কলামিস্টদের নাম
জনপ্রিয় কলামিস্টদের কলামগুলো

প্রার্থী’ জিতবে না ‘দল’ জিতবে?
সোহরাব হাসান
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
১৫ জুন, ২০১৩
আজ সকালে যখন পাঠকের হাতে প্রথম আলো পৌঁছাবে, তখন বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী, সিলেট—এই চার সিটি করপোরেশনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে যাবে। সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দারা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের খবর বা বিশ্লেষণ পড়ার চেয়ে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করাকে নিশ্চয়ই অধিক জরুরি কাজ মনে করবেন। কেননা, সাধারণ মানুষের হাতে একটি মাত্র অস্ত্র আছে—ভোট। বাংলাদেশে ভোট হলো খরস্রোতা নদীর মতো, যা মুহূর্তে রাজাকে নিঃস্ব বানায়, আবার নিঃস্বকেও রাজা বানায়। চার সিটি করপোরেশন নির্বাচন কেমন হবে, এর ভবিষ্যৎ রাজা কারা হবেন, তা ...
স্বেচ্ছায় রক্ত দিন, জীবন বাঁচান
মুহাম্মদ আবদুল মুনিম খান
ধর্ম
প্রথম আলো
১৪ জুন, ২০১৩
আবহমানকাল ধরে মানবদেহের জন্য রক্তদান এবং রক্ত গ্রহণের ব্যবহার চলছে। ‘আশরাফুল মাখলুকাত’ বা সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে মানুষের মহামূল্যবান জীবন ও দেহ সুরক্ষায় রক্ত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও অপরিহার্য তরল উপাদান। যেকোনো দুর্ঘটনায় শরীর থেকে রক্ত ঝরে গেলে দেহের অভ্যন্তরে অন্ত্র বা অন্য কোনো অঙ্গ থেকে রক্তক্ষরণ হলে অস্ত্রোপচারের জন্য রক্তের খুব প্রয়োজন। প্রসবজনিত অপারেশনের সময় বা বড় ধরনের দুর্ঘটনার মতো নাজুক অবস্থায় রক্ত দেওয়া অত্যাবশ্যকীয় হয়ে পড়ে। মানবদেহে রক্তশূন্যতার জন্য রক্ত গ্রহণের যেমন বিকল্প নেই, তেমনি রক্তের চাহিদা পূরণের ...
তামাশার বাজেট আর পঞ্চদশ সংশোধনীর বাকশালী ফাঁদ
সাদেক খান
বিচিন্তা
নয়া দিগন্ত
১৩ জুন, ২০১৩
স্বভাবসুলভ কায়দায় হয়তো বা শেষবারের মতো দেশবাসীর সাথে একটা নিষ্ঠুর তামাশা করলেন শেখ হাসিনার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। সাধারণ নির্বাচনের বছরে বাজেটে খাজনার চেয়ে বাজনা বেশি হবে, বাজেট বিশারদ সুশীলজনেরা এমনটা ধরে নিয়েছিলেন। ব্রাত্যজনেরাও ভেবেছিলেন, নির্বাচনের বছরে শুল্ক বা কর বাড়বে না, বাজারদর আর শনৈঃশনৈ বাড়বে না। এখন সবাইকেই তাক লাগিয়ে দিয়ে অর্থমন্ত্রী মুহিত সাহেব অশোভনীয় ‘আশাবাদের বাজেট’ হিসেবে যে ‘পরাবাস্তব’ অর্থবিল পেশ করেছেন, তাতে নিজ ‘মস্তিষ্কের উর্বরতা’ দিয়ে তিনি একটি প্রবাদবাক্যের ল্যভেদ করতে সচেষ্ট হয়েছেন। প্রবাদবাক্যটি চালু করেছেন মনগড়া নাটকের মার্কিন চলচ্চিত্রকার লেভিন সাহেব, আর এবারের বাজেট প্রসঙ্গে সেটি উদ্ধৃত করেছেন সংবাদ ভাষ্যকার সৈয়দ সামসুজ্জামান। তার তরজমা- ‘সব লোককেই সব সময়ের জন্য বোকা বানানো যায় যদি প্রচারবাদ্য ঠিক থাকে আর বাজেটের অঙ্ক বিরাট হয়’। বিরাট অঙ্কেরই ২,২২,৪৯১ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী ২০১৩-১৪ অর্থবছরের জন্য। কিন্তু তার দুর্ভাগ্য, কিছু খয়ের খাঁ ছাড়া আর কোনো লোককেই বোকা বানাতে পারেননি তিনি। এক বাক্যে সুশীলসমাজের চাঁইরা বলেছেন- বাজেট ...
জার, মোগল সম্রাট ও প্রধানমন্ত্রী
মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর
আজ-কাল-পরশু
প্রথম আলো
১২ জুন, ২০১৩
সম্প্রতি এক সেমিনারে ড. আকবর আলি খান যথার্থই বলেছেন, ‘রাশিয়ার জার ও ভারতের মোগল সম্রাটের চেয়েও বেশি ক্ষমতা ভোগ করেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী।’ বলা বাহুল্য, তা প্রধানমন্ত্রী ভোগ করেন সংবিধানপ্রদত্ত ক্ষমতাবলেই। জোর করে নয়। আমাদের সংবিধানপ্রণেতারা ‘প্রধানমন্ত্রী’ পদকে এতই ক্ষমতা দিয়েছেন! পরবর্তীকালে সাংসদেরা তা সংশোধন করার প্রয়োজন মনে করেননি। ড. আকবর আলি খান একটা কথা বলেননি, তা হলো জার ও মোগল সম্রাটেরা ‘নির্বাচিত’ ছিলেন না। আমাদের ‘প্রধানমন্ত্রী’ নির্বাচিত। সাংসদেরা তাঁকে ‘প্রধানমন্ত্রী’ পদে নির্বাচিত করেন। আমরা এমন এক রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টি করেছি, যাতে সংসদ সদস্যপদে নির্বাচিত হলে তিনি প্রভূত ক্ষমতার অধিকারী হয়ে যান। অন্য কোনো পদে ‘নির্বাচিত ব্যক্তিরা’ তাঁদের ধারেকাছে যেতে পারেন না। এমনকি জাতীয় সংসদে পরোক্ষভাবে ‘নির্বাচিত’ (তিন শত সাংসদের ভোটে) নারী সাংসদেরাও কম যান না। তাঁদেরই একজন, যিনি কোনো প্রত্যক্ষ নির্বাচন করেননি, তাঁকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদের স্পিকার পদে বসিয়ে দিয়েছেন। শুধু বাংলাদেশে নয়, পৃথিবীর অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশেও পার্লামেন্টের স্পিকার পদে (যিনি পার্লামেন্টের সব দলের সদস্যের অভিভাবকও বটে) ...
বেগম পাড়ার সাহেব ও দেশ বিক্রির কচ্ছপেরা
ফারুক ওয়াসিফ
সেকেন্ড হোম
প্রথম আলো
২৬ মে, ২০১৩
যদি বলি কোন প্রাণী নিজের ঘর পিঠে নিয়ে চলে? এর উত্তর হবে ১. কচ্ছপ, ২. এক চীনা কৃষক এবং ৩. কয়েক হাজার বাংলাদেশি বড়লোক। রূপকথার সেই কচ্ছপের গায়ে আদিতে কোনো খোল ছিল না। ঘরের বাইরে বের হলেই শিয়াল, কুকুর, ইগল খেয়ে ফেলত। সে দেখল, ঘরেই সে নিরাপদ। তাই সে কচ্ছপ দেবতার কাছে প্রার্থনা করল, তার শক্ত খোলের ঘরটা যেন সে সব সময় বইতে পারে। সে যুগে দেবতারা সত্যমনে আরজি জানালে পূরণ করতেন। তো, এক সকালে কচ্ছপ দেখল শক্ত খোলের ঘরটা তার পিঠে ও পেটে লেগে গেছে। সেই থেকে কচ্ছপ ঘরসহ নিরাপদে চলাচল করে। চীনের ৩৮ বছর বয়সী লিউ লিংচাও খুবই গরিব। একে তো নিজস্ব ঘর নেই, তার ওপর ঘুরে বেড়ানোর খুব শখ। এক জবর বুদ্ধি বের করলেন তিনি। বাঁশ আর প্লাস্টিক দিয়ে ছোট্ট একটা বহনযোগ্য ঘর বানালেন। এর ওজন ৬০ কেজি এবং এর সুবিধা হলো, এটা ঘাড়ে নিয়ে হাঁটাচলা করা যায়। সেই থেকে লিংচাও ভ্রাম্যমাণ আছেন। তবে গৃহ কাঁধে ...
একটা নুড়ি ও একালের ঘনাদা
আলী হাবিব
কল্পকথার গল্প
কালের কন্ঠ
০৭ মে, ২০১৩
কবি নিতান্ত মিথ্যা বলেননি- 'এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি!' যে যাঁর মতো করে ব্যাখ্যা করে নিতে পারেন। দেশটিকে নিয়ে ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক ভাবনা ভাবতে অভ্যস্ত যাঁরা, তাঁরাও ইচ্ছা করলে নিজেদের ভাবনার সঙ্গে মিলিয়ে নিতে পারেন কবির এই বাণী। এক বন্ধুর আবিষ্কার আমাদের দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরা তত্ত্বজ্ঞানে অতিশয় দড়। বিষয়টি তিনি আমাদের কাছে ব্যাখ্যা করেছেন। সেই 'আল্লার মাল' থেকে শুরু করে 'লুকিং ফর শত্রুজ' হয়ে 'তালা তত্ত্ব' কিংবা হালের 'স্তম্ভ নাড়াচাড়া' তত্ত্ব থেকে এ সিদ্ধান্তে আসা যেতে পারে যে আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক একজন তাত্ত্বিক। তো এই তাত্ত্বিক মন্ত্রীদের নিয়ে আমাদের সেই ব্যর্থ কবি কী ভাবছেন? কয়েক দিন থেকেই কবিকে পাওয়া যাচ্ছে না। কবিদের মন সংবেদনশীল হয়। সাভারে ঘটে যাওয়া মর্মন্তুদ ঘটনায় কবি যে মনে বড় ধরনের আঘাত পেয়েছেন, তা বলাই বাহুল্য। দেশের সব মানুষের মনেই সাভারের ঘটনা বড় ধরনের নাড়া দিয়েছে। এত ঠুনকো মানুষের জীবন! আমরা কবির সন্ধানে বের হই। প্রাত্যহিক প্রাতর্ভ্রমণে কবি আসেন না। বিকেলে হাঁটাহাঁটি করতে বের ...
স্মৃতি-বিস্মৃতির তরঙ্গ
আল মাহমুদ
উপ-সম্পাদকীয়
আমারদেশ
২৬ মার্চ, ২০১৩
দেখতে দেখতে এবং লিখতে লিখতে কীভাবে যে আমার দিন কেটে যায় তা ভাবতে ভালোই লাগে। আমার কথা হলো, আমি তো লিখছি। কী নিয়ে লিখছি সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হলো, লিখেই দিন পার করে দিচ্ছি। আমার এই লেখাটির জন্য কেউ অপেক্ষা করে আছে এটা ভাবতে ভালোই লাগে। আমার দেশ-এর একজন সিনিয়র সাংবাদিক সঞ্জীব চৌধুরী। একজন ধীমান লেখক, একজন সাংবাদিক। আজ তার জন্মদিন বলে আমি জানতে পেরে সহমর্মিতা প্রকাশ করছি। অবশ্য আমার নিজের জন্মদিনের কথা আমি প্রায়ই ভুলে গেলেও ...
আবার উচ্চারিত হোক অমিতায়ু 'জয় বাংলা'
ফরহাদ মজহার
হৃদয়নন্দন বনে
কালের কন্ঠ
১ মার্চ, ২০১৩
সমকালের নিয়মিত কলামটি তরুণ প্রজন্মের আন্দোলন নিয়ে লিখব, সেটা আগেই ভেবে রেখেছিলাম। লিখতে লিখতেই মন পড়েছিল আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রতি। সেখানে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর অপরাধের বিচারের রায় প্রদান চলছে। লেখা শেষ হতে না হতেই খবর এলো, যুদ্ধাপরাধী এবং মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত সাঈদীর ফাঁসির আদেশ হয়েছে ট্রাইব্যুনালের বিচারে। ওই পরিপ্রেক্ষিতে আমার পাঠকরা হয়তো স্বভাবতই চাইবেন, আমি এই শাস্তির বিষয়ে কিছু লিখি আজ। আমি মনে করি, যে বিচারিক প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং যে শাস্তি প্রদান শুরু হয়েছে একে একে, সেই প্রেক্ষাপটে ...
আওয়ামী লীগের জন্য উভয় সংকট
আব্দুল গাফফার চৌধুরী
কালের আয়নায়
দৈনিক সমকাল
১৫ জুন, ২০১৩
আমার এই লেখাটি যখন 'কালের আয়নায়' পাঠকদের চোখে পড়বে তখন (১৫ জুন শনিবার) বাংলাদেশে চারটি সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচন চলছে। দুই প্রতিদ্বন্দ্বী পক্ষের জয়-পরাজয় সম্পর্কে আন্দাজ করে কিছু বলা কঠিন এবং তা বলাও উচিত নয়। তবে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গত বুধবার (১২ জুন) খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বিএনপির জনসভায় যে হাঁকডাক দেওয়া হয়েছে তাতে মনে হয়, বিএনপি তাদের সমর্থিত প্রার্থীদর জয়লাভ সম্পর্কে নিশ্চিত নয়। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভায় বিএনপি নেতারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, 'সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কারচুপি করা হলে ...
অশিক্ষিত, অর্বাচীন সমাজেই কি অধিবাস হবে আমাদের?
আলী যাকের
হৃদয়নন্দন বনে
সমকাল
১৪ জুন, ২০১৩
পথ তো মেলাই আছে। নগর, জনপদ, গ্রামে বিস্তর পথ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। সেসব পথ ধরে, কোনো জাগতিক কাজের ব্যস্ততা না থাকলে দিব্যি ঘুরে বেড়ানো যায়। পথে পথে ঘুরে বেড়ানো এক আনন্দের ব্যাপার, যদি না পথ বন্ধুর হয়ে ওঠে। গীতিকার এবং সঙ্গীতজ্ঞ সলিল চৌধুরী যেমন বলেছিলেন, 'পথে এবার নামো সাথী, পথেই হবে পথ চেনা...।' এই পথ চিনতে নেমে পথকে তো চেনা হয়ই, সেই সঙ্গে চেনা হয় পথচারীকে_ নানা মতের, নানা বর্ণের পথচারী, চেনা হয় পথের দু'ধারের বাড়িঘর, উদ্যান কিংবা বৃক্ষরাজি। তবে ...
তৈরি পোশাকশিল্প
গণতন্ত্র মানলে ট্রেড ইউনিয়ন মানতে হবে
আলী ইমাম মজুমদার
উপ-সম্পাদকীয়
প্রথম আলো
১৩ জুন, ২০১৩
পত্রিকান্তরের খবরে জানা যায়, পোশাকশিল্পে ট্রেড ইউনিয়নের বিষয়টি এখনো অনিশ্চিত রয়ে গেছে। সে খবর অনুসারে ৯৯ শতাংশ কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন নেই। অবশ্য একই খবরে বিজিএমইএর সভাপতির বক্তব্য অনুসারে প্রায় ১০ শতাংশ কারখানায় এখন ট্রেড ইউনিয়ন রয়েছে। তা হলেও ৯০ শতাংশেই নেই। সেন্টার ফর ওয়ার্কার্স সলিডারিটির মতে, মালিকেরা কখনো চাননি পোশাকশিল্প কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন গড়ে উঠুক। এ ক্ষেত্রে সরকারের তরফ থেকে আশানুরূপ সহযোগিতা না পাওয়ার অভিযোগও তারা করেছে। আরও জানা যায়, ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের উদ্যোগ নিলেই সে শ্রমিক চাকরিচ্যুত বা ...
টাকা ২২২,৪৯১,০০০০০০০.০০ মাত্র
সৈয়দ আবুল মকসুদ
সহজিয়া কড়চা
প্রথম আলো
১১ জুন, ২০১৩
সম্রাট অশোক ও আকবরের সুবিধা ছিল এই যে তাঁদের সময় পত্রপত্রিকা ও টিভি চ্যানেলগুলো ছিল না। নির্বাচিত পার্লামেন্ট বা সংসদ না থাকলেও অশোকেরও অনির্বাচিত পরিষদ ছিল, আকবরেরও উপদেষ্টারা ছিলেন আমাদের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মতো—এখন যা বিলুপ্ত। তাঁদের সরকারকেও একটি বার্ষিক বাজেট তৈরি করতে হতো। সেকালে ছিল না শুধু বাজেট-বক্তৃতা। বলাই বাহুল্য, বাজেট না থাকলে আকবর ফতেহপুর সিক্রি এবং তাঁর নাতি শাহজাহান তাজমহল বানাতে পারতেন না। বিশ্বব্যাংকের ঋণ ছাড়াই তাঁরা ওসব বানিয়েছিলেন। বিশ্বের অন্যান্য রাষ্ট্রের বাজেট আর বঙ্গীয় বাজেট এক জিনিস ...
নির্মূলের রাজনীতি
ফরহাদ মজহার
আ লো ক পা ত
ইত্তেফাক
৫ মার্চ, ২০১৩
নির্বিচারে পুলিশ গুলি করে একদিনে ষাটেরও অধিক মানুষ হত্যা করেছে, এখনও হত্যাযজ্ঞ চলছে। ফলে আমাদের প্রথম কাজ হচ্ছে হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করা। এই বর্বরতার কঠোর নিন্দা করা। এর আগে 'এই হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করুন' বলে আবেদন জানিয়েছি সকল পক্ষের কাছে। কিন্তু তার পরিবর্তে এই হত্যাযজ্ঞকে কেন 'গণহত্যা' বলা হোল তা নিয়ে শোরগোল শুরু করে দিয়েছে দলবাজ ও মতান্ধরা। তারা বলছে জামায়াত-শিবির পুলিশের ওপর আক্রমণ চালিয়েছে, অতএব নির্বিচারে পুলিশ দিয়ে মানুষ হত্যা জায়েজ। কারণ মারা হচ্ছে জামায়াত-শিবির। তাদের দাবি, যেহেতু পুলিশের ওপর আক্রমণ হয়েছে অতএব ক্ষমতাসীন সরকারের গণহত্যার পথই সঠিক পথ। ফলে গুলি চলেছে, হত্যাযজ্ঞ চলছে। আন্তর্জাতিকভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে অনেক দেশ। তবুও এই হত্যাযজ্ঞ চলবে।   ...
জেগে ওঠো বাংলাদেশ
সোহরাব হাসান
কালের পুরাণ
প্রথম আলো
৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের একটি রায় গোটা বাংলাদেশকে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে সত্যের মুখোমুখি। এ থেকে আমাদের আর পেছনে ফেরার উপায় নেই। সবার কণ্ঠে একটিই দাবি, ‘যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি চাই’। ‘কাদের মোল্লার এই রায় আমরা মানি না’। যাঁরা এত দিন যুদ্ধাপরাধের বিচারকে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক এজেন্ডা বলে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন, যাঁরা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন করে গলা ফাটিয়েছেন, তাঁদের শাহবাগ মোড়ে তরুণদের ক্ষুব্ধ অথচ আশাদীপ্ত মহাগণজাগরণটি দেখে যাওয়ার অনুরোধ করব। ...
ফাঁসি কেন হলো না, জানতে চাই
এ বি এম মুসা
সময়ের প্রতিবিম্ব
প্রথম আলো
৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধ প্রকৃত অর্থে ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ, লুটতরাজ, গণহত্যা—এমনই অসংখ্য অপরাধের দায়ে জামায়াতের কাদের মোল্লার জেল হয়েছে। অতি সাধারণ একটি খুনের শাস্তির সংবাদ, যদি না এর সঙ্গে জড়িত থাকত ৩০ লাখ হত্যা, ১০ লাখ ধর্ষণ এবং আরও অবর্ণিত অমানুষিক অপরাধ। সাধারণ একটি হত্যাকাণ্ডের জন্য যেখানে একজন নাগরিকের ফাঁসি হয়, যদি না ‘রাজনৈতিক বিবেচনায়’ রাষ্ট্রপতির ক্ষমা লাভ করেন, সেখানে অসংখ্য নির্মম হত্যার জন্য শুধু জেল হলো—কয় বছর, সেটি অবান্তর। একাত্তরে যাঁরা স্বজন হারিয়েছেন, যাঁদের মা-বোনের ইজ্জত লুণ্ঠিত হয়েছে, তাঁদের স্বজন ...
প্রাপ্তি, প্রত্যাশা ও শঙ্কা
সাদেক খান
কলাম
মানবকণ্ঠ
১ জানুয়ারি ২০১৩
সর্বসাধারণের অভিজ্ঞতার দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে প্রথমেই বলতে হয়, ২০১২ সালের পুরো বছরই দেশবাসী পুড়েছেন দ্রব্যমূল্যের দাবানলে। চাল, ডাল, তেল, আলু, পেঁয়াজ, রসুন, চিনি, আটা, ময়দা প্রভৃতি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সারা বছরই ছিল চড়া। তার মধ্যে রোজার এক মাস, দুই ঈদ, শবেবরাত, পয়লা বৈশাখ প্রভৃতি উপলক্ষে মানুষের ভোগান্তির শেষ ছিল না। মাছ, মুরগি, গরু-খাসির মাংস যারা প্রত্যাশা করেন না, সেই দরিদ্র শ্রেণীর মানুষ বছরটি পার করেছেন অতিকষ্টে। সারা দিনে কখনো আধপেট, কখনো সিকিপেট খেয়ে। সার, বীজ, কীটনাশকের মূল্য বৃদ্ধির কারণে সব খাদ্যের উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। গ্যাস, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে পরিবহন ব্যয় বেড়ে গেছে। ঘাটে ঘাটে সন্ত্রাস ও সংঘটিত চাঁদাবাজি তুঙ্গে ওঠার কারণে ব্যবসায়-বাণিজ্যের খরচ যারপরনাই বাড়িয়ে দিয়েছে। এক বছরে আলু ও পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। ডালের দাম বেড়েছে শতকরা ৪০ ভাগের মতো, লবণের দাম বেড়েছে শতকরা ৩০ ভাগের কাছাকাছি। দেশেই উৎপাদিত সরিষার তেলের দামও বেড়েছে শতকরা ৩০ ভাগ। তাই গ্রামাঞ্চলের বা শহরতলির গরিব মানুষ ...
আতাতুর্কের তুরস্কেও নয়া গণজাগরণ
আহমদ রফিক
সাদাকালো
কালের কন্ঠ
১৩ জুন, ২০১৩
বিশ্বযুদ্ধ ইউরোপীয় উপনিবেশবাদী শক্তির শিকড় ধরে টান দিয়েছিল, বিশেষ করে দ্বিতীয় মহাসমর। উপনিবেশগুলোতে মুক্তিসংগ্রামের ঢেউ ওঠে। এশিয়া ও আফ্রিকায়। পরে দক্ষিণ আমেরিকাতেও সে ঢেউয়ের বিস্তার। কবির ভাষায়- 'পশ্চিমে সূর্যাস্তের আবীর/দেশে দেশে পড়ন্ত প্রাচীর।' যুদ্ধবিধ্বস্ত উপনিবেশবাদ উঠে দাঁড়াতে সচেষ্ট। এ সুযোগে নয়া সাম্রাজ্যবাদী শক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্বমহিমায় আবির্ভূত। 'পশ্চিমা গণতন্ত্র তার নাম'। তবে তার ধরন-ধারণ আধুনিক। কৌশল ভিন্ন। গণতন্ত্রের নামে, আপন স্বার্থ উদ্ধারে দুর্বল সাগরেদদের 'সঙ্গোপনে রসদ জোগায়'। বিশের দশকে রাজতন্ত্রের শিকড় উপড়ে সেক্যুলার আধুনিক তুর্কি রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা করে বিশ্বকে ...
বাজেট-কৌতুক
আনিসুল হক
গদ্যকার্টুন
প্রথম আলো
১১ জুন, ২০১৩
বাজেট জিনিসটা নিয়ে বিশেষজ্ঞরা মতামত দিন, এর ভালোমন্দ নিয়ে জ্ঞানগর্ভ আলোচনা করুন, তাতে নিশ্চয়ই অনেক কিছু আসবে-যাবে। আমরা যারা সাধারণ মানুষ, তাদের কোনো কথাতেই কোনো কিছু যায়-আসে না। কাজেই আমরা বাজেট নিয়ে পণ্ডিতি করব না, কৌতুক করব। তবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জাতীয় সংসদে যা পেশ করেছেন, সেটা যে বাজেট, তাতে আমাদের সন্দেহ নেই। এটা আমরা শিখেছি প্রেসিডেন্ট বুশের কাছ থেকে। তিনি বলেছেন, এটা নিশ্চয়ই একটা সত্যিকারের বাজেট, কারণ এতে অনেক সংখ্যা দেখা যাচ্ছে। বাজেট যাঁরা প্রণয়ন করেন, ...
সংবিধান মানছে না কোনো পক্ষ
বিস্ফোরণোন্মুখ বাংলাদেশে দ্রুত নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে সরকার
সাদেক খান
বিচিন্তা
নয়া দিগন্ত
০৫ জুন, ২০১৩
সাভারে বহুতল ভবন ধসে পড়ে নিহত ১১২৮ জন, নিখোঁজ ১৭৬ জন এবং পঙ্গু বা গুরুতর আহত হাজার শ্রমিকের দুর্ভাগ্যের মর্মান্তিক ঘটনাকে ‘ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড’ আখ্যা দিয়ে বিগত ৯ মে নোবেল বিজয়ী কর্মবীর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূস একটি বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় বিশাল ফাটল ধরেছে : “রানা প্লাজায় ফাটলের পর ভবনধস দেখিয়ে দিলো আমাদের রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় যে বিশাল ফাটল ধরেছে, সেটা আমলে না নিলে জাতিও এরকম ধসের ভেতর হারিয়ে যাবে। সাভারে শুধু শুধু ভবন ধসে পড়েনি। রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান ধসে পড়ার অভিলণ হিসেবে এ ভবন ধসে পড়েছে। ভবনধসের বিশ্লেষণ করলে আমাদের ধসে পড়া রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর চেহারা ধরা পড়বে।” বাস্তবিক, ভূ-রাজনৈতিক ঘোরচক্রে আর জরুরি অবস্থার সুযোগে ২০০৮-এর সালতামামি সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমে যে দ্বিতীয় শেখ হাসিনা সরকার বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে মতাসীন হয়েছে, তার একাংশের কাজই যেন ছিল একে একে রাষ্ট্রের প্রাতিষ্ঠানিক শৃঙ্খলাগুলোর খিলান ধসিয়ে দিয়ে নয়া বাকশালী ইমারত তৈরির বন্দোবস্ত করা। বিগত ৫৫ মাসের শাসনামলে সেই কুকাজটিরই ইন্ধন জুগিয়ে চলেছে মতাসীন সরকার। ...
সেলুকাস, কী বিচিত্র এই দেশ-
আবেদ খান
উপ-সম্পাদকী
জনকন্ঠ
০৪ জুন, ২০১৩
মাত্র দিন চারেকের জন্য শিলং এবং আসাম গিয়েছিলাম। ফিরে এসে শুনি দেশের ১৫ জন পত্রিকা সম্পাদক এক যুক্তবিবৃতিতে জনাব মাহমুদুর রহমানের মুক্তি চেয়েছেন। তাঁরা দাবি করেছেন, দৈনিক আমার দেশ পত্রিকা এবং দিগন্ত ও ইসলামিক টিভি নামের দুটি টেলিভিশন চ্যানেলের প্রকাশনা এবং সম্প্রচার আবার শুরু করতে দেয়া হোক। এই যুক্তবিবৃতির পক্ষে যুক্তি হচ্ছে মাহমুদুর রহমান একটি পত্রিকার সম্পাদক, কাজেই তাকে গ্রেফতার করা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পরিপন্থী। আর কোন সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই ওই দুই টেলিভিশন চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করা হয়েছে। সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে খর্ব করেছে। সম্পাদকদের এই যুক্তবিবৃতির বিরুদ্ধে দেশের কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় বুদ্ধিজীবী পাল্টা বিবৃতি দিয়ে সম্পাদকদের এই ভূমিকার নিন্দা এবং সমালোচনা করেছেন। এর পর পরই বিবৃতিতে স্বাক্ষর দানকারী সম্পাদকদের একজন তাঁর সম্পাদিত পত্রিকায় কেন তিনি এই যুক্ত বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন সেটা ব্যাখ্যা করলেন। এই চার দিনের মধ্যে এতসব কা- ঘটে যাবে, বুঝিনি। ইতোমধ্যে সম্পাদকদের একটি কাউন্সিলও গঠিত হলো। তাতে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ সবই নির্ধারিত হয়ে গেল। ...
অসামান্য বিজ্ঞানী জামাল নজরুল ইসলাম
ফরহাদ মজহার
স্ম র ণ
ইত্তেফাক
১৯ মার্চ, ২০১৩
তাঁর সঙ্গে দুইবার মাত্র দেখা হয়েছিল। এর একটা বড় কারণ, তিনি তাঁর জ্ঞানচর্চা ও শিক্ষকতার সূত্রে থাকতেন চট্টগ্রামে। দ্বিতীয় কারণ আমরা এমন এক সমাজ তৈরি করেছি যেখানে জ্ঞানের কদর নাই, বিজ্ঞান তো দূরের কথা। সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া ও বিশ্বসভায় নেতৃত্ব অর্জনের ক্ষেত্রে মৌলিক বিজ্ঞান চিন্তার ভূমিকা সম্পর্কে আমাদের বিন্দুমাত্র ধারণা নাই। বিজ্ঞানীর যোগ্য সামাজিক সম্মান আমরা দিতে জানি না, তাঁদেরকে ঘিরে আমাদের কোন সামাজিক সংঘ নাই, চিন্তার আদান-প্রদানের কোন সাধারণ পাটাতন নাই। ফলে জ্ঞানবিজ্ঞানের আউলিয়া হয়ে তাঁরা তাঁদের নির্জন সাধনায় একা একা রত থেকেছেন। এখন যখন সংবাদ পাচ্ছি যে, তিনি আর নাই, তখন বেদনায় কাতর হতে পারি, কিন্তু সেটা কুমিরের অশ্রুর বেশি মূল্য পাবে কিনা জানি না। আমার বিজ্ঞানী বন্ধু-বান্ধবদের কাছে প্রায়ই শুনতাম জামাল নজরুল ইসলাম যদি দেশে ফিরে না এসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সটন বা ক্যাম্ব্রিজের মতো বিলাত-ইউরোপের কোন প্রখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে যেতেন তাহলে নির্ঘাত্ তিনি নোবেল পুরস্কার পেতেন। এইসব বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি পড়িয়েছেন, গবেষণা করেছেন। প্রিন্সটন, ক্যাম্ব্রিজসহ বহু ...
আবার উচ্চারিত হোক অমিতায়ু 'জয় বাংলা'
আলী যাকের
হৃদয়নন্দন বনে
সমকাল
১ মার্চ, ২০১৩
সমকালের নিয়মিত কলামটি তরুণ প্রজন্মের আন্দোলন নিয়ে লিখব, সেটা আগেই ভেবে রেখেছিলাম। লিখতে লিখতেই মন পড়েছিল আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রতি। সেখানে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর অপরাধের বিচারের রায় প্রদান চলছে। লেখা শেষ হতে না হতেই খবর এলো, যুদ্ধাপরাধী এবং মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত সাঈদীর ফাঁসির আদেশ হয়েছে ট্রাইব্যুনালের বিচারে। ওই পরিপ্রেক্ষিতে আমার পাঠকরা হয়তো স্বভাবতই চাইবেন, আমি এই শাস্তির বিষয়ে কিছু লিখি আজ। আমি মনে করি, যে বিচারিক প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং যে শাস্তি প্রদান শুরু হয়েছে একে একে, ...
তারুণ্যের পরাজয় নেই
আনিসুল হক
গদ্যকার্টুন
প্রথম আলো
১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
তরুণেরা তো বড়দের কথা শুনবে না। উপদেশ নেবে না। বড়রা বলবে, ‘এ রকম কোরো না। ও রকম কোরো না। এ রকম করে আমরা ঠকে গিয়েছিলাম।’ ওদের ওসব কথা শোনার সময় কই। আমরা করি ভুল অগাধ জলে ঝাঁপ দিয়ে যুঝিয়ে পাই কূল। যেখানে ডাক পড়ে জীবন-মরণ-ঝড়ে আমরা প্রস্তুত/ওরা ভুল করবে। আগে জলে ঝাঁপ দেবে। তারপর বুঝবে জল অগাধ, তখন তাদের হাত-পা ছুড়ে যুদ্ধ করতে হবে, তারপর তারা কূলে ভিড়বে। যেখানে ডাক পড়বে, তারা জীবন-মরণ তুচ্ছ করে সেখানেই পড়বে ঝাঁপিয়ে। ...
বাংলাদেশে ইতিহাস চর্চার দুর্দিন
বদরুদ্দিন উমর
সমকালীন প্রসঙ্গ
সমকাল
২৩ জানুয়ারি ২০১৩
শ্রেণীবিভক্ত সমাজে যারা শোষক তারা ইতিহাসের সত্য গোপন করে সত্য ঘটনাকে মিথ্যা কাহিনী দিয়ে আড়াল করে এবং এ মিথ্যা কাহিনীকে প্রতিষ্ঠার জন্য বলপ্রয়োগ পর্যন্ত করে। নিজেদের শ্রেণীস্বার্থ রক্ষার জন্য যখনই প্রয়োজন হয় তখনই তারা এ কাজ করে থাকে। যারা অন্য দেশ দখল করে অন্য সমাজের ওপর নিজেদের শাসন-শোষণ কায়েম রাখে তারা দখলকৃত দেশের ইতিহাস বিকৃত করে। আমরা ইতিহাসের এই বিকৃতকরণ যেমন দেখেছি, ব্রিটিশ আমলের ইতিহাস চর্চায় তেমনি দেখেছি ও দেখছি সাম্প্রতিক সময়ের ইতিহাস চর্চায়। বিখ্যাত জন স্টুয়ার্ট মিলের পিতা ...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩