না। সাম্প্রতিক বাংলাদেশে যেসব কাণ্ড ঘটে চলেছে, তাকে তাণ্ডব বা বিশৃঙ্খলা বললে কম বলা হয়। এটিকে আখ্যায়িত করা যায় মহাতাণ্ডব বা মহাবিশৃঙ্খলা নামে। বিগ ব্যাং বা বিশাল বিস্ফোরণ থেকে নাকি বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের সৃষ্টি। কিন্তু মাস কয়েক ধরে বাংলাদেশে যে বিশাল বিস্ফোরণ ঘটে চলেছে, তার থেকে কী সৃষ্টি হয়, গণতন্ত্র না ধ্বংসতন্ত্র, সেটাই দেখার বিষয়। ইতিমধ্যে ৭০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন, যানবাহন, ট্রেন পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর ও মন্দির জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। আরও কত প্রাণ যাবে! দেশের মানুষ দেখবে আর কত খাণ্ডবদাহন? বাংলাদেশের রাজনীতির মূল সমস্যা হলো, কেউ হারার জন্য প্রস্তুত নয়। সবাই জিততে চায়, ছলে বলে কলে কৌশলে নয়, একেবারে জবরদস্তি করে। এই জবরদস্তির জন্য যেমন এক দিন তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা এসেছিল, তেমনি সেই জবরদস্তির জন্য তত্ত্বাবধায়কব্যবস্থা ২০০৬-০৭ সালে অকার্যকর হয়ে ...
মহাসংকটে মহাজোট সরকারের মহানিষ্ক্রিয়তা!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২১/০৩/২০১৩
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর যেদিন জাতীয় সংসদে বিবৃতি দিয়ে দেশের পরিস্থিতি সরকারের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আছে বলে দাবি করেছেন, তার চার দিন পরও বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘুদের বাড়িঘর ও মন্দিরে হামলার খবর আসছে, মানুষ চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। গতকাল শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের কাছে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে নাগরিক কমিটির নেতা ও গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম উদ্যোক্তা রফিউর রাব্বির ছেল তানভীর মোহাম্মদ তৌকির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে। গত বুধবার বিকেলে বাসা থেকে বের ...
আমরা তোমাদের পাশে আছি
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৩ মার্চ, ২০১৩
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের একটি রায়কে কেন্দ্র করে গত কয়েক দিনে সারা দেশে যে ধারাবাহিক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে, যেভাবে মানুষ ও সম্পদের হানি হয়েছে, তাতে যেকোনো বিবেকবান মানুষই বিচলিত ও বিপন্ন বোধ করবে। অথচ আগের রায়টি নিয়ে যাঁরা সংক্ষুব্ধ ছিলেন, তাঁরাও প্রতিবাদ করেছিলেন। সেই প্রতিবাদ ছিল শান্তিপূর্ণ ও অহিংস। কিন্তু দ্বিতীয় রায়ের প্রতিবাদ হলো সহিংস এবং জীবন ও সম্পদহানিকর। এই সহিংসতার কারণ অনুসন্ধান কিংবা কাদের দ্বারা, কীভাবে এসব সংঘটিত হয়েছে, সেই আলোচনায় যাওয়ার আগে আমাদের স্বীকার করতে হবে, এ পরিস্থিতি ...
‘কইলজাটা ফাইট্টা যায়’
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
জাতীয় সংসদের স্পিকার আবদুল হামিদ বলেছেন, সাংসদদের সংসদে না দেখলে তাঁর মন ভেঙে যায়। কেবল স্পিকারের নয়, সারা দেশের মানুষের মনই ভেঙে যায়, হতাশা তৈরি হয়। কিন্তু তাতে আমাদের মহামহিম সাংসদদের কিছু যায়-আসে না। তাঁরা মানুষের মন নিয়ে এতটুকু চিন্তিত নন। এই সাংসদেরা আপন কীর্তি ও মহিমায় এতই বিভোর যে স্পিকারের মনোবেদনা, জনমানুষের দুঃখ তাঁদের স্পর্শ করে না। সরকারি দলের সাংসদ হলে তদবিরবাজি, দখলবাজিতে ব্যস্ত থাকেন; তাতে সফল না হলে প্রশাসন, পুলিশ ও সাধারণ মানুষের ওপর জবরদস্তি চালান। ...
জেগে ওঠো বাংলাদেশ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের একটি রায় গোটা বাংলাদেশকে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে সত্যের মুখোমুখি। এ থেকে আমাদের আর পেছনে ফেরার উপায় নেই। সবার কণ্ঠে একটিই দাবি, ‘যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি চাই’। ‘কাদের মোল্লার এই রায় আমরা মানি না’। যাঁরা এত দিন যুদ্ধাপরাধের বিচারকে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক এজেন্ডা বলে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন, যাঁরা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন করে গলা ফাটিয়েছেন, তাঁদের শাহবাগ মোড়ে তরুণদের ক্ষুব্ধ অথচ আশাদীপ্ত মহাগণজাগরণটি দেখে যাওয়ার অনুরোধ করব। ...
বিরোধী দল কেন সংসদে যায় না?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৮ জানুয়ারি ২০১৩
গণতন্ত্রের মূল কথা হলো আস্থা ও সমঝোতা। প্রতিনিধিদের প্রতি জনগণের আস্থা আছে কি না, তা প্রমাণিত হয় নির্বাচনে এবং জনগণের সেই আস্থার মর্যাদা তাঁরা কতটা রাখছেন, পরবর্তী পাঁচ বছর ধরে তার পরীক্ষা হয়। সেই পরীক্ষায় বর্তমান ও অতীতের সাংসদদের মধ্যে খুব কমই উত্তীর্ণ হয়েছেন। আস্থার চেয়ে অনাস্থা এবং সমঝোতার চেয়ে সংঘাতের প্রতি আমাদের রাজনীতিকদের আসক্তি বেশি। দুই দশক ধরে দেশে সংসদীয় গণতন্ত্র বহাল আছে (মাঝখানে দুই বছর সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার বহাল ছিল)। কিন্তু জাতীয় সংসদ রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু হতে পারেনি। ...
একজন বিশ্বজিৎ ও ছাত্রলীগ ভয়ংকর
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২০ নভেম্বর, ২০১২
রাজনীতি যে এত নিষ্ঠুর, মানুষ যে এত নৃশংস এবং একটি ছাত্রসংগঠন যে এমন দানব হতে পারে, তা ভাবলেও গা শিউরে ওঠে। বিশ্বজিৎ দাস নামের যে যুবকটি রোববার ভোরে বাসা থেকে নিজের কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন, তিনি কি ঘুণাক্ষরেও চিন্তা করছিলেন, মৃত্যুদূত তাঁর সামনে অপেক্ষা করে আছে। আর সেই মৃত্যুদূতের নাম ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় দুর্বৃত্ত তাঁকে পিটিয়ে, কুপিয়ে পুরো শরীর রক্তাক্ত করে হত্যা করেছে। রক্তে পুরো শরীর, জামাকাপড় ভেসে যাচ্ছে, তিনি করজোড়ে ক্ষমা চাইছেন, বারবার বলছেন, ‘আমি রাজনীতি করি না, আমি ...
দিল্লিতে ‘জাতীয় ঐক্য’, ঢাকায় বিভেদ!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৫ নভেম্বর ২০১২
বিএনপির চেয়ারপারসন ও বিরোধী দলের নেতা খালেদা জিয়ার সদ্য সমাপ্ত ভারত সফর নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিরোধী দল বিএনপির নেতাদের মধ্যে যে বাহাস চলছে, তাকে এককথায় বলা যায় মূর্খতা। কোনো দেশের দায়িত্বশীল নেতা ও মন্ত্রীরা এ রকম বালখিল্য আচরণ করতে পারেন, তা ভাবতেও কষ্ট হয়। এঁরাই আমাদের দেশ ও রাজনীতির চালক। এসব গাঁয়ে মানে না আপনি মোড়ল নেতা গলাবাজিতে যতটা বলীয়ান, জাতীয় স্বার্থ রক্ষায় বিদেশিদের সঙ্গে দর-কষাকষিতে ততটাই ম্রিয়মাণ। মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা মামলায় বিজয় ছাড়া গত এক দশকে ...
বিশ্বব্যাংকের শর্ত মেনেছেন, জনগণের শর্ত মানবেন কি?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২২ সেপ্টেম্বর ২০১২
অবশেষে এক বছরের টানাপোড়েন, ঝগড়া-বিবাদ পেছনে ফেলে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়নে রাজি হয়েছে। এটি শেখ হাসিনার সরকারের জন্য একটি সুসংবাদ। বাংলাদেশের মানুষের জন্যও। কেননা বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নের অভাবে পদ্মা সেতু না হলে সরকার বড় ধরনের লজ্জায় পড়ত এবং দেশের উন্নয়ন ব্যাহত হতো। নীতিগতভাবে কোনো সরকার যদি বিশ্বব্যাংকের ঋণসহায়তা না নিয়ে দেশীয় অর্থে চারটি পদ্মা সেতু করত, আমাদের আপত্তি ছিল না। কিন্তু দুর্নীতির কালিমা নিয়ে বিশ্বব্যাংকের অর্থ না নেওয়ার বালখিল্য ঘোষণা কিংবা দেশপ্রেম জাগানোর চেষ্টার মধ্যে বাহাদুরি নেই। শেষাবধি সরকারের সুমতি ফিরে এসেছে, এ জন্য ধন্যবাদ জানাই। একই সঙ্গে সরকারের ভেতরে থাকা সেই সব ব্যক্তিকে মুর্দাবাদ জানাই, যাঁরা এই সেতুটিকে তাঁদের আয়-উন্নতি এবং ফাউ কামানোর উসিলা হিসেবে দেখেছিলেন। সব দেশে এ ধরনের ফাউ খাওয়ার লোক আছে। আমাদের দেশে খানিকটা বেশি। গত বৃহস্পতিবার বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুতে অর্থায়নে সম্মতি জানিয়ে যে বিবৃতিটি দিয়েছে, গুরুত্ব বিবেচনা করে এখানে তার কিছু অংশ তুলে ধরছি: ‘বিশ্বব্যাংক ২০১২ সালের ২৯ জুন পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পে ১২০ ...
ইমানদার এরশাদ! বেইমান সাহাবুদ্দীন!!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৯/০৯/২০১২
বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চরিত্রটি যে অদ্ভুত, তার প্রমাণ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সাবেক স্বৈরাচারী শাসক। নয় বছর ধরে যে লোকটি অবৈধভাবে দেশ শাসন করেছেন, যাঁকে মসনদ থেকে তাড়াতে নূর হোসেন-তাজুলরা রাজপথে জীবন দিয়েছেন, সেই লোকটিই কিনা এখন দেশ, গণতন্ত্র ও সংবিধান সম্পর্কে জাতিকে সবক দিয়ে যাচ্ছেন। গত সোমবার জাতীয় পার্টির সমাবেশে এরশাদ বলেছেন, ‘তাঁর দল ক্ষমতায় গেলে একাদশ সংশোধনী বাতিল করবেন এবং বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদের বিচার করবেন।’ তিনি তাঁকে বেইমান বলেও গালাগাল করেন। কেন? বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ নাকি ১৯৯১ সালের নির্বাচনে তাঁর ও তাঁর দলের প্রতি বৈষম্য দেখিয়েছিলেন। অকৃতজ্ঞতা আর কাকে বলে? ১৯৯১ সালে যে মানুষটি এরশাদকে গণরোষ থেকে বাঁচিয়েছেন, তাঁরই কিনা বিচার চাইছেন গণধিক্কৃত সাবেক স্বৈরশাসক। আর সেই সুযোগটি করে দিয়েছেন আমাদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের দুই পুরোহিত আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। নবীন প্রজন্ম না জানলেও সেই সময়ের মানুষ জানে, কীভাবে ছাত্র-জনতা সেদিন এরশাদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছিল, কীভাবে গণরোষের ভয়ে তিনি সেনাভবনে লুকিয়ে ছিলেন। এরশাদ দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাবেন—এই খবর চাউর হলে ...
এরশাদের দিল্লি মিশন ও ক্ষমতার খোয়াব
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৫/০৮/২০১২
বাংলাদেশের সাবেক সেনাশাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সম্প্রতি নয়াদিল্লিতে যে বিরল সংবর্ধনা ও সম্মান পেয়েছেন, তা কূটনৈতিক আচারে কতটা স্বাভাবিক, সে প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক। একজন সাবেক কূটনীতিক, যিনি গত শতকের আটের দশকে নয়াদিল্লিতে হাইকমিশনার ছিলেন, বলেছেন—ক্ষমতায় থাকতেও ভারত সরকার এরশাদকে এতটা খাতির করেনি। তাহলে ক্ষমতাচ্যুতির ২২ বছর পর ভারত কেন এই সাবেক স্বৈরশাসককে রাজসম্মান দিল? বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশটি শেষ পর্যন্ত একজন পরিত্যক্ত স্বৈরশাসককে সাদরে বরণ করে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক শক্তিকে কী বার্তা দিল? এরশাদের এই সফরটি যে ভারতের বিদেশ ...
সরকার কোথায় আছে, কী করছে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৩০/০৬/২০১২
গত ৪১ বছরে বাংলাদেশে মহাজোট সরকারের মতো কীর্তিমান, সুখী ও আত্মতৃপ্তিতে বিভোর সরকার দ্বিতীয়টি আসেনি। সরকারের মেয়াদ সাড়ে তিন বছর পার হওয়ার পরও তার গৃহীত নীতি ও কাজকে কেউ তেমনভাবে চ্যালেঞ্জ করেছে বলে আমাদের জানা নেই। সেই অর্থে বিরোধী দল কোনো আন্দোলনই করতে পারেনি। ভেবে দেখুন, ২০০১ সালে চারদলীয় জোট ক্ষমতায় আসার পর সারা দেশে কী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল! বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু ও বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ওপর চলে নির্যাতন, সন্ত্রাস। প্রায় পাঁচটি বছরই তাদের কেটেছিল মহাদুর্যোগে। মেয়াদের আড়াই বছরের ...
এই লেখা শুধুই পুলিশকে নিয়ে
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০২/০৬/২০১২
কয়েক দিন আগে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দুর্নীতিকে বাংলাদেশের ১ নম্বর সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে বলেছিলেন, ‘সবখানে দুর্নীতি ছেয়ে গেছে।’ আর এই দুর্নীতির শীর্ষে যে পুলিশ বাহিনী, সে কথাটিও বলতে ভুলে যাননি এই প্রবীণ আমলা-রাজনীতিক। তিনি বলেছেন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা থেকে শুরু করে প্রতিটি পুলিশ সদস্যই ঘুষ খান। সরকারের মেয়াদের সাড়ে তিন বছরের মাথায় অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্য তাঁর সহকর্মীদের স্বভাবতই মনঃপূত হয়নি। তাঁর অনুপস্থিতিতে মন্ত্রিসভার বৈঠকে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের ‘মৃদু’ সমালোচনা হয়েছে বলে পত্রিকায় দেখেছি। কিন্তু স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল ...
সব মন্ত্রীই উত্তম!
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০১/০৬/২০১২
শেষ পর্যন্ত শেখ হাসিনা মুখে স্বীকার না করলেও মেনে নিলেন তাঁর মন্ত্রিসভা ঠিকমতো চলছিল না। তিনি নিশ্চয়ই মন্ত্রিসভার শোভা বাড়ানোর জন্য দুজন মন্ত্রী নেননি। তাঁদের নিশ্চয়ই সেই কাজে লাগাবেন, আগের মন্ত্রীদের দিয়ে যা হচ্ছিল না। সোমবার রাতে টেলিভিশনে এই খবর প্রচারের সময় এটিএন বাংলার প্রতিবেদক বললেন, প্রায় তিন বছরের মাথায় এই মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণে চাঞ্চল্য থাকলেও চমক নেই। কিছুদিনের মধ্যে দেশবাসী সেই চমক দেখবেন। গত তিন বছর কাজে না হলেও সরকার কথায় অনেক চমক দেখিয়েছে। আমরা নতুন চমকের অপেক্ষায় আছি। প্রধানমন্ত্রী যেভাবে তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যদের পক্ষে সাফাই গাইলেন, তাতে মনে হবে, তাঁর কোনো মন্ত্রীই দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হননি। সাংবাদিকেরা, বুদ্ধিজীবীরা খামোকা সমালোচনা করছেন। গতকাল ডেইলি স্টার-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী মন্ত্রিসভার বৈঠকেও প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ?একটি মহল ভুল অবস্থান থেকে সরকারের সব উদ্যোগেরই সমালোচনা করে। ...
শিকড়ের, না ব্যবসায়ীদের আওয়ামী লীগ?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৬/০৫/২০১২
বাটি চালান তত্ত্ব বনাম গণতন্ত্র শূন্য কলস বাজে বেশি। কাজে জোর থাকলে কথার জোরের প্রয়োজন হয় না। সাম্প্রতিককালে মন্ত্রীদের উল্টাপাল্টা বিবৃতি ও বক্তব্য শুনে মনে হচ্ছে, তাঁদের কাজের জোর একেবারেই কমে গেছে। ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগের নেতা ও মন্ত্রীরা মহা-উৎসাহে দিনবদলের কথা বলতেন, বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের খোয়াব দেখাতেন। কিন্তু তিন বছর চার মাস পর এখন আর তাঁদের মুখে সেসব আশার বাণী শোনা যাচ্ছে না। মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, নেতা-পাতিনেতারা হররোজ বিরোধী দল ও গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে হুঙ্কার ছাড়ছেন। যেকোনো ঘটনার পেছনে কষ্টকল্পিত ষড়যন্ত্র খুঁজছেন। তাঁদের ষড়যন্ত্র-তত্ত্ব শুনে শৈশবে পড়া রাখাল বালক ও বাঘের গল্পটি মনে পড়ল। সেই রাখাল বালক ‘বাঘ আসছে বাঘ আসছে’ বলে প্রতিদিন গ্রামবাসীকে চিৎকার দিয়ে জাগাত। ...
সততা ও নিষ্ঠার বিদায়
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৫/০৪/২০১২
সাংসদ পদ থেকে তানজিম আহমদ সোহেল তাজের পদত্যাগের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী কীভাবে নেবেন জানি না, কিন্তু সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার দেড় বছর আগেই সরকারি দলের একজন তরুণ সাংসদের এভাবে প্রস্থান গণতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত। সোহেল তাজ প্রথমে মন্ত্রিত্ব ত্যাগ করলেন, এর পর সাংসদ পদ। একই সঙ্গে তিনি সক্রিয় রাজনীতি থেকেও বিদায় নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তাহলে কি সৎ, ধীমান ও স্পষ্টবাক ভদ্রলোকেরা রাজনীতি করতে পারবেন না? রাজনীতি কি কেবলই মোসাহেবদের পেশায় পরিণত হবে? বাংলাদেশের রাজনীতি কি স্থায়ীভাবে বেনিয়া, সুযোগসন্ধানী ও মাস্তানদের করতলে ...
অতি-উৎসাহীদের থেকে সাবধান থাকুন!
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২১/০৪/২০১২
বিএনপি মানুক বা না মানুক, আগামী দু-একদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন গঠনের কাজটি সম্পন্ন করতে হবে। এটি সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা। নির্বাচন ছাড়া যেমন কোনো দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা চলতে পারে না, তেমনি নির্বাচন করার জন্য পাঁচ বছর পরপর নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করারও বিকল্প নেই। আমাদের বিরোধী দলের আইনজ্ঞ নেতারা এই সহজ সূত্রটি কেন মানতে চান না, তা আমরা বুঝতে অক্ষম। এই মুহূর্তে যদি বিএনপি ক্ষমতায় থাকত এবং আওয়ামী লীগ ‘দলীয় সরকারের অধীনে’ নির্বাচন কমিশন গঠনে আপত্তি জানাত, তাহলে তাঁরা কি মেনে নিতেন? আসলে একটি নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হলে আরেকটি কমিশন গঠন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা। বিএনপির নেতারা সাবেক নির্বাচন কমিশনার এম এ আজিজের পদত্যাগের উদাহরণ টানতে পারেন। কিন্তু তিনি কী কারণে, কোন পরিস্থিতিতে পদত্যাগ করেছিলেন তা নিশ্চয়ই তাঁদের মনে আছে। ...
প্রধানমন্ত্রী কি ঠিক বলেছেন?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২০/০৪/২০১২
আমরা কার কথা বিশ্বাস করব? স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী? বিএনপির নেতা ও সাবেক সাংসদ ইলিয়াস আলীর নিখোঁজ হওয়া সম্পর্কে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক বলেছেন, ‘এ ঘটনায় সরকার বিব্রত।’ বিএনপির নেতারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর কাছে গিয়েছিলেন স্মারকলিপি দিতে। তাঁরা ফিরে যাওয়ার পর সাংবাদিকদের কাছে এটা ছিল তাঁর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া। এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আইজিপি খন্দকার হাসান মাহমুদকে নিয়ে ইলিয়াস আলীর বাসায় গিয়েছিলেন তাঁর স্বজনদের সান্ত্বনা দিতে। তিনি বলেছেন, ‘তাঁকে উদ্ধারে সরকার আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে।’ তাঁর মতো একজন রাজনীতিকের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় ব্যক্তিগতভাবে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। ...
ঢাকা সিটির নির্বাচন, না মহাজোটের ‘প্রীতি ম্যাচ’?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৮/০৪/২০১২
নিয়ত ঠিক না থাকলে কোনো কাজে সুফল পাওয়া যায় না—ঢাকা সিটি করপোরেশনের বিভক্তিই তার প্রমাণ। বাংলাদেশে ঢাকা সিটি করপোরেশন ও ভারতে নয়াদিল্লি পৌর করপোরেশন একই দিনে ভাগ করা হয়। ঢাকা দুই ভাগ, দিল্লি চার ভাগ। দুই সিটি করপোরেশন ভাগের পক্ষেই যুক্তি দেখানো হয়েছিল নাগরিক সমস্যার দ্রুত সমাধান ও সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর। গত শনিবার নয়াদিল্লির তিনটি সিটি করপোরেশন—যথাক্রমে উত্তর দিল্লি, দক্ষিণ দিল্লি ও পশ্চিম দিল্লিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। অধিকাংশ আসনে বিরোধী দল ভারতীয় জনতা পার্টির সমর্থিত প্রার্থী জয়ী হয়েছেন; অথচ নয়াদিল্লিতে কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায়। মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত। কংগ্রেস ইতিমধ্যে স্থানীয় সরকার সংস্থার এই নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিয়েছে। এতে কেন্দ্রে ইউপিএ বা দিল্লিতে কংগ্রেস সরকারের পতন ঘটেনি। বিরোধী দলও পৌর নির্বাচনে জয়ী হয়ে কংগ্রেস সরকারকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে বলে বুলন্দ আওয়াজ তোলেনি। ...
আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমঝোতা কি সম্ভব?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৭/০৪/২০১২
রাজনীতি নিয়ে আলোচনা এলেই যে প্রশ্নটি বড় হয়ে ওঠে, তা হলো: রাজনীতিতে কি সুস্থধারায় ফিরে আসবে না? সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে এই অসুস্থ লড়াই কি চলতেই থাকবে? মত ও পথের পার্থক্য সত্ত্বেও দেশের দুটি প্রধান দলের মধ্যে ন্যূনতম কর্মসম্পর্ক গড়ে উঠতে পারে না? নেতা-নেত্রীরা কি একে অপরের বিরুদ্ধে হিংসা ও বিদ্বেষ ছড়াতে থাকবেন? তাঁরা কি নতুন প্রজন্মের কাছে এর চেয়ে ভালো কোনো দৃষ্টান্ত রেখে যাবেন না? রাজনীতিতে আরও যেসব গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন চলমান, সেগুলো হলো: আগামী নির্বাচন নির্ধারিত সময়ে ...
রাজনীতির বিষ ছাড়াবেন কে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০৫/০৪/২০১২
বাংলাদেশের রাজনীতিকেরা আর কিছু না পারুন, লম্বা-চওড়া কথা বলতে তাঁদের মোটেই বাধে না। তাঁরা কখন কী বলেন, তা নিজেরাও জানেন না। আমাদের জনদরদি রাজনীতিকেরা নির্বাচনের আগে জাতির কাছে বড় বড় ওয়াদা করেন, নম্র ও বিনয় সম্ভাষণে ভোটারদের মন জয় করতে সচেষ্ট থাকেন। কিন্তু নির্বাচনের পরই তাঁদের আসল চেহারা বেরিয়ে আসে। ক্ষমতাসীনেরা মনে করেন, মেধা, দক্ষতা ও যোগ্যতার জোরেই তাঁরা নির্বাচিত হয়েছেন। বিরোধী দল মনে করে, জনগণ যেহেতু ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেহেতু পাঁচ বছর তাদের প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে। তারা কেবল সরকারের সঙ্গে অসহযোগ করে না, অসহযোগ করে জনগণের সঙ্গেও। হরতাল-অবরোধ ও সংসদ বর্জনই তার প্রমাণ। আরেকটি মজার ব্যাপার হলো, রাজনীতিকেরা নিজেদের ব্যর্থতার দায় বরাবর প্রতিপক্ষের ওপর চাপিয়ে নিজেদের মহাপবিত্র প্রমাণ করতে উঠেপড়ে লাগেন। ...
দেশ চালাচ্ছে কে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০৫/০৪/২০১২
এত দিন আওয়ামী লীগ বিএনপির বিরুদ্ধে যে মোক্ষম অস্ত্র ব্যবহার করত, সেই অস্ত্রটিই এবার বিএনপি আওয়ামী লীগকে ফিরিয়ে দিয়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘সরকার কারা চালাচ্ছে? গোয়েন্দারা কি সরকার চালাচ্ছে?’ তিনি আরও বলেছেন, ‘রাজনীতিবিদেরা দেশ চালাচ্ছেন না।’ আওয়ামী লীগের নেতারা প্রায়ই অভিযোগ করেন, বিএনপি সেনাবাহিনীর আশীর্বাদপুষ্ট দল। এই দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান গোয়েন্দা বিভাগকে কাজে লাগিয়ে দেশ চালিয়েছেন, দল গঠন করেছেন এবং বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ভাগিয়ে নিয়েছেন। সামরিক শাসকেরা যেহেতু অস্ত্রের জোরে ক্ষমতায় আসেন, সেহেতু গোয়েন্দা বিভাগ ও আমলাদের ওপরই নির্ভর করেন। কিন্তু বিপুল ভোটে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকারও যদি তাদের ওপর নির্ভরশীল হয়, সেটি অত্যন্ত লজ্জার বিষয়। ৬৪ বছরের ঐতিহ্যবাহী দলটির জন্য বড্ড বেমানান। ...
জনগণের টাকায় মোসাহেবি!
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২৩/০৩/২০১২
‘বাংলাদেশের সমুদ্রজয়’-এ বিভিন্ন সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন উপাচার্যের অভিনন্দনের বহর দেখে পাকিস্তানের প্রখ্যাত বিচারপতি কায়ানির সেই অবিস্মরণীয় বাণীই মনে পড়ল। তিনি বলেছিলেন, ‘যেখানে অন্যান্য দেশের সেনাবাহিনী অস্ত্র দ্বারা অন্য দেশ জয় করে, সেখানে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী অস্ত্র দ্বারা নিজের দেশ জয় করে।’ বাংলাদেশের আমত্যরা, মান্যবরেরা দেশ জয় না করলেও প্রধানমন্ত্রীর মন জয় করতে অকাতরে জনগণের অর্থ অপচয় করে চলেছেন। হামবুর্গে অবস্থিত সমুদ্রসীমাসংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আদালত বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যকার বিরোধ নিষ্পত্তি করেছেন, যাতে বাংলাদেশ বঙ্গোপসাগরের ওপর ২০০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত কর্তৃত্ব ও অধিকার পেয়েছে। এটি নিঃসন্দেহে বড় অর্জন। এতে দলমত-নির্বিশেষে বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিক আনন্দিত। এমনকি বিরোধী দলের নেতা খালেদা জিয়াও সংসদে এ জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। ...
দুই জোটের মহাসমাবেশ: জনগণ কী পেল?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৭/০৩/২০১২
ক্ষমতাসীন ও বিরোধী উভয় জোটের নেতারা দাবি করেছেন, তাঁদের মহাসমাবেশ সফল হয়েছে। কারও মতে, এই মহাসমাবেশে লক্ষাধিক লোক এসেছে। কারও মতে, ৫০-৬০ হাজারের বেশি হবে না। আওয়ামী লীগের মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, বিরোধী দল মহাসমাবেশের নামে কর্মী সমাবেশ করেছে। আর বিএনপির এক নেতা বলেছেন, ক্ষমতাসীন দল পাল্টাপাল্টি সমাবেশ করতে গিয়ে ভাড়াটে সমাবেশ করেছে। কর্মী হোক বা ভাড়াটে হোক সমাবেশ করতে প্রচুর অর্থ ব্যয় করতে হয়েছে। কোথা থেকে এই অর্থ এসেছে, কারা অর্থ জুগিয়েছে সেই প্রশ্নটি কম জরুরি নয়। ক্ষমতাসীন দল বিএনপির সমাবেশের অর্থের উৎস জানতে চেয়েছে। বিএনপি কখনো ক্ষমতায় গেলে নিশ্চয়ই তারাও আওয়ামী লীগের কাছে অর্থের উৎস জানতে চাইবে। কিন্তু বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ কখনোই এই অর্থের উৎস জানতে পারবে না। ...
আমরা কি এই গণতন্ত্রই চেয়েছিলাম?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১১/০৩/২০১২
বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী, প্রতি চার বছর পর লিপইয়ার বা অধিবর্ষ আসে, সে বছরটি ফেব্রুয়ারি মাস ২৯ দিনে গণনা করা হয়। চলতি বছরটি অধিবর্ষ। ২০০৪ সালটিও ছিল অধিবর্ষ। এই দুটি বছরের মধ্যে একটি আশ্চর্য মিল লক্ষ করা যায়। দুটি বছরই বাংলাদেশে রাজনৈতিক দুর্যোগ নেমে এসেছে। মহাদুর্যোগ। বিরোধী দলের ১২ মার্চের মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে সমগ্র দেশ প্রায় অচল হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বিরোধী দলের কর্মসূচি ছিল ‘চলো চলো ঢাকা চলো’। আর সরকার কর্মসূচি নিয়েছে ‘রুখো রুখো ঢাকা রুখো’। অর্থাৎ, ঢাকায় কাউকে আসতে দেওয়া ...
তাহেরের বিচার অবৈধ, খালেদ হত্যা বৈধ হবে কেন?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৩০/০৩/২০১১
সম্প্রতি হাইকোর্টে কর্নেল আবু তাহেরের বিচারকে অবৈধ ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক অঙ্গনে বিতর্ক শুরু হয়েছে। এক পক্ষ রায়কে স্বাগত জানালেও অন্য পক্ষ উদ্দেশ্যমূলক বলে অভিহিত করেছে। এই নিবন্ধে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্তের আলোকে তৎকালীন রাজনীতির একটি বিশ্লেষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পাঠকের ভিন্নমত থাকলে তা-ও প্রকাশ করা হবে। বি. স. ...
হায় সংসদ! হায় গণতন্ত্র!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৬-০২-২০১১
২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ৩০০ আসনের মধ্যে ২৬০টিরও বেশি আসন পেল। তখন কি কেউ ভাবতে পেরেছিলেন কোরামের অভাবে নবম সংসদের অধিবেশন মূলতবি হয়ে যাবে? ভাবেননি। সব সম্ভবের এই দেশে ভাবনারও অতীত ঘটনা ঘটে। নেতা-নেত্রীরা ঘটান। সাংসদেরা ঘটান। কেবল জনগণের কাছে দেওয়া ওয়াদা তাঁরা পূরণ করেন না। ...
বাজার, শেয়ারবাজার বিএনপি চালায়, সরকার কী করে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১১-০২-২০১১
আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আনন্দ ছাপিয়ে দেশবাসীর কাছে বড় উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে বাজার ও শেয়ারবাজার। প্রায় প্রতিদিনই শেয়ারবাজার নিয়ে মতিঝিলসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভ ও গাড়ি ভাঙচুর করছেন। চালসহ নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় মানুষের কষ্ট বাড়ছে। কিন্তু তাদের এই জীবন-মরণ সমস্যা নিয়ে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলের উদ্বেগ আছে বলে মনে হয় না। তারা আছে কে কাকে কথার বানে ঘায়েল করবে, সেই তালে। ...
আসন কমল, বাঁচল গণতন্ত্র!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৯/০১/২০১১
কয়েক দিন আগে ‘কালের পুরাণ’-এ আওয়ামী লীগের ভোটে ভাটার টান লেখার কারণে আওয়ামী লীগের সমর্থকদের কাছ থেকে কড়া গালি খেয়েছিলাম। তাঁরা বলতে চেয়েছেন, ‘এত দিন লোকটার আসল চেহারা বের হয়েছে। মাঝেমধ্যে বিএনপির সমালোচনা করলেও মূল টার্গেট আওয়ামী লীগ।’ এরপর যখন বিএনপির সংসদ বর্জন নিয়ে লিখলাম, বিএনপির সমর্থকেরা এই বলে নিন্দামন্দ করলেন, ‘ব্যাটা পাঁড় আওয়ামী লীগার। বিএনপিকে একদম দেখতে পারেন না, তাই সুযোগ পেলেই জাতীয়তাবাদী রাজনীতি নিয়ে কটাক্ষ করেন।’ ...
রধানমন্ত্রীর ভাষণ: অর্ধেক গ্লাস খালি, অর্ধেক পূ�
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৮/০১/২০১১
সাধারণত সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধানের প্রথাগত আনুষ্ঠানিক ভাষণ নিয়ে মানুষ বেশি মাথা ঘামায় না। তারা ভাবে, এ ধরনের ভাষণ হলো নিজের ঢাক নিজেই পিটিয়ে যাওয়া। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ভাষণটি সেদিক থেকে কিছুটা ভিন্নতার দাবি রাখে। দুই বছরে সরকার কী করতে পেরেছে, সেটি যেমন তিনি সবিস্তারে জানিয়ে দিয়েছেন, তেমনই কী করতে পারেনি, তা-ও স্বীকার করেছেন। জনগণ দেখছে, গ্লাসের অর্ধেক পানি ভর্তি, অর্ধেক খালি। তিন বছরে বাকি গ্লাস পূর্ণ হবে, নাকি ভরা পানিটুকুও দলীয় মাস্তানেরা খালি করে দেবে—সেই প্রশ্নই এখন সবার মনে। ...
অর্থমন্ত্রী, কতজনকে পেটাবেন?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৯/০৭/২০১২
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বরাবর সোজাসাপ্টা কথা বলেন। তিনি নিজে যা ভালো বোঝেন, সরাসরি বলেন। একসময়ের নামকরা এই কূটনীতিক-আমলা কূটনীতির ভাষায় কথা বলতে পছন্দ করেন না। যে কারণে তাঁকে অনেক সময় দলের ভেতরে ও বাইরে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। কিন্তু মুহিত সাহেব হয়তো ভাবছেন, বেলা শেষের বেলায় তাঁর কী আর হারানোর আছে? প্রস্তাবিত পদ্মা সেতু নিয়ে এখন দেশব্যাপী তোলপাড়। এই সেতু নিয়ে যাঁর কথা বলার কথা, সেই যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘তিনি কিছুই বলবেন না।’ কিন্তু বাংলাদেশের ...
গণতন্ত্রের ফটিকছড়ি মডেল!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২০ এপ্রিল ২০১৩
গত বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে ১৮-দলীয় জোটের সমাবেশটি শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হওয়ায় দেশবাসী শুকরিয়া আদায় করেছে। কেননা এই সমাবেশে কোনো অঘটন ঘটলে সেই অজুহাতে পুলিশ পাইকারিভাবে জোটের নেতা-কর্মীদের পাকড়াও করে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দিত। আর সেই পাকড়াওয়ের প্রতিবাদে আজ শনিবার না হলেও কাল রোববার সারা দেশে আরেকটি হরতালের গজব নেমে আসত।শান্তিপূর্ণ সমাবেশ হওয়ায় আমরা বিএনপিসহ ১৮-দলীয় নেতাদের শতকোটি মোবারকবাদ জানাই। মোবারকবাদ জানাই ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বড় কর্তাদেরও। তাঁরা দুই পক্ষ মিলে একটি অনিবার্য সংঘাত থেকে দেশকে আপাতত মুক্তি দিয়েছেন। ধন্যবাদ জানাই বিএনপির ...
গণতন্ত্রের ফটিকছড়ি মডেল!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২০ এপ্রিল, ২০১৩
গত বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে ১৮-দলীয় জোটের সমাবেশটি শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হওয়ায় দেশবাসী শুকরিয়া আদায় করেছে। কেননা এই সমাবেশে কোনো অঘটন ঘটলে সেই অজুহাতে পুলিশ পাইকারিভাবে জোটের নেতা-কর্মীদের পাকড়াও করে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দিত। আর সেই পাকড়াওয়ের প্রতিবাদে আজ শনিবার না হলেও কাল রোববার সারা দেশে আরেকটি হরতালের গজব নেমে আসত। শান্তিপূর্ণ সমাবেশ হওয়ায় আমরা বিএনপিসহ ১৮-দলীয় নেতাদের শতকোটি মোবারকবাদ জানাই। মোবারকবাদ জানাই ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বড় কর্তাদেরও। তাঁরা দুই পক্ষ মিলে একটি অনিবার্য সংঘাত থেকে দেশকে আপাতত মুক্তি দিয়েছেন। ধন্যবাদ জানাই ...
মুখ ও মোবাইল বন্ধ করা গণতন্ত্র!
তাৎক্ষণিক
প্রথম আলো
১৮ এপ্রিল, ২০১৩
পৃথিবীতে নানা কিসিমের গণতন্ত্র আছে—সংসদীয় পদ্ধতি, রাষ্ট্রপতি শাসিত। আবার যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের মতো অনেক দেশে রাষ্ট্রপতি-পদ্ধতি থাকা সত্ত্বেও সংসদ যথেষ্ট শক্তিশালী। কিন্তু বাংলাদেশের গণতন্ত্র বরাবরই ব্যক্তিনির্ভর। পৃথিবীর সব দেশে জাতীয় সংসদের কাছে মন্ত্রিসভা দায়ী থাকলেও বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী দায়বদ্ধ। বাংলাদেশে যখন রাষ্ট্রপতি শাসিত ব্যবস্থা ছিল, তখন রাষ্ট্রপতিই সব। সংসদ ছিল রাবার স্ট্যাম্প। আর এখন সাবেক রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদের ভাষায় রাষ্ট্রপতির ‘কবর জেয়ারত ছাড়া কিছু করার নেই’। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে এই রাষ্ট্রপতিই ছিলেন সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী। এখন সংবিধানে তত্ত্বাবধায়কব্যবস্থা জারি ...
মালালার ডায়েরি বনাম তালেবানি পাকিস্তান
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
চলতি বছর নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য যাদের নাম মনোনয়ন করা হয়েছে, তাদের মধ্যে পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাইও রয়েছে। ১৪ বছরের এই কিশোরী গত ৯ অক্টোবর স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে তালেবান সন্ত্রাসীদের হাতে গুলিবিদ্ধ হলেও সৌভাগ্যক্রমে সে বেঁচে যায়। পরবর্তী সময়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে যুক্তরাজ্যে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সে এখনো সেখানে আছে। নরওয়ে পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রধান ক্রিস্টিয়ান বার্গ হারপভিকেন বলেছেন, মালালাকে পুরস্কার দেওয়া হলে সেটি নোবেল পুরস্কারের নীতিমালার সঙ্গে সংগতিপূর্ণ হবে। ...
মাননীয় উপাচার্যগণ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৬ জানুয়ারি ২০১৩
দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় যে বিরামহীন সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য চলছে, তার জন্য সরকার-সমর্থিত ছাত্রসংগঠনটি যত না দায়ী, তার চেয়ে বেশি দায়ী সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ। প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে তাঁরা আইনকানুন ভেঙে অবৈধ সুযোগ-সুবিধা নিয়েছেন, স্বজনপ্রীতি ও দলীয়করণের মহোৎসব ঘটিয়েছেন। উপাচার্য ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অনাচার-দুরাচার এতটা বেড়ে গেছে যে সম-আদর্শের শিক্ষকেরাও তাঁদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। এ কারণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বেশ কটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক সমিতি, ডিন ও সিন্ডিকেট নির্বাচনে সরকার-সমর্থকদের ভরাডুবি ঘটেছে। উপাচার্য-সমর্থক ও বিরোধী গ্রুপ এখন একে অপরকে বিএনপি-জামায়াতের দালাল বলে গাল ...
জামায়াত ছাড়ুন, স্বৈরাচার ছাড়ুন
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৪ ডিসেম্বর ২০১২
অনেকেই বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে ঐক্য বা সমঝোতা হতে পারে না। খুবই পারে। ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করেই তারা স্বৈরাচারী এরশাদের পতন ঘটিয়েছিল। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলেও দুই দলের মধ্যে একটি অলিখিত বোঝাপড়া হয়েছিল; নির্বাচন দিতে হবে। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হলো। তার পরই এ দুটি দল কেন মুখোমুখি অবস্থানে, একে অপরের মুখ দেখে না। কারণ, ক্ষমতা। প্রধানমন্ত্রীর পদ একটি। দুই নেত্রীর কেউ নিজেকে প্রধানমন্ত্রী পদের বাইরে দেখতে চান না। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতারা ব্যক্তিগত আলাপে ঐক্য ও সমঝোতার কথা বলেন। শান্তির কথা বলেন। সামাজিক অনুষ্ঠানাদিতেও সৌহার্দ্যের ভাব লক্ষ করা যায়। কিন্তু দলীয় ফোরামে নেত্রীদের ভয়ে বলেন ভিন্ন কথা। সংসদে বিরোধী দলের সদস্যরা যান না, তাই সেখানে বিতর্কেরও সুযোগ নেই। তবে বেতন-ভাতা ও শুল্কমুক্ত গাড়ি তাঁরা ঠিকই নেন। এই যে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলের মধ্যে তীব্র রেষারেষি, মুখ দেখাদেখি বন্ধ, এর মৌলিক কারণ—ক্ষমতা। এক পক্ষ ক্ষমতায় থাকতে চায়। সে কারণে তারা প্রধান যে প্রতিদ্বন্দ্বী, তাকে যেকোনো ...
উল্টো রথে নির্বাচন কমিশন
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৮/০৭/২০১২
কাজী রকিব উদ্দীন আহমেদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন ফাইনাল দূরে থাকুক, এখনো কোনো বাছাই পরীক্ষায়ই অবতীর্ণ হয়নি। তাই নির্বাচন কমিশন পাস করেছে বা ফেল করেছে, সে কথা বলার সময় এখনো আসেনি। তবে গদিনশিন হওয়ার পর গত ছয় মাসে কমিশনের কাজকর্ম এবং কমিশনারদের কথাবার্তা মানুষকে দারুণভাবে হতাশ করেছে। তাঁরা দেশের অতীব গুরুত্বপূর্ণ এই সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটিকে প্রায় নিষ্ক্রিয় ও নির্জীব করে রেখেছেন। অথচ আগামী জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে বলা যায়, ১৬ কোটি মানুষের ৩২ কোটি দৃষ্টি এই নির্বাচন কমিশনের প্রতি। বর্তমান কমিশন ...
ধাপ্পাবাজি!
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৫/০৭/২০১২
গেল শনিবার প্রথম আলো-ট্রাস্ট ব্যাংক রাজউক কলেজ আয়োজিত বিতর্কের সমাপনী অনুষ্ঠানটি ছিল খুব প্রাণবন্ত ও উত্তেজনাপূর্ণ। ইংরেজি মাধ্যমের বিতর্কের বিষয় ছিল, ‘ইসরায়েলকে বাংলাদেশের স্বীকৃতি দেওয়া উচিত’ আর বাংলা মাধ্যমের বিতর্কের বিষয় ছিল ‘১/১১ বারবার ফিরে আসে’। প্রথমেই বলে রাখছি, আলোচনাটি রাজনৈতিক নয়, একাডেমিক বা তাত্ত্বিক। বিতর্কে অংশগ্রহণকারী সব বিতার্কিকই প্রস্তাবের পক্ষে ও বিপক্ষে জোরালো যুক্তি তুলে ধরেন। ঘণ্টা খানেকের এই বিতর্কে কারও প্রতি ব্যক্তিগত আক্রমণ বা বিদ্বেষ ছিল না। এক পক্ষ অন্য পক্ষকে ‘দেশদ্রোহী’, ‘স্বাধীনতাবিরোধী’ কিংবা ‘ভারতের দালাল’ বলেও গাল দেয়নি। বরং তারা প্রতিপক্ষের বক্তব্য খণ্ডন করেছে শাণিত যুক্তি ও তথ্য-উপাত্ত পেশের মধ্য দিয়ে। ঢাকা শহরের ৪০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিতার্কিকেরা এই আয়োজনে অংশ নেন এবং সেরাদের মধ্যে সেরারাই চূড়ান্ত পর্বে আসার সুযোগ পান। যেহেতু এটি নিছক একাডেমিক আলোচনা, সেহেতু বিতর্কের বিষয় নিয়ে আমাদের বক্তব্য নেই। কিন্তু ১/১১ বারবার ফিরে আসে প্রস্তাবের বিপক্ষে যে তিন চৌকস বিতার্কিক অংশ নেন, তাঁদের যুক্তিটি পাঠকের কাছে তুলে ধরা প্রাসঙ্গিক বলে মনে করি। বিতার্কিকদের মূল ...
দিনবদলের সাংসদ!
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৫/০৬/২০১২
সাংবাদিক নিপীড়নের পর পুলিশ প্রহরায় বেরিয়ে যাচ্ছেন কামাল মজুমদার আওয়ামী লীগ দিনবদলের সনদ ঘোষণা করেছিল ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে। আজ ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি। আওয়ামী লীগ তার দিনবদলের সনদে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমিয়ে আনার কথা বলেছিল। দুর্নীতির বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছিল। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সমস্যা সমাধানের কথা বলেছিল। দারিদ্র্য মুক্তি ও বৈষম্য প্রতিরোধ এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠার কথা বলেছিল।আওয়ামী লীগ গত তিন বছরে সেসব প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে না পারলেও দলের গুণধর সাংসদ কামাল আহমেদ মজুমদার বুধবার সুশাসন প্রতিষ্ঠার ...
কুমিল্লা কী বার্তা দিল সরকারকে?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০৪/০৬/২০১২
কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন বর্জন করেছিল বিরোধী দল বিএনপি ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) চালুর প্রতিবাদে। বিএনপির নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে সমর্থক পণ্ডিত-বিশেষজ্ঞ পর্যন্ত ইভিএমের বিরুদ্ধে গাদা গাদা তথ্য-যুক্তি হাজির করেছিলেন। পৃথিবীর অধিকাংশ দেশ ইভিএম পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে। এখন বাংলাদেশে এই পদ্ধতি নাকি চালু করা হচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে পুনরায় ক্ষমতায় বসানোর জন্য। এ পর্যন্ত যে তিনটি সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা—কোনোটিতেই আওয়ামী লীগ-সমর্থক প্রার্থী জিততে পারেননি। কুমিল্লায় পুরো ভোট হয়েছে ইভিএম পদ্ধতিতে। মাত্র পাঁচ ঘণ্টায় ফল। মহাবিশেষজ্ঞরা কী বলবেন এখন? কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে জয়ী হয়েছেন মনিরুল হক। বিএনপি তাঁকে ত্যাগ করলেও ভোটাররা ত্যাগ করেননি। বিজয়ী মনিরুলকে অভিনন্দন। ...
প্রধানমন্ত্রী, দেশটা কি ঠিকমতো চলছে?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৬/০৫/২০১২
বাংলাদেশে কী নেই? আমাদের মাটির নিচে প্রচুর জ্বালানিসম্পদ এবং মাটির ওপরে অফুরন্ত প্রাণশক্তির অধিকারী ১৬ কোটি মানুষ আছে। আমাদের দেশের প্রতিষ্ঠান তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলন কোম্পানি বাটেক্সপোর ভূতাত্ত্বিকেরা সিলেটের কৈলাসটিলা ও হরিপুরে তেলক্ষেত্র আবিষ্কার করেছেন। এ জন্য কোনো বিদেশি বিশেষজ্ঞের প্রয়োজন হয়নি। তাঁরা আশা করছেন, কৈলাসটিলায় ভূপৃষ্ঠের তিন হাজার ২০০ থেকে চার হাজার মিটার গভীরে পাঁচটি স্তরে মোট ১০ কোটি ৯০ লাখ ব্যারেল তেলের মজুদ আছে। এর মধ্যে চার কোটি ৪০ লাখ ব্যারেল উত্তোলনযোগ্য। হরিপুরে ভূপৃষ্ঠের দুই হাজার ৬০০ ...
‘তিরস্কৃত’ ও ‘বহিষ্কৃত’ লীগের ভবিষ্যৎ কী?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
১৮/০৫/২০১২
জুবায়ের হত্যার প্রতিবাদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের সমাবেশ শিক্ষা, শান্তি, প্রগতি—বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আদর্শ হিসেবে প্রচার করা হলেও সংগঠনটির কাজকর্ম এর পুরোপুরি বিপরীত। এখনকার ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা শিক্ষাও চান না, শান্তিও চান না। আর এ দুটির অনুপস্থিতিতে প্রগতি যে সুদূরপরাহত, তা খোলাসা করে না বললেও চলে।১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয় ছাত্রলীগ। লক্ষ্য ছিল শান্তি ও প্রগতির চাকা এগিয়ে নেওয়ার। ৬৩ বছর পর দেখা গেল ভূতের মতো তারা কেবল পেছনের দিকেই হাঁটছে। আগের বছরের অগ্রগতি ধুলায় মিশিয়ে দিচ্ছে পরের বছরের নানা ...
শুভ ও অশুভর সন্ধিক্ষণে বাংলাদেশ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৩/০৫/২০১২
বাংলাদেশের অর্থনীতি, রাজনীতি ও সমাজ ধ্বংস হয়ে গেছে এবং এর থেকে উত্তরণের কোনো পথ নেই বলে যাঁরা হতাশা ছড়ান, আমরা তাঁদের সঙ্গে একমত পোষণ করতে পারছি না। যেমন আমরা একমত হতে পারছি না সরকারি দলের নেতা-মন্ত্রীদের সঙ্গে, যাঁরা জোরগলায় বলে বেড়ান, তাঁরা এমন গণতন্ত্র জাতিকে উপহার দিয়েছে, যা কখনোই ছিল না। বাংলাদেশের অবস্থা আগে এর চেয়ে খুব ভালো ছিল, সে কথা যেমন ঠিক নয়, তেমনি খুব খারাপ ছিল তাও মানতে রাজি নই। ...
রাজনীতি বড়, না মানবতা?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০৫/০৫/২০১২
গত ২ মে সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে নিখোঁজ বিএনপির নেতা ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীরের সাক্ষাতের দৃশ্যটি যাঁরা টিভির পর্দায় দেখেছেন, তাঁরা আবেগাপ্লুত হয়েছেন। প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের একজন নেতার স্ত্রী হিসেবে রুশদীরকে তিনি সাক্ষাৎ দিয়েছেন, তা মনে হয়নি। দুই কিশোর পুত্র ও এক শিশুকন্যাকে নিয়ে রুশদীর গিয়েছিলেন দেশের প্রধান নির্বাহীর কাছে নিখোঁজ স্বামীর সন্ধান পেতে। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে সালাম করলেন। প্রধানমন্ত্রীও তাঁকে পরম আদরে বুকে টেনে নিলেন, যে ছবি পরদিন প্রায় সব পত্রিকায়ই ছাপা হয়েছে। আলোচনার সময় প্রধানমন্ত্রী তাঁর শিশুকন্যাকে কাছে ডেকে নিয়ে বসান ও আদর করেন। এ সময় রুশদীর বলেন, ‘পরিবারের কোনো সদস্যকে হারানো কিংবা আপনজনকে খুঁজে না পাওয়ার বেদনা তো আপনি ভালো করে বোঝেন। তাই, আশা নিয়ে আপনার কাছে ছুটে এসেছি। ...
‘মিডিয়া এত হইচই করছে কেন’?
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
২৮/০৪/২০১২
বিগত বিএনপি-জামায়াত সরকারের মতো বর্তমান মহাজোট সরকারও মনে করে, দেশে কোনো সমস্যা নেই, সংকট নেই। যেসব সংকটের কথা বলা হচ্ছে, তার সবই গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের সৃষ্টি। এ প্রসঙ্গে সাবেক মন্ত্রী ও জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর একটি উক্তি মনে পড়ছে। সিদ্দিকুর রহমান বাংলা ভাই নামের এক জঙ্গি যখন গোটা রাজশাহী অঞ্চলে মানুষ হত্যা ও গুম করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিলেন, তখন তিনি বলেছিলেন, ‘বাংলা ভাইয়ের অস্তিত্ব নেই, এসব মিডিয়ার সৃষ্টি।’ পরবর্তীকালে বিএনপি-জামায়াত সরকারই বাংলা ভাইকে গ্রেপ্তার করে প্রমাণ করে যে, তিনি মিডিয়ার সৃষ্টি নন। কয়েক দিন আগে এক সামাজিক অনুষ্ঠানে ক্ষমতাসীন বড় দলের কয়েকজন ছোট নেতার সঙ্গে দেখা হতেই জবাবদিহি চাওয়ার সুরে বললেন, ‘আপনারা পেয়েছেনটা কী? ইলিয়াস আলীর মতো একজন বিতর্কিত ও কালিমালিপ্ত নেতাকে নিয়ে মিডিয়া এত হইচই করছে কেন?’ ...
ঢাকা সিটির নির্বাচন, না মহাজোটের 'প্রীতি ম্যাচ'?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৯/০৪/২০১২
নিয়ত ঠিক না থাকলে কোনো কাজে সুফল পাওয়া যায় না—ঢাকা সিটি করপোরেশনের বিভক্তিই তার প্রমাণ। বাংলাদেশে ঢাকা সিটি করপোরেশন ও ভারতে নয়াদিল্লি পৌর করপোরেশন একই দিনে ভাগ করা হয়। ঢাকা দুই ভাগ, দিল্লি চার ভাগ। দুই সিটি করপোরেশন ভাগের পক্ষেই যুক্তি দেখানো হয়েছিল নাগরিক সমস্যার দ্রুত সমাধান ও সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর। ...
মাননীয় এপিএসগণ
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৪/০৪/২০১২
এপিএস বা একান্ত সহকারী সচিব নামের যে পদটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের জনপ্রশাসনে চালু আছে, সেই পদটি যে মহাক্ষমতাধর, তা-ই প্রমাণ করলেন ওমর ফারুক নামের এক ব্যক্তি। ইতিহাসের ওমর ফারুক নাম করেছিলেন নিজের সবকিছু জনগণকে দান করে, আর এই ওমর ফারুক নাম করেছেন মানুষের পকেট হাতিয়ে টাকার পাহাড় বানিয়ে। সম্মান জানানোর জন্য মন্ত্রীদের নামের আগে যদি মাননীয় বলা হয়, তাহলে করিৎকর্মা এপিএসদের নামের আগে মহামান্য শব্দ ব্যবহারই যথার্থ বলে মনে করি। ‘বাঁশের চেয়ে কঞ্চি দড়’ বলে বাংলা ভাষায় একটি কথা চালু ...
নেতা-নেত্রীদের মুখের ভাষা
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০৪/০৩/২০১২
মার্চ ১৯৭১ আর মার্চ ২০১২-এর মধ্যে কত আকাশ-পাতাল পার্থক্য। একাত্তরের মার্চে স্বাধীনতা লাভের জন্য সমগ্র জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল। আজ জাতি পুরো বিভক্ত। কোনো একটি জাতীয় ইস্যুতে প্রধান দুটি দল একমত হতে পারছে না। একদল যদি বলে সূর্য পূর্ব দিকে উঠবে, অন্য দল এর মধ্যে ষড়যন্ত্র খুঁজবে। যেকোনো জাতির প্রধান শক্তি অর্থ বা অস্ত্রশক্তি নয়, জাতীয় মতৈক্য। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, স্বাধীনতার পর সেই মতৈক্য প্রতিষ্ঠিত হয়নি। এক দিনের জন্যও নয়। ...
শেয়ারবাজারে হচ্ছেটা কী
কালের পুরাণ
দেশে বিদেশে
০৫/০১/২০১২
রকারের মেয়াদ দুই বছর বাকি থাকতেই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন নেতা-নেত্রীরা। গত মঙ্গলবার মানিকগঞ্জে জনসভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। একই দিন তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ শেষে নীলফামারীতে জনসভা করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ১৯ জানুয়ারি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে ঢাকায় এক শিক্ষক সমাবেশে ভাষণ দেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনজনের কণ্ঠেই ছিল নির্বাচনী সুর। মানিকগঞ্জের জনসভায় শেখ হাসিনা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে ভোট দেওয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আগামী নির্বাচনে তাঁরা ক্ষমতায় আসতে না পারলে আওয়ামী লীগ-সূচিত উন্নয়নের ধারা ব্যাহত হবে।’ নীলফামারীতে এরশাদ বলেছেন, বড় দুই দল দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে। ...
সংসদে ‘টাল’, ‘পাগল’ ও ‘চৌকিদার’
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৯/০৩/২০১১
‘কাদম্বিনী মরিয়া প্রমাণ করিল সে মরে নাই।’ বিরোধী দলও সংসদে গিয়ে প্রমাণ করেছে, এত দিন তাদের সংসদে গরহাজির থাকা ঠিক হয়নি। তার পরও বিরোধী দলের সংসদে যোগদানকে আমরা স্বাগত জানাই। সরকারি দল কথা বলতে দেয় না, অসহযোগিতা করে—এসব ঠুনকো অভিযোগে তারা তাদের দাবি ছাড়বে কেন? সংসদে সরকারি দলেরও যেমন অধিকার আছে, তেমনি আছে বিরোধী দলেরও। ১০ মাস পর হলেও বিরোধী দল সংসদে যোগ দিয়ে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছে। এটি নিশ্চয়ই আনন্দের সংবাদ। বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে এক ঘণ্টা সাত মিনিট বক্তব্য দিয়েছেন। এতে প্রমাণিত হয়, বিরোধী দল চাইলে সংসদে গিয়ে কথা বলতেও পারে। ...
সংবিধান পুনর্মুদ্রণ না সোনার পাথরবাটি?
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৯-০২-২০১১
বাঘ ও মোষকে এক ঘাটে পানি খাওয়ানোর মতো অসম্ভব কাজটিই সম্ভব করেছে মহাজোট সরকারের আইন মন্ত্রণালয়। তারা আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির ত্রিধারাকে এক ধারায় নিয়ে এসেছে বাংলাদেশের পুনর্মুদ্রিত সংবিধানের নামে। এতে বঙ্গবন্ধুর ধর্মনিরপেক্ষতা, জিয়াউর রহমানের বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম এবং এরশাদের রাষ্ট্রধর্মের সহাবস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে। পরবর্তী দুই নেতার নামের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণকে যে আওয়ামী লীগ না-জায়েজ মনে করে, এখন তারাই কাতারবন্দি করে ফেলেছে। কাজটি কোনো অ-আওয়ামী লীগার করলে নিশ্চয়ই আদালতে মামলা হতো। এখন মামলাটি কে করবেন? ...
হলুদ কার্ড, লাল কার্ড ও সংসদবিমুখ বিএনপি
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
২৪/০১/২০১১
আগামীকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদের যে অধিবেশন শুরু হচ্ছে, সেই অধিবেশন নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ। ইংরেজি নতুন বছরের এই প্রথম অধিবেশনে প্রথা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেবেন। সরকারি ও বিরোধী দলের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক সদস্য সেই ভাষণের ওপর বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ পাবেন। রাষ্ট্রপতির ভাষণে সাধারণত সরকারের এক বছরের সাফল্য ও কৃতিত্বের বয়ান থাকে। সরকারি দল স্বভাবতই রাষ্ট্রপতির বক্তব্যের প্রশংসা করবে। বিরোধী দলের সাংসদেরা সংসদে উপস্থিত থাকলে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে সরকারের ব্যর্থতা ও দুর্বলতাগুলো তুলে ধরবেন। এটিই হলো গণতন্ত্র, এটাই হলো সুস্থ রাজনীতি। ...
খালেদার ভাষণ: গ্লাসের তিন ভাগই খালি
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৩/০১/২০১১
বাংলাদেশের রাজনীতির বৈশিষ্ট্য হলো কেউ ক্ষমতায় গিয়ে মাথা ঠিক রাখতে পারেন না। আবার কেউ ক্ষমতায় যেতে না পেরে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। ...
নতুন বছর: স্বৈরাচার ও যুদ্ধাপরাধীকে না বলুন
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
০১/০১/২০১১
যদি কেউ জিজ্ঞেস করেন, বিদায়ী বছরটিতে বাংলাদেশের কোনো সাফল্য ছিল কি না? এর উত্তর অবশ্যই ইতিবাচক হবে। অনেক সাফল্য ছিল। আবার যদি প্রশ্ন করা হয়, ২০১০ সালে কোনো ব্যর্থতা ছিল কি না? এর তালিকাও দীর্ঘ হবে। সাফল্য-ব্যর্থতা নিয়েই মানুষের জীবন, প্রতিষ্ঠান ও দেশের পথচলা। ব্যক্তির ব্যর্থতায় দায় হয়তো তিনি নিজে বা পরিবারকে ভোগ করতে হয়। কিন্তু নেতৃত্বের ব্যর্থতার দায় ভোগ করতে হয় গোটা জাতিকে। ...
হরতাল না বর্বরতা?
তাৎক্ষণিক
প্রথম আলো
৩০ মার্চ, ২০১৩
গতকাল প্রথম আলোর প্রথম পাতার ছবিটি যেকোনো পাঠকের মনকে ধাক্কা দেবে। বেঞ্চে শুয়ে আছে তিন-চারটি শিশু আর আতঙ্কভরা দৃষ্টিতে তাদের দিকে চেয়ে আছে সতীর্থরা। যে শিশুরা বিদ্যালয়ে এসেছিল পাঠ নিতে, একদল দুর্বৃত্ত তাদের আহত করেছে। আহত অবস্থায় তারা শুয়ে আছে বেঞ্চে। হরতালের নামে যাঁরা এমন নিষ্ঠুর ও বর্বর কাজ করতে পারেন, তাঁরা রাজনৈতিক কর্মী নন, দুর্বৃত্ত। আমরা এই দুর্বৃত্তদের ধিক্কার জানাই। শুধু কয়েকটি শিশু নয়, এই দুর্বৃত্তরা আহত করেছে সেই বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক-শিক্ষিকাকে। হামলা চালিয়েছে পাশের উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ওপরও। ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩